বুধবার   ০৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৩

সর্বশেষ:
রোকেয়া পদক পাচ্ছেন ৫ নারী আবারও শ্বাসরুদ্ধকর জয়, ৭ বছর পর ভারতের বিপক্ষে সিরিজ বাংলাদেশের একশ’ প্রভাবশালী নারীর তালিকায় বাংলাদেশের ছোঁয়া দেশের দ্বিতীয় ডিজিটাল পল্লি হবে শরীয়তপুরের ডামুড্যায় প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব হলেন তোফাজ্জল হোসেন মিয়া
১২৮

ভার্মি কম্পোস্ট সার উৎপাদনে নাঈমের সাফল্য

ডেস্ক রিপোর্ট

প্রকাশিত: ২ ডিসেম্বর ২০২২  

দিনাজপুরের চিরিরবন্দর উপজেলার নাঈম হুদা চাকরি ছেড়ে কেঁচো কম্পোস্ট বা ভার্মি কম্পোস্ট সার উৎপাদনে সফলতা অর্জন করেছে। এখন প্রতিমাসে নাঈমের কেঁচো সার বিক্রি করে প্রায় ৪০ হাজার টাকা আয় করছেন।

চিরিরবন্দর উপজেলার তেঁতুলিয়া ইউনিয়নের বৈকন্ঠপুর গ্রামের ফজলুর রহমানের পুত্র নাঈম হুদার সঙ্গে কথা বলে জানা যায়- তিনি জেলার চিরিরবন্দর উপজেলার ভুষিরবন্দর উচ্চ বিদ্যালয় থেকে গত ২০১০ সালে এসএসসি, ভুষিরবন্দর টেকনিক্যাল কলেজ থেকে গত ২০১২ সালে এইচএসসি ও গত ২০১৬ সালে ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি অব বিজনেস এগ্রিকালচার অ্যান্ড টেকনোলজি থেকে মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগে স্নাতক শেষ করে উত্তরা ইপিজেডের চাকরি শুরু করেন।

নাঈম হুদা বলেন, গত ২০১৬ সালে ইঞ্জিনিয়ারিং পড়াশোনা শেষে চাকরির খোঁজে বিভিন্ন জায়গায় আবেদন করি। পরে নীফফামাী জেলার সৈয়দপুর উপজেলার উত্তরা ইপিজেডে চাকরি পাই। সেখানে প্রায় ২ বছর চাকরি করি, চাকরিতে যে পরিমাণ সময় শ্রম দিয়ে থাকি সে পরিমাণ অর্থ পাইনা। তখন মাথায় চিন্তা আসে বাসার কৃষিতে যদি কম সময় ও শ্রম-দেই তাহলে এর থেকে দ্বিগুণ পরিমাণ অর্থ আয় করতে পারব। 

পরে গত ২০১৯ সালে চাকরি ছেড়ে বাসায় এসে কৃষিতে মনোযোগ দেই। এর পরে নিজের প্রচেষ্টায় পৈত্রিক জমিতে কমলা বাগান মাল্টা বাগান ও মিশ্রফল বাগান এবং পুকুরে মাছ চাষ শুরু করি। তখন দেখি ফল বাগানে রাসায়নিক সারের পাশাপাশি জৈব সারের প্রয়োজন হচ্ছে। কৃষি অফিসের পরামর্শে ২ শতক মাটির উপর কেচো কম্পোস্ট এর একটা প্রজেক্ট দেয় চিরিরবন্দর উপজেলা কৃষি অফিস। সেই থেকে কেচো কম্পোস্ট সার দিয়ে ফলবাগানের গাছের চেহারা ভালো ও ফলন ভালো হচ্ছে। 

তিনি আরো বলেন, পরে আমি এটা আমর পুকুরের মাছকে খাওয়ানো শুরু করি। পুকুরের মাছ এই খাবার পেয়ে মাছ খুব দ্রুত বাড়তে ও বড় হতে শুরু করে। ফলে ভালো ফলাফল আসে। তখন গ্রামের অনেক আমার দেখে ধানের জমিতে সবজি খেতে কেঁচো কম্পোস্ট সার ব্যবহার শুরু করে। এভাবে আমার শ্রমে প্রস্তুত করা কেঁচো খামারে ভালো মুনাফা আসতে শুরু করে। তখন আমি এই সার ও কেঁচো নিয়ে গবেষণা শুরু করি। নিজের স্থাপন করা হাউজ ও রিং থেকে আমি কেচো সার উৎপাদনে সফল হই। এখন পরীক্ষামুলক ভাবে বস্তার মধ্যেও শুরু করেছি কেঁচো কম্পোস্ট সার উৎপাদন। ইনশাআল্লাহ আল্লাহর রহমত ভালো রেজাল্টা পাচ্ছি।

তিনি বলেন, চাহিদার তুলনায় উৎপাদন কম হওয়া খামারটি বড় করার জন্য আমি আরো কিছু হাউজ তৈরি শুরু করছি। এখন আমার প্রায় ৫ থেকে ৬ শতক মাটির উপর তৈরি করেছি কেঁচো কম্পোস্ট এর খামার। এ খামার থেকে প্রতি মাসে গড়  ৪ থেকে ৫ টন কেচো কম্পোস্ট সার উৎপাদিত হয়। প্রতি টন কম্পোস্ট সার ১২ হাজার টাকায় বিক্রি করি। আর খুচরা এ সার বিক্রি হয় ১৬ টাকা থেকে ১৮ টাকা কেজি দরে। আমার দেখে অনেকেই এখন এ খামার করার আগ্রহ প্রকাশ করছে। এলাকার অনেক বেকার যুবক আমার কাছ থেকে কেঁচো নিয়ে গিয়ে বাসায় ছোট পরিসরে কোচো কম্পোস্ট সার তৈরি করছে। এখন প্রতিমাসে ভার্মি কম্পোস্ট সার ও কেঁচো বিক্রি করে ৪০ হাজার টাকা আয় করছি।

বৈকন্ঠপুর গ্রামের কৃষক সাকিল ইসলাম  বলেন, নাঈম আমাদের গ্রামের ছেলে তার কাছ থেকে জৈব সার নিয়ে কলা বাগানে দিছিলাম সাথে লাল শাক খেতেও দিছি কলা ও শাকের বাম্পার ফলন হয়েছে। সেই সাথে রাসায়নিক সার ব্যবহার করলে যে খরচ হত তার থেকে অনেক কম খরচ হয়েছে জৈব সার ব্যবহার করে।

চিরিরবন্দর উপজেলার তেঁতুলিয়ার গ্রামের কৃষক হযরত আলী বলেন, নাঈমের সবজি খেতে জৈব সার ব্যবহারের ফলে তার সবজির ফলন ভালো ও খরচ কম খরচ হওয়ায় তার দেখা দেখি তার কাছ থেকে এ জৈব সার কিনে আমি সবজি খেতে দিছি। এখন সবজি খেতের ফলন ভালো হয়েছে।

চিরিরবন্দর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা জোহরা সুলতানা বলেন, উপজেলায় এনএটিপি প্রকল্পের আওতায় বেশকয়েটি ভার্মি কম্পোস্ট প্রকল্প চালু করেছি এর মধ্যে অনেকে ভালো করেছে। তবে নাঈম হুদা উদ্যাক্তা হিসেবে খুব ভালা করছে। তিনি ইতোমধ্যে ভার্মি কম্পোস্ট সার ও কেঁচো  বিক্রি করে ভালো একটা অবস্থা তৈরি করেছে। আমরা সকলে জানি ভার্মি কম্পোস্ট উৎকৃষ্ঠ মানের একটি জৈব সার এটি মাটিতে দিলে মাটির উর্বরতা শক্তি বৃদ্ধি করে মাটির সয়েলড বোন্ড ডিজিস গাছে কম হয়। সেখানে নাঈম হুদা নিজে সার তৈরি করে নিজের বাগানে দিচ্ছে এবং এগুলো বিক্রিও করে অর্থ লাভ করছে পাশাপাশি তার পুকুরের মাছের খাদ্য হিসেবে ব্যবহার করে ভালো ফলাফল পেয়েছে। ইতোমধ্যে আমরা কৃষি বিভাগ নাইমের ভার্মি কম্পোস্ট মৃত্তিকা গবেষণা ইনস্টিটিউড ভার্মি কম্পোস্ট এরে স্যাম্পল পাঠিয়েছি সেই সাথে আমরা বগুড়া আরডিএতে স্যাম্পল পাঠানোর ব্যবস্থা হতে নিয়েছি। যাতে আমরা বুঝতে পারি এই ভার্মি কম্পোস্টে কি-কি পুষ্টি উপাদান রয়েছে।

দিনাজপুর আঞ্চলিক কৃষি অধিদপ্তরে অতিরিক্ত পরিচালক প্রদীপ কুমার গুহ জানান, তিনি চিরিরবন্দর উপজেলার নাঈম হুদার কেঁচো সার উৎপাদন ও ব্যবহারের বিষয় অবগত রয়েছেন। তাকে অনুসরণ করে এলাকার অনেক বেকার যুবক কেঁচো সার প্রস্তুত করে জমিতে প্রয়োগে ফসলের সফলতা অর্জণ করেছেন। তিনি বলেন- সম্প্রতি কেঁচো সার প্রকল্পটি পরিদর্শন করে তাদেরকে কিছু পরার্মশ দিয়েছি। তিনি আশা করেন কেঁচো সার উৎপাদনে জেলায় আরো সফলতা অর্জনে কৃষি বিভাগ কাজ করে যাচ্ছেন।

আরও পড়ুন
দেশের খবর বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
  • লালমনিরহাটে ‘বাংলা ইশারা ভাষা’ দিবস পালিত

  • নবায়নযোগ্য জ্বালানি খাতে বিনিয়োগে আগ্রহী চীন

  • সাতদিনে বইমেলায় ৫৩৫ নতুন বই

  • ভুটানের জালে ৫ গোল দিয়ে ফাইনালে বাংলাদেশের মেয়েরা

  • পদ্মাপাড়ে ‘সমুদ্র বিলাস’

  • রেলপথ মন্ত্রণালয়ের সম্মাননা পেলেন ড. অরূপরতন চৌধুরী

  • বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রীর সঙ্গে নবনিযুক্ত জাপানের রাষ্ট্রদূতের সৌজন্য

  • পাঁচ খাতে দক্ষ শ্রমিক নেবে সৌদি আরব

  • পাহাড়ে সৌর বিদ্যুতের সেচ প্রকল্পে উপকৃত বান্দরবানের কৃষকেরা

  • হজের নিবন্ধন শুরু ৮ ফেব্রুয়ারি

  • উত্তরাঞ্চলে চা উৎপাদনের রেকর্ড

  • নওগাঁয় মাশরুম চাষে সাফল্য

  • তুরস্কে প্রবাসী বাংলাদেশিদের জন্য হটলাইন চালু

  • এইচএসসির ফল প্রকাশ ৮ ফেব্রুয়ারি

  • ভোলার চরফ্যাশনে বিষমুক্ত সবজি চাষ হচ্ছে

  • তিস্তার চরে পেঁয়াজের বাম্পার ফলনের স্বপ্ন দেখছেন কৃষকরা

  • ফুলচাষেই লাভবান নওগাঁর চাষিরা

  • অক্টোবরে উদ্বোধন হবে শাহজালাল আন্তঃ বিমানবন্দরে তৃতীয় টার্মিনাল

  • পরীক্ষামূলকভাবে চালু হলো নাগরিক ভূমিসেবা কেন্দ্র

  • ১ মাসের ব্যবধানে আরিফিন শুভ`র চোখ ধাঁধানো পরিবর্তন

  • তুরস্কের পাশে দাঁড়াল বাংলাদেশ! যাচ্ছে উদ্ধারকারী দল।

  • তুরস্ক যেন এক মৃত্যুপুরী! বেড়ে চলেছে মৃতের সংখ্যা!

  • ভেজাল ওষুধ উৎপাদন বিক্রিতে যাবজ্জীবন

  • প্রেসক্রিপশন ছাড়া ওষুধ বিক্রি করলে ২০ হাজার টাকা জরিমানা

  • জানুয়ারিতে মূল্যস্ফীতি কমে ৮.৫৭ শতাংশ

  • ১১৬১ কোটি টাকার দুর্নীতি : বিমানের ২৩ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে দুদকের

  • ফ্লাইওভারের দেওয়াল লিখন ও পোস্টার সরানোর নির্দেশ

  • তুরস্ক-সিরিয়ায় ভূমিকম্পে হতাহতের ঘটনায় রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী

  • বায়ু ও শব্দদূষণের দায়ে ১৬ যানবাহন ও ১২ প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা

  • ‘মুজিব হানড্রেড সং’র মোড়ক উন্মোচন করলেন প্রধানমন্ত্রী

  • নতুন শিক্ষাব্যবস্থার যুগে বাংলাদেশ

  • আদানির বিদ্যুৎ আসছে মার্চে

  • মামলায় সরকারি সাক্ষীদের খরচ দেয়ার নির্দেশ

  • রামপালে জুনের মধ্যে দ্বিতীয় ইউনিটে উৎপাদন শুরু

  • ‘একুশ’ বাঙালির প্রথম পরিচয়

  • সমন্বিত ট্র্যাফিক ব্যবস্থাপনা চালুর পরিকল্পনা করছে সরকার

  • ‘স্মার্ট জাতি গঠনই আমাদের পরবর্তী লক্ষ্য’

  • স্পিকারের সাথে নর্ডিক রাষ্ট্রগুলোর রাষ্ট্রদূতদের সৌজন্য সাক্ষাৎ

  • জাহাজ রফতানিতে নবদিগন্ত

  • রাজস্ব আয় আরও বাড়ানোর পদক্ষেপ নিতে হবে : প্রধানমন্ত্রী

  • বাংলাদেশ একটি সফল উন্নয়নের গল্প: বিশ্ব ব্যাংক

  • জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ডিগ্রি তৃতীয় বর্ষের ফল প্রকাশ

  • জিডিপিতে আমরা মালয়েশিয়া-সিঙ্গাপুরকে পেছনে ফেলেছি : তথ্যমন্ত্রী

  • ধামরাইয়ে কৃষকদের মাঝে ঋণ বিতরণ

  • খুলনায় ১০৭ প্রতিষ্ঠানের পতিত জমিতে ফসলের ঝিলিক

  • বাংলাদেশের জন্য ৪৭০ কোটি মার্কিন ডলার ঋণ অনুমোদন করেছে আইএমএফ

  • পর্দা উঠলো অমর একুশে গ্রন্থ মেলার

  • দেশের প্রথম পাতাল রেলের নির্মাণকাজ উদ্বোধন ২ ফেব্রুয়ারি

  • জানুয়ারিতে ৫১৪ কোটি ডলারের পণ্য রপ্তানি

  • মেট্রোরেলে টিকিট বেচে আয় আড়াই কোটি টাকা

  • পাতাল রেলের যুগে বাংলাদেশ

  • উন্নয়নের নতুন মুকুট পাতালরেলের আদ্যোপান্ত

  • ঢাকায় আর্জেন্টিনার দূতাবাস চালু হচ্ছে ২৭ ফেব্রুয়ারি

  • প্রাথমিক বিদ্যালয়ে আরও সাড়ে ৭ হাজার শিক্ষক নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি আসছে

  • প্রথমবারের মতো ১২০ কিমি মিসাইল ফায়ারিং এর যুগে বাংলাদেশ

  • ২০২৬ সালেই চালু হবে মাতারবাড়ী গভীর সমুদ্র বন্দর : নৌ প্রতিমন্ত্রী

  • রিজার্ভ চুরি: সাক্ষ্য দিতে ফিলিপাইনে বাংলাদেশের কর্মকর্তারা

  • ২৭ দিনে রেমিট্যান্স এলো ১৮ হাজার কোটি টাকা

  • চীনকে পেছনে ফেলে পোশাক রপ্তানিতে শীর্ষে বাংলাদেশ

  • জানুয়ারিতে রপ্তানি আয় বেড়েছে ৫.৮৯%