শনিবার   ০৩ ডিসেম্বর ২০২২

সর্বশেষ:
সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোর বার্ষিক ছুটি ৭৫ দিন আগামী মার্চে ঢাকা উত্তর সিটির ভোটের ইঙ্গিত সিইসির আস্থা ভোটে টিকে গেলেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় পরিদর্শনে প্রধানমন্ত্রী রাষ্ট্রপতির সঙ্গে নেপালের বিদায়ী রাষ্ট্রদূতের সাক্ষাৎ সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন করতে ইসি প্রতিজ্ঞাবদ্ধ: নূরুল হুদা বারবার আসতে পারব না, যত খুশি সাজা দিন: খালেদা জিয়া ‘আকাশবীণার’ উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী ত্রিভুবনে আবারও বিমান দুর্ঘটনা ট্রেন-বাসের সংঘর্ষে নিহত ২, আহত ২৫ ভুয়া ছবি দিয়ে অপপ্রচার চালাচ্ছে মিয়ানমার: প্রধানমন্ত্রী
৯০

স্তন ক্যান্সারের চিকিৎসা দেশেই সম্ভব

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ২৫ অক্টোবর ২০২২  

স্তন ক্যান্সার নারীদের কাছে আতঙ্কের বিষয়। পুরুষের চেয়ে নারীদের স্তন ক্যান্সার আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকিও বেশি। অনেক নারী নিজের স্বাস্থ্য সম্পর্কে উদাসীন থাকেন। আবার সহজে কারও কাছে বলতে দ্বিধা বোধ করেন। ফলে তারা স্তন ক্যান্সারের মতো জটিল রোগে আক্রান্ত হয়। অক্টোবর মাস স্তন ক্যান্সার সচেতনতার মাস। এ মাসে বিভিন্ন গণমাধ্যমে স্বাস্থ্যসেবা দিয়ে সচেতন করে তোলা সবারই উচিৎ।

স্তন ক্যান্সার কি
স্তন ক্যান্সার হলো কোষের অপরিণত বৃদ্ধি। স্তন কোষের অনিয়মিত বিভাজনের ফলে এটি টিউমার বা পি-ে পরিণত হয়। রক্তনালীর লাসিকার মাধ্যমে শরীরের বিভিন্ন জায়গায় ছড়িয়ে পড়ে।

কেন হয়
অনেকগুলো কারণে স্তন ক্যান্সার হতে পারে। অতিরিক্ত ওজনও স্তন ক্যান্সারের ঝুঁকি বাড়ায়। দেরিতে সন্তান গ্রহণ, সন্তান না থাকা, কিংবা সন্তানকে বুকের দুধ না খাওয়ানো, খাদ্যাভ্যাসে শাকসবজি বা ফলমূলের চাইতে চর্বি ও প্রাণীজ আমিষ বেশি থাকলে এবং প্রসেসড ফুড বেশি খেলে স্তন ক্যান্সারের আশঙ্কা বাড়ে। দীর্ঘদিন ধরে জন্ম নিয়ন্ত্রণ পিল খাওয়া বা হরমোনের ইনজেকশন নেয়া, স্তন ক্যান্সারের অন্যতম কারণ।

বয়স ৫০ বছর পর স্তন ক্যান্সারে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা বাড়ে। কারও যদি ১২ বছরের আগে ঋতুস্রাব হয় এবং দেরিতে মেনোপজ বা ঋতু বন্ধ হয়, তারাও এ ঝুঁকিতে থাকেন। স্তনের আকারের চেয়ে বড় মাপের ব্রা স্তনের টিস্যুগুলোকে ঠিকমত সাপোর্ট দিতে পারে না। আবার অতিরিক্ত ছোট বা টাইট ব্রা স্তনের তরলবাহী লসিকাগুলো কেটে ফেলতে পারে। এটাও স্তন ক্যান্সারের ঝুঁকি বাড়ায়।

এছাড়া সারাক্ষণ ব্রা পরে থাকার কারণে ঘাম নির্গমনে বিগ্ন ঘটে ফলে আর্দ্রতা জমে। এ কারণে স্তন ক্যান্সারের হতে পারে! ডিওডোরেন্ট এলুমিনাম বেসড উপাদান থাকলে স্তন ক্যান্সারের ঝুঁকি থাকে। অতিমাত্রায় অ্যালকোহল, তামাক সেবনের ফলেও স্তন ক্যান্সার হতে পারে। বংশে এর আগে কারও ব্রেস্ট বা ওভারি ক্যান্সার থাকলে বা বিএআরসিএ ১, ও বিএআরসি ২, জিন থাকলে ব্রেস্ট ক্যান্সারের ঝুঁকি অনেক বেশি।

লক্ষণগুলো
ব্রেস্টফিডিং করাচ্ছেন না অথচ স্তনবৃন্ত থেকে অল্প অল্প দুধের মতো জলীয় পদার্থ নিঃসরণ হচ্ছে। অনেক সময় স্তনবৃন্ত থেকে রক্ত পড়তেও দেখা যায়। কোনো র‌্যাশ ছাড়াই চুলকানির অনুভূতি, এটি স্তন ক্যান্সারের অন্যতম লক্ষণ। স্তনে টিউমার থাকলে তা আশপাশের টিস্যুগুলোর উপর চাপ সৃষ্টি করে এবং এর ফলে স্তনে ফোলা ভাব দেখা যায়। কাঁধ এবং ঘাড়ের ব্যথাও ব্রেস্ট ক্যান্সারের লক্ষণ। কারণ এটি স্তন থেকে খুব সহজেই শরীরের অন্যান্য অংশে ছড়িয়ে পড়ে।

স্তনবৃন্ত চ্যাপ্টা হয়ে যাওয়া, বেঁকে যাওয়া বা স্তনবৃন্তের আকার অসমান হয়ে যাওয়া ক্যান্সারের লক্ষণ। স্তনে ছোট ছোট ফুসকুড়ির মতো লাম্প হওয়া। এই ব্রেস্ট লাম্পগুলো অনেক সময় আন্ডারআর্ম বা কলার বোনের তলাতেও দেখা যায়, যেগুলো টিপলে শক্ত অনুভূত হয়। অন্তর্বাস পরে থাকার সময় যদি ঘর্ষণ অনুভব করেন, এবং ব্যথা লাগে তবে চিকিৎসকের শরণাপন্ন হোন।

স্তনবৃন্ত খুবই সংবেদনশীল অংশ। যদি দেখেন স্তনবৃন্ত স্পর্শ করার পরও তেমন কোনো অনুভূতি হচ্ছে না, তবে তা ব্রেস্ট ক্যান্সারের লক্ষণ। স্তনের ত্বকে লালচে আভা এবং অমসুণতা দেখা দেওয়া। এটা এডভান্সড ব্রেস্ট ক্যান্সারের লক্ষণ। স্তনবৃন্তে বিশেষ কিছু পরিবর্তন পরিলক্ষিত হয়, যেমন- স্তনবৃন্ত দেবে যাওয়া, চুলকানি, জ্বালা পোড়া, চামড়া ওঠা, ক্ষত কিংবা ঘা এর উপস্থিতি।

কিভাবে পরীক্ষা করবেন
বিশ বছরের পর থেকে প্রত্যেক নারীর উচিৎ প্রতি মাসে নির্দিষ্ট সময়ে নিজের স্তন পরীক্ষা করা। মাসিক শুরুর ৫-৭ দিন পর এই পরীক্ষা করার উপযুক্ত সময়। কারণ তখন স্তন নরম ও কম ব্যথা থাকে।
১. আয়নার সামনে দাঁড়িয়ে পরীক্ষা আয়নার সামনে দাঁড়িয়ে নিজের স্তনকে চারটি ভাগে ভাগ করে প্রতিটি অংশের অভ্যন্তরে কোন চাকা বা দলার মতো আছে কিনা তা অনুভব করুন। হাত দুটো পাশে রাখুন, এবং ভালো করে লক্ষ্য করুন স্তনের চামড়ায় কোনো পরিবর্তন কিংবা আকারে কোনো তারতম্য এসেছে কি না।

এবার দুই হাত কোমরে রেখে বুক সামনের দিকে চিতিয়ে দেখুন স্তনে কোনো ধরনের দাগ, ঘা কিংবা গর্ত আছে কি না। এবার হাত দুটো উঁচু করে আরও একবার পরীক্ষা করুন। এক্ষেত্রে আপনি নিপল থেকে শুরু করে বৃত্তাকারভাবে বাহিরের দিকে ওপর-নিচ করে সম্পূর্ণ স্তন পরীক্ষা করতে পারেন। আপনার বাম হাত দিয়ে ডান পাশের ও ডান হাত দিয়ে বাম পাশের স্তন পরীক্ষা করুন।
২. গোসলের আগে একটি হাত মাথায় রাখুন। আরেকটি হাতের আঙ্গুল দিয়ে কলার বোনের কয়েক ইঞ্চি নিচ থেকে একদম বগল পর্যন্ত চেপে দেখুন, পুরো স্তনের শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত চক্রাকারে পরীক্ষা করতে থাকুন, প্রথমে হালকাভাবে, পরে একটু চাপ দিয়ে স্তনের টিস্যুগুলো পরীক্ষা করুন।
৩. শুয়ে শুয়ে পরীক্ষা বিছানায় শুয়ে ডান দিকের কাঁধের ওপর একটি বালিশ রাখুন। ডান হাত মাথার পেছনে দিন। এবার বাম হাতের আঙ্গুল দিয়ে চক্রাকারে ডান পাশের স্তন পুরোটা পরীক্ষা করুন। স্তনবৃন্ত চেপে ধরে নিশ্চিত হয়ে নিন কোনো তরল নিঃসৃত হচ্ছে কি না, কিংবা কোনো ধরনের অস্বাভাবিক ব্যাপারে আছে কি না। একইভাবে এবার বাম পাশের স্তন পরীক্ষা করুন।

রোগ নির্ণয়ে পরীক্ষা
যাদের পরিবারে কারও স্তন ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়েছে এমন ঘটনা আছে। তাদের হাসপাতালে গিয়ে ম্যামোগ্রাম করতে হবে। ৫০ বছরের বেশি বয়সী নারীদের নির্ধারিত বিরতিতে এক, দুই বা তিন বছর পরপর নিয়মিতভাবে ম্যামোগ্রাম করা হয়। এছাড়া ইমেজিং পরীক্ষার মধ্যে রয়েছে আলট্রাসাউন্ড, এমআরআই (গজও) এবং সার্জিক্যাল টেস্টের মধ্যে বায়োপসি অন্যতম। সিইএ (ঈঊঅ), সিএ-১৫-৩ (ঈঅ-১৫-৩), বা সিএ-২৭.২৯ টেস্ট এবং রক্তের সিবিসি (ঈইঈ) পরীক্ষারও প্রয়োজন পড়ে।

চিকিৎসা
স্তন ক্যান্সারের চিকিৎসায় সার্জারি প্রথম উপায়। লাম্পেক্টমি অর্থাৎ টিউমার ও তার আশপাশের কিছু টিস্যু কেটে এই অপারেশন করা হয়। মাস্টেক্টমি এই অপারেশন-এ স্তন এবং এর নিচের মাংসপেশি, বগলের লসিকাগ্রন্থিসহ আনুষঙ্গিক আক্রান্ত টিস্যু কেটে ফেলা হয় কিংবা সম্পূর্ণ স্তন কেটে ফেলা হয়। কোনো কোনো রোগীর স্তনের চামড়া সংরক্ষণ করে বিকল্পভাবে স্তন পুনর্গঠন করা হয়।

শরীরের অন্য জায়গা থেকে মাংসপেশি কেটে নিয়ে স্তনের আকার করে স্তনের জায়গায় পুনঃস্থাপন করার মাধ্যমে এটি করা হয়। র‌্যাডিক্যাল ম্যাস্টেক্টমির মাধ্যমে বুকের দেয়ালের মাংসপেশি, বগলের নিচে লিম্ফনোডসহ পুরো স্তন কেটে বাদ দেয়া হয়। ক্যান্সার কোষ লিম্ফনোডে পৌঁছে তার মাধ্যমে শরীরের অন্যান্য অঙ্গে ছড়িয়ে পড়ে। সেন্টিনেল নোড বায়োপসির মাধ্যমে লিম্ফনোড সরিয়ে ফেলা হয়। একে বলা হয় অ্যাক্সিলারি লিম্ফনোড ডিসেকশন।
রেডিও থেরাপি হলো তেজস্ক্রিয় রশ্মি প্রয়োগ করে শরীরের ক্যান্সারের কোষ নির্মূল করা হয়। তাছাড়া দেহের অভ্যন্তরে তেজস্ক্রিয় পদার্থ স্থাপন করেও চিকিৎসা করা যায়।
সাধারণত স্তন ক্যান্সার চিকিৎসায় অপারেশন পরবর্তী সময়ে অ্যাডভান্স কেমোথেরাপি দেওয়া হয়ে থাকে। এতে ক্যান্সার কোষের পুনরাবির্ভাবের ঝুঁকি থাকে না।

তবে অনেক ক্ষেত্রে টিউমার বেশি বড় থাকলে কেমোথেরাপি অপারেশনের আগে নিতে হতে পারে। সাধারণত ৬-৮টি ডোজ (প্রতি মাসে একটি করে) বা রক্তনালির মাধ্যমে ইনজেকশন দেওয়া হয়। কেমোথেরাপি ইস্ট্রোজেন তৈরি বন্ধ করতে সাহায্য করে। ইস্ট্রোজেন স্তন ক্যান্সারের জন্য দায়ী।
বায়োলজিক্যাল ইম্যুনোথেরাপি সার্জারি, রেডিওথেরাপি এবং কেমোথেরাপি তুলনায় বহুল ব্যবহৃত প্রযুক্তি। বায়ো-ইম্যুনোথেরাপির মাধ্যমে রোগীর রক্ত সংগ্রহ করে, ইমিউনোলজিক সেল (ডিসি-সিআইকে) তৈরি করা হয়। এরপর এ সংগৃহীত রক্ত রোগীর শরীরে পুনরায় প্রবেশ করিয়ে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ানো হয়। এটি ক্যান্সার কোষকে সরাসরি ধ্বংস করে মেটাস্টিসিস রোধ করে থাকে।

লেখক : ডা. মো. সেতাবুর রহমান
সিনিয়র কনসালটেন্ট, সার্জিক্যাল অনকোলজি
ল্যাবএইড ক্যান্সার হাসপাতাল অ্যান্ড সুপার স্পেশালিটি সেন্টার : ২৬, গ্রীন রোড, ধানমণ্ডি, ঢাকা। হট লাইন : ০৯৬৬৬৭১০০০১, ১০৬৬৬

মতামত বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
  • প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যা বলেন তাই করেন: মির্জা আজম

  • নাটোরে ৭ দিনের বইমেলা শুরু

  • কুমিল্লায় ৮ দেশের গবেষকদের নিয়ে আন্তর্জাতিক কনফারেন্স

  • অসহায়দের নিরাপদ আশ্রয় শেখ হাসিনা: পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী

  • নাটোর চিনিকলে আখ মাড়াই শুরু

  • বগুড়ায় কমেছে সবজির দাম, খুশি ক্রেতারা

  • ঝালকাঠিতে সুবিধা পাচ্ছেন ১৯ হাজার প্রতিবন্ধী

  • নিরাপদ সামুদ্রিক শিল্প উদ্যোগে আইএমও-এর সহযোগিতা চায় বাংলাদেশ

  • নওগাঁর রঙিন মাছ চাষে সফল মৎস্যচাষী সাইদুর

  • খাদ্য সঙ্কট মেটাতে বাড়ছে হাইব্রিড জাতের আবাদ

  • তৈরি হচ্ছে কক্সবাজার রেল, ট্রেন চলবে আগামী বছর

  • আগামী অক্টোবরে পূর্ণতা পাচ্ছে কক্সবাজার আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর

  • টাঙ্গাইলে সুগন্ধি জাতের ধান চাষে ভালো ফলন

  • জনপ্রিয় হচ্ছে টাঙ্গাইলের শাল চাদর

  • জনপ্রিয় হচ্ছে এটিএম বুথের পানি

  • নতুন জীবন পাচ্ছে মেরুদন্ড জোড়ালাগা দুই শিশু

  • কুমিল্লার দৃষ্টিনন্দন প্রাচীন স্থাপনা দারোগা বাড়ি মসজিদ

  • ঠাকুরগাঁওয়ে ধুম পড়েছে শীতের পিঠা বিক্রির 

  • পার্বত্য শান্তি চুক্তির ২৫ বছর পূর্তিতে আওয়ামী লীগের আলোচনা

  • অতিথি পাখির কলকাকলিতে মুখরিত অরুনিমা রিসোর্ট 

  • ভার্মি কম্পোস্ট সার উৎপাদনে নাঈমের সাফল্য

  • ‘বীর নিবাস’ পাচ্ছে সাতক্ষীরার ২৯২ বীর মুক্তিযোদ্ধা পরিবার

  • গোপালগঞ্জে শীতবস্ত্র পেলেন আনসার ভিডিপি সদস্যরা

  • নাটোরে সপ্তাহব্যাপী বইমেলা শুরু

  • বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে শেখ সেলিমের শ্রদ্ধা নিবেদন

  • ‘চট্টগ্রামে আওয়ামী লীগের জনসভা পলোগ্রাউন্ড মাঠ ছাড়িয়ে যাবে’

  • বিলম্বিত বিচার ব্যবস্থা দেশ থেকে দুর করতে হবে : পরিকল্পনামন্ত্রী

  • নওগাঁয় সাড়ে ৫ হাজার হেক্টর জমিতে পেঁয়াজ-রসুন চাষের লক্ষ্য

  • জঙ্গিদের মাঠে নামিয়েছে বিএনপি : ওবায়দুল কাদের

  • সকল সম্প্রদায়কে ঐক্যবদ্ধভাবে দেশ গড়ার আহ্বান 

  • বাংলাদেশের রিকশা যাচ্ছে ইউরোপে: বিজিএমইএ

  • দেশের প্রথম পাতাল রেল নির্মাণ শুরু জানুয়ারিতে

  • চট্টগ্রাম-সেন্টমার্টিন রুটে চালু হচ্ছে বে ওয়ান ক্রুজ

  • মুরাদনগরের সিদল যাচ্ছে বিদেশে

  • ১ থেকে ৭ ডিসেম্বর বুস্টার ডোজ ক্যাম্পেইন

  • যুক্তরাষ্ট্রে ডেনিম রপ্তানিতে ৪২ শতাংশ প্রবৃদ্ধি

  • তারের জঞ্জাল মুক্ত হতে যাচ্ছে রাজধানী

  • ২০২২ সালের এসএসসি ও সমমান পরীক্ষায় পাশের হার

  • বিদেশি কূটনৈতিকদের বিষয়ে কঠোর হচ্ছে সরকার

  • ওয়ান সিটি টু টাউনের পথে বন্দরনগরী

  • সুড়ঙ্গ পথে আড়াই মিনিটে আনোয়ারা থেকে পতেঙ্গা

  • মেট্রোরেলের ডিপো নির্মাণে ভূমি উন্নয়ন চুক্তি সই

  • সহজে ব্যাংক ঋণ পাবেন এসএমই উদ্যোক্তারা

  • ৩ কাস্টম হাউজের জন্য ৬টি কনটেইনার স্ক্যানার সিস্টেম কিনছে এনবিআর

  • ঢাকা থেকে কক্সবাজারের দূরত্ব কমবে ৪০ কিমি

  • পূর্বাচলে বাণিজ্য মেলা ১ জানুয়ারি থেকে

  • রেমিট্যান্স পাঠানো সহজ করল কেন্দ্রীয় ব্যাংক

  • আওয়ামী লীগের স্থানীয় সরকার মনোনয়ন বোর্ডের সভা রোববার

  • যুক্তরাজ্যের ভিসা আবেদন ফি দিতে হবে অনলাইনে

  • চার মাসে ৯০৯০১.৯৯ কোটি টাকা রাজস্ব আদায় এনবিআরের

  • শুরু হলো গৌরবময় বিজয়ের মাস

  • মাথাপিছু আয় বৃদ্ধিতে দক্ষিণ এশিয়ায় বাংলাদেশ অন্যতম

  • বীর মুক্তিযোদ্ধাদের চিকিৎসা ভাতা বেড়ে দ্বিগুণ

  • ঘরে বসেই পাওয়া যাবে ভূমি সেবা

  • ইউরোপে পোশাক রপ্তানি প্রবৃদ্ধির শীর্ষে বাংলাদেশ

  • বাস থেকে ৬৩৭ ভরি স্বর্ণ উদ্ধার, ভারতীয় নাগরিকসহ গ্রেপ্তার ১২

  • বঙ্গবন্ধুর ভাষণের পর স্বাধীনতা ঘোষণার প্রয়োজন ছিল না

  • ২০৪০ সালে ট্রিলিয়ন ডলার অর্থনীতির দেশ হবে বাংলাদেশ: সমীক্ষা

  • আশুগঞ্জে নতুন বিদ্যুৎকেন্দ্র চালু, গ্রিডে যোগ হলো ৪০০ মেগাওয়াট

  • ডিএমপির ৫ কর্মকর্তাকে বদলি