শুক্রবার   ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২

সর্বশেষ:
সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোর বার্ষিক ছুটি ৭৫ দিন আগামী মার্চে ঢাকা উত্তর সিটির ভোটের ইঙ্গিত সিইসির আস্থা ভোটে টিকে গেলেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় পরিদর্শনে প্রধানমন্ত্রী রাষ্ট্রপতির সঙ্গে নেপালের বিদায়ী রাষ্ট্রদূতের সাক্ষাৎ সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন করতে ইসি প্রতিজ্ঞাবদ্ধ: নূরুল হুদা বারবার আসতে পারব না, যত খুশি সাজা দিন: খালেদা জিয়া ‘আকাশবীণার’ উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী ত্রিভুবনে আবারও বিমান দুর্ঘটনা ট্রেন-বাসের সংঘর্ষে নিহত ২, আহত ২৫ ভুয়া ছবি দিয়ে অপপ্রচার চালাচ্ছে মিয়ানমার: প্রধানমন্ত্রী
৩৭১

স্বল্পোন্নত দেশের মধ্যে তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহারে এগিয়ে বাংলাদেশ

ডেস্ক রিপোর্ট

প্রকাশিত: ২৫ অক্টোবর ২০২১  

জাতিসংঘ টেকনোলজি ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) জশুয়া সেটিপা সম্প্রতি বাংলাদেশ সফরে এসেছিলেন। এ সময় ঢাকায় তুরস্ক দূতাবাসে একটি অনুষ্ঠানে অংশ নেওয়ার ফাঁকে কথা বলেন গণমাধ্যমের সঙ্গে। জাতিসংঘ টেকনোলজি ব্যাংকের উদ্দেশ্য, লক্ষ্য এবং কাজের পরিধির বিষয়ে জানিয়ে তিনি ডিজিটাল বাংলাদেশ গঠনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দর্শন ও পদক্ষেপের ভূয়সী প্রশংসা করেন। 

জশুয়ার বিবেচনায় স্বল্পোন্নত দেশগুলোর মধ্যে তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহারের বিস্তৃতির ক্ষেত্রে বাংলাদেশ সবচেয়ে এগিয়ে আছে। এ কারণেই বাংলাদেশ এখন অগ্রগতির যাত্রায় মধ্যম আয়ের দেশে। স্বল্পোন্নত দেশ থেকে উত্তরণ ঘটলেও জাতিসংঘ টেকনোলজি ব্যাংক বাংলাদেশের সঙ্গে নিবিড়ভাবে কাজ করবে। সাক্ষাৎকারটি নিয়েছেন সমকালের বিশেষ প্রতিনিধি রাশেদ মেহেদী।

সংবাদকর্মী: প্রথমেই জানতে চাই জাতিসংঘ টেকনোলজি ব্যাংক সম্পর্কে।

জশুয়া সেটিপা: এই টেকনোলজি ব্যাংক প্রতিষ্ঠিত হয়েছে ২০১৬ সালে। এর সদর দপ্তর তুরস্কের ইস্তাম্বুলে। এর মূল লক্ষ্য হচ্ছে স্থিতিশীল উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে স্বল্পোন্নত দেশগুলোতে বিজ্ঞান, প্রযুক্তি ও উদ্ভাবনের একটি গেটওয়ে হিসেবে কাজ করা। বর্তমানে স্বল্পোন্নত দেশ এবং কিছুদিন আগ পর্যন্ত স্বল্পোন্নত দেশ ছিল এমন ৪৬টি দেশে এই ব্যাংক কাজ করছে। এই ব্যাংক বাংলাদেশেও কাজ করছে।

সংবাদকর্মী: বাংলাদেশে এই টেকনোলজি ব্যাংকের কাজ সম্পর্কে কোনো সুনির্দিষ্ট পরিকল্পনা আছে কি?

জশুয়া সেটিপা: বাংলাদেশে জাতিসংঘ টেকনোলজি ব্যাংক আরও বিস্তৃত পরিসরে কীভাবে কাজ করতে পারে তা নিয়ে আলোচনার জন্যই এবারের সফর। সফরে বাংলাদেশের নীতিনির্ধারক, তথ্যপ্রযুক্তি খাতের উদ্যোক্তা, বিনিয়োগকারী, ব্যবসায়ী, চিন্তাবিদ, উদ্ভাবক এবং স্টার্টআপদের সঙ্গে কথা বলেছি। আমরা জানি, বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আরও প্রায় এক দশক আগে ডিজিটাল বাংলাদেশ গঠনের একটি রূপরেখা দিয়েছিলেন। সে অনুযায়ী তথ্যপ্রযুক্তির ব্যবহার বিস্তৃতির ক্ষেত্রে বাংলাদেশ দারুণ সাফল্য অর্জন করেছে। আমি বলব, স্বল্পোন্নত দেশগুলোর মধ্যে তথ্যপ্রযুক্তি উন্নয়নে বাংলাদেশই সবচেয়ে বেশি এগিয়ে আছে। সরকারি অফিস থেকে শুরু করে সাধারণ মানুষের যাপিত জীবনে তথ্যপ্রযুক্তির ব্যবহার অভ্যস্ত হয়ে ওঠার বিষয়টি খুবই উৎসাহব্যঞ্জক। এই প্রেক্ষাপটে বলতে পারি, জাতিসংঘ টেকনোলজি ব্যাংকের কাজ করার জন্য বাংলাদেশ খুবই উপযোগী জায়গা।

সংবাদকর্মী: জাতিসংঘ টেকনোলজি ব্যাংক প্রযুক্তিগত উন্নয়নে ঠিক কী কী ধরনের সহায়তা দিতে পারে?


জশুয়া সেটিপা: আপনি জানেন, জাতিসংঘের টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জনের একটা কর্মসূচি এবং অধ্যায় চলছে। জাতিসংঘ টেকনোলজি ব্যাংক সেই লক্ষ্যমাত্রা অর্জনেই কাজ করছে। কারণ, বর্তমান বাস্তবতায় উন্নতর প্রযুক্তির ব্যবহারের সঙ্গে সম্পৃক্ত হওয়া ছাড়া একটি কার্যকর উন্নয়ন কোনোভাবেই সম্ভব নয়। আবার তথ্যপ্রযুক্তির কার্যকর ব্যবহার নিশ্চিত করাটাও এ সময়ে সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ। একেকটা দেশের বাস্তবতা একেক রকম। এক দেশের জন্য যে ধরনের প্রযুক্তির ব্যবহার দরকার, আরেক দেশের জন্য সেটা অন্য ধরনের হতে পারে। সে কারণেই জাতিসংঘ টেকনোলজি ব্যাংক কোন দেশে কী ধরনের প্রযুক্তির ব্যবহার বেশি উপযোগী, সেটা সুনির্দিষ্ট করছে। এরপর সহযোগিতা এবং সহায়তার বিষয়টি সেভাবেই নিশ্চিত করা হবে। একইসঙ্গে স্বল্পোন্নত দেশগুলোতে যেন প্রযুক্তিগত বৈষম্য না থাকে, যেমন প্রযুক্তি ব্যবহারে নারী-পুরুষের মধ্যে যেন বৈষম্য না থাকে, শহর ও গ্রামের মধ্যে যেন বৈষম্য না থাকে, সে বিষয়টিও অগ্রাধিকার হিসেবে দেখা হচ্ছে।

সংবাদকর্মী: আপনারা এসটিআই কর্মসূচির কথা বলছেন। সে বিষয়ে বিস্তারিত বলবেন কি?

জশুয়া সেটিপা: ঠিকই বলেছেন। আসলে জাতিসংঘ টেকনোলজি ব্যাংকের মূল কর্মসূচির নামই হচ্ছে এসটিআই বা সায়েন্স, টেকনোলজি অ্যান্ড ইনোভেশন। আপনি জানেন, বিজ্ঞান গবেষণা প্রযুক্তিগত উদ্ভাবনের প্রধান বিষয়। এ কারণে স্বল্পোন্নত ৪৬টি দেশে বিজ্ঞান গবেষণা, প্রযুক্তির ব্যবহার এবং প্রযুক্তির উপযোগী ব্যবহার নিশ্চিত করতে নতুন উদ্ভাবনের বিষয়টিকে প্রাধান্য দেওয়া হয়েছে। এখানে বিজ্ঞান গবেষণার বিষয়টিকে বহুমাত্রায় ব্যাখ্যা করা যেতে পারে। সেটা টেলিযোগাযোগ, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি প্রযুক্তি, বিশুদ্ধ পানি উৎপাদন ও সরবরাহের প্রযুক্তি নানা রকম হতে পারে। আসলে জীবনের সবক্ষেত্রেই প্রযুক্তির ব্যবহার রয়েছে। প্রযুক্তির সবচেয়ে বড় এবং বিস্ময়কর বিবর্তন হচ্ছে তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহারের বহুমাত্রা। তথ্যপ্রযুক্তি এখন সব প্রযুক্তিকেই প্রভাবিত করছে কিংবা বলা যায় অন্য সব প্রযুক্তির ব্যবহারকে সহজ করে দিয়েছে। এ কারণে তথ্যপ্রযুক্তি উন্নয়ন ও উদ্ভাবনে বিশেষভাবে গুরুত্ব দেয় জাতিসংঘ টেকনোলজি ব্যাংক।

সংবাদকর্মী: স্টার্টআপদের কীভাবে সহায়তা করতে পারে টেকনোলজি ব্যাংক?

জশুয়া সেটিপা: টেকনোলজি ব্যাংক প্রচলিত ব্যাংকের মতো নয়। এটি একদিকে যারা তথ্যপ্রযুক্তিবিষয়ক উদ্ভাবন এবং ব্যবহারিক ও প্রায়োগিক দিক নিয়ে যাত্রা শুরু করেছেন, সেই স্টার্টআপদের প্রশিক্ষণ দেয়, সঠিক পরিকল্পনা প্রণয়নে সহায়তা দেয়। অন্যদিকে, তাদের জন্য তহবিল সংগ্রহে সহায়তাও দেয়। আবার নতুন উদ্ভাবনে গবেষণার ক্ষেত্রেও সার্বিক সহযোগিতা দেয় এই ব্যাংক। আসলে স্টার্টআপদের সহায়তা হচ্ছে জাতিসংঘ টেকনোলজি ব্যাংকের সহযোগিতা ও সহায়তার প্রধান লক্ষ্যের মধ্যে একটি।

সংবাদকর্মী: সফরকালে বাংলাদেশকে কেমন দেখলেন?

জশুয়া সেটিপা: দারুণ। হৃদয় থেকে বলছি, বাংলাদেশ আমার কাছে বিপুল সম্ভাবনার দেশ। বিশেষ করে তথ্যপ্রযুক্তিগত উন্নয়নের ক্ষেত্রে। বিশেষ করে এই দেশের মানুষের তথ্যপ্রযুক্তি আত্তীকরণের ক্ষমতা খুবই চমৎকার। আমি জেনেছি, এখানে তৃণমূল পর্যায় পর্যন্ত মানুষের কাছে স্মার্টফোন পৌঁছে গেছে। ইন্টারনেট ব্যবহার এবং এমএফএস, ই-কমার্সকে সাধারণ মানুষ সাবলীলভাবে ব্যবহার করছে, সেটি সত্যিই প্রশংসনীয়। সরকারি সেবার বড় একটা অংশ ডিজিটাল মাধ্যমে সাধারণ মানুষের কাছে পৌঁছে দেওয়া হচ্ছে। এখানে বেশ কয়েকজন স্টার্টআপ উদ্যোক্তার সঙ্গে কথা হয়েছে। তারা চমৎকার উদ্ভাবনী ক্ষমতাসম্পন্ন। একটা দেশের উন্নয়নের জন্য সবচেয়ে বড় দরকার উদ্ভাবনী চিন্তার মানুষ, বিশেষ করে তরুণ সমাজ। সেই উদ্ভাবনী চিন্তার অসাধারণ তরুণদের দেখা বাংলাদেশে পেয়েছি। অতএব, বাংলাদেশ সামনে খুব দ্রুতগতিতেই অনেক দূর এগিয়ে যাবে, সন্দেহ নেই।

আরও পড়ুন
সাক্ষাৎকার বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
  • করোনাসহ ১২ ধরনের ভ্যাকসিন তৈরি হবে গোপালগঞ্জে

  • শেখ হাসিনা দেশের নারী ক্ষমতায়নের অগ্রদূত: স্পিকার

  • আপাতত পরিবর্তন হচ্ছে না অফিস সময়

  • ধর্ম নিরপেক্ষতা সমুন্নত রাখতে শেখ হাসিনাই ‘একমাত্র ভরসা’

  • করোনায় কমেছে মৃত্যু, শনাক্ত আরো সাড়ে ৩ লাখ

  • ঢাকাসহ ১৫ জেলায় ৬০ কিলোমিটার বেগে ঝড়ের আশঙ্কা 

  • জীবনধারণের সহায়ক সামগ্রী পেলেন ভাসানচরের রোহিঙ্গারা

  • ইউটিউব দেখে ব্ল্যাক কুইন তরমুজ চাষে সফল মোফাজ্জল

  • এক মাছের দাম ২৭ লাখ টাকা!

  • স‌লেমানের সোলার পাম্পে চিন্তামুক্ত হাজা‌রো কৃষ‌ক

  • বিশ্ব পর্যটন দিবস আজ

  • শিশু-কিশোরদের জন্য লার্নিং প্লাটফর্ম ‘হাসিনা অ্যান্ড ফ্রেন্ডস’

  • যুক্তরাষ্ট্রে পোশাক রপ্তানি বেড়েছে প্রায় সাড়ে ৫৪ শতাংশ

  • প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিনে বগুড়া জেলা আ.লীগের আনন্দ র‌্যালী

  • সাফ জয়ী পাহাড়ের ৫ কন্যাকে দেয়া হবে গণসংবর্ধনা

  • শরীয়তপুরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা`র ৭৬তম জন্মদিন উদযাপন

  • ‘শেখ হাসিনা আলোকিত বাংলাদেশ গড়ার কারিগর’

  • শেখ হাসিনা জন্মেছিলেন বলেই গৌরবের ইতিহাস রচনা করেছে বাংলাদেশ

  • ঢাকার উন্মুক্ত বর্জ্য ৩০ শতাংশে নামিয়ে আনা হয়েছে : মেয়র তাপস

  • ‘বিএনপি লাঠির সঙ্গে পতাকা বেধে রাস্তায় নামলে জবাব দেওয়া হবে’ 

  • মালয়েশিয়ার সঙ্গে দ্রুত এফটিএ করতে আগ্রহী বাংলাদেশ: অর্থমন্ত্রী

  • প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ছাত্রনেতা থেকে আজ বিশ্বনেতা: তথ্যমন্ত্রী

  • ‘শিশু-কিশোরদেরকে মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস জানতে হবে’

  • যুক্তরাষ্ট্রে পোশাক রপ্তানি বেড়েছে ৫৪.৪৩ শতাংশ

  • প্রধানমন্ত্রীর ৭৬তম জন্মদিন উদযাপনে ৭৬ হাজার বৃক্ষ রোপণ

  • ‘শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশে মৌলিক অধিকার প্রতিষ্ঠিত হয়েছে’

  • শেখ হাসিনার জন্মবার্ষিকীতে স্মারক ডাকটিকিট ও আলোকচিত্র প্রদর্শনী 

  • ‘জলবায়ুর চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় প্রধানমন্ত্রী বিশ্বে রোল মডেল’

  • ‘গণতান্ত্রিক সমাজ নির্মাণের ভিত মজবুত করবে তথ্য অধিকার’

  • বর্জ্য থেকে বিদ্যুৎ, নারায়ণগঞ্জে হচ্ছে ৬ মেগাওয়াট কেন্দ্র

  • প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিনে পদ্মা সেতু নিয়ে লিখবে শিক্ষার্থীরা

  • অ্যাফিডেভিট ছাড়াই পাসপোর্টের নাম-বয়স সংশোধন

  • শিশু সুরক্ষা বাড়াতে ৬ হাজার সমাজকর্মী নিয়োগ দেবে সরকার

  • যানজট নিরসনে রাজধানীতে নামছে স্কুলবাস

  • ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় সবুজ মাল্টা চাষে বাম্পার ফলন

  • আসছে নতুন চমক :  যমুনায় বঙ্গবন্ধু রেল সেতু

  • সেনাবাহিনীতে যুক্ত হলো নতুন সামরিক বিমান

  • ই-টিকেটিংয়ে সাফল্য ২৫ টাকার ভাড়া নামলো ১৩ টাকায়

  • আলোর মুখ দেখছে পৃথিবীর দীর্ঘতম মেরিনড্রাইভ

  • ভূমি অপরাধ নিয়ন্ত্রণে চালু হচ্ছে ডিজিটাল কেস সিস্টেম

  • পরিত্যক্ত প্লাস্টিক বোতল দিয়ে ‘বোতল বাড়ি’

  • পাহাড়ে উৎপাদিত বিলাতি ধনে পাতার সুনাম সর্বত্র

  • পদ্মা সেতুর তিন মাস ; দক্ষিণাঞ্চলে আমূল পরির্বতন

  • চিনি ও পাম তেলের দাম বেঁধে দিল সরকার 

  • থাইল্যান্ডকে হারিয়ে বিশ্বকাপে বাংলাদেশ

  • অক্টোবরে খুলছে কর্ণফুলী টানেলের একাংশ 

  • রাজধানীর বাসে পরীক্ষামূলক ই-টিকেট চালু

  • সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের বিনা মূল্যে পদ্মা সেতু দেখাবে বিপিসি

  • রোহিঙ্গাদের জন্য ১৭০ মিলিয়ন ডলার দিচ্ছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র 

  • ৬ মাসে ৫ লাখ বাংলাদেশিকে ভিসা দিয়েছে সৌদি দূতাবাস

  • অস্কারে যাচ্ছে ‘হাওয়া’

  • শেখ রাসেল জুনিয়র দাবা প্রতিযোগিতা শুরু

  • ২২ দিনে রেমিট্যান্স এলো ১৩ হাজার কোটি টাকা

  • চট্টগ্রামে বীরকন্যা প্রীতিলতার নামে সড়কের নামকরণ

  • চট্টগ্রাম বন্দরের রাজস্ব আয় ৩৫৮৫ কোটি টাকা

  • বিএডিসির বীজআলু উৎপাদনের খামারে এবার আউশ ধান

  • ‘বীরদর্পে দেশকে এগিয়ে নিচ্ছেন শেখ হাসিনা’

  • পাটের আঁশ ছাড়িয়ে ৩৬ হাজার নারীর বাড়তি আয় 

  • বরেন্দ্র এলাকায় সেচ দিতে ২৫০ কোটি টাকার প্রকল্প

  • নারীদের হাতের তৈরি দড়ির পণ্য যাচ্ছে বিভিন্ন দেশে