শুক্রবার   ২২ নভেম্বর ২০১৯

ব্রেকিং:
সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোর বার্ষিক ছুটি ৭৫ দিন আগামী মার্চে ঢাকা উত্তর সিটির ভোটের ইঙ্গিত সিইসির জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় পরিদর্শনে প্রধানমন্ত্রী আস্থা ভোটে টিকে গেলেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে রাষ্ট্রপতির সঙ্গে নেপালের বিদায়ী রাষ্ট্রদূতের সাক্ষাৎ খালেদার অনুপস্থিতিতেই কারাগারে বিচার চলবে রব ও মান্নার বিয়ে যুক্তফ্রন্টে, পরকীয়া ঐক্যফ্রন্টে: মাহী এটা জোট নয়, ঘোট : তথ্যমন্ত্রী যুক্তরাষ্ট্রে রাজনৈতিক আশ্রয় পেলেন সিনহা আবারও সরকার গঠনে নৌকায় ভোট দেয়ার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর পদ্মা সেতু প্রকল্পের নামফলক উন্মোচন করলেন প্রধানমন্ত্রী
৪৪৩

শিক্ষাগত যোগ্যতায় হবে প্রাইমারি স্কুলের কমিটি

ডেস্ক নিউজ

প্রকাশিত: ২ নভেম্বর ২০১৯  

সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের স্কুল ম্যানেজিং কমিটিতে (এসএমসি) আমূল পরিবর্তন আনছে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়। সভাপতিসহ ১১ সদস্যবিশিষ্ট এসএমসির দায়িত্ব ও কর্তব্য নির্ধারণ করে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ব্যবস্থাপনা কমিটি গঠনের নীতিমালা চূড়ান্ত করা হয়েছে। আগামী সপ্তাহে এ-সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারি করা হবে বলে মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে।

সূত্র জানায়, নীতিমালায় সভাপতির শিক্ষাগত যোগ্যতা হিসেবে সর্বনিম্ন স্নাতক (অনার্স) পাস নির্ধারণ করা হয়েছে। রাজনৈতিক বিবেচনায় মনোনীত বিদ্যোৎসাহী সদস্যদেরকেও এসএসসি পাস হতে হবে। তবে অভিভাবক প্রতিনিধিসহ অন্য ক্যাটাগরির সদ্যসদের শিক্ষাগত যোগ্যতা নির্ধারণ করা হয়নি। তবে দেশের প্রত্যন্ত এলাকার স্কুলের এসএমসি গঠনে স্নাতক পাস সভাপতি পাওয়া নিয়ে শঙ্কা রয়েছে। কারণ এসএমসির ১১ সদস্যের ভোটেই সভাপতি নির্বাচিত হবেন।

জানতে চাইলে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী মো. জাকির হোসেন বলেন, ‘সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের গুণগতমান নিশ্চিত করতে এসএমসিতে বড় পরিবর্তন আনার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। শিক্ষিত ও যোগ্য লোককে এ কমিটির প্রধান করা হবে। যে কারণে সভাপতির শিক্ষাগত যোগ্যতা স্নাতক নির্ধারণ করা হয়েছে। বিদ্যোৎসাহী সদস্য হতে হলেও এসএসসি পাস হতে হবে। অবশ্যই তাদের সন্তানকে স্কুলে পড়তে হবে। কারণ নিজের সন্তান স্কুলে না পড়লে প্রতিষ্ঠানের প্রতি তার দরদ থাকে না। স্কুলের প্রতি যাতে তার দরদ থাকে, স্কুলের উন্নয়নের কথা ভাবে, কেউ যেন স্কুল নিয়ে বাণিজ্য করতে না পারে, সেজন্য এসএমসি গঠনে ব্যাপক পরিবর্তন আনা হচ্ছে।’

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের তৈরি করা এ-সংক্রান্ত নতুন প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, ‘১১ সদস্যবিশিষ্ট এসএমসি গঠিত হবে। তাতে স্কুলের প্রধান শিক্ষক বা ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক সচিবের দায়িত্ব পালন করবেন। সংশ্লিষ্ট এলাকার এমপির সুপারিশে স্কুলে অধ্যয়নরত শিক্ষার্থীদের অভিভাবকদের মধ্য থেকে একজন বিদ্যোৎসাহী নারী ও একজন পুরুষ সদস্য মনোনয়ন দেবেন প্রধান শিক্ষক। তবে তাদের অবশ্যই এসএসসি পাস হতে হবে। বিদ্যালয়ের জমিদাতা বা তাদের উত্তরাধিকারীদের মধ্য থেকে একজন সদস্য মনোনীত হবেন। জমিদাতারা নিজেরা প্রতিনিধি মনোনীত করতে না পারলে উপজেলা শিক্ষা কমিটি নির্ধারণ করে দেবে।

সংশ্লিষ্ট স্কুলের নিকটবর্তী সরকারি-বেসরকারি হাইস্কুলের একজন শিক্ষক কমিটির সদস্য মনোনীত হবেন। ওই হাইস্কুলের প্রধান শিক্ষক তা নির্ধারণ করে দেবেন। স্কুলের শিক্ষকদের মধ্য থেকে একজন শিক্ষক প্রতিনিধি নির্বাচিত হবেন। শিক্ষার্থীদের অভিভাবকদের ভোটে দুজন নারী ও দুজন পুরুষ সদস্য নির্বাচিত হবেন। স্কুলটি ইউনিয়ন বা পৌরসভার যে ওয়ার্ডে অবস্থিত সেখানকার ইউপি সদস্য বা কাউন্সিলর পদাধিকার বলে সদস্য মনোনীত হবেন। এ ১১ জনের ভোটে সভাপতি ও সহ-সভাপতি নির্বাচিত হবেন। সভাপতিকে অবশ্যই স্নাতক ডিগ্রিধারী হতে হবে। একই স্কুলে টানা দুবারের বেশি কোনো ব্যক্তি সভাপতি হতে পারবেন না। কমিটির সদস্যরা সভাপতিকে লিখিতভাবে না জানিয়ে টানা তিনটি সভায় অনুপস্থিত থাকলে সদস্য পদ বাতিল হবে। কমিটির মেয়াদ হবে তিন বছর। কোনো কারণে নির্ধারিত সময়ে কমিটি গঠনে ব্যর্থ হলে ছয় মাসের জন্য অ্যাডহক কমিটি গঠন করতে হবে। অ্যাডহক কমিটির সভাপতি হবেন সংশ্লিষ্ট ক্লাস্টারের দায়িত্বপ্রাপ্ত উপজেলা সহকারী শিক্ষা কর্মকর্তা।

এ বিষয়ে কথা হয় বাংলাদেশ প্রাথমিক সহকারী শিক্ষক সমাজের সভাপতি এবং যশোর অভয়নগর উপজেলার আড়পাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক তপন কুমার মণ্ডলের সঙ্গে। কমিটিতে সভাপতির স্নাতক পাস নিয়ে তিনি দ্বিমত পোষণ করেন। এতে করে অনেক স্কুলে সভাপতি নির্বাচন করা কঠিন হবে বলে তিনি মনে করেন। এর কারণ ব্যাখ্যা করতে গিয়ে তিনি বলেন, ‘আমাদের দেশে গ্র্যাজুয়েটের সংখ্যা বাড়েনি। সভাপতি যিনি হন তাকে স্বচ্ছ ও উদার মানসিকতার শিক্ষাবান্ধব হতে হয়। দেখা গেল ডিগ্রি পাস না কিন্তু নীতি-নৈতিকতাসম্পন্ন ব্যক্তি এসএমসির সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন। নীতিমালার শর্তের কারণে তিনি সভাপতি হতে পারবেন না।’

তিনি আরও বলেন, ‘শিক্ষকরা সভাপতি হতে পারবেন না। চারজন অভিভাবক প্রতিনিধি ও ইউপি সদস্য বা কাউন্সিলর অশিক্ষিত হতে পারেন। দুজন বিদ্যোৎসাহী সদস্যের শিক্ষাগত যোগ্যতা এসএসসি পাস নির্ধারণ করা হয়েছে। সে ক্ষেত্রে এসএমসি গঠন করাই তো সম্ভব হবে না।’

কমিটির দায়িত্ব ও কর্তব্য
প্রতি বছর মে, আগস্ট ও ডিসেম্বর মাসের ৩০ তারিখের মধ্যে স্কুল ব্যবস্থাপনা, শিক্ষার্থী উপস্থিতি ও শিক্ষকদের দায়িত্ব পালনের ওপর প্রতিবেদন উপজেলা বা থানা শিক্ষা কর্মকর্তার কাছে দিতে হবে এসএমসিকে। শিক্ষার্থীদের শারীরিক শাস্তি বন্ধ নিশ্চিত করতে হবে। শিক্ষার্থীদের সততা, নৈতিক শিক্ষা প্রদানে ভূমিকা রাখতে হবে। কমিটির সকল সদস্যকে প্রতি মাসের শেষ কর্মদিবসে ক্লাস শেষে অন্তত এক ঘণ্টা শিক্ষার্থীদের অভিযোগ ও সুপারিশ শুনতে হবে। এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে উপজেলা শিক্ষা কমিটির কাছে প্রতিবেদন দিতে হবে।

কমিটি স্কুলের সার্বিক উন্নয়নে জনগণের কাছ থেকে জমি, ভবন, আসবাবপত্র, যন্ত্রপাতি, শিখন ও শেখানো সামগ্রী, শিক্ষা উপকরণ, নগদ অর্থ নিতে পারবে। দানকারীদের নাম প্রধান শিক্ষকের রুমের বোর্ডে প্রদর্শন করতে হবে। ভবন নির্মাণে স্কুলের খেলার মাঠ ও অন্যান্য স্থাপনা যাতে ক্ষতিগ্রস্ত না হয় সে বিষয়ে উপজেলা বা থানা প্রকৌশলীর প্রত্যায়ন নিতে হবে।

কমিটির সদস্যদের স্কুলের শিখন-শেখানো পরিবেশ সম্পর্কিত অবস্থা বিশ্লেষণ এবং সমস্যা চিহ্নিত করতে হবে। স্থানীয় জনগণের কাছ থেকে স্কুলের উন্নয়নে তহবিল সংগ্রহ করতে হবে। স্কুলের ক্যাচমেন্ট (আশপাশের নির্ধারিত এলাকা) এলাকার সকল শিশুকে স্কুলে ভর্তি ও গুণগত শিক্ষা নিশ্চিত করতে এসএমসিকে শিশু জরিপে সহায়তা করতে হবে। বিশেষ চাহিদাসম্পন্ন শিশু চিহ্নিতকরণ ও ভর্তিসহ তাদের সহযোগিতা করতে হবে। তাদের চাহিদা কর্তৃপক্ষকে জানাতে হবে। একীভূত শিক্ষা কার্যক্রম বাস্তবায়নে প্রাপ্ত অর্থ সঠিকভাবে খরচ নিশ্চিত করতে হবে। এসএমসি সদস্যদের প্রাক-প্রাথমিক শিক্ষাসামগ্রী ক্রয়সহ সার্বিক তদারকি করতে হবে। স্কুলের অবকাঠামো নির্মাণ ও সংস্কারে এসএমসি তিন লাখ টাকা পর্যন্ত খরচ করতে পারবে। তবে উপজেলা শিক্ষা কমিটির অনুমোদন নিতে হবে। স্থানীয়দের অনুদানের মাধ্যমে নির্মাণকাজে এ শর্ত কার্যকর হবে না।

স্কুলের ক্যাচমেন্ট এলাকার প্রাথমিক স্তরে ঝরে পড়া শিশুদের শনাক্ত করতে হবে। তাদের দ্বিতীয় দফায় শিক্ষা কার্যক্রমে সুযোগ দিতে হবে। ঝরে পড়া শিশুর অভিভাবকদের দ্বিতীয়বার শিক্ষা চালিয়ে নিতে উদ্বুদ্ধ করতে হবে। এ-সংক্রান্ত কার্যক্রম পরিচালনায় শিক্ষক নির্বাচনে সহায়তা দিতে হবে। শিক্ষকদের প্রশিক্ষণে শিক্ষক যাচাই করবে এসএমসি। এছাড়া স্কুলে সকল প্রশিক্ষণ ও সাব ক্লাস্টারের কার্যক্রম পরিচালনায় সহায়তা করতে হবে। দুর্যোগকালীন সময়ে পাঠদান কার্যক্রম পরিচালনা, শিক্ষার্থী, অভিভাবক, শিক্ষকদের সতর্ক এবং দুর্যোগকালীন প্রস্তুতি ও পরবর্তীতে করণীয় নির্ধারণ করবে এসএমসি।

এসএমসির ১১ সদস্যের মধ্যে শিক্ষক ছাড়া অন্যদের পর্যায়ক্রমে চারজনকে প্রতি মাসে অন্তত ছয়দিন স্কুলের কার্যক্রম পর্যবেক্ষণ করতে হবে। এ-সংক্রান্ত প্রতিবেদন এসএমসির মাসিক সভায় উপস্থাপন করতে হবে। ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর শিশুদের স্কুলে ভর্তি ও নিয়মিত উপস্থিত নিশ্চিত করতে তিন সদস্যের কমিটি গঠন করে তদারকি করতে হবে।

এসএমসি অনুমোদনের পরবর্তী তিন বছর দায়িত্ব পালন করবে। মেয়াদ শেষ হওয়ার ছয় মাস আগে প্রধান শিক্ষক পরবর্তী কমিটি গঠনের উদ্যোগ নেবেন। সরকারি আদেশ অমান্য, দায়িত্ব পালনে ব্যর্থ, আর্থিক অনিয়ম এবং যেকোনো শৃঙ্খলা পরিপন্থী কারণে এসএমসি বাতিল করে আইনি ব্যবস্থা নিতে পারবে সংশ্লিষ্ট এলাকার শিক্ষা কর্মকর্তা। এ প্রজ্ঞাপন জারির আগে গঠিত এসএমসি পূর্ণ মেয়াদ শেষ করতে পারবে। তবে প্রজ্ঞাপনটি পার্বত্য তিন জেলার ক্ষেত্রে প্রযোজ্য হবে না।

আরও পড়ুন
শিক্ষা বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
  • পর্যটন শিল্পে বিনিয়োগ করবে তুরস্ক: অর্থমন্ত্রী

  • আবরার হত্যায় বহিষ্কারাদেশ: ছাড় পেলো না ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরাও

  • আবরার হত্যা: আলোচিত আসামি অমিত সাহাকে বুয়েট থেকে স্থায়ী বহিষ্কার

  • সরাসরি ধান কেনা হবে দরিদ্র কৃষকের কাছ থেকে

  • গুজবে কান দেবেন না: প্রধানমন্ত্রী

  • আবরার হত্যার ঘটনায় ২৬ বুয়েট শিক্ষার্থীকে স্থায়ী বহিষ্কার

  • দুপুরে ঐতিহাসিক টেস্ট খেলতে নামবে বাংলাদেশ

  • সন্ধ্যায় শেখ হাসিনা-মমতা বৈঠক

  • শেখ হাসিনার সঙ্গে তিনবার দেখা হবে: মমতা

  • নতুন দেশ পাচ্ছে বিশ্ব

  • গ্রেটার আন্তর্জাতিক শিশু শান্তি পুরস্কার জয়

  • তদন্ত সংস্থার মর্যাদা পেল অ্যান্টি টেররিজম ইউনিট

  • এবার মিয়ানমার থেকে এল ১ হাজার ৭০৯ টন পেঁয়াজ

  • টেনিস ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক বহিষ্কার

  • পূর্ব লন্ডনে গুলিবিদ্ধ সেই বাংলাদেশির মৃত্যু

  • টেকনাফে পড়ে আছে ১৫ হাজার মেট্রিক টন লবণ!

  • বখাটের ভয়ে জেএসসি পরীক্ষার্থীকে নিয়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছেন পরিবার

  • ফেসবুক-গুগলের ব্যবসা মডেল মানবাধিকারের জন্য হুমকি: অ্যামনেস্টি

  • কক্সবাজারে শনিবার আত্মসমর্পণ করবে শতাধিক জলদস্যু

  • আবরার হত্যা: বুয়েটের ২৬ শিক্ষার্থী আজীবন বহিষ্কার

  • সকালে ৯ লাখ টাকা নেন, রাতে পার্টনারের বুকে ছুরি বসান

  • স্কুলছাত্রীকে অপহরণের পর দুই দিন আটকে রেখে ধর্ষণ

  • উখিয়ায় পিইসি পরীক্ষা দিচ্ছে রোহিঙ্গা শিশুরা!

  • ৫ শতাধিক সদস্য নিয়ে চোরের গ্যাং, ১ হাজার গাড়ি চুরি

  • প্রাণ ফ্রুটো ইমার্জিং এশিয়া কাপের ফাইনালে বাংলাদেশ

  • বিদ্যুৎস্পৃষ্টে জাহাজ নির্মাণ প্রতিষ্ঠানের ম্যানেজারের মৃত্যু

  • সোনারগাঁওয়ে বিদেশি সুটারগানসহ আটক ১

  • যশোরে জেএমবি সদস্যের ২২ বছরের কারাদণ্ড

  • ভর্তির টাকা দিলেন ডিসি, অস্বীকার করলেন শিক্ষার্থী

  • আজ কলকাতা যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী

  • আমির খানের মেয়ের খোলামেলা ছবি নিয়ে তোলপাড় মিডিয়া

  • অবশেষে ভেঙে গেল এলডিপি!

  • শোভন-রাব্বানীর সম্পদের অনুসন্ধান শুরু করছে দুদক

  • বিদিশা-এরিককে অবরুদ্ধ করে রাখার অভিযোগ

  • সিটিং সার্ভিস লেখা কিছু গাড়ি আসলে চিটিং সার্ভিস, বললেন কাদের

  • উপজেলা পর্যায়ে প্রার্থী হতে পারবেন না এমপিরা

  • স্বামীর জন্মদিনে আইসিইউতে অভিনেত্রী নুসরাত

  • বিএনপির বড় বড় নেতা বেশিরভাগই হচ্ছে দলছুট, বললেন তথ্যমন্ত্রী

  • ২২ ফেব্রুয়ারি বিয়ের পিঁড়িতে বসছেন সৃজিত-মিথিলা

  • ‘ছাত্রলীগ থেকে স্বেচ্ছাসেবক লীগের নেতৃত্ব আসছে’

  • লবণের দাম বাড়ালে ব্যবস্থা, জানালেন বাণিজ্যমন্ত্রী

  • আলোচনায় সাবিলা নূরের হানিমুনের ছবি ও ভিডিও

  • ডিএসসিসির কাউন্সিলর ওমর আজিজের জনপ্রিয়তার আদ্যোপান্ত

  • মজলুম জননেতা মওলানা ভাসানীর ৪৩তম মৃত্যুবার্ষিকী আজ

  • বেশি জরিমানা দিলে সড়কে শৃঙ্খলা ফিরে আসবে, বললেন ওবায়দুল কাদের

  • স্বেচ্ছাসেবক লীগের জাতীয় সম্মেলন আজ

  • শাকিব খানকে ১০ লাখ টাকা জরিমানা করেছে রাজউক

  • সরকারি হাসপাতালে ২৪ ঘন্টা ডেলিভারি সুবিধা: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

  • বিয়ের পিঁড়িতে বসছেন জয়া আহসান

  • দেশে জঙ্গিবাদ-সন্ত্রাস নির্মূল হয়েছে, বললেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

  • ‘স্পেশাল পার্সন’কে জন্মদিনে চমক দিলেন ক্যাটরিনা

  • পেঁয়াজের কেজি ৫৫ টাকার বেশি বিক্রি করলেই জরিমানা

  • স্বাস্থ্য সুরক্ষায় স্থানীয় তহবিল সংগ্রহের উদ্যোগ প্রশংসনীয়

  • রুনা লায়লার সুরে উপমহাদেশের চার লিজেন্ডের গান

  • প্রাথমিক থেকে উচ্চ ডিগ্রি নেয়া পর্যন্ত আমরা উপবৃত্তির ব্যবস্থা

  • ঐশ্বরিয়ার এক জ্যাকেট তৈরি করতে লাগল ২ বছর

  • বস্ত্র খাতের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট সবাইকে সহযোগিতা দেয়া হবে

  • পরিবহন খাতে অরাজকতায় বিএনপির হাত রয়েছে, বললেন কাদের

  • ব্যবসায়ীর ফেলে যাওয়া ২০ লাখ টাকা ফেরত দিলেন রিকশাচালক

  • দেশকে আমরা ক্ষুধামুক্ত করেছি: প্রধানমন্ত্রী