সোমবার   ২৮ নভেম্বর ২০২২

সর্বশেষ:
সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোর বার্ষিক ছুটি ৭৫ দিন আগামী মার্চে ঢাকা উত্তর সিটির ভোটের ইঙ্গিত সিইসির আস্থা ভোটে টিকে গেলেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় পরিদর্শনে প্রধানমন্ত্রী রাষ্ট্রপতির সঙ্গে নেপালের বিদায়ী রাষ্ট্রদূতের সাক্ষাৎ সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন করতে ইসি প্রতিজ্ঞাবদ্ধ: নূরুল হুদা বারবার আসতে পারব না, যত খুশি সাজা দিন: খালেদা জিয়া ‘আকাশবীণার’ উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী ত্রিভুবনে আবারও বিমান দুর্ঘটনা ট্রেন-বাসের সংঘর্ষে নিহত ২, আহত ২৫ ভুয়া ছবি দিয়ে অপপ্রচার চালাচ্ছে মিয়ানমার: প্রধানমন্ত্রী
১১৪৫

‘আ. লীগের প্রতিপক্ষ হওয়ার সামর্থ্য ঐক্য প্রক্রিয়ার নেই’

ডেস্ক রিপোর্ট

প্রকাশিত: ১৮ অক্টোবর ২০১৮  

শিক্ষাবিদ ও রাজনৈতিক বিশ্লেষক অধ্যাপক ড. সৈয়দ আনোয়ার হোসেন বলেছেন, আওয়ামী লীগের শক্ত প্রতিপক্ষ হওয়ার মতো শক্তি অর্জন করার সময় ও সামর্থ্য কোনোটিই নেই জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়ার। তিনি আরও বলেন, নির্বাচনি জোট হতেই পারে। একটা যথার্থ জোট হলে যথার্থ বিরোধী মহল গড়ে উঠবে। তাতে গণতন্ত্র অনেকটা এগিয়ে যায়। বর্তমানে আওয়ামী লীগের সঙ্গে কোনো বিরোধী দল নেই। সে দিক থেকে বিবেচনা করলে এরকম একটা জোট গঠনের যৌক্তিকতা রয়েছে।

এক প্রশ্নের জবাবে ড. সৈয়দ আনোয়ার হোসেন বলেন, পরিস্থিতির প্রেক্ষাপটে এই জোটের অন্তর্নিহিত কোনো শক্তি আমি দেখতে পাচ্ছি না। যারা নেতৃত্বে রয়েছেন তারা তাদের মূল থেকে বিচ্ছিন্নভাবে এসেছেন, সেটা যেকোনো কারণেই হোক। নির্বাচনের আগ মুহূর্তে এসে এমন একটি জোট হতেই পারে। সেটা হোক, আপত্তি নেই। কিন্তু তাদের অনেক সমস্যা রয়েছে। আপত্তিকর কিছু জায়গাও রয়েছে। সে জায়গাগুলোর বিষয়ে মানুষকে পরিষ্কার করতে হবে।

তিনি বলেন, জামায়াতে ইসলামীর সঙ্গ ছাড়েনি বিএনপি। কৌশলগতভাবে জামায়াতকে আড়ালে রাখা হয়েছে। জামায়াত নির্ভর বিএনপির সঙ্গে যখন ড. কামাল হোসেনের মতো মুক্তিযুদ্ধের সঙ্গে সম্পৃক্ত ব্যক্তিত্ব হাত মেলান তখন নানাবিধ প্রশ্ন ওঠে। অন্য যারা রয়েছেন তারাও মান্য ব্যক্তি যেমন, আ স ম আবদুর রব, মাহমুদুর রহমান মান্না। কিন্তু তাদের রাজনৈতিক নীতি কি সঠিক জায়গায় আছে? জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়া জাতীয় নির্বাচনে কার্যকরি ভূমিকা রাখতে পারবে না বা নির্বাচনকে খুব একটা প্রভাবিত করতে পারবে বলেই মনে হয় আমার।

তিনি আরও বলেন, এই জোটকে কীভাবে স্বাগতম জানাবো? সেই জায়গাটা কি রেখেছেন তারা? রাখেননি। জামায়াত ইসলামী যে জোটে সেখানে আমাদের বলার কিছু থাকে না। তবে যদি একটা ভালো জোট গড়ে উঠতো, যারা মুক্তিযুদ্ধের সপক্ষের তাহলে ভালো হতো। অনিয়ম-দুর্নীতিমুক্ত বাংলাদেশ গড়ার প্রত্যয় থাকতো তাহলে স্বাগত জানানো যেত। কিন্তু বর্তমান ঐক্য প্রক্রিয়া নিয়ে মানুষের হাজারো প্রশ্ন রয়েছে। সেগুলো পরিষ্কার করতে হবে জোটের নেতাদের।

অপর এক প্রশ্নের জবাবে এই রাজনৈতিক বিশ্লেষক বলেন, ডা. বি. চৌধুরীকে ঐক্য প্রক্রিয়ায় রাখা হয়নি বা তিনি থাকলেন না দুটোই হতে পারে। কারণ কোন প্রেক্ষাপটে বি. চৌধুরী ঐক্য প্রক্রিয়া থেকে ছিটকে পড়লেন তা নিয়ে নানা মুনীর নানা মত রয়েছে। তবে বি. চৌধুরী সঙ্গত কারণেই বিএনপির সঙ্গে যেতে পারেন না। কারণ তিনি দলটির প্রতিষ্ঠাকালীন মহাসচিব, মন্ত্রী ও রাষ্ট্রপতি অনেক কিছুই ছিলেন। বিএনপির হয়ে ‘সাবাস বাংলাদেশের’ মতো ন্যক্কারজনক একটা তথ্য চিত্রও তৈরি করেছিলেন বিটিভিতে। আবার রাষ্ট্রপতির পদ থেকেও তাকে পালিয়ে যেতে হয়েছিল। সে কারণেই তিনি বিএনপির সঙ্গে যেতে পারেন না।

তিনি বলেন, বি. চৌধুরী বলেছেন, মুক্তিযুদ্ধবিরোধীদের সঙ্গে তিনি থাকবেন না, যদিও একসময় ছিলেন। তবে তার এই বিলম্বিত বোধদয়ের জন্য তাকে ধন্যবাদ। কিন্তু এককভাবে তিনি কোনো রাজনৈতিক শক্তি হিসেবে প্রমাণ দিতে পারবেন না বা প্রদর্শনও করতে পারবেন না। যদিও শোনা যায় তিনি নাকি ঐক্য প্রক্রিয়ার কাছে ১৫০টি আসন দাবি করেছিলেন। কিন্তু আসলে কি হয়েছে সেই তথ্যপ্রমাণ আমাদের কাছে নেই। তবে এটা এখন বলা যায়, ঐক্য প্রক্রিয়ার শুরুতে একটা হোচট খেয়েছে বি. চৌধুরী ঐক্য প্রক্রিয়ার সঙ্গে না থাকায়।

আরও পড়ুন
সাক্ষাৎকার বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
  • বাংলাদেশে বিনিয়োগ লাভজনক: চেম্বার্স ওয়েলস

  • খেলাধুলা পারস্পরিক সম্পর্ক উন্নয়নে ভূমিকা রাখে: মেয়র আতিক

  • ‘পদ্মা’ ও ‘মেঘনা’ বিভাগ গঠন স্থগিত

  • সামনে কঠিন চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করতে হবে: ডিএমপি কমিশনার

  • ব্যাংক খাতের বর্তমান পরিস্থিতি জানানোর নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

  • বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তিতে নিয়ম থেকে বেরিয়ে আসতে হবে: শিক্ষামন্ত্রী

  • অতিরিক্ত ও সহকারী এসপি পদমর্যাদার ৪৯ কর্মকর্তাকে বদলি

  • কাউন্সিলর অফিস থেকেই জন্ম নিবন্ধন দিতে চায় উত্তর সিটি

  • চমেকে ৮ হাজার টাকার জালনোটসহ যুবক আটক

  • শিশু ও নারীর বিরুদ্ধে সহিংসতা বন্ধে ইউনিসেফের সভা

  • ইংরজিতে অনুবাদ হচ্ছে হিন্দু শাস্ত্রীয় সংগীত

  • ময়নাতদন্ত শেষে মাটিচাপা দেওয়া হলো মৃত হাতিটিকে

  • বাংলাদেশ যেন দুর্ভিক্ষের কবলে না পড়ে: সচিবদের প্রধানমন্ত্রী

  • প্রধানমন্ত্রীর জাপান সফর বাংলাদেশই স্থগিত করেছে: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

  • স্পেনের সঙ্গে ড্র করে বিশ্বকাপে টিকে রইল জার্মানি

  • বিদেশি কূটনৈতিকদের বিষয়ে কঠোর হচ্ছে সরকার

  • অর্থ ফেরাতে মালয়েশিয়ার সহযোগিতা চেয়েছে দুদক

  • আশুগঞ্জে নতুন বিদ্যুৎকেন্দ্র চালু, গ্রিডে যোগ হলো ৪০০ মেগাওয়াট

  • বীর মুক্তিযোদ্ধাদের চিকিৎসা ভাতা বেড়ে দ্বিগুণ

  • জলবায়ু ও দুর্যোগ সহনশীল করতে আড়াই হাজার কোটি টাকার প্রকল্প

  • বাস থেকে ৬৩৭ ভরি স্বর্ণ উদ্ধার, ভারতীয় নাগরিকসহ গ্রেপ্তার ১২

  • খুলনা শিপইয়ার্ড কর পরবর্তী মুনাফা ৭০ কোটি টাকা

  • ছাত্রলীগের সম্মেলন ৬ ডিসেম্বর

  • বহুমুখী ভূমিকায় থানা পুলিশ, জন্ম থেকে মৃত্যু সব কাজেই তারা

  • ৫০ বছরে ৪৪৯ বিদেশিকে নাগরিকত্ব দিয়েছে বাংলাদেশ

  • যমুনা ব্যাংক ফাউন্ডেশনের ফ্রি প্লাস্টিক সার্জারি ক্যাম্প উদ্বোধন

  • ‘জানুয়ারিতে ডলার সংকট থাকবে না’

  • ২০৪০ সালে ট্রিলিয়ন ডলার অর্থনীতির দেশ হবে বাংলাদেশ: সমীক্ষা

  • ২০৪০ সালে ট্রিলিয়ন ডলার অর্থনীতির দেশ হবে বাংলাদেশ: সমীক্ষা

  • মৌলভীবাজারে আমন ধানের বাম্পার ফলন

  • আজ সশস্ত্র বাহিনী দিবস

  • রংপুরে ফুলকপির ফলনে খুশি কৃষক

  • মুরাদনগরের সিদল যাচ্ছে বিদেশে

  • মনোনয়ন ফরম নিলেন আওয়ামী লীগ প্রার্থী ডালিয়া

  • ১ থেকে ৭ ডিসেম্বর বুস্টার ডোজ ক্যাম্পেইন

  • ‘কাটিমন’ আম চাষে বাজিমাত

  • বিশ্বব্যাংকের ‌‘গভটেক লিডারস’ তালিকায় বাংলাদেশ

  • তারের জঞ্জাল মুক্ত হতে যাচ্ছে রাজধানী

  • রাজশাহী-কক্সবাজার রুটে সরাসরি বিমান চলাচল শুরু

  • যুক্তরাষ্ট্রে ডেনিম রপ্তানিতে ৪২ শতাংশ প্রবৃদ্ধি

  • বিদেশি কূটনৈতিকদের বিষয়ে কঠোর হচ্ছে সরকার

  • প্রভাবশালী বিজ্ঞানীর তালিকায় বাংলাদেশি গবেষক

  • দৃষ্টিনন্দন নৌকার মঞ্চে বক্তব্য দেবেন প্রধানমন্ত্রী

  • সূর্যের সঙ্গে ঘুরবে সোলার প্যানেল, প্রশংসা কুড়িয়েছেন ৩ ছাত্র

  • পেঁপে চাষ করেই বছরে ১০ লাখ টাকা আয়

  • বাংলাদেশ কারও সঙ্গে সংঘাত চায় না, শান্তি চায় : প্রধানমন্ত্রী

  • জৈন্তাপুরে ৩ কোটি ১৫ লক্ষ টাকা ব্যয়ে নির্মিত হলো আশ্রয়কেন্দ্র

  • যশোরের জনসমুদ্রে শেখ হাসিনা

  • জেসিআই বাংলাদেশ অ্যাওয়ার্ড পেলেন ৩১ তরুণ উদ্যোক্তা

  • শাহজালালে প্রবাসী কর্মীদের জন্য ৩০ কোটি টাকার বিশ্রামাগার

  • পূর্বাচলে বাণিজ্য মেলা ১ জানুয়ারি থেকে

  • যুক্তরাষ্ট্রে পোশাক রপ্তানির শীর্ষে বাংলাদেশ

  • ফুরোচ্ছে অপেক্ষা, ডিসেম্বরেই পূরণ হচ্ছে মেট্রোরেলের স্বপ্ন

  • চার মাসে ৯০৯০১.৯৯ কোটি টাকা রাজস্ব আদায় এনবিআরের

  • বীর মুক্তিযোদ্ধাদের চিকিৎসা ভাতা বেড়ে দ্বিগুণ

  • মাটিরাঙ্গায় কলা চাষে সফল চাষিরা

  • মাথাপিছু আয় বৃদ্ধিতে দক্ষিণ এশিয়ায় বাংলাদেশ অন্যতম

  • ২০৪০ সালে ট্রিলিয়ন ডলার অর্থনীতির দেশ হবে বাংলাদেশ: সমীক্ষা

  • প্রযুক্তির সঙ্গে মানুষের মেলবন্ধন তৈরিতে কাজ করছি: মাশরাফী

  • দেশের জ্বালানি খাতে দেড় বিলিয়ন ডলার বিনিয়োগ করবে সৌদি কোম্পানি