বুধবার   ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১

সর্বশেষ:
সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোর বার্ষিক ছুটি ৭৫ দিন আগামী মার্চে ঢাকা উত্তর সিটির ভোটের ইঙ্গিত সিইসির আস্থা ভোটে টিকে গেলেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় পরিদর্শনে প্রধানমন্ত্রী রাষ্ট্রপতির সঙ্গে নেপালের বিদায়ী রাষ্ট্রদূতের সাক্ষাৎ সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন করতে ইসি প্রতিজ্ঞাবদ্ধ: নূরুল হুদা বারবার আসতে পারব না, যত খুশি সাজা দিন: খালেদা জিয়া ‘আকাশবীণার’ উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী ত্রিভুবনে আবারও বিমান দুর্ঘটনা ট্রেন-বাসের সংঘর্ষে নিহত ২, আহত ২৫ ভুয়া ছবি দিয়ে অপপ্রচার চালাচ্ছে মিয়ানমার: প্রধানমন্ত্রী
৮২৯

‘শেখ মুজিব আজও অন্যায়ের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াবার প্রতীক’

ডেস্ক নিউজ

প্রকাশিত: ৮ মার্চ ২০২০  

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে ডয়চে ভেলের কাছে দেয়া সাক্ষাতকারে এ কথা বলেছেন জার্মানির হাইডেলবার্গ বিশ্ববিদ্যালয়ের দক্ষিণ এশিয়া ইন্সটিটিউটের প্রধান ড. হান্স হার্ডার। তার সাক্ষাতকার –

ডয়চে ভেলে: বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবর্ষে রয়েছি আমরা। বাংলাদেশ সরকার দেশে ও অন্যান্য দূতাবাসে তা উদযাপনে নানা আয়োজন করেছে। আপনার অনুভূতি কেমন?

ড. হান্স হার্ডার: বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবর্ষ নিয়ে যে এতো হইচই হচ্ছে সব জায়গায়, সেটা খুবই স্বাভাবিক। কারণ বাংলাদেশ স্বাধীন রাষ্ট্র হবার পেছনে বঙ্গবন্ধুর বিরাট বড় ভূমিকা ছিলো বলে আমি মনে করি। এমনকি এটা বলা যেতেই পারে যে, শেখ মুজিবের মতো সম্ভ্রান্ত, জোরালো ও সাহসী জননায়ক না থাকলে বাংলাদেশ সেসময় স্বাধীন হতে পারতো কি না, তা সন্দেহের বিষয়।

ডয়চে ভেলে: এবছর যেহেতু তাঁর জন্মশতবর্ষ, সেই উপলক্ষে বাংলাদেশে সরকারিভাবে নানা আয়োজন করা হয়েছে। এরমধ্যে অন্যতম আকর্ষণ ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। আপনি বিষয়টা কীভাবে দেখছেন?

ড. হান্স হার্ডার: এটা নিয়ে আমার মনে হয় আলোচনার অবশ্যই দরকার আছে। গভীরে যেতে হবে তার জন্য। এই ঘটনা নিয়ে আমি সহজ-সরল কোনও বক্তব্য দিতে পারবো না। আপাতত এই বিষয়ে কথা না বলাই উচিত।

ডয়চে ভেলে: জার্মানিতে কি বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবর্ষ উদযাপন হওয়া উচিত, হলে কীভাবে?

ড. হান্স হার্ডার: হওয়া উচিত। কিন্তু হবে কি না, তা আমার জানা নেই। আমরা এখানে (হাইডেলবার্গ বিশ্ববিদ্যালয়ে) কিছু করছি না এখন পর্যন্ত। কিন্তু একদম কিছু করবো না, তা এই মুহূর্তে জানি না। জার্মানিতে অনেক রাজনৈতিক পক্ষ আছেন। বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের সদস্যরা আছেন। তাঁরা নিশ্চয়ই কিছু না কিছু করবেন। কিন্তু আমার বিস্তারিত জানা নেই সে বিষয়ে। কিন্তু জার্মানি ছাড়াও, বিশ্বের সব জায়গাতেই বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন করা উচিত। কারণ আমি মনে করি তিনি একজন প্রতীক। শেখ মুজিব আজও অন্যায়ের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াবার প্রতীক। আমি প্রায়ই ওনার বিখ্যাত সব বক্তৃতার লাইন মনে করি। যেমন ‘এবারের সংগ্রাম আমাদের মুক্তির সংগ্রাম, এবারের সংগ্রাম স্বাধীনতার সংগ্রাম’। রমনাতে ৭ মার্চের এই ভাষণ শুনলে আজও আমাদের গায়ে কাঁটা দেয়। তাই আমি মনে করি শেখ মুজিবকে সাহসের প্রতিমূর্তি হিসাবে দেখা উচিত।

ডয়চে ভেলে: একজন গবেষকের দৃষ্টিভঙ্গী থেকে আপনার কি মনে হয় বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে কাজ করার এখনও আরও অনেক জায়গা আছে?

ড. হান্স হার্ডার: জায়গা নিশ্চয়ই আছে, কিন্তু সমালোচনারও জায়গা আছে। এইসব সমালোচনার জায়গা হয়তো এখন জন্মশতবার্ষিকীকে ঘিরে নাও করা যেতে পারে। এখানে সেটা মানানসই হবে না। কিন্তু বঙ্গবন্ধুকে দেখার অনেক ধরনের দৃষ্টিভঙ্গী থাকতে পারে। অনেক পরিপ্রেক্ষিত থাকতে পারে। এই দৃষ্টিভঙ্গীগুলির গভীরে গেলে বঙ্গবন্ধুকে শুধুই সাহসী রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব হিসাবে দেখতে পাবো তা তো নয়। তখন অন্যান্য দিকগুলিও দেখবো। এই দুই দৃষ্টিভঙ্গীর মধ্যে যে ব্যবধান রাখা দরকার, তা এখনকার পরিস্থিতিতে আমি দেখছি না।

ডয়চে ভেলে: আপনার কাছে আজকের সময়ে বঙ্গবন্ধু গুরুত্বপূর্ণ কেন?

ড. হান্স হার্ডার: এই সাহসী ব্যক্তিত্বকে মনে রাখা অবশ্যই উচিত। কারণ এই শেখ মুজিব সব ধরনের দলীয় রাজনীতির ঊর্ধ্বে। সব দলের রাজনীতির, রাজনৈতিক লবির হস্তক্ষেপের বাইরে। কোনও বিশেষ দলের নেতা হিসাবে নয়, আমরা যেনো ওনাকে দেখি একজন অসম সাহসী ব্যক্তিত্ব হিসাবে। এভাবেই যেনো ওনার স্মৃতিচারণ করা হয়।

ডয়চে ভেলে: আপনি বাংলাদেশে গেলে সেখানে বঙ্গবন্ধুকে কোথায় খুঁজে পান?

ড. হান্স হার্ডার: আজকাল আমরা বাংলাদেশে শেখ মুজিবকে সর্বত্রই পাই। দেয়ালে দেয়ালে, রাস্তায় রাস্তায় তাঁকে দেখতে পাই। ওনার কথা না ভেবে থাকাই যায় না, কারণ এতো প্রচার হচ্ছে ওনার নামে, এই প্রচারগুলো সব যে ঠিক তা নয়, কিন্তু সেটা অন্য আলোচনা। এখন সেটায় আমি যাচ্ছি না।

ডয়চে ভেলে: পাঠকদের জন্য বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে আপনার কোনও বিশেষ বার্তা আছে কি?

ড. হান্স হার্ডার: এ আনন্দ উপলক্ষে সবাইকে আমি আমার আন্তরিক শুভেচ্ছা জানিয়ে শেষ করতে চাই।

আরও পড়ুন
সাক্ষাৎকার বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
  • বিকাশের ভুলের মাসুল দিচ্ছেন ৫১৬০ ভাতাভোগী

  • মসজিদে বেশি সময় ব্যয় করার প্রতিদান

  • আফগানিস্তানে মেয়েদের জন্য স্কুল খুলে দিতে ইউনেস্কোর আহ্বান

  • ‘গলুই’ শুটিং শুরু পরশু
    যুক্ত হলেন আলীরাজ-আজিজুল হাকিম ও সূচরিতা

  • ‘আমি মারা যাওয়ার আগে কেউ বিসিবি প্রেসিডেন্ট হতে চাইবে না’

  • জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলায় প্রধানমন্ত্রীর ৬ সুপারিশ

  • জাতিসংঘের এসডিজি অগ্রগতি পুরস্কার পেলেন প্রধানমন্ত্রী

  • খুলনায় লবণাক্ত জমিতে তরমুজের ব্যাপক ফলন

  • আন্তর্জাতিক অ্যাওয়ার্ড পেলেন বাংলাদেশি তরুণী ফাইরুজ

  • শান্তিতে ভারত পাকিস্তানের চেয়ে এগিয়ে বাংলাদেশ

  • দুর্গাপূজা উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রীর ৩ কোটি টাকার অনুদান

  • এক যুগে দক্ষিণাঞ্চলে আমূল পরিবর্তণ

  • ৪২ পণ্য রপ্তানিতে মিলবে নগদ সহায়তা

  • ‘শিগগিরই দেশে দীর্ঘমেয়াদি অর্থায়নের প্রধান উৎস হবে পুঁজিবাজার’

  • আগামী বছর ১০০ স্কুলে পরীক্ষামূলক পাঠদান

  • জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মেডেল পেলেন নৌবাহিনীর ১১০ জন সদস্য

  • পায়রাবন্দর থেকে রাজস্ব আয় ৩০৪ কোটি টাকা

  • সরকারি ব্যয়ে বড় সাশ্রয়

  • এমপিওভুক্ত হলেন ডিগ্রি কলেজের ৮৪১ তৃতীয় শিক্ষক

  • দেশে করোনায় মৃত্যু কমেছে

  • জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলায় বাংলাদেশকে সহায়তা বাড়াবে জার্মানি

  • যমুনায় ঐতিহ্যবাহী নৌকা বাইচ, এলাকাজুড়ে উৎসব

  • এক হাত নিয়েই জীবনযুদ্ধে লড়ছেন সাইফুল 

  • মাইকিং করে বিক্রি হচ্ছে চিংড়ি

  • ফের ভ্যাকসিন রফতানি শুরু করছে ভারত

  • মন্ত্রণালয়ে দুর্নীতি তদন্তে দুদককে আহ্বান জানালেন সেতুমন্ত্রী

  • ‘সুষ্ঠু ব্যবস্থাপনার জন্য করোনা ভয়াবহ রূপ নিতে পারেনি’

  • ‘স্বচ্ছ থাকলে সাংবাদিক নেতাদের উদ্বিগ্ন হওয়ার কারণ নেই’

  • ‘শ্রেণিকক্ষের পাশাপাশি অনলাইনে পাঠদান চলমান থাকবে’

  • প্রথমবারের মতো বাংলাদেশে ভ্যাট দিলো মাইক্রোসফট

  • পোশাক রপ্তানিতে ভিয়েতনামকে ছাড়াল বাংলাদেশ

  • ‘২০২৪ সালের মধ্যে দেশে হুন্দাইয়ের গাড়ি তৈরি হবে’

  • সৌরবিদ্যুৎ উৎপাদনের কেন্দ্রস্থল হতে যাচ্ছে উত্তরাঞ্চল

  • ২৪ কোটি টিকা লাইন-আপে রয়েছে: ড. মোমেন

  • জন্মসনদ দিয়েও টিকার নিবন্ধন করা যাবে: শিক্ষামন্ত্রী

  • দুর্নীতিতে জিরো টলারেন্স চান প্রধানমন্ত্রী

  • রূপপুরে চলতি মাসেই নিউক্লিয়ার চুল্লি স্থাপন

  • ‘১৬ কোটি মানুষের বাসস্থান-খাদ্য নিশ্চিত করেছে সরকার’

  • এনআইডি না থাকলেও যেভাবে পাবেন করোনার টিকা

  • মুন্সিগঞ্জের বাঁশ-বেতের পণ্য যাচ্ছে বিদেশে

  • আড়াই ফুটের গলি এখন ৬০ ফুট প্রশস্ত সড়ক

  • জ্বালানি তেল খালাসে নতুন যুগে বাংলাদেশ

  • রপ্তানির নতুন দিগন্ত ইউরেশিয়া

  • নিকলী হাওড়ে পর্যটক নৌযানে লাইফ জ্যাকেট বাধ্যতামূলক

  • দ্বীপ রাঙ্গাবালীতে আলোর ঝলকানি

  • টিউলিপ রেজওয়ানা সিদ্দিক, শুভ জন্মদিন

  • মহেশখালীতে ৪শ’ কোটি টাকার বিদ্যুৎ হাব

  • ৩ হাজার কনস্টেবল নিয়োগ: আবেদন করবেন যেভাবে

  • প্রথম বক্তব্যে প্রশংসায় ভাসছেন সিলেটের এমপি হাবিব

  • মাসে কোটির বেশি টিকা পাওয়ার ব্যবস্থা হয়েছে: প্রধানমন্ত্রী

  • ১৫ ফুটের চিচিঙ্গা

  • জাতিসংঘে শেখ হাসিনার ভাষণ ২৪ সেপ্টেম্বর

  • স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

  • ‘ডিসেম্বরের মধ্যে চীন থেকে আসবে ৬ কোটি ডোজ টিকা’

  • নতুন ক্ষমতা পেলেন প্রতিমন্ত্রীরা

  • বাইডেনের সম্মেলনে শেখ হাসিনার ৬ প্রস্তাব

  • আশা জাগাচ্ছে বঙ্গবন্ধু সাফারি পার্কের নীলগাই

  • ৮৫ হাজার কারাবন্দিকে টিকা দেওয়ার প্রক্রিয়া শুরু

  • ভারত থেকে এলো উপহারের আরও ২৯ অ্যাম্বুলেন্স

  • হেলিকপ্টারে গিয়ে দেওয়া হলো দ্বিতীয় ডোজ টিকা