মঙ্গলবার   ১৮ মে ২০২১

সর্বশেষ:
সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোর বার্ষিক ছুটি ৭৫ দিন আগামী মার্চে ঢাকা উত্তর সিটির ভোটের ইঙ্গিত সিইসির আস্থা ভোটে টিকে গেলেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় পরিদর্শনে প্রধানমন্ত্রী রাষ্ট্রপতির সঙ্গে নেপালের বিদায়ী রাষ্ট্রদূতের সাক্ষাৎ সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন করতে ইসি প্রতিজ্ঞাবদ্ধ: নূরুল হুদা বারবার আসতে পারব না, যত খুশি সাজা দিন: খালেদা জিয়া ‘আকাশবীণার’ উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী ত্রিভুবনে আবারও বিমান দুর্ঘটনা ট্রেন-বাসের সংঘর্ষে নিহত ২, আহত ২৫ ভুয়া ছবি দিয়ে অপপ্রচার চালাচ্ছে মিয়ানমার: প্রধানমন্ত্রী
১১৭

২৫ হাজার বছর ধরে বিশ্বে টিকে রয়েছে করোনা

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ২৭ এপ্রিল ২০২১  

মহামারি করোনাভাইরাসের তাণ্ডবে বিপর্যস্ত গোটা বিশ্ব। ২০১৯ সালের ডিসেম্বরে চীনের হুবেই প্রদেশের উহানে এই প্রাণঘাতি ভাইরাস প্রথম শনাক্ত করা হয়। এরপর ধীরে ধীরে বিশ্বের প্রায় সব দেশে ছড়িয়ে পড়েছে এর সংক্রমণ।

তবে এবার নতুন এক গবেষণায় জানা গেছে, করোনাভাইরাস নতুন কিছু নয়, এটা অনেক পুরোনো ভাইরাস, যা ২৫ হাজার বছর আগে থেকে মানুষকে ভোগাচ্ছে। আরও জানা গেছে, এই ভাইরাস সেসময়ে পূর্ব এশিয়ায় বিপর্যয় তৈরি করেছিল।

গবেষণাটি করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের অ্যারিজোনা বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী অধ্যাপক ডেভিড এন্নার্ড। তিনি বলেছেন, এটা এমন একটা ভাইরা যা মানুষকে অসুস্থ ও মৃত্যুর দিকে নিয়ে যায়।

ডেভিড এন্নার্ড বলেছেন, মানুষের মতো ভাইরাসগুলোও তাদের নতুন জিনোমের মাধ্যমে প্রজন্মকে এগিয়ে নিয়ে চলেছে। শুধু ভাইরাস নয়, এই প্রক্রিয়াটি হলো সব ধরনের প্যাথোজেনের সঙ্গে চলে। অর্থাৎ, প্রত্যেক প্রকারের জীবাণু তাদের প্রজন্মে নিয়মিত পরিবর্তিত হয়, যাতে তারাও প্রকৃতিতে বাঁচতে পারে। প্রারম্ভিক পরিবর্তনগুলোকে ‘মিউটেশন’ এবং দেরি করা পরিবর্তনগুলোকে বলা হয় ‘বিবর্তন’।

তিনি আরও বলেছেন, তার টিম প্রাচীন করোনাভাইরাস শনাক্ত করতে বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তের ২৬ জনগোষ্ঠীর ২ হাজার ৫০৪ জনের জিনোম পরীক্ষা করেছিল। তাতে দেখা গেছে, করোনাভাইরাসের মতো রোগজীবাণু মানুষের ডিএনএন-এর প্রকৃতি নির্বাচন করে প্রজন্ম থেকে প্রজন্মতে অগ্রসর হয়েছিল। গবেষণাটি ভবিষ্যতে কী ধরনের ভাইরাস আসতে পারে তা সহায়তা করবে। অথবা কোন ধরনের লোককে সংক্রামিত করবে তা জানাতে সহায়তা করবে।

অধ্যাপক ডেভিড এন্নার্ডের বই ‘বাইওরিভ’ প্রকাশিত হয়েছে। তবে এর পর্যালোচনা করা হয়নি। বিজ্ঞান জার্নালে প্রকাশের জন্য একটা পর্যালোচনা করা হচ্ছে।

করোনাভাইরাস কোষগুলোর মাধ্যমে মানবদেহে প্রবেশ করে। এটা কোষকে হাইজ্যাক করে। এরপর এটা নিজের মধ্যে ভেঙে ভাইরাস তৈরি করে। এর অর্থ হলো, করোনার ভাইরাস একবারে মানবদেহে হাজার হাজার প্রোটিনের সংস্পর্শে আসে।

বিজ্ঞানীরা যখন এটা গবেষণা করেছিলেন, তখন দেখা গিয়েছিল, করোনাভাইরাস মানবদেহে ৪২০ প্রোটিনের সাথে যোগাযোগ করে। এর মধ্যে ৩৩২টি প্রোটিন সরাসরি করোনাভাইরাসের সঙ্গে যোগাযোগ করে। ঠিক যখন দেহের প্রোটিনগুলো ভাইরাসের সাথে যোগাযোগ শুরু করে, তখনই বুঝতে হবে কেউ করোনার সংক্রমিত হতে চলেছেন। দেহে উপস্থিত এই ৩৩২টি প্রোটিন মানবদেহের ভাইরাসকে ভেঙে ফেলার এবং একটি নতুন ভাইরাস তৈরি করতে সহায়তা করে।

গবেষণায় এই ধরনের জিনগুলো পূর্ব এশিয়ার মানুষের জিনে পাওয়া গেছে, যারা প্রাচীনকালে করোনাভাইরাসের সংস্পর্শে ছিলেন। এর প্রমাণ এখনও তাদের শরীরে বিদ্যমান।

বিশ্বে এমন অনেক করোনাভাইরাস রয়েছে, যাদের প্রজন্মের পর প্রজন্ম কেটে গেছে এবং মানুষকে অসুস্থ করেছে। তাদের মধ্যে ঘটে যাওয়া মিউটেশনগুলো পূর্ব এশিয়ার মানুষের প্রতিরোধ ক্ষমতা জোরদার করেছিল। কারণ তারা প্রায়শই করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হন। করোনার বিরুদ্ধে অ্যান্টিবডিগুলো তাদের দেহে তৈরি হতে থাকে।

ডেভিড এন্নার্ডের গবেষক দল দেখেছে, কোনো ব্যক্তি করোনাভাইরাসের সংস্পর্শে আসলে তার শরীরে ৪২০ প্রোটিনের ৪২ রকমের কোড তৈরি হয়। কোডগুলো ২৫ হাজার বছর থেকে ৫ হাজার বছর আগে রূপান্তর ও বিবর্তিত হয়েছে। অর্থাৎ, প্রাচীন করোনাভাইরাস প্রতি শতাব্দীতে মানুষকে হয়রানি করে চলেছে। এর সর্বাধিক প্রভাব দেখা গেছে পূর্ব এশিয়ায়।

ক্যালিফোর্নিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের মেডিসিন বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক জোয়েল ওয়ার্টহাইম বলেছিলেন, এই গবেষণা থেকে একটি বিষয় স্পষ্ট হয়েছে যে, হাজার বছর ধরে করোনভাইরাস মানুষের ওপর হামলা চালিয়েছে। তবে আশ্চর্যের বিষয়, মানবদেহ এত হাজার বছর পরও করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াইয়ের কোনো উপায় খুঁজে পায়নি। কারণ করোনাভাইরাস অবিচ্ছিন্নভাবে পরিবর্তিত হয়। সে নিজেকে পরিবর্তন করে মানুষকে হয়রানি করে প্রতিনিয়ত।

ডেভিড এন্নার্ড বলেছেন, প্রাচীনকালে মানুষের মধ্যে করোনভাইরাস সংক্রমণ ছিল না। অন্য ধরনের ভাইরাস রয়েছে। অন্য ধরনের ভাইরাস মানুষের সঙ্গে যোগাযোগ করেছে। অন্য একটি বৈজ্ঞানিক দলও জানিয়েছিল, ২৩ হাজার ৫০০ বছর আগে করোনাজাতীয় ভাইরাস ছড়িয়ে পড়েছিল। এই ভাইরাসের নাম সারবেকোভাইরাস (Sarbecoviruses)। এটা করোনা ও এর ভাইরাসগুলোর পুরো পরিবার। একই সঙ্গে, জেনেটিক কোডগুলো যা এই ভাইরাসের সঙ্গে যোগাযোগ করে, তা মানবদেহেও দেখা যায়।

ডেভিড এন্নার্ড বলেছেন, পুরোনো করোনাভাইরাসের মাধ্যমে আমরা আধুনিক ভাইরাসের চিকিৎসা করতে পারি, এমন কোনো গবেষণা বা ব্যবস্থা তৈরি করা হয়নি।

তবে, ডেভিড ও তার দল এখনও প্রাচীন করোনাভাইরাস নিয়ে গবেষণা করছেন। তারা এই জাতীয় জিনোম নিয়ে গবেষণা করে ভবিষ্যতের মহামারি সম্পর্কে ধারণা করতে চাইছেন।

নতুন মহামারিটি কখন আসবে এবং কতজন মানুষ এতে সংক্রমিত হতে পারে, সে সম্পর্কেও তথ্য থাকতে পারে। যদি সত্যিই করোন বা তার পরিবারের সঙ্গে সম্পর্কিত অন্য কোনো ভাইরাস প্রাচীন যুগে মহামারি ছড়িয়ে থাকে, তাহলে এটা ভবিষ্যতে মানুষকে বাঁচাতে সহায়তা করতে পারবে বলে আশা করা যায়।

সূত্র: লাইভ সায়েন্স ডটকম

আরও পড়ুন
আন্তর্জাতিক বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
  • ডিএসইর লেনদেন ১৫০০ কোটি টাকা ছাড়ালো

  • শেখ হাসিনা বাংলাদেশের জন্য অপরিহার্য: নাছিম

  • দূরপাল্লার যানবাহন চালুর বিষয়ে সিদ্ধান্ত সপ্তাহখানেক পর

  • দূরপাল্লার যানবাহন বন্ধ রাখতে স্বাস্থ্যমন্ত্রীর প্রস্তাব

  • চারদিন পর আখাউড়া স্থলবন্দরে রপ্তানি শুরু

  • বঙ্গবন্ধুর নামে পিরোজপুরে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়

  • শিক্ষার্থীদের ভ্যাকসিন নিশ্চিতের পর খুলবে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান

  • চার দশক ধরে আ.লীগের সফল নেতৃত্বে শেখ হাসিনা

  • পারমাণবিক বোমা ছাড়া সব সূচকে পাকিস্তানের চেয়ে এগিয়ে বাংলাদেশ

  • সাগরে বসেই অনলাইনে মাছ বিক্রি করছেন জেলেরা

  • রাজনীতির সীমানা পেরিয়ে শেখ হাসিনা কালজয়ী রাষ্ট্রনায়ক

  • ফেরিতে গাদাগাদি, হিমশিমে বিআইডব্লিউটিসি

  • দেশে চীনের ‘সিনোফার্ম’ টিকা উৎপাদনে কাউকে অনুমতি দেয়া হয়নি

  • শেখ হাসিনা ফেরায় দেশের অগ্রযাত্রা হয়েছে

  • ইসরায়েলের নৃশংসতা অতীতের সকল বর্বরতাকে ছাড়িয়ে গেছে: তথ্যমন্ত্রী

  • শেখ হাসিনার প্রতি বাংলার জনগণের অসীম আস্থা

  • ফিলিস্তিন ইস্যু সমাধানে নিরাপত্তা পরিষদের প্রতি বাংলাদেশের আহ্বান

  • ঈদের পর প্রথম কার্যদিবসে ঊর্ধ্বমুখী শেয়ারবাজার

  • চট্টগ্রাম বিভাগে করোনায় ক্ষতিগ্রস্তদের মাঝে ত্রাণ বিতরণ অব্যাহত

  • ঈদ শেষে রাজধানীতে ফিরছে কর্মমুখী মানুষ

  • লিফট সম্বলিত পাঁচটি ফুটওভার ব্রিজ নির্মিত হবে: মেয়র আতিক

  • খুলনা বিভাগে সরকারি ত্রাণ ও আর্থিক সহায়তা পেল ৯ লাখ পরিবার

  • খাদ্য উৎপাদন বৃদ্ধি করতে সংশ্লিষ্টদের আহ্বান কৃষিমন্ত্রীর

  • শেখ হাসিনার ৪০তম স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস আজ

  • ব্যান্ডউইথ রপ্তানিতে সৌদির সাথে সাবমেরিন ক্যাবল কোম্পানির চুক্তি

  • ‘শেখ হাসিনার হাত ধরেই বদলে যাওয়া বাংলাদেশের অগ্রযাত্রা’

  • শেখ হাসিনার আগমন সমৃদ্ধ বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠায় তাৎপর্যপূর্ণ

  • ফিলিস্তিনে বঙ্গবন্ধুর নামে রোড, শেখ হাসিনার নামে বাড়ি

  • স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস: শেখ হাসিনার সফল নেতৃত্বে আওয়ামী লীগ

  • বিজ্ঞান চর্চার নিরন্তর সাধক

  • করোনা সংকট জয় করে দেশ উন্নয়নের পথে এগিয়ে যাবে

  • স্বাস্থ্যবিধি মেনে ঈদের পাঁচ জামাত বায়তুল মোকাররমে  

  • লকডাউন আরো সাতদিন বাড়ছে

  • ঈদ কবে, জানা যাবে বুধবার

  • হাওর অঞ্চলে বোরো উৎপাদনে ঝুঁকি কমাবে বিনাধান

  • বুধবারও খোলা থাকবে সরকারি অফিস

  • এসপির ঈদ উপহার-খাবার পেয়ে কাঁদলেন সেই বৃদ্ধা

  • রাশিয়া থেকে আসবে এক কোটি ডোজ ভ্যাকসিন

  • ঢাকায় পৌঁছাল চীনের উপহারের পাঁচ লাখ টিকা

  • চাঁদ দেখা যায়নি, সৌদি আরবে ঈদ বৃহস্পতিবার

  • ঈদে ছুটি নেননি পদ্মাসেতু প্রকল্পের প্রকৌশলী-শ্রমিকরা

  • চীন থেকে আরও ডোজ আনার চেষ্টা চলছে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

  • হাওরের শতভাগ বোরো ধান কাটা শেষ: কৃষিমন্ত্রী

  • চীনা রাষ্ট্রদূত আগ বাড়িয়ে কথা বলেছেন: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

  • আল-আকসা মসজিদে হামলায় প্রধানমন্ত্রীর নিন্দা

  • দুধের ভালো দামে চওড়া হাসি খামারিদের মুখে

  • লকডাউন আরো সাতদিন বাড়তে পারে: জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী

  • দূরপাল্লার বাস চলাচল নিয়ে যা বললেন জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী

  • তিস্তায়ও আগ্রহী চীন

  • ব্রডব্যান্ড সংযোগের আওতায় আসছে সাড়ে ৪ হাজার ইউনিয়ন পরিষদ

  •  ‘যে কোনো দুর্যোগকে আ. লীগ সব সময় মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছে’

  • করোনা সংকট মোকাবেলায় সরকারের অক্সিজেন প্রস্তুতি

  • জাতীয় সংসদের বাজেট অধিবেশন ২ জুন

  • কনস্টেবলকে সততার পুরস্কার দিলেন এসপি

  • মুঠোফোনে প্রধানমন্ত্রীর ঈদ শুভেচ্ছা

  • স্বপ্নের মেট্রো রেলের সফল পরীক্ষা যাত্রা

  • ঈদের আগে বিকাশ-নগদে ঘণ্টায় ২০০ কোটি টাকার লেনদেন

  • বৃহস্পতিবার থেকে ঈদের ছুটি শুরু, বুধবার শেষ কর্মদিবস

  • বিশ্বের যেকোনো প্রান্ত থেকে এখন বিটিভি দেখা যাবে অ্যাপে

  • লকডাউনে বিচারিক ক্ষমতা পাচ্ছে পুলিশ