বৃহস্পতিবার   ২৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৪

সর্বশেষ:
আরও ১০৮ শহীদ বুদ্ধিজীবীর তালিকা প্রকাশ সরকারি চাকরিতে লাখ লাখ পদ খালি, নিয়োগের উদ্যোগ বিশ্ব বাণিজ্য সংস্থার বৈঠক : সুবিধা পেতে সর্বোচ্চ জোর এলাকার উন্নয়নে প্রত্যেক সংসদ সদস্যরা পাবেন ২০ কোটি টাকা শিগগির চালু হবে বিরল স্থলবন্দর ১২ সিটির বর্জ্য রিসাইকেলের উদ্যোগ বিশ্ব নেতাদের নজর কেড়েছে শেখ হাসিনার ৬ প্রস্তাব
১৯৫

১৩ বছরে চট্টগ্রামকে ঘিরে সরকারের যত উন্নয়ন

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ৫ ডিসেম্বর ২০২২  

অনেক টানাপড়েন, চড়াই উৎরাই পেরিয়ে টানা ১৩ বছরের আওয়ামী লীগ সরকার। ‘ডিজিটাল বাংলাদেশ’ গড়ার ঘোষণা দিয়ে ২০০৯ সালের যাত্রা শুরু করে আওয়ামী লীগের নেতৃত্বাধীন সরকার।

এরপর টানা তৃতীয়বারের মতো ক্ষমতায়। এক যুগের বেশি সময় ক্ষমতায় থেকে দেশকে আধুনিক ও বিজ্ঞানভিত্তিক দেশে পরিণত করেছে সরকার। এরমধ্যে চট্টগ্রামেও হয়েছে উন্নয়ন। ছোট বড় অনেক প্রকল্প বাস্তাবায়ন দেখেছে বন্দর নগরীর মানুষ। এর মধ্যে রয়েছে ৮টি মেগা প্রকল্প। ২০০৮ সালের জাতীয় সংসদ নির্বাচনের ইশতেহারে চট্টগ্রামকে প্রকৃত অর্থে বাণিজ্যিক রাজধানী হিসেবে গড়ে তোলার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। জয়ের পর বিভিন্ন মেগা প্রকল্প গ্রহণ করে রেখেছেন সেই প্রতিশ্রুতি।

এসব প্রকল্পের মধ্যে রয়েছে বঙ্গবন্ধু শিল্পনগর, বঙ্গবন্ধু টানেল, কোরিয়ান ইপিজেড, চায়না ইকোনমিক জোন, মহেশখালী এলএনজি টার্মিনাল ও গভীর সমুদ্রবন্দর, চট্টগ্রাম-কক্সবাজার রেললাইন প্রকল্প, কক্সবাজার বিমানবন্দরকে আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে উন্নীতকরণ প্রকল্প, চট্টগ্রাম-কক্সবাজার সড়কপথ চার লেনে উন্নীতকরণ প্রকল্প, চট্টগ্রাম শহরের লালখান বাজার থেকে বিমানবন্দর পর্যন্ত দীর্ঘ ফ্লাইওভার এবং চট্টগ্রাম বন্দর বে-টার্মিনাল প্রকল্প।

বঙ্গবন্ধু শিল্পনগর:
চট্টগ্রামের মিরসরাইয়ে প্রায় ৭ হাজার একর এলাকায় গড়ে তোলা হয়েছে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব শিল্প নগর। যা দেশের বৃহত্তম ইকোনোমিক জোন। প্রায় ২২ বিলিয়ন মার্কিন ডলার বিনিয়োগ প্রস্তাব গৃহীত হয়েছে এই ইকোনমিক জোনে। বিনিয়োগকারী রয়েছেন ১৩৩ জন। নির্মাণাধীন রয়েছে ১৫টি প্রতিষ্ঠান। ধারণা করা হচ্ছে, এ শিল্প নগরে ১৫ লাখ মানুষের কর্মসংস্থান সৃষ্টি হবে। প্রতিবছর প্রায় ২৫ বিলিয়ন ডলার মূল্যমানের পণ্য রপ্তানি হবে এ ইকোনোমিক জোন থেকে।

কর্ণফুলী বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান টানেল:
আওয়ামী লীগ সরকারের প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী কর্ণফুলী নদীর তলদেশে নির্মিত হয়েছে উপমহাদেশের প্রথম টানেল। মূল টানেলের দৈর্ঘ্য ৩ দশমিক ৩২ কিলোমিটার, যার সঙ্গে আনোয়ারা ও পতেঙ্গা প্রান্তে আরও ৫ দশমিক ৩৫ কিলোমিটার সংযোগ সড়কের কাজ চলমান রয়েছে। সরকারের নিজস্ব অর্থায়ন ও চীনের এক্সিম ব্যাংকের সহযোগিতায় প্রায় ১০ হাজার ৩৭৪ কোটি টাকা ব্যয়ে এই প্রকল্প বাস্তবায়িত হচ্ছে। কর্ণফুলী টানেল বন্দর নগরীর দক্ষিণাঞ্চলকে যেমন একটি ব্যবসায়িক কেন্দ্রে পরিণত করবে, তেমনি ঢাকা ও চট্টগ্রামের মধ্যে কমাবে দূরত্ব ।

চট্টগ্রাম বন্দর:
বিশ্ব নৌ-বানিজ্যের সঙ্গে সংগতি রেখে চট্টগ্রাম বন্দরের উন্নয়নে ৮৯৫ কোটি টাকা ব্যয়ে ৩০ বছর মেয়াদি একটি প্রকল্প প্রণয়ণ করেছে সরকার। বন্দরের ক্যাপাসিটি বৃদ্ধিসহ সার্বিক দক্ষতা বৃদ্ধির লক্ষে ১১ হাজার ৮৯০ কোটি ৩৬৩ লাখ টাকা ব্যয়ে চিটাগাং পোর্ট ট্রেড ফ্যাসিলিটেশন প্রজেক্ট সম্পন্ন করা হয়েছে। বন্দরের জন্য আরও ৪ হাজার ৬১৯ লাখ টাকা ব্যয়ে ভেসেল ট্রাফিক ম্যানেজমেন্ট ইনফরমেশান সিস্টেম স্থাপন করা হয়েছে।

বে-টার্মিনাল:
জোয়ারের সময় শুধুমাত্র ৮ থেকে ৯ মিটার ড্রাফটের জাহাজ ভিড়তে পারে চট্টগ্রাম বন্দরে। এতে বছরে ৩০ লাখ কনটেইনার হ্যান্ডলিং করা সম্ভব হয়। বন্দরের চেয়ে ৫-৬ গুণ বড় বে-টার্মিনাল প্রকল্প বাস্তবায়নের মাধ্যমে ২৪ ঘণ্টায় ১৪ মিটার ড্রাফটের জাহাজ ভিড়তে পারবে এবং বছরে ৪৫ লাখ কন্টেইনার হ্যান্ডলিং করা যাবে। এর মাধ্যমে বছরে ৪০০ কোটি রাজস্ব আদায় করা সম্ভব।

চট্টগ্রাম-কক্সবাজার রেললাইন প্রকল্প:
আওয়ামী লীগ সরকারের আমলে চট্টগ্রামের দোহাজারী-কক্সবাজার পর্যন্ত ১০০ কিলোমিটার রেললাইন নির্মাণের কাজ এগিয়ে চলছে।

বিশ্বের দীর্ঘতম মেরিন ড্রাইভ:
চট্টগ্রামের কালুরঘাট থেকে কর্ণফুলী নদীর তীর ঘেঁষে শাহ আমানত সেতু পর্যন্ত চার লেনের একটি মেরিন ড্রাইভ বাস্তবায়নাধীন রয়েছে। এবার বৃহত্তর চট্টগ্রামে ২৫০ কিলোমিটার দীর্ঘ বিশ্বের দীর্ঘতম মেরিন ড্রাইভ নির্মাণ করতে যাচ্ছে সরকার। চট্টগ্রামের মীরসরাই থেকে কক্সবাজারের টেকনাফ পর্যন্ত প্রায় আড়াইশ কিলোমিটার দীর্ঘ এই মেরিন ড্রাইভ নির্মাণ প্রকল্প শীঘ্র শুরু হচ্ছে।

এলিডেটেড এক্সপ্রেসওয়ে ও মেট্রোরেল:
লালখান বাজার থেকে পতেঙ্গা পর্যন্ত ১৬ দশমিক ৫ কিলোমিটার দীর্ঘ এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ের কাজ চলমান রয়েছে। এছাড়াও নগরের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ জায়গায় নির্মিত হয়েছে দৃষ্টিনন্দন ফ্লাইওভার। চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন এলাকায় ৫৪ কিলোমিটার দীর্ঘ তিনটি মেট্রোরেল নির্মাণ করা হবে।

ওয়াসার স্যুয়ারেজ ও পানি শোধনাগার প্রকল্প:
চট্টগ্রামের নদীগুলো রক্ষায় প্রত্যেক শিল্প কারখানায় অবশ্যই সঠিক বর্জ্য ব্যবস্থাপনা গড়ে তোলে নদী দূষণমুক্ত রাখতে সরকার কাজ করছে। রাঙ্গুনিয়ার পোমরা এলাকায় স্থাপিত ওয়াসার ‘শেখ হাসিনা পানি শোধনাগার-২’ প্রকল্পে কর্ণফুলী নদীর পানি পরিশোধন করে দিনে ১৪ কোটি ৩০ লাখ লিটার সুপেয় পানি সরবরাহ করার সক্ষমতা রয়েছে। চট্টগ্রাম নগরীর হালিশহরে ১৬৫ একর জায়গায় ৩ হাজার ৮০০ কোটি টাকা ব্যয়ে চাট্টগ্রাম ওয়াসার স্যুয়ারেজ প্রকল্প চালু হচ্ছে। অপরদিকে কর্ণফুলীর তীরে বোয়ালখালীতে দিনে ৬ কোটি লিটার ধারণক্ষমতার ভান্ডালজুড়ি পানি শোধনাগার প্রকল্পের কাজ শেষ হবে।

জলাবদ্ধতা নিরসন প্রকল্প :
চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (চউক) ৫ হাজার ৬১৬ কোটি ব্যয়ে জলাবদ্ধতা নিরসন প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হচ্ছে। ২০১৭ সালের শুরু করা এ প্রকল্পের পুরো কাজ শেষ হলে নগরীর জলাবদ্ধতা নিরসন হবে। এছাড়া নগরীকে জলাবদ্ধতামুক্ত করতে পানি উন্নয়ন বোর্ড ৩ হাজার ৫০০ কোটি টাকার কাজ শুরু করছে।

কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক ও প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ সহকারী ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া বলেন, উন্নয়নের মাধ্যমে মানুষের সেবা করার ব্রত নিয়ে কাজ করছে আওয়ামী লীগ সরকার। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা চট্টগ্রামের উন্নয়নের জন্য বদ্ধ পরিকর। গত ১৩ বছরে চট্টগ্রামে প্রতি সেক্টেরে উন্নয়ন করেছেন। চট্টগ্রামে বড় বড় প্রকল্প নেওয়া হয়েছে এবং সেইগুলো ব্যস্তবায়ন করা হয়েছে। চট্টগ্রামের মানুষ উন্নয়নের সুফল পাচ্ছে।

মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেন, চট্টগ্রামের সার্বিক উন্নয়নে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সব সময় গুরুত্ব দিয়ে এসেছেন। ফলে চট্টগ্রামে এতগুলো মেগাপ্রকল্পের কাজ হয়েছে, হচ্ছে। এগুলো বাস্তবায়ন হলে চট্টগ্রামের চিত্র পাল্টে যাবে। যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়ন, কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টিসহ সব ধরনের উন্নয়নের কথা আগামীকাল ভাষণে প্রধানমন্ত্রী তুলে ধরবেন।

আরও পড়ুন
বাংলার উন্নয়ন বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
  • ‘হাফ মুন’ সিনেমার প্রথম দর্শনে নজর কাড়লেন সাজ্জাদ

  • সৌদিতে একদিনে ৭ জনের শিরশ্ছেদ

  • মহাসড়কে পড়ে ছিল আওয়ামী লীগ নেতার রক্তাক্ত মরদেহ

  • কোনো কেন্দ্রে অনিয়ম হলে ওই কেন্দ্রের ভোটগ্রহণ বন্ধ : ইসি আলমগীর

  • বাইডেন নয়, প্রার্থী হিসেবে মিশেল ওবামাকে চান বেশিরভাগ ডেমোক্রেট

  • পুলিশের হাতে মাদক দেখলেই চাকরি থাকবে না : আইজিপি

  • রমজানে সরকারি অফিস ৯টা থেকে সাড়ে ৩টা

  • রমজানে দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণে পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে : প্রধানমন্ত্রী

  • শপথ নিলেন আওয়ামী লীগের সংরক্ষিত আসনের সংসদ সদস্যরা

  • সাধারণ মানুষ এখনো থানায় যেতে ভয় পায় : রাষ্ট্রপতি

  • একটি গোষ্ঠী নারীসমাজকে বিপথে নিতে চায় : নানক

  • ‘নির্বাচনের পর ষড়যন্ত্রকারীদের মুখ ফ্যাকাসে হয়ে গেছে’

  • ‘নিত্যপণ্যের দাম নিয়ে গুজবে কান দেবেন না’

  • ‘দক্ষিণ সিটিতে ২২১ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে হবে নতুন ভবন’

  • সরকারিভাবে বড় ইফতার পার্টি না করার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

  • ‘মজুতের বিধান সংশোধনে বাজারে ধানের সরবরাহ স্বাভাবিক রয়েছে’

  • ডেপুটি গভর্নর হচ্ছেন খুরশীদ আলম ও হাবিবুর রহমান

  • এবার আইজিপি ব্যাজ পেলেন ৪৮৮ পুলিশ সদস্য

  • পাঁচ দফা দাবিতে সিলেটে পরিবহন ধর্মঘট

  • স্বস্তি দেওয়ার মানসিকতা থেকে কাজ করতে হবে : ভূমিমন্ত্রী

  • সরকারিভাবে বড় ইফতার পার্টি আয়োজন না করার নির্দেশ

  • ‘রমজানে নতুন অফিস সময়সূচি নির্ধারণ করেছে সরকার’

  • জিমেইলের বিকল্প এক্সমেইল আনছে ইলন মাস্ক

  • জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে স্নাতকে ভর্তির আবেদন শেষ হচ্ছে আজ

  • মডেল মৌকে আত্মসমর্পণের নির্দেশ হাইকোর্টের

  • জাতিসংঘে দেওয়া প্রধানমন্ত্রীর ভাষণের বইয়ের মোড়ক উন্মোচন

  • ‘ন্যায্য লাভ’ করার অনুরোধ এফবিসিসিআই সভাপতির

  • ‘২২১টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে নতুন ভবন নির্মাণ করা হবে’

  • পুলিশ সদস্যদের মাদক সংশ্লিষ্টতার বিষয়ে কঠোর হুঁশিয়ারি আইজিপির

  • জনগণের সেবা করুন, সন্ত্রাস দমন করুন : প্রধানমন্ত্রী

  • গৌরবের অমর একুশে আজ

  • জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলায় পর্যাপ্ত অর্থ দেবে জাতিসংঘ

  • ভারত সীমান্তে চালু হচ্ছে আরেকটি স্থলবন্দর

  • ইরানে কুরআন প্রতিযোগিতায় চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশি কিশোর

  • ‘হঠাৎ টাকা হয়ে গেলে মানুষ ভাবে ইংরেজিতে কথা বলা স্মার্টনেস’

  • একটা বিজাতীয় ভাষা আমাদের ওপর চাপিয়ে দেওয়ার চেষ্টা হয়

  • ‘বাংলাকে জাতিসংঘের দাপ্তরিক ভাষা করাই এখন লক্ষ্য’

  • প্রথম প্রহরে ভাষা শহীদদের প্রতি রাষ্ট্রপতি-প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা

  • ‘রমজান মাসে দ্রব্যমূল্য সহনীয় পর্যায়ে রাখতে পদক্ষেপ নেবে সরকার’

  • দুই সপ্তাহে রিজার্ভ আবারো ২০ বিলিয়ন ডলার ছাড়াল

  • এপ্রিলেই শেষ হবে শাহজালাল বিমানবন্দরের তৃতীয় টার্মিনাল কাজ

  • বাংলাদেশ ও ঘানা ব্যবসা-বাণিজ্য বাড়াতে সম্মত

  • শেখ হাসিনার ইউরোপ জয়

  • চালের বস্তায় যেসব তথ্য দেওয়া বাধ্যতামূলক করল সরকার 

  • বেসরকারি হাসপাতাল-ক্লিনিককে মানতে হবে ১০ নির্দেশনা

  • ২৬৩ জন সাংবাদিকের জন্য ২ কোটি ৩ লাখ টাকা অনুমোদন

  • ‘এক সময় একবেলা খাওয়ার আশা করতো, এখন মানুষ ৪ বেলা খায়’

  • রাজধানীতে ৬ কোটি টাকার খাস জমি উদ্ধার

  • ভারত সীমান্তে চালু হচ্ছে আরেকটি স্থলবন্দর

  • রিজার্ভ ফের ছাড়াল ২০ বিলিয়ন ডলার

  • যাদের পুনর্বাসন করে দিয়েছি, খোঁজখবর নিয়েন : প্রধানমন্ত্রী

  • মাতৃভাষার পাশাপাশি অন্য ভাষাও শিখতে হবে: প্রধানমন্ত্রী

  • সুখবর দিলেন মেহজাবিন

  • দই বিক্রেতা জিয়াউল হকের স্বপ্ন পূরণের ঘোষণা প্রধানমন্ত্রীর

  • ‘দক্ষতা ও যোগ্যতা না থাকলে শুধুমাত্র গ্র্যাজুয়েশন দিয়ে লাভ নেই’

  • রমজানে দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণসহ প্রধানমন্ত্রীর ১৫ নির্দেশনা

  • ভূমির অপরিকল্পিত ব্যবহার বন্ধে আইন হচ্ছে

  • বাংলাদেশে বৈশ্বিক গণমাধ্যম তৈরিতে সহযোগিতা করবে কাতার

  • ‘পুলিশ জনগণের বন্ধু, এটা প্রতিষ্ঠিত হওয়া একান্ত দরকার’

  • নারী উদ্যোক্তা তৈরির ‘উদ্যোক্তা’ ফাহমিদা নিজাম