শুক্রবার   ০৭ আগস্ট ২০২০

ব্রেকিং:
সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোর বার্ষিক ছুটি ৭৫ দিন আগামী মার্চে ঢাকা উত্তর সিটির ভোটের ইঙ্গিত সিইসির জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় পরিদর্শনে প্রধানমন্ত্রী আস্থা ভোটে টিকে গেলেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে রাষ্ট্রপতির সঙ্গে নেপালের বিদায়ী রাষ্ট্রদূতের সাক্ষাৎ খালেদার অনুপস্থিতিতেই কারাগারে বিচার চলবে রব ও মান্নার বিয়ে যুক্তফ্রন্টে, পরকীয়া ঐক্যফ্রন্টে: মাহী এটা জোট নয়, ঘোট : তথ্যমন্ত্রী যুক্তরাষ্ট্রে রাজনৈতিক আশ্রয় পেলেন সিনহা আবারও সরকার গঠনে নৌকায় ভোট দেয়ার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর পদ্মা সেতু প্রকল্পের নামফলক উন্মোচন করলেন প্রধানমন্ত্রী
২৩১

‘শেখ মুজিব আজও অন্যায়ের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াবার প্রতীক’

ডেস্ক নিউজ

প্রকাশিত: ৮ মার্চ ২০২০  

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে ডয়চে ভেলের কাছে দেয়া সাক্ষাতকারে এ কথা বলেছেন জার্মানির হাইডেলবার্গ বিশ্ববিদ্যালয়ের দক্ষিণ এশিয়া ইন্সটিটিউটের প্রধান ড. হান্স হার্ডার। তার সাক্ষাতকার –

ডয়চে ভেলে: বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবর্ষে রয়েছি আমরা। বাংলাদেশ সরকার দেশে ও অন্যান্য দূতাবাসে তা উদযাপনে নানা আয়োজন করেছে। আপনার অনুভূতি কেমন?

ড. হান্স হার্ডার: বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবর্ষ নিয়ে যে এতো হইচই হচ্ছে সব জায়গায়, সেটা খুবই স্বাভাবিক। কারণ বাংলাদেশ স্বাধীন রাষ্ট্র হবার পেছনে বঙ্গবন্ধুর বিরাট বড় ভূমিকা ছিলো বলে আমি মনে করি। এমনকি এটা বলা যেতেই পারে যে, শেখ মুজিবের মতো সম্ভ্রান্ত, জোরালো ও সাহসী জননায়ক না থাকলে বাংলাদেশ সেসময় স্বাধীন হতে পারতো কি না, তা সন্দেহের বিষয়।

ডয়চে ভেলে: এবছর যেহেতু তাঁর জন্মশতবর্ষ, সেই উপলক্ষে বাংলাদেশে সরকারিভাবে নানা আয়োজন করা হয়েছে। এরমধ্যে অন্যতম আকর্ষণ ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। আপনি বিষয়টা কীভাবে দেখছেন?

ড. হান্স হার্ডার: এটা নিয়ে আমার মনে হয় আলোচনার অবশ্যই দরকার আছে। গভীরে যেতে হবে তার জন্য। এই ঘটনা নিয়ে আমি সহজ-সরল কোনও বক্তব্য দিতে পারবো না। আপাতত এই বিষয়ে কথা না বলাই উচিত।

ডয়চে ভেলে: জার্মানিতে কি বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবর্ষ উদযাপন হওয়া উচিত, হলে কীভাবে?

ড. হান্স হার্ডার: হওয়া উচিত। কিন্তু হবে কি না, তা আমার জানা নেই। আমরা এখানে (হাইডেলবার্গ বিশ্ববিদ্যালয়ে) কিছু করছি না এখন পর্যন্ত। কিন্তু একদম কিছু করবো না, তা এই মুহূর্তে জানি না। জার্মানিতে অনেক রাজনৈতিক পক্ষ আছেন। বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের সদস্যরা আছেন। তাঁরা নিশ্চয়ই কিছু না কিছু করবেন। কিন্তু আমার বিস্তারিত জানা নেই সে বিষয়ে। কিন্তু জার্মানি ছাড়াও, বিশ্বের সব জায়গাতেই বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন করা উচিত। কারণ আমি মনে করি তিনি একজন প্রতীক। শেখ মুজিব আজও অন্যায়ের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াবার প্রতীক। আমি প্রায়ই ওনার বিখ্যাত সব বক্তৃতার লাইন মনে করি। যেমন ‘এবারের সংগ্রাম আমাদের মুক্তির সংগ্রাম, এবারের সংগ্রাম স্বাধীনতার সংগ্রাম’। রমনাতে ৭ মার্চের এই ভাষণ শুনলে আজও আমাদের গায়ে কাঁটা দেয়। তাই আমি মনে করি শেখ মুজিবকে সাহসের প্রতিমূর্তি হিসাবে দেখা উচিত।

ডয়চে ভেলে: একজন গবেষকের দৃষ্টিভঙ্গী থেকে আপনার কি মনে হয় বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে কাজ করার এখনও আরও অনেক জায়গা আছে?

ড. হান্স হার্ডার: জায়গা নিশ্চয়ই আছে, কিন্তু সমালোচনারও জায়গা আছে। এইসব সমালোচনার জায়গা হয়তো এখন জন্মশতবার্ষিকীকে ঘিরে নাও করা যেতে পারে। এখানে সেটা মানানসই হবে না। কিন্তু বঙ্গবন্ধুকে দেখার অনেক ধরনের দৃষ্টিভঙ্গী থাকতে পারে। অনেক পরিপ্রেক্ষিত থাকতে পারে। এই দৃষ্টিভঙ্গীগুলির গভীরে গেলে বঙ্গবন্ধুকে শুধুই সাহসী রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব হিসাবে দেখতে পাবো তা তো নয়। তখন অন্যান্য দিকগুলিও দেখবো। এই দুই দৃষ্টিভঙ্গীর মধ্যে যে ব্যবধান রাখা দরকার, তা এখনকার পরিস্থিতিতে আমি দেখছি না।

ডয়চে ভেলে: আপনার কাছে আজকের সময়ে বঙ্গবন্ধু গুরুত্বপূর্ণ কেন?

ড. হান্স হার্ডার: এই সাহসী ব্যক্তিত্বকে মনে রাখা অবশ্যই উচিত। কারণ এই শেখ মুজিব সব ধরনের দলীয় রাজনীতির ঊর্ধ্বে। সব দলের রাজনীতির, রাজনৈতিক লবির হস্তক্ষেপের বাইরে। কোনও বিশেষ দলের নেতা হিসাবে নয়, আমরা যেনো ওনাকে দেখি একজন অসম সাহসী ব্যক্তিত্ব হিসাবে। এভাবেই যেনো ওনার স্মৃতিচারণ করা হয়।

ডয়চে ভেলে: আপনি বাংলাদেশে গেলে সেখানে বঙ্গবন্ধুকে কোথায় খুঁজে পান?

ড. হান্স হার্ডার: আজকাল আমরা বাংলাদেশে শেখ মুজিবকে সর্বত্রই পাই। দেয়ালে দেয়ালে, রাস্তায় রাস্তায় তাঁকে দেখতে পাই। ওনার কথা না ভেবে থাকাই যায় না, কারণ এতো প্রচার হচ্ছে ওনার নামে, এই প্রচারগুলো সব যে ঠিক তা নয়, কিন্তু সেটা অন্য আলোচনা। এখন সেটায় আমি যাচ্ছি না।

ডয়চে ভেলে: পাঠকদের জন্য বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে আপনার কোনও বিশেষ বার্তা আছে কি?

ড. হান্স হার্ডার: এ আনন্দ উপলক্ষে সবাইকে আমি আমার আন্তরিক শুভেচ্ছা জানিয়ে শেষ করতে চাই।

আরও পড়ুন
সাক্ষাৎকার বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
  • করোনা মোকাবিলায় এডিবির আরও ১৫ কোটি টাকা অনুদান

  • বাংলাদেশ-ভারতের সম্পর্ক আরও দৃঢ় হবে: রীভা

  • মেঘ কাটছে অর্থনীতির

  • করোনায় পথ দেখাচ্ছে কৃষিজাত পণ্য

  • ‘বঙ্গমাতার অনুপ্রেরণার কারণেই বঙ্গবন্ধুর অর্জন সহজ হয়েছে’

  • বঙ্গবন্ধুর খুনিদের ফেরাতে সরকার সচেষ্ট: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

  • বঙ্গবন্ধুর রাজনৈতিক দর্শনে সাম্যবাদ

  • প্রথম দর্শনেই বঙ্গবন্ধুকে শিক্ষক হিসেবে গ্রহণ করলাম

  • ইয়ুথ ডেভেলপমেন্ট ইনডেক্স চূড়ান্ত

  • শেখ ফজিলাতুন্নেছার জন্মদিনে দেয়া হবে সেলাই মেশিন

  • করোনা রোগীর সহায়তায় বিমান বাহিনীর জরুরি পরিবহন সেবা

  • স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের আরো দুইজন অতিরিক্ত সচিবকে বদলি

  • চাল আমদানির অনুমতি দিলো সরকার

  • ক্রয় আদেশ ফিরছে, পোশাক খাতে স্বস্তি

  • দেয়াল চিত্রে বঙ্গবন্ধুর সংগ্রাম ও বাংলাদেশের স্বাধীনতা

  • করোনা সংকটেও বিনিয়োগের সুযোগ আছে: প্রধানমন্ত্রী

  • করোনায় ধাক্কার পাশাপাশি সুযোগও সৃষ্টি হয়েছে : প্রধানমন্ত্রী

  • কোভিড-১৯ নমুনা সংগ্রহ ও টেস্ট বৃদ্ধিতে আসছে নতুন কর্মপরিকল্পনা

  • শেখ কামালের জন্মদিনে বরগুনায় মেধাবীদের শিক্ষা সহায়তা

  • লেবাননে খাদ্য ও মেডিকেল সামগ্রীসহ মেডিকেল টিম পাঠাচ্ছে বাংলাদেশ

  • করোনা মোকাবিলায় বাংলাদেশকে ৩২ কোটি ডলার ঋণ সহায়তা দেবে জাপান

  • রাঙামাটিতে বহুল প্রত্যাশিত পিসিআর ল্যাবের উদ্বোধন

  • শ্রদ্ধা আর ভালোবাসায় শেখ কামালকে স্মরণ

  • কৃষির উন্নয়ন হলে অর্থনীতির চাকা গতি পাবে: কৃষিমন্ত্রী

  • সোশ্যাল মিডিয়ায় অস্থিরতা ছড়ালে ব্যবস্থা: তথ্যমন্ত্রী

  • শেখ হাসিনাকে জাপান প্রধানমন্ত্রীর ফোন

  • আলোকিত হচ্ছে মেঘনার বিচ্ছিন্ন দ্বীপ নুনেরটেক

  • বরিশালে কীটনাশক বিহীন ধান চাষে সাফল্য

  • সঙ্কট কাটিয়ে ঘুরে দাঁড়াচ্ছে পোশাক খাত

  • টেকনাফের প্রত্যাহারকৃত ওসি প্রদীপ গ্রেফতার

  • বাংলাদেশ-ভারত অর্থনৈতিক সহযোগিতার ক্ষেত্রে নতুন মাইলফলক

  • বিশ্ব-গণমাধ্যম এবং রাষ্ট্রনায়কদের চোখে বঙ্গবন্ধু

  • মানব পাচার রোধে বাংলাদেশের পদক্ষেপের প্রশংসা

  • ইলিশ আহরণে ছাড়াবে রেকর্ড, অপেক্ষা আর দু-একদিন

  • ৬৫ হাজার প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শুরু হচ্ছে মিড-ডে মিল কার্যক্রম

  • পণ্য রপ্তানিতে চট্টগ্রাম বন্দরে নতুন রেকর্ড

  • কর্ণফুলী টানেলের বাম সারির কাজ সম্পন্ন

  • শিমুলিয়ায় আরেকটি ফেরিঘাট হবে

  • দেশের ইতিহাসের সর্বোচ্চ রেমিট্যান্স জুলাইয়ে

  • তুলার উৎপাদন বাড়াতে ৬৪ কোটি টাকার প্রকল্প

  • হবিগঞ্জে লেবুর বাম্পার ফলন হয়েছে

  • বন্যার্তদের পাশে দাঁড়াতে বিত্তবানদের প্রতি আহ্বান রাষ্ট্রপতির

  • সিনহা রাশেদ খানের মাকে প্রধানমন্ত্রীর ফোন, বিচারের আশ্বাস

  • বরিশালে ইলিশে রেকর্ড, চিংড়িতে সম্ভাবনা

  • জরুরি প্রয়োজন ছাড়া রাত ১০টার পর বাইরে না যাওয়ার নির্দেশনা

  • বাঁধ সুরক্ষায় কক্সবাজার থেকে সাতক্ষীরা পর্যন্ত সুপার ড্রাইভওয়ে

  • পাটের বাম্পার ফলন কৃষকের মুখে সোনালী হাসি

  • বঙ্গবন্ধুকে দাবায়ে রাখা যায়নি

  • অনলাইনে কোরবানির পশু বিক্রির রেকর্ড

  • ‘ক্ষমতার কেন্দ্রবিন্দুতে থেকেও অতি সাধারণ ছিলেন শেখ কামাল’

  • সরকার দুর্গতদের পাশে আছে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

  • ঈদের পর সচল হচ্ছে অর্থনীতির সব চাকা

  • কোরবানির বর্জ্য অপসারণে নগরবাসীর স্বস্তি

  • বৈরুতে বিস্ফোরণে এক বাংলাদেশি নিহত

  • রেমিট্যান্সের পর রফতানি বাণিজ্যে ফিরেছে সুদিন

  • কোরবানি বর্জ্যমুক্ত ঘোষণা করলো ডিএনসিসি

  • সৌদি আরবে বাংলাদেশিদের জন্য জরুরি দুই ঘোষণা

  • বঙ্গবন্ধুর নাম ভাঙিয়ে চাঁদাবাজি করলে ছাড় নয়: কাদের

  • করোনা রোগীদের বাড়ি বাড়ি ফল নিয়ে যাচ্ছে ছাত্রলীগ

  • বন্যায় এ পর্যন্ত ৯ হাজার ২২১ টন চাল বিতরণ করেছে সরকার