সোমবার   ২৫ জানুয়ারি ২০২১

সর্বশেষ:
সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোর বার্ষিক ছুটি ৭৫ দিন আগামী মার্চে ঢাকা উত্তর সিটির ভোটের ইঙ্গিত সিইসির আস্থা ভোটে টিকে গেলেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় পরিদর্শনে প্রধানমন্ত্রী রাষ্ট্রপতির সঙ্গে নেপালের বিদায়ী রাষ্ট্রদূতের সাক্ষাৎ সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন করতে ইসি প্রতিজ্ঞাবদ্ধ: নূরুল হুদা বারবার আসতে পারব না, যত খুশি সাজা দিন: খালেদা জিয়া ‘আকাশবীণার’ উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী ত্রিভুবনে আবারও বিমান দুর্ঘটনা ট্রেন-বাসের সংঘর্ষে নিহত ২, আহত ২৫ ভুয়া ছবি দিয়ে অপপ্রচার চালাচ্ছে মিয়ানমার: প্রধানমন্ত্রী
১৩৮

‘শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে বাচ্চাদের মৃত্যুর ঝুঁকিতে ফেলা যাবে না’

ডেস্ক রিপোর্ট

প্রকাশিত: ২২ নভেম্বর ২০২০  

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় বাচ্চাদের বাসায় থাকতে কষ্ট হচ্ছে। কিন্তু করোনাভাইরাসের প্রকোপের মধ্যে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দিয়ে তাদের মৃত্যুর ঝুঁকিতে ফেলা যাবে না।

একাদশ জাতীয় সংসদের দশম অধিবেশনের সমাপনী ভাষণে বৃহস্পতিবার বিরোধীদলীয় উপনেতার বক্তব্যের জবাবে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এ কথা বলেন। এর আগে সমাপনী বক্তব্যে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়ার দাবি জানিয়েছিলেন বিরোধীদলীয় উপনেতা জি এম কাদের।

সংসদ নেতা শেখ হাসিনা বলেন, যুক্তরাষ্ট্রে এক দফায় স্কুল খোলা হয়েছিল, কিন্তু সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় পরে আবার তারা স্কুল বন্ধ করতে বাধ্য হয়েছে। দেশে সংক্রমণ কমার পর সরকার শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়ার বিষয়ে আলোচনা করেছিল। কিন্তু ইউরোপে সংক্রমণের দ্বিতীয় ঢেউ দেখা দেয়। বাচ্চারা স্কুলে গেলে সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ার আশঙ্কা আছে। প্রধানমন্ত্রী প্রশ্ন রাখেন, সংক্রামক এই ব্যাধির এখনো চিকিৎসা বের হয়নি। ছেলেমেয়েদের ক্ষেত্রে ঝুঁকি কেন নেবেন?

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, করোনার দ্বিতীয় ঢেউ ইউরোপ–আমেরিকায় ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে পড়েছে। দেশেও সে ধাক্কা আসতে শুরু করেছে। সরকার এখন থেকেই সচেতন। প্রথম দিকে হঠাৎ সংক্রমণ শুরু হওয়ায় অনেক কাজ করা যায়নি। কিন্তু এবার বেশি প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে। টিকার জন্যও আগাম বুকিং দেওয়া হয়েছে। তিনি সবাইকে মাস্ক পরে বাইরে বের হওয়া এবং স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার আহ্বান জানান।

সরকারপ্রধান শেখ হাসিনা বলেন, ‘অটো পাস’ (পরীক্ষা ছাড়া পাস) দেওয়াতে খুব ক্ষতি হয়ে গেছে এমন নয়। ইংল্যান্ডও অটো পাস দিয়েছে।’ তিনি আরও বলেন, করোনাভাইরাসের মহামারির মধ্যেও অর্থনীতি গতিশীল রাখতে সরকার বিভিন্ন পদক্ষেপ নিয়েছে। তারপরও মানুষের কিছু কষ্ট আছে।

সংসদের এই অধিবেশন ৮ নভেম্বর শুরু হয়েছিল। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে প্রথমবারের মতো এই বিশেষ অধিবেশন ডাকা হয়। মোট ১০ কার্য দিবসের এই অধিবেশনে পাঁচ কার্যদিবস ছিল বিশেষ। বঙ্গবন্ধুর প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে অধিবেশনে প্রস্তাব আনেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সরকার ও বিরোধীদলীয় সদস্যরা প্রস্তাবের ওপর বঙ্গবন্ধুর রাজনৈতিক এবং কর্মময় জীবন ও দর্শন নিয়ে আলোচনা করেন। পরে সর্বসম্মতভাবে প্রস্তাবটি গ্রহণ করা হয়।

সমাপনী বক্তব্যে সংসদ নেতা শেখ হাসিনা বলেন, জাতির পিতা একটি দেশ দিয়ে গেছেন। বিধ্বস্ত বাংলাদেশকে উন্নত ও সমৃদ্ধ দেশ হিসেবে গড়তে চেয়েছিলেন। কিন্তু তিনি সময় পেয়েছিলেন মাত্র সাড়ে তিন বছর। জাতির পিতাকে হত্যার পর ইতিহাস থেকে তাঁর নাম মুছে ফেলা হয়েছিল। বঙ্গবন্ধু ও তাঁর পরিবার নিয়ে নানা মিথ্যা রটনা করা হয়েছিল। কিন্তু বঙ্গবন্ধু কখনো নিজের এবং সন্তানদের আরাম–আয়েশের কথা চিন্তা করেননি। তিনি বাংলাদেশের মানুষের ভাগ্য পরিবর্তন করতে চেয়েছিলেন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আরও বলেন, বঙ্গবন্ধু বিকেন্দ্রীকরণ করে ক্ষমতা জনগণের হাতে পৌঁছে দিতে চেয়েছিলেন। দলমত–নির্বিশেষে সব শ্রেণি–পেশার মানুষের সমন্বয়ে ঐক্য সৃষ্টি করেছিলেন। সেই জাতীয় ঐক্যের লক্ষ্য ছিল দেশকে সমৃদ্ধিশালী করা। ১৯৭৫ সালের ২৫ জানুয়ারি সংবিধান সংশোধনের দিন সংসদে বঙ্গবন্ধু যে বক্তব্য দিয়েছিলেন, তাতে এর প্রমাণ পাওয়া যায়।

পরে বঙ্গবন্ধুর সেদিনের ভাষণের রেকর্ডটি জাতীয় সংসদে বাজানো হয়।

জাতীয় বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
  • ৪-৫ দিনের মধ্যে সব জেলায় পৌঁছে যাবে ভ্যাকসিন: পাপন

  • দুর্নীতির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ায় দেড় যুগ পর লাভে বিমান

  • নির্ধারিত সময়েই মেঘনা-গোমতী সেতু: বাঁচলো ১৪৬৫ কোটি টাকা

  • মেহেরপুরের সবজি যাচ্ছে বিশ্বের ৩ দেশে

  • ইউরোপ ও ব্রাজিলে ভ্রমণে বাইডেনের নিষেধাজ্ঞা

  • দীর্ঘ ৩ বছর পর ওয়ানডে স্কোয়াডে তাসকিন

  • তাইওয়ানের আকাশে চীনের যুদ্ধ বিমান

  • করোনা নিয়ে ট্রাম্পের গোপন তথ্য ফাঁস

  • ঢাকায় পৌঁছেছে সেরামের ৫০ লাখ টিকা

  • করোনা: এন্টিবডি টেস্টের অনুমতি দিয়েছে সরকার

  • রমজানে তিনগুণ নিত্যপণ্য আমদানি করা হবে: বাণিজ্যমন্ত্রী 

  • ২৮০ চা শ্রমিক পেলেন প্রধানমন্ত্রীর অনুদানের চেক

  • শিগগিরই রেলবহরে যুক্ত হচ্ছে অ্যাম্বুলেন্স সেবা

  • উত্তরাঞ্চলের সমতল ভূমিতে চা উৎপাদনে রেকর্ড

  • টিকাদানে প্রস্তুত বাংলাদেশ

  • প্রধানমন্ত্রীর উপহারে আনন্দে উদ্বেলিত বহু পরিবার

  • ৫০ লাখ ভ্যাকসিন আসছে কাল

  • আপাতত সপ্তাহে একদিন ক্লাসের পরিকল্পনা : শিক্ষামন্ত্রী

  • চসিক নির্বাচনের প্রচারণায় একঝাঁক শিল্পী

  • এইচএসসির ফল প্রকাশে বাধা কাটল

  • ২০৩০ সাল নাগাদ প্লাস্টিক পণ্য রপ্তানির টার্গেট ১০ বিলিয়ন

  • নতুন ৬টি দেশে শ্রমিক পাঠানোর উদ্যোগ নিয়েছে সরকার

  • হাসপাতালের ১০ জরুরি পরীক্ষার ফি নির্ধারণ

  • ১৮ ফসলের ১১২ জাত আবিষ্কার করেছে বিনা

  • ঢাকা-সিলেট চার লেন কাজ শুরু জুলাইয়ে

  • বাড়ি পেয়ে প্রধানমন্ত্রীর দীর্ঘায়ু কামনা গৃহহীনদের

  • রাশিয়ায় ‘পুতিনবিরোধী’ বিক্ষোভ, গ্রেফতার ৩ হাজার 

  • থ্রিডি মুভিতে অভিনয় করছেন নায়লা!

  • অভিযোগের মুখে কানাডিয়ান গভর্নর জেনারেলের পদত্যাগ 

  • এশিয়ার অন্যতম মাদক সম্রাট গ্রেপ্তার

  • অনুমোদন পেল বাংলাদেশে উদ্ভাবিত কোভিড টেস্ট কিট

  • বিনাশুল্কে চীনের বাজারে যাচ্ছে ৮২৫৬ বাংলাদেশি পণ্য

  • মুজিবর্ষে ৭০ হাজার গৃহহীন পরিবারকে ঘর দিলেন প্রধানমন্ত্রী

  • স্বপ্নের মেট্রোরেল: উত্তরা থেকে আগারগাঁও ৮০ ভাগ কাজ সম্পন্ন

  • সবুজ শিল্পবিপ্লব, কর্মসংস্থান হবে ১৫ লাখ

  • বাংলাদেশে পৌঁছালো ভারতের উপহারের ২০ লাখ ডোজ টিকা

  • ‘ফেব্রুয়ারির শুরুতেই মুক্তিযোদ্ধাদের খসড়া তালিকা প্রকাশ’

  • আজ ‘স্বপ্ননীড়ে’ পা রাখছে ৬৬ হাজার ১৮৯ পরিবার

  • বাংলাদেশসহ ৫ দেশের গৃহকর্মী ভিসা চালু করল কুয়েত

  • কারা নিতে পারবেন না করোনা ভ্যাকসিন

  • ৩ থেকে ৫ কোটি টাকা ঋণ পাবে ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পের উদ্যোক্তারা

  • বাড়ি পেয়ে প্রধানমন্ত্রীর দীর্ঘায়ু কামনা করলেন গৃহহীনরা

  • জুলাই-ডিসেম্বরে রেমিটেন্স বেড়েছে ৩৮ শতাংশ

  • নরসিংদীর উৎকৃষ্ট সবজি যাচ্ছে বিদেশে

  • ২০৩০ সালে শিল্পখাতের উৎপাদনশীলতা হবে ৫.৬ শতাংশ: শিল্পমন্ত্রী

  • পুরোদমে এগিয়ে চলছে খাল ও বক্স কালভার্টের বর্জ্য অপসারণ

  • টিভিতে প্রতারণামূলক বিজ্ঞাপন প্রচারের সুযোগ নেই: তথ্যমন্ত্রী

  • মুজিববর্ষে ঘর পাচ্ছে ৯ লাখ ভূমিহীন পরিবার

  • করোনা মোকাবিলায় ২৭০০ কোটি টাকার দুই প্যাকেজ অনুমোদন

  • দেশের প্রথম স্বয়ংক্রিয় দুগ্ধ খামার চালু

  • রপ্তানিমুখী শিল্পপ্রতিষ্ঠানের আধুনিকায়নে হাজার কোটি টাকার তহবিল

  • ৫০ বছর পর সুন্দরী খাল সংস্কার

  • বাংলাদেশকে কিছু ভ্যকসিন উপহার দেবে ভারত: স্বাস্থ্যমন্ত্রী 

  • ১৫ টাকা কেজিতে বিক্রি হচ্ছে টিসিবির পেঁয়াজ

  • ভিভিআইপিরা নয়, ফ্রন্টলাইনাররাই আগে টিকা পাবেন: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

  • শাহজালাল বিমানবন্দর হবে দক্ষিণ এশিয়ার কেন্দ্রবিন্দু

  • করোনা ভ্যাকসিনের সুরক্ষা অ্যাপ প্রস্তুত: পলক

  • করোনা টিকা নিয়ে গুজব রোধে সতর্ক সরকার

  • সর্বপ্রথম ভ্যাকসিন নিতে অর্থমন্ত্রীর আগ্রহ প্রকাশ

  • দেশের সব নদী দখলমুক্ত করা হবে: নৌপ্রতিমন্ত্রী