Banglar Unnoyon :: বাংলারউন্নয়ন.নেট

সম্রাটকে সাধারণ কারাবন্দীদের সঙ্গে রাখা হয়েছে

ডেস্ক রিপোর্ট

বাংলারউন্নয়ন.নেট কম

প্রকাশিত : ০৩:৩২ এএম, ৮ অক্টোবর ২০১৯ মঙ্গলবার

ঢাকা মহানগর দক্ষিণ শাখা যুবলীগের সাবেক সভাপতি ইসমাইল হোসেন চৌধুরী সম্রাটকে কেরানীগঞ্জের ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে পাঠানো হয় রোববার। সেখানে তাঁকে সাধারণ কারাবন্দীদের সঙ্গে রাখা হয়েছে। সোমবার তার সকালের নাশতায় ছিল দুটি রুটি ও ভাজি।

প্রত্যক্ষদর্শীরা বলছেন, সোমবার সম্রাটকে দেখতে কারাগারের সামনে যুবলীগের নেতা-কর্মীদের ভিড় দেখা গেছে। তবে তার পরিবারের সদস্য কাউকে কারাগারে আসতে দেখা যায়নি।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন কারারক্ষী জানান, সোমবার সকালে সম্রাটকে সকালের নাশতা দেওয়া হয়েছে দুটি রুটি ও ভাজি। দুপুরের খাবারে ছিল ভাত, গরুর মাংস ও ডাল। কারাবন্দী সম্রাটকে খোশমেজাজে দেখা গেছে। ওই কারারক্ষী আরও বলেন, সম্রাটকে কারাগারের সূর্যমুখী ভবনে সাধারণ কারাবন্দীদের সঙ্গে রাখা হয়েছে। সম্রাটের এখানে অবস্থানের কথা জানতে পেরে অনেক কারাবন্দী তাঁকে দেখার জন্য সূর্যমুখী ভবনের সামনে সকাল থেকেই ভিড় জমান। এ সময় কারারক্ষীরা সেখান থেকে বন্দীদের সরিয়ে দেন।

কারাগারের বন্দীদের সাক্ষাৎকার ভবনের সামনে অপেক্ষমাণ কয়েকজন নিজেদের যুবলীগের নেতা-কর্মী বলে পরিচয় দেন। তবে নাম ও পদবি প্রকাশ করতে চাননি তারা। তাদের একজন বলেন, ‘আমাদের প্রিয় নেতা সম্রাট ভাইকে দেখতে এসেছি। সকাল ১০টা থেকে আমরা কয়েকজন কর্মী অপেক্ষা করছি। এখন বিকেল সাড়ে তিনটা বাজে। এখনো তার সাক্ষাৎ পাইনি।’

ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের ডেপুটি জেলার জাহেদুল আলম বলেন, ইসমাইল হোসেন চৌধুরী সম্রাটকে কারাগারে হস্তান্তরের পর তাঁকে সাধারণ বন্দী হিসেবে কারাগারে রাখা হয়েছে। তাঁকে সাধারণ বন্দীদের মতো নিয়মিত খাবার দেওয়া হচ্ছে।

রোববার রাত ৮টা ২০ মিনিটের দিকে সম্রাটকে কেরানীগঞ্জের ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে নেওয়া হয়। এর আগে সম্রাট ও তার সহযোগী এনামুল হক আরমানকে কুমিল্লা থেকে গ্রেপ্তার করা হয়। সেখান থেকে তাদের ঢাকায় নিয়ে বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালানো হয়। অভিযানে সম্রাটের কাকরাইলের কার্যালয়ে ক্যাঙারুর দুটি চামড়া পাওয়া যায়। এ ঘটনায় তাকে ছয় মাসের কারাদণ্ড দেওয়া হয়। এ ছাড়া আটকের সময় মদ্যপ থাকায় সম্রাট ও আরমানকে ছয় মাস করে কারাদণ্ড দেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।

এদিকে সম্রাটের নামে দুটি মামলা করেছে র‌্যাব। সোমবার সন্ধ্যায় রমনা থানায় মামলা দুটি করা হয়েছে। অস্ত্র ও মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে ওই মামলা দুটি করা হয়েছে।