শনিবার   ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২০

ব্রেকিং:
৫ মাস পর খুললো বিনোদনকেন্দ্র, দর্শনার্থীর উপস্থিতি কম ইউপি তথ্যসেবা কেন্দ্রের মাধ্যমে এনআইডি সেবা দেওয়ার উদ্যোগ বরিশালে পারিবারিক কৃষিতে সফলতা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোর বার্ষিক ছুটি ৭৫ দিন আগামী মার্চে ঢাকা উত্তর সিটির ভোটের ইঙ্গিত সিইসির জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় পরিদর্শনে প্রধানমন্ত্রী আস্থা ভোটে টিকে গেলেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে রাষ্ট্রপতির সঙ্গে নেপালের বিদায়ী রাষ্ট্রদূতের সাক্ষাৎ খালেদার অনুপস্থিতিতেই কারাগারে বিচার চলবে রব ও মান্নার বিয়ে যুক্তফ্রন্টে, পরকীয়া ঐক্যফ্রন্টে: মাহী এটা জোট নয়, ঘোট : তথ্যমন্ত্রী যুক্তরাষ্ট্রে রাজনৈতিক আশ্রয় পেলেন সিনহা আবারও সরকার গঠনে নৌকায় ভোট দেয়ার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর পদ্মা সেতু প্রকল্পের নামফলক উন্মোচন করলেন প্রধানমন্ত্রী
২৫৪

রিকশা চালকের তথ্য, ৩০ বছর পর বেরিয়ে এলো হত্যা রহস্য

ডেস্ক নিউজ

প্রকাশিত: ১৬ নভেম্বর ২০১৯  

দুই ভাইয়ের দুই স্ত্রী। একজন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়(ঢাবি) থেকে স্নাতক করা মোসাম্মৎ সগিরা মোর্শেদ সালাম। অন্যজন জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বিএ পাস সায়েদাতুল মাহমুদা ওরফে শাহিন। একই বাড়িতে থাকার কারণে অন্য ৮/১০টি বাঙালি পরিবারের মত তাদের পরিবারেও দুই জা এর ভেতর ছিল মনোমালিন্য। সেই সঙ্গে একজন ঢাবি আর অপরজন সাধারণ বিএ পাস হওয়ায় দু’জনের মধ্যে ছিল ব্যক্তিত্বের টানাপোড়েন। 

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় ধানমন্ডির পিবিআই সদর দফতরে সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান পিবিআই প্রধান ডিআইজি বনোজ কুমার মজুমদার।

বনোজ কুমার বলেন, এই বিষয়টি শেষ পর্যন্ত গড়ায় হত্যাকাণ্ডে। এজন্য শাহিন আর তার স্বামী বারডেম হাসপাতালের বিশেষজ্ঞ ডাক্তার হাসান আলী চৌধুরী করেন একটি পরিকল্পনা। তাতে শাহিন যুক্ত করেন তার ভাই আনাস মাহমুদ ওরেফে রেজওয়ান। আর ডা. হাসান ভাড়া করেন তারই রোগীর ওই সময়ে শান্তিনগরের ক্যাডার মারুফ রেজাক। বেইলি রোডে প্রকাশ্যে খুন করা হয় সগিরা মোর্শেদকে। দীর্ঘ ৩০ বছর ধামাচাপা ছিল হত্যাকাণ্ডটি। কিন্তু ধর্মের কল বাতাসে নড়ে-শেষ পর্যন্ত বেরিয়ে এসেছে হত্যার রহস্য।

১৯৮৯ সালের ২৫ জুলাই। প্রতিদিনের মত বিকেল ৫টায় মোসাম্মৎ সগিরা মোর্শেদ সালাম (৩৪) বাসা থেকে মেয়ে সারাহাত সালমাকে (ভিকারুননেসা স্কুলের ২য় শ্রেণির ছাত্রী) আনতে যায়। স্কুলের সামনে পৌঁছা মাত্রই অজ্ঞাতনামা দুষ্কৃতিকারীরা তার বালা টান দেয়, বালা দিতে অস্বীকার করলে তাকে গুলি করে। ভিকটিমকে গুরুতর আহত অবস্থায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষণা করে। এই ঘটনায় তার স্বামী  আ. ছালাম চৌধুরী রমনা থানায় একটি মামলা করেন। এরপর ১৯৯০ সাল থেকে ২০১৯ সালের জুন পর্যন্ত মোট ২৬ জন তদন্তকারী কর্মকর্তা মামলাটি তদন্ত করে। কিন্তু অনুদঘাটিত থাকে রহস্য।

সেই রিকশাচালকের নাম ছালাম মোল্লা। বর্তমানে তার বয়স ৫৬ বছর। খুনের ঘটনার সময় তার বয়স ছিল ২৬ বছর। ছালামের সামনে ৩০ বছর আগে ১৯৮৯ সালের ২৫ জুলাই রমনা এলাকায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ছাত্রী সগিরা মোর্শেদ খুন হন।

খুনিদের চেহারা কেমন ছিল? কী কথা হয়েছিল খুনিদের সঙ্গে? কীভাবে সগিরা মোর্শেদকে খুন করা হয়? খুনের পর খুনিদের ধরার জন্য তিনি পিছু নিয়েছিলেন-এসব তথ্য ঢাকার আদালতকে চলতি সপ্তাহে বিস্তারিত জানান রিকশাচালক ছালাম মোল্লা।

গত ১১ জুলাই সুপ্রীমকোর্টের হাইকোর্ট বিভাগ ক্রিমিনাল মিস মামলাটি খারিজ করে অধিকতর তদন্ত পূর্বক প্রতিবেদন দাখিলের জন্য পিবিআই-এর  ডিআইজিকে নির্দেশ দেয়।

পিবিআই এর তদন্তকারী কর্মকর্তা পুলিশ পরিদর্শক রফিকুল ইসলাম গত ১০ নভেম্বর মামলাটির সন্দেহভাজন আসামি আনাছ মাহমুদ ওরফে রেজওয়ানকে (৫৯) রামপুরা থেকে গ্রেফতার করেন। তার স্বীকারোক্তি মোতাবেক সন্দেহভাজন আসামি ডা. হাসান আলী চৌধুরী (৭০) ও তার স্ত্রী সায়েদাতুল মাহমুদা ওরফে শাহিনকে (৬৪) ধানমন্ডি থেকে গ্রেফতার করেন। পরদিন মো. মারুফ রেজাকে (৫৯) বেইলী রোড তার বাসা থেকে গ্রেফতার করেন। গ্রেফতাকৃত চার জন আসামি ভিকটিম সগিরা মোর্শেদ হত্যায় নিজেদের সম্পৃক্ত করে আদালতে ফৌজদারি কার্যবিধি’র ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দেন।

পিবিআই সূত্রে জানা যায়, সগিরা মোর্সেদ হত্যাকাণ্ডের মূল পরিকল্পনাকারী আসামি ডা. হাসান আলী চৌধুরী (৭০) ও তার স্ত্রী সায়েদাতুল মাহমুদা ওরফে শাহিন (৬৪)। আসামি আনাছ মাহমুদ ওরফে রেজওয়ান (৫৯) এবং আসামি মো. মারুফ রেজা পরিকল্পনা মোতাবেক হত্যায় অংশ নেয়।

সার্বিক তদন্তে জানা যায়, বাদী আ. ছালাম চৌধুরী তিন ভাই। বড় ভাই সামছুল আলম চৌধুরী ও মেঝ ভাই ডা. হাসান আলী চৌধুরী। আ. ছালাম চৌধুরী ভাইদের মধ্যে সবার ছোট। বাদী ও ভিকটিম সগিরা মোর্শেদ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে অর্থনীতি বিভাগে লেখাপড়া করার সময় পরস্পরের মধ্যে সু-সম্পর্ক তৈরি হয়। পরবর্তীতে ১৯৭৯ সালের ২৫ অক্টোবর তাদের বিয়ে হয়। আ. ছালাম ১৯৮০ সালে শিক্ষকতা করার জন্য সপরিবারে ইরাকে চলে যায়। ১৯৮৪ সালে বাদী সপরিবারে বাংলাদেশে ফিরে আসেন। তাদের ৩ কন্যা সন্তান রয়েছে।

অন্যদিকে হাসান আলী চৌধুরী বারডেম হাসপাতালে বিশেষজ্ঞ ডাক্তার হিসেবে কর্মরত। তিনি ১৯৮০ সালে সায়েদাতুল মাহমুদা ওরফে শাহিনকে বিয়ে করেন। ২২ জুন ১৯৮০ সালে তিনি তার স্ত্রীকে নিয়ে লিবিয়ায় চলে যান। তিনি ১৯৮৫ সালে স্ত্রী ও দুই সন্তানসহ দেশে ফিরে আসেন। দেশে এসে ৯৫৫ আউটার সার্কুলার রোডের রাজারবাগে বাবার বাসায় তার মা, বড় ভাই সামসুল আলম চৌধুরীর সঙ্গে নীচ তলায় থাকতেন। তারপর ওই বাড়ির দ্বিতীয় তলায় তার ছোট ভাই আ. ছালাম চৌধুরীর বাসায় সপরিবারে থাকতেন। 

এক বাসায় থাকার কারণে ডা. হাসান আলী চৌধুরীর স্ত্রী শাহিনের সঙ্গে আ. ছালাম চৌধুরীর স্ত্রী সগিরা মোর্শেদের গৃহস্থালির কাজের ব্যাপারে দ্বন্দ্বের শুরু হয়। আনুমানিক ৬ মাস থাকার পর ১৯৮৬ সালের এপ্রিল মাসে ওই বাড়ির তৃতীয় তলার কাজ সম্পন্ন হলে ডা. হাসান আলী চৌধুরী তার স্ত্রী পুত্রসহ তৃতীয় তলায় উঠেন। এই সময়ে তৃতীয় তলা হতে ময়লা ফেলা ও বিভিন্ন কারণে ডা. হাসান আলী চৌধুরীর স্ত্রী শাহিনের সঙ্গে সগিরা মোর্শেদের দ্বন্দ্ব হয়েছিল। ভিকটিম সগিরা মোর্শেদ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় হতে অর্থনীতিতে মাস্টার্স পাশ ছিল আর শাহিনের সিম্পল বিএ পাশ ছিল। পারিবারিক তুচ্ছ বিষয়গুলো নিয়ে ডা. হাসান আলী চৌধুরী ও তার স্ত্রী শাহিনের মধ্যে মনোমালিন্য হয়। 

১৯৮৯ সালের প্রথম দিকে ডা. হাসান আলী চৌধুরীর স্ত্রী সায়েদাতুল মাহমুদা ওরফে শাহিন বলেন, সগিরা মোর্শেদকে একটু শায়েস্তা করতে হবে। স্ত্রীর ওই কথায় ডা. হাসান আলী চৌধুরী রাজি হয়। আসামি মারুফ রেজা (তৎকালীন সময়ে সিদ্ধেশ্বরী এলাকার নামকরা সন্ত্রাসী এবং তৎকালীন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর ভাগ্নে ডা. হাসান আলী চৌধুরীর রোগী ছিল। সগিরা মোর্শেদকে শায়েস্তা করার জন্য ডা. হাসান আলী চৌধুরী আসামি মারুফ রেজার সঙ্গে কথা হয়। এই কাজের জন্য ডা. হাসান আলী চৌধুরী মারুফ রেজাকে তৎকালীন ২৫ হাজার টাকা দেয়ার কথা ছিল। ডা. হাসান আলী চৌধুরীর শ্যালক আনাস মাহমুদ ওরফে রেজওয়ানকে মারুফ রেজার সহযোগী হিসাবে নিয়োগ করে, যাতে সে সগিরা মোর্শেদকে দেখিয়ে দিতে পারে। আনাস মাহমুদ ওরফে রেজওয়ান, ডা. হাসান আলী চৌধুরীর বাসায় যাতায়াত করতো, এই সুবাদে সে সগিরা মোর্শেদকে চিনতো।
 
গত ২৫ জুলাই ১৯৮৯ ডা. হাসান আলী চৌধুরী তার শ্যালক আনাস মাহমুদ ওরফে রেজওয়ানকে বেলা আনুমানিক ২ টার দিকে ফোন করে মৌচাক মার্কেটের সামনে আসতে বলে। মারুফ রেজা মোটরসাইকেলে মৌচাক মার্কেটের সামনে আসবে বলে জানায়। ডা. হাসান আলী চৌধুরী তার শ্যালককে মারুফ রেজার সঙ্গে গিয়ে সগিরা মোর্শেদকে দেখিয়ে দিতে বলে। বিকাল ৪টার টার দিকে ডা. হাসান আলী চৌধুরীর শ্যালক আনাস মাহমুদ ওরফে রেজওয়ান মারুফ রেজার মোটরসাইকেলের পেছনে উঠে মৌচাক মার্কেটের সিদ্ধেশ্বরী কালি মন্দিরের গলি দিয়ে ঢোকে। তারা সগিরা মোর্শেদকে রিকশায় ভিকারুননিসা নূন স্কুলের দিকে যেতে দেখে ফলো করে। 

মারুফ রেজা ভিকারুননিসা নূন স্কুলের একটু আগে মোটরসাইকেল দিয়ে সগিরা মোর্শেদের রিকশায় ব্যারিকেড দিয়ে হাতের চুড়ি ধরে টানা হেঁচড়া করে। তখন সগিরা মোর্শেদ আসামি আনাস মাহমুদ ওরফে রেজওয়ানকে চিনে ফেলে। পরে বলে  ‘এই আমি তো তোমাকে চিনি, তুমি এখানে কেন?’। এই কথা বলার পরপরই মারুফ রেজা ব্যাগ ছেড়ে দিয়ে সগিরা মোর্শেদকে পিস্তল বের করে গুলি করে হত্যা করে।

আরও পড়ুন
জাতীয় বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
  • ৫৪ হাজার রোহিঙ্গাকে বাংলাদেশে পাঠাবে না সৌদি: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

  • প্রধানমন্ত্রী জাতিসংঘে ভাষণ দেবেন আজ 

  • ইনডেমনিটি অধ্যাদেশ জারির কলঙ্কিত দিন

  • ইনডেমনিটি অধ্যাদেশ বাঙালীর কলঙ্কজনক স্মৃতি

  • পঁচাত্তরের খুনিদের দায়মুক্তি অধ্যাদেশ এবং আমাদের দায়

  • মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের জন্য প্রধানমন্ত্রীর সুখবর

  • পদ্মা সেতু খুলবে পর্যটনের দুয়ার 

  • ‘ডিজিটাল সহযোগিতায় শক্তিশালী বৈশ্বিক অংশীদারিত্ব প্রয়োজন’

  • সার্কের সহযোগিতায় করোনা পরবর্তী চ্যালেঞ্জ মোকাবেলার আহ্বান

  • শেখ হাসিনার জন্মদিন উপলক্ষে আন্তর্জাতিক দাবা আসর শুরু

  • জাতিসংঘে বঙ্গবন্ধুর বাংলায় প্রথম ভাষণ দেওয়ার ৪৬তম বার্ষিকী 

  • খুলনার নোনা জমিতে কৃষি খামার, মজবুত হচ্ছে গ্রামীণ অর্থনীতি

  • সরকারের সর্বাত্মক প্রচেষ্টায় সৌদি প্রবাসীদের সঙ্কট কাটল 

  • জলবায়ু পরিবর্তন: জাতিসংঘে প্রধানমন্ত্রীর ৫ দফা প্রস্তাব 

  • মসজিদ বিস্ফোরণে হতাহতদের ৫ লাখ টাকা করে দিলেন প্রধানমন্ত্রী

  • ‘বাংলাদেশ-ভারত সহযোগিতা দেনাপাওনার ঊর্ধ্বে’ 

  • দীর্ঘ সময় ক্ষমতায় থাকায় উন্নয়ন দৃশ্যমান হচ্ছে: প্রধানমন্ত্রী 

  • রোহিঙ্গাদের কারণে নানামুখী সমস্যায় পড়েছে বাংলাদেশ

  • ইউরোপে বাড়ছে রপ্তানি সম্ভাবনা

  • ইস্পাত শিল্পে কর্মসংস্থান হলো তিন লাখ মানুষের

  • জাতিসংঘে বঙ্গবন্ধুর প্রথম বাংলায় ভাষণ প্রদান স্মরণে ই-পোস্টার

  • সমুদ্রপথে ১১ দেশ থেকে আসছে পেঁয়াজ

  • রোহিঙ্গাদের প্রতি আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের অঙ্গীকার পুনর্ব্যক্ত

  • সিটি কর্পোরেশনে নিবন্ধন ছাড়া হাসপাতাল চলবে না

  • ষষ্ঠ থেকে দশম পর্যন্ত যেভাবে মূল্যায়ন করা হবে শিক্ষার্থীদের

  • নেপালকে করোনার চিকিৎসা সামগ্রী দিল বাংলাদেশ

  • বিশ্বব্যাপী বৈষম্য দূর করার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

  • উদ্বোধনের অপেক্ষায় দেশের সর্ববৃহৎ সৌরবিদ্যুৎ প্রকল্প

  • বিশ্ববন্ধু বঙ্গবন্ধু

  • শতভাগ উপজেলা বিদ্যুতায়নের পথে, বাকি একটি

  • নতুন সম্ভাবনা সুন্দরবনে, ২৫ কোটি টাকার প্রকল্প গ্রহণ

  • ‘দেশে তুলা উৎপাদন দিন দিন বাড়ছে’

  • দেশেই হবে আন্তর্জাতিক মানের হেলিপোর্ট টার্মিনাল নির্মাণ

  • শিশু শিক্ষার আধুনিক অ্যাপ তৈরি করলো চুয়েট শিক্ষার্থীরা

  • বর্জ্য থেকে বিদ্যুৎ হবে নারায়ণগঞ্জে

  • কেনার আগে মোবাইলের বৈধতা যাচাইয়ের পরামর্শ বিটিআরসির

  • পিরোজপুরে তৈরি হচ্ছে বিশ্বমানের ক্রিকেট ব্যাট

  • সাড়ে ৬ লাখ ফ্রিল্যান্সার পাবে পরিচয় পত্র

  • আধা ঘণ্টায় গাজীপুর, বদলে যাবে উত্তর দিগন্ত

  • এলইডির আলোয় ঝলমলে ঢাকা

  • অনলাইনেই করা যাবে মোটরসাইকেল রেজিস্ট্রেশন

  • গোয়াইনঘাটে ৩০ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মাণ হচ্ছে ৮টি আশ্রয় কেন্দ্র

  • দেশের সব মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে হবে ডিজিটাল একাডেমি

  • ইলিশ উৎপাদন আরো বাড়াতে একনেকে উঠছে ২৪৬ কোটির প্রকল্প

  • ঘুরে দাঁড়াচ্ছে বাংলাদেশের অর্থনীতি

  • পেঁয়াজ আমদানিতে শুল্ক প্রত্যাহার, প্রজ্ঞাপন জারি

  • পায়রা নদীর ওপর নির্মিত হবে ‘শেখ হাসিনা পায়রা ব্রিজ’

  • নতুন কারা মহাপরিদর্শক হলেন ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোমিনুর রহমান

  • ন্যাশনাল সার্ভিস কর্মসূচিতে প্রশিক্ষণ নিয়েছেন ২২ লাখের বেশি মানুষ

  • ডিজিটাল সেবায় বদলে যাচ্ছে গ্রাম

  • প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে পায়রা নদীর ওপর নির্মিত হবে সেতু

  • তিস্তায় পাল্টে যাবে জীবন

  • তিস্তা প্রকল্পে বদলে যাবে উত্তরাঞ্চলের ৫ জেলার মানুষের ভাগ্য  

  • বিলাসবহুল ক্রুজ শীপ এখন বাংলাদেশে, যাওয়া যাবে সেন্টমার্টিন

  • মোংলাকে আধুনিক বন্দরে রূপ দিতে বাস্তবায়ন হবে ১০ প্রকল্প

  • নাটোরে ২২ লাখ টাকার কৃষি প্রণোদনা পাচ্ছেন ৩,০০০ কৃষক

  • জীবনের ঝুঁকি নিয়ে দিনরাত কাজ করছেন প্রধানমন্ত্রী

  • ‘পরিকল্পিত উপায়ে দেশব্যাপী রাস্তা নির্মাণে মাস্টারপ্ল্যান হবে’

  • করোনা মোকাবিলায় দিনরাত কাজ করে যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী

  • ১০ জেলায় মাছের উৎপাদন বাড়বে ৬৩ হাজার টন