শুক্রবার   ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২

সর্বশেষ:
সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোর বার্ষিক ছুটি ৭৫ দিন আগামী মার্চে ঢাকা উত্তর সিটির ভোটের ইঙ্গিত সিইসির আস্থা ভোটে টিকে গেলেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় পরিদর্শনে প্রধানমন্ত্রী রাষ্ট্রপতির সঙ্গে নেপালের বিদায়ী রাষ্ট্রদূতের সাক্ষাৎ সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন করতে ইসি প্রতিজ্ঞাবদ্ধ: নূরুল হুদা বারবার আসতে পারব না, যত খুশি সাজা দিন: খালেদা জিয়া ‘আকাশবীণার’ উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী ত্রিভুবনে আবারও বিমান দুর্ঘটনা ট্রেন-বাসের সংঘর্ষে নিহত ২, আহত ২৫ ভুয়া ছবি দিয়ে অপপ্রচার চালাচ্ছে মিয়ানমার: প্রধানমন্ত্রী
৮৫৮

চ্যালেঞ্জ বাড়ছেই রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে!

ডেস্ক নিউজ

প্রকাশিত: ৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯  

রোহিঙ্গা অনুপ্রবেশের দু’বছর গড়িয়েছে। এ দু’বছরে একজন রোহিঙ্গাকেও প্রত্যাবাসন করা সম্ভব হয়নি। আলোচনা হয়েছে দ্বি-পাক্ষিক, বহু-পাক্ষিক পরিসরে। রোহিঙ্গা ইস্যুর অন্যতম অনুঘটক ভারত-চীনকেও পাশে পেতে চেয়েছে বাংলাদেশ। ফলাফল বাংলাদেশের অনুকূলে আসেনি।

রাষ্ট্রহীন মানুষগুলোকে নিয়ে বিপদ বাড়ছেই বাংলাদেশের। প্রথমদিকে অনুকম্পা দেখালেও এখন বিরক্তির দৃষ্টিতে দেখছেন সরকারের নীতিনির্ধারকরাও। রোহিঙ্গাদের কর্মকাণ্ড জোরালোভাবে মনিটরিং করা হচ্ছে। মোবাইল সেবাও বন্ধ। তবে এর বিপরীতেও অনেকে অবস্থান নিয়ে বলছেন, তাদের আশ্রয় দেয়ার মধ্য দিয়েই এক মানবিক বাংলাদেশ, মানবিক বাঙালি দেখতে পেল বিশ্ব।

আর সব আলোচনা-সমালোচনার কেন্দ্রে রয়েছে ‘রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন’-এর বিষয়টি। কবে ফেরত যাবে রোহিঙ্গারা? আদৌ কি ফেরত যাবে? অথবা এ সংকটের ভবিষ্যৎ-বা কী? এমন প্রশ্ন নিয়েই মতামত জানতে চাওয়া হয়, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের অধ্যাপক তানজিম উদ্দিন খান এবং দক্ষিণ এশিয়ার রাজনৈতিক ইতিহাস বিশ্লেষক আলতাফ পারেভেজের কাছে।

বিশ্লেষক আলতাফ পারভেজ বলেন, ‘রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন আপাতত হবে না। এটি আমি আগেও বলেছি। রোহিঙ্গারা রাজি থাকলেও প্রত্যাবাসন আপাতত সম্ভব না। কারণ পুরো আরাকান রাজ্যজুড়েই যুদ্ধাবস্থা চলছে। বিশেষ করে রোহিঙ্গা অধ্যুষিত এলাকাগুলো আরাকান আর্মির সঙ্গে মিয়ানমার আর্মির যুদ্ধ চলছে। রোহিঙ্গা আলোচনায় এটি অবশ্যই গুরুত্ব দিতে হবে।’

রোহিঙ্গা আর ভারত প্রসঙ্গে টেনে তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশ আসলে ভারতের সঙ্গে কোনো দ্বন্দ্বে জড়াতে চায় না। বাংলাদেশ একটি ক্ষুদ্র শক্তি। রোহিঙ্গা ইস্যুতে হাবুডুবু খাচ্ছে। রোহিঙ্গা ইস্যুতে ভারত এবং চীনের সমর্থন দরকার। এ কারণেও হয়তো বাংলাদেশ সরকার কাশ্মীর এবং আসাম ইস্যুতে কোনো প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করতে চাইছে না।’

অধ্যাপক ড. তানজিম বলেন, ‘আমি প্রথম থেকেই বলেছি, রোহিঙ্গা সমস্যার সমাধান সহজভাবে হবে না। এর আগে রোহিঙ্গারা ফেরত গেছে, তখন বৈশ্বিক প্রেক্ষাপট ভিন্ন ছিল এবং চীনের ভূমিকা বাংলাদেশের পক্ষে ছিল। জিয়াউর রহমানের সঙ্গে চীনের তখন ভালো সম্পর্ক ছিল। এখন চীনের অর্থনৈতিক স্বার্থ ভিন্নভাবে মূল্যায়ন করতে হয়। ভারতেরও ঠিক তাই। বিচ্ছিন্ন রাষ্ট্র থেকে মিয়ানমার এখন অনেকটাই গণতন্ত্রমুখী। এ কারণে বাণিজ্য এবং বিনিয়োগে গুরুত্ব দিতে হচ্ছে। মিয়ানমার এক ধরনের আকর্ষণ তৈরি করে ভারত এবং চীনকে পাশে রাখছে। রোহিঙ্গা ইস্যুকে যতটুকু আন্তর্জাতিকীকরণ করার কথা ছিল, বাংলাদেশ তা সঠিকভাবে করেনি।’

রোহিঙ্গা ইস্যুতে বাংলাদেশ ব্যর্থ কি-না এমন প্রশ্নের জবাবে এ বিশ্লেষক বলেন, ‘ব্যর্থ বা সফল তার কোনোটিতেই আমি মত দিচ্ছি না। আমি মনে করি, বাংলাদেশের সক্রিয়তার অভাব আছে। বাংলাদেশ ব্যর্থ কি-না, তা বলার সময় এখনও আসেনি। বর্তমান সরকারের সঙ্গে ভারত এবং চীনের ভালো সম্পর্ক এটি অস্বীকার করার উপায় নেই। কিন্তু বিশ্লেষণ করলে দেখা যাবে, মিয়ানমারে চীন এবং ভারতের স্বার্থ বাংলাদেশের চেয়ে অনেক বেশি। এ কারণেই মিয়ানমারকে সমর্থন দিচ্ছে তারা। রোহিঙ্গা ইস্যু দ্বিপক্ষীয় বিষয় নয়। বহুপক্ষীয় আলোচনায় এর সমাধান টানতে হবে।’

শুধু চাপ নয়, রোহিঙ্গা ইস্যু বাংলাদেশের জন্য হুমকিও বটে এমন আশঙ্কা প্রকাশ করে তিনি বলেন, ‘এ ধরনের জনগোষ্ঠীর জন্য যেমন মানবিক দিক আছে, তেমনি নিজেদের নিরাপত্তার দিকও আছে। রোহিঙ্গারা খুবই বঞ্চিত একটি জনগোষ্ঠী এবং বিপদের মধ্যে থেকেছে দীর্ঘ সময়। তারা নিজেদের স্বার্থে যে কোনো ঝুঁকি নিতে পারে। এ কারণেই বাংলাদেশের জন্য বাড়তি চাপ তৈরি হয়েছে বলে আমি মনে করি। রোহিঙ্গাদের ফেরত পাঠাতে না পারলে, আমাদের জন্য বড় ঝুঁকি তৈরি হবে। তবে মানবিক ইস্যু হিসেবেই এর সমাধান করতে হবে। কারণ আমাদের সামনে মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস আছে। আমরা জোর করে তাদের বিপদের মুখে ফেলে দিতে পারি না। এ কারণেই সব পথ খোলা রেখেই সমাধান করতে হবে।’

আরও পড়ুন
সাক্ষাৎকার বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
  • করোনাসহ ১২ ধরনের ভ্যাকসিন তৈরি হবে গোপালগঞ্জে

  • শেখ হাসিনা দেশের নারী ক্ষমতায়নের অগ্রদূত: স্পিকার

  • আপাতত পরিবর্তন হচ্ছে না অফিস সময়

  • ধর্ম নিরপেক্ষতা সমুন্নত রাখতে শেখ হাসিনাই ‘একমাত্র ভরসা’

  • করোনায় কমেছে মৃত্যু, শনাক্ত আরো সাড়ে ৩ লাখ

  • ঢাকাসহ ১৫ জেলায় ৬০ কিলোমিটার বেগে ঝড়ের আশঙ্কা 

  • জীবনধারণের সহায়ক সামগ্রী পেলেন ভাসানচরের রোহিঙ্গারা

  • ইউটিউব দেখে ব্ল্যাক কুইন তরমুজ চাষে সফল মোফাজ্জল

  • এক মাছের দাম ২৭ লাখ টাকা!

  • স‌লেমানের সোলার পাম্পে চিন্তামুক্ত হাজা‌রো কৃষ‌ক

  • বিশ্ব পর্যটন দিবস আজ

  • শিশু-কিশোরদের জন্য লার্নিং প্লাটফর্ম ‘হাসিনা অ্যান্ড ফ্রেন্ডস’

  • যুক্তরাষ্ট্রে পোশাক রপ্তানি বেড়েছে প্রায় সাড়ে ৫৪ শতাংশ

  • প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিনে বগুড়া জেলা আ.লীগের আনন্দ র‌্যালী

  • সাফ জয়ী পাহাড়ের ৫ কন্যাকে দেয়া হবে গণসংবর্ধনা

  • শরীয়তপুরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা`র ৭৬তম জন্মদিন উদযাপন

  • ‘শেখ হাসিনা আলোকিত বাংলাদেশ গড়ার কারিগর’

  • শেখ হাসিনা জন্মেছিলেন বলেই গৌরবের ইতিহাস রচনা করেছে বাংলাদেশ

  • ঢাকার উন্মুক্ত বর্জ্য ৩০ শতাংশে নামিয়ে আনা হয়েছে : মেয়র তাপস

  • ‘বিএনপি লাঠির সঙ্গে পতাকা বেধে রাস্তায় নামলে জবাব দেওয়া হবে’ 

  • মালয়েশিয়ার সঙ্গে দ্রুত এফটিএ করতে আগ্রহী বাংলাদেশ: অর্থমন্ত্রী

  • প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ছাত্রনেতা থেকে আজ বিশ্বনেতা: তথ্যমন্ত্রী

  • ‘শিশু-কিশোরদেরকে মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস জানতে হবে’

  • যুক্তরাষ্ট্রে পোশাক রপ্তানি বেড়েছে ৫৪.৪৩ শতাংশ

  • প্রধানমন্ত্রীর ৭৬তম জন্মদিন উদযাপনে ৭৬ হাজার বৃক্ষ রোপণ

  • ‘শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশে মৌলিক অধিকার প্রতিষ্ঠিত হয়েছে’

  • শেখ হাসিনার জন্মবার্ষিকীতে স্মারক ডাকটিকিট ও আলোকচিত্র প্রদর্শনী 

  • ‘জলবায়ুর চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় প্রধানমন্ত্রী বিশ্বে রোল মডেল’

  • ‘গণতান্ত্রিক সমাজ নির্মাণের ভিত মজবুত করবে তথ্য অধিকার’

  • বর্জ্য থেকে বিদ্যুৎ, নারায়ণগঞ্জে হচ্ছে ৬ মেগাওয়াট কেন্দ্র

  • প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিনে পদ্মা সেতু নিয়ে লিখবে শিক্ষার্থীরা

  • অ্যাফিডেভিট ছাড়াই পাসপোর্টের নাম-বয়স সংশোধন

  • শিশু সুরক্ষা বাড়াতে ৬ হাজার সমাজকর্মী নিয়োগ দেবে সরকার

  • যানজট নিরসনে রাজধানীতে নামছে স্কুলবাস

  • ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় সবুজ মাল্টা চাষে বাম্পার ফলন

  • আসছে নতুন চমক :  যমুনায় বঙ্গবন্ধু রেল সেতু

  • সেনাবাহিনীতে যুক্ত হলো নতুন সামরিক বিমান

  • ই-টিকেটিংয়ে সাফল্য ২৫ টাকার ভাড়া নামলো ১৩ টাকায়

  • আলোর মুখ দেখছে পৃথিবীর দীর্ঘতম মেরিনড্রাইভ

  • ভূমি অপরাধ নিয়ন্ত্রণে চালু হচ্ছে ডিজিটাল কেস সিস্টেম

  • পরিত্যক্ত প্লাস্টিক বোতল দিয়ে ‘বোতল বাড়ি’

  • পাহাড়ে উৎপাদিত বিলাতি ধনে পাতার সুনাম সর্বত্র

  • পদ্মা সেতুর তিন মাস ; দক্ষিণাঞ্চলে আমূল পরির্বতন

  • চিনি ও পাম তেলের দাম বেঁধে দিল সরকার 

  • থাইল্যান্ডকে হারিয়ে বিশ্বকাপে বাংলাদেশ

  • অক্টোবরে খুলছে কর্ণফুলী টানেলের একাংশ 

  • রাজধানীর বাসে পরীক্ষামূলক ই-টিকেট চালু

  • সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের বিনা মূল্যে পদ্মা সেতু দেখাবে বিপিসি

  • রোহিঙ্গাদের জন্য ১৭০ মিলিয়ন ডলার দিচ্ছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র 

  • ৬ মাসে ৫ লাখ বাংলাদেশিকে ভিসা দিয়েছে সৌদি দূতাবাস

  • অস্কারে যাচ্ছে ‘হাওয়া’

  • শেখ রাসেল জুনিয়র দাবা প্রতিযোগিতা শুরু

  • ২২ দিনে রেমিট্যান্স এলো ১৩ হাজার কোটি টাকা

  • চট্টগ্রামে বীরকন্যা প্রীতিলতার নামে সড়কের নামকরণ

  • চট্টগ্রাম বন্দরের রাজস্ব আয় ৩৫৮৫ কোটি টাকা

  • বিএডিসির বীজআলু উৎপাদনের খামারে এবার আউশ ধান

  • ‘বীরদর্পে দেশকে এগিয়ে নিচ্ছেন শেখ হাসিনা’

  • পাটের আঁশ ছাড়িয়ে ৩৬ হাজার নারীর বাড়তি আয় 

  • বরেন্দ্র এলাকায় সেচ দিতে ২৫০ কোটি টাকার প্রকল্প

  • নারীদের হাতের তৈরি দড়ির পণ্য যাচ্ছে বিভিন্ন দেশে