শুক্রবার   ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০

ব্রেকিং:
সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোর বার্ষিক ছুটি ৭৫ দিন আগামী মার্চে ঢাকা উত্তর সিটির ভোটের ইঙ্গিত সিইসির জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় পরিদর্শনে প্রধানমন্ত্রী আস্থা ভোটে টিকে গেলেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে রাষ্ট্রপতির সঙ্গে নেপালের বিদায়ী রাষ্ট্রদূতের সাক্ষাৎ খালেদার অনুপস্থিতিতেই কারাগারে বিচার চলবে রব ও মান্নার বিয়ে যুক্তফ্রন্টে, পরকীয়া ঐক্যফ্রন্টে: মাহী এটা জোট নয়, ঘোট : তথ্যমন্ত্রী যুক্তরাষ্ট্রে রাজনৈতিক আশ্রয় পেলেন সিনহা আবারও সরকার গঠনে নৌকায় ভোট দেয়ার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর পদ্মা সেতু প্রকল্পের নামফলক উন্মোচন করলেন প্রধানমন্ত্রী
১২০

রাবেয়া-রোকেয়া ভাল আছে: প্রধানমন্ত্রী

ডেস্ক নিউজ

প্রকাশিত: ২০ জানুয়ারি ২০২০  

স্বাভাবিক জীবনে ফিরেছে পাবনার চাটমোহরের সেই রাবেয়া-রোকেয়া। দীর্ঘ ও জটিল চিকিৎসা শেষে শিশু দুটির জোড়া মাথা আলাদা করা হয়েছে। দুই সন্তান নিয়ে হাসিমুখে বাড়ি ফিরে গেছেন স্কুলশিক্ষক দম্পতি রফিকুল ইসলাম ও তাসলিমা খাতুন।

’১৬ সালের ১৬ জুলাই মাথা জোড়া লাগা অবস্থায় জন্ম নেয় রাবেয়া ও রোকেয়া। গুরুতর এই শারীরিক ত্রুটি নিয়ে ছোট্ট শিশু দুটি পরে ঢাকা মেডিক্যালে চিকিৎসাধীন ছিল। ’১৮ সালের ২৪ অক্টোবর ‘শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন এ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউট’ উদ্বোধনকালে প্রধানমন্ত্রী চিকিৎসার দায়িত্ব নেন। গঠন করা হয় মেডিক্যাল বোর্ড। চিকিৎসার জন্য তাদের হাঙ্গেরির বুদাপেস্টের একটি হাসপাতালে সাত মাস রাখা হয়। বেশ কয়েক দফা অপারেশনও হয় শিশু দুটির।

সর্বশেষ, ’১৯ সালের ২ আগস্ট ঢাকার সিএমএইচে এক যুগান্তকারী ঘটনা। দেশের বিশেষজ্ঞ ডাক্তার ছাড়াও হাঙ্গেরির ৩৫ বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক টানা ৩৩ ঘণ্টা অপারেশন চালিয়ে দুই বোনের জোড়া মাথা আলাদা করেন। সেই সার্জারির পর সিএমএইচে গিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রাবেয়া-রোকেয়াকে দেখে আসেন। আর আজ শিশু দুটির সুস্থ জীবনে ফিরে যাওয়ার কথা জানালেন তিনি। রবিবার প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে ফাস্ট ট্র্যাক প্রজেক্ট মনিটরিং কমিটির সভার শুরুতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তাদের ছবি সবাইকে দেখিয়ে বলেন, ‘আমাদের রাবেয়া-রোকেয়া ভাল আছে।’

ফাস্ট ট্র্যাক প্রকল্পের সংখ্যা বাড়াতে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ
বাসস জানান, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, তার সরকার দশটি বিদ্যমান প্রকল্পের সঙ্গে আরও বেশকিছু প্রকল্পকে ‘ফাস্ট ট্র্যাক’ প্রকল্প হিসেবে অন্তর্ভুক্ত করবে। প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা প্রাথমিকভাবে কয়েকটি প্রকল্পকে ফাস্ট ট্র্যাক হিসেবে অন্তর্ভুক্ত করেছি এবং প্রকল্পগুলোর সামগ্রিক বাস্তবায়ন পর্যবেক্ষণ করে যাচ্ছি। কমিটির (ফাস্ট ট্র্যাক প্রজেক্ট মনিটরিং কমিটি) আরও অনেক গুরুত্বপূর্ণ বড় প্রকল্প পর্যবেক্ষণ করা উচিত।’ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রবিবার সকালে তার তেজগাঁওয়ের কার্যালয়ে (পিএমও) ‘ফাস্ট ট্র্যাক প্রকল্প’ মনিটরিং কমিটির পঞ্চম সভায় সভাপতিত্বকালে একথা বলেন।

ফাস্ট ট্র্যাকভুক্ত দশটি প্রকল্প ছাড়াও অন্যান্য বড় প্রকল্পগুলো মনিটর করতে ‘ফাস্ট ট্র্যাক মনিটরিং কমিটি’কে নির্দেশনা দিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা সেগুলোতো মনিটর করবই ভবিষ্যতে আমার মনে হয় এই কমিটি থেকে শুধু এই কয়েকটা দেখলে হবে না আরও অনেকগুলো প্রজেক্ট আছে যেগুলো দেখতে হবে।’ সরকারের ধারাবাহিকতার সুফল তুলে ধরে শেখ হাসিনা বলেন, এই ধারাবাহিকতা না থাকলে সরকার পরিবর্তন হলে কাজের ধারাও নষ্ট হয়ে যায়। টানা তিন বার আওয়ামী লীগকে দেশ পরিচালনার সুযোগ দেয়ার জন্য জনগণকে ধন্যবাদ জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমি জনগণের কাছে কৃতজ্ঞ যে, অন্তত তারা আমাদের এইটুকু সুযোগ দিয়েছে এবং এবার নিয়ে আমরা পর পর তৃতীয় বার এসেছি (রাষ্ট্র পরিচালনায়)। তাতে আমাদের উন্নয়নের কাজগুলো বাস্তবায়নও করতে পারছি এবং মানসম্মতও করতে পারছি।’
 
পদ্মা বহুমুখী মূল সেতুর নির্মাণ কাজ ৮৫ দশমিক ৫ শতাংশ এবং প্রকল্পটির সার্বিক অগ্রগতি ৭৬ দশমিক ৫০ শতাংশ সম্পন্ন হয়েছে বলে জানায়, ফাস্ট ট্র্যাক মনিটরিং কমিটি। পদ্মা সেতুসহ ফাস্ট ট্র্যাকভুক্ত দশটি প্রকল্পের প্রতিটির অগ্রগতির চিত্র তুলে ধরা হয় এ সভায়। দশটি ফাস্ট ট্র্যাক প্রকল্প হচ্ছে- পদ্মা বহুমুখী সেতু নির্মাণ প্রকল্প, রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুত কেন্দ্র স্থাপন, মৈত্রী সুপার থার্মাল পাওয়ার প্রজেক্ট (রামপাল), মহেশখালী-মাতারবাড়ি সমন্বিত অবকাঠামো উন্নয়ন কার্যক্রম, ঢাকা মাস র‌্যাপিড ট্রানজিট ডেভেলপমেন্ট প্রকল্প, এলএনজি টার্মিনাল নির্মাণ প্রকল্প, গভীর সমুদ্র বন্দর, পায়রা গভীর সমুদ্র বন্দর নির্মাণ প্রকল্প, পদ্মা সেতু রেল সংযোগ এবং দোহাজারী-রামু হয়ে কক্সবাজার এবং রামু-মিয়ানমারের নিকটে ঘুমধুম পর্যন্ত সিঙ্গেল লাইন ডুয়েলগেজ ট্র্যাক নির্মাণ প্রকল্প।

বৈঠকে সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের, অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল, পরিকল্পনা মন্ত্রী এম এ মান্নান, ভূমি মন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রী স্থপতি ইয়াফেস ওসমান, প্রধানমন্ত্রীর অর্থনৈতিক বিষয়ক উপদেষ্টা ড. মসিউর রহমান, প্রধানমন্ত্রীর বিদ্যুত, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ বিষয়ক উপদেষ্টা ড. তৌফিক-ই-ইলাহী চৌধুরী, বিদ্যুত, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ, নৌ পরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলামসহ সংশ্লিষ্ট সচিব ও উর্ধতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব ড. আহমদ কায়কাউস।

পদ্মা বহুমুখী প্রকল্পের কাজের অগ্রগতি তুলে ধরে সভায় জানানো হয়, পদ্মা বহুমুখী সেতু নির্মাণ প্রকল্পের আওতায় জাজিরা প্রান্তে এপ্রোচ রোডের কাজ-৯১ শতাংশ, মাওয়া প্রান্তে এপ্রোচ রোডের কাজ-শতভাগ, সার্ভিস এরিয়া (২)-শতভাগ, মূল সেতু নির্মাণ কাজ ৮৫ দশমিক ৫০ শতাংশ সম্পন্ন হয়েছে এবং নদীশাসনের কাজ ৬৬ শতাংশ সম্পন্ন হয়েছে। প্রকল্পের সার্বিক অগ্রগতি ৭৬ দশমিক ৫০ ভাগ সম্পন্ন হয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ফাস্ট ট্র্যাক প্রকল্পগুলোর অগ্রগতি সম্পর্কে খোঁজ-খবর করেন এবং প্রয়োজনীয় দিক নির্দেশনা দেন। পদ্মা সেতুর কাজের অগ্রগতির জন্য সবাইকে ধন্যবাদ জানিয়ে সভায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, ‘পদ্মা সেতু নিয়ে অনেক ঝামেলা গেছে আপনারা জানেন। আমরা আনন্দিত অর্ধেকের বেশি কাজ হয়ে গেছে। প্রায় সাড়ে তিন কিলোমিটারের মতো বোধ হয় হয়ে গেছে।’

ফাস্ট ট্র্যাকভুক্ত অন্যান্য প্রকল্পের অগ্রগতির চিত্র সম্পর্কে সভায় বলা হয়, রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুত কেন্দ্র নির্মাণ প্রকল্পের ৩টি প্যাকেজের প্রি-ইন্সপেকশন শেষ হয়েছে। প্রকল্পের ভৌত কাজকে ৩৪৪টি অংশে ভাগ করে কর্মপরিকল্পনা অনুযায়ী বাস্তবায়ন করা হচ্ছে। মৈত্রী সুপার থার্মাল পাওয়ার প্রজেক্ট (রামপাল) বাস্তবায়নের ভৌত অগ্রগতি ৪৬ দশমিক ৯ শতাংশ, আর্থিক অগ্রগতি ৪১ দশমিক ৭৫ শতাংশ সম্পন্ন হয়েছে। মহেশখালী-মাতারবাড়ি সমন্বিত অবকাঠামো উন্নয়ন কার্যক্রম প্রকল্পে- বেজার উদ্যোগে গড়ে ওঠা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব শিল্প নগরী (ফেনী অর্থনৈতিক অঞ্চল, মীরসরাই অর্থনৈতিক অঞ্চল, সীতাকু-ু অর্থনৈতিক অঞ্চল), মহেশখালী-মাতারবাড়ি সমন্বিত অবকাঠামো উন্নয়ন কার্যক্রম ও সাবরাং ইকো ট্যুরিজম পার্ক এবং জাইকা ও সরকারের সমন্বিত প্রয়াসে মহেশখালী-মাতারবাড়ি সমন্বিত অবকাঠামো উন্নয়ন কার্যক্রমের অন্তর্ভুক্ত। বর্তমানে এখানে বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের প্রায় ২০টি প্রকল্পের কাজ চলমান রয়েছে। এর মধ্যে মাতারবাড়ি বিদ্যুত কেন্দ্র নির্মাণ, বন্দর নির্মাণ, এলএনজি ও এলপিজি টার্মিনাল নির্মাণ অন্যতম।
 
ঢাকা মাস-র‌্যাপিড ট্রানজিট ডেভেলপমেন্ট প্রকল্পের সার্বিক অগ্রগতি ৪০ দশমিক ২ শতাংশ।

এলএনজি টার্মিনাল নির্মাণ প্রকল্পের আওতায় মহেশখালীতে দৈনিক ৫০০ এমএমসিএফ ক্ষমতাসম্পন্ন ‘ফ্লোটিং স্টোরেজ এ্যান্ড রিগ্যাসিফিকেশন ইউনিট (এফএসআরইউ) এলএনজি টার্মিনাল’ নির্মাণের কাজ ‘বিল্ট অউন অপারেট এ্যান্ড ট্রান্সফার (বিওওটি) ভিত্তিতে ইতোমধ্যে বাস্তবায়িত হয়েছে এবং গত ১৯ আগস্ট, ২০১৮ হতে বাণিজ্যিকভাবে গ্যাস সরবরাহ শুরু করেছে। ফাস্ট ট্রাকভুক্ত গ্যাস পাইপলাইন নির্মাণ প্রকল্পের প্রারম্ভিক কার্যাবলী ও মালামাল সংগ্রহের কাজ ইতিমধ্যে ১০০ ভাগ সম্পন্ন হয়েছে। তাছাড়া, ভূমি অধিগ্রহণ ও ভূমি হুকুম দখলের কার্যক্রম গড়ে ৯০ দশমিক ৩৩ ভাগ সম্পন্ন হয়েছে এবং আনোয়ারা-ফৌজদারহাট গ্যাস সঞ্চালন পাইপলাইন প্রকল্পের পাইপলাইন নির্মাণ কাজ শতভাগ সম্পন্ন হয়েছে। অবশিষ্ট দু’টি প্রকল্পের পাইপলাইন নির্মাণ কাজ গড়ে ৯০ ভাগ সম্পন্ন হয়েছে।

‘সোনাদিয়ায় গভীর সমুদ্র বন্দর নির্মাণ করা হবে না’ উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘ওখানে প্রাকৃতিক ভারসাম্য নষ্ট হবে। অনেক প্রাকৃতিক সম্পদ আমরা হারাব।’ তিনি প্রকল্পের প্রস্তাব থেকে ‘সোনাদিয়া’ নামটি বাদ দেয়ার জন্য সংশ্লিষ্ট মহলকে নির্দেশ দেন। পায়রা গভীর সমুদ্র বন্দর নির্মাণ প্রকল্পের ভৌত অগ্রগতি ৫৮ দশমিক ৮৪ শতাংশ এবং আর্থিক অগ্রগতি ৬২ দশমিক ৫৫ শতাংশ সম্পন্ন হয়েছে। পায়রা গভীর সমুদ্র বন্দর নির্মাণের জন্য এ প্রকল্পকে ১৯টি কম্পোনেন্টে ভাগ করা হয়েছে। যার মধ্যে ৭টি কম্পোনেন্ট সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে বাস্তবায়ন করা হবে। ৬টি কম্পোনেন্ট পিপিপি এর মাধ্যমে ও ৬টি কম্পোনেন্ট জি টু জি ভিত্তিতে বাস্তবায়নের পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে। ভূমি অধিগ্রহণ, কতিপয় পূর্ত কাজ, জাহাজ নির্মাণ, অভ্যন্তরীণ রুটে ডেজিং এবং পুনর্বাসন ও প্রশিক্ষণ সংক্রান্ত কার্যক্রম সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় বাস্তবায়ন করছে। এছাড়াও ভূমি অধিগ্রহণ ৫৯ দশকি ২৯ শতাংশ, পূর্ত কাজ ৯৬ দশকি ৪৮ শতাংশ, জাহাজ নির্মাণ ৮২ দশমিক ৪৯ শতাংশ, ডিটেইল মাস্টার প্ল্যান ৪২ শতাংশ, অভ্যন্তরীণ রুটে ড্রেজিং শতভাগ, পুনর্বাসন শতাংশ, প্রশিক্ষণ ৩৪ দশমিক ১৪ শতাংশ সম্পন্ন হয়েছে। প্রকল্পের ভৌত অগ্রগতি ৫৮ দশমিক ৮৪ শতাংশ এবং আর্থিক অগ্রগতি ৬২ দশমিক ৫৫ শতাংশ সম্পন্ন হয়েছে।

পদ্মা সেতু রেল সংযোগ প্রকল্পের ভৌত অগ্রগতি ২১ দশমিক ৯৩ শতাংশ এবং আর্থিক অগ্রগতি ৩০ দশমিক ২২ শতাংশ সম্পন্ন হয়েছে বলেও সভায় জানানো হয়। প্রকল্পটি চীন সরকারের অর্থায়নে জি টু জি পদ্ধতিতে বাস্তবায়িত হচ্ছে। আরডিপিপি অনুযায়ী প্রকল্পের মোট ব্যয় ৩৯,২৪৬.৮০ কোটি টাকা (জিওবি ১৮,২১০.১১ ও প্রকল্প সাহায্য ২১,০৩৬.৬৯)। প্রকল্পের ভৌত অগ্রগতি ২১ দশমিক ৯৩ শতাংশ এবং আর্থিক অগ্রগতি ৩০ দশমিক ২২ শতাংশ। এছাড়া, দোহাজারী-রামু হয়ে কক্সবাজার এবং রামু-মিয়ানমারের কাছে ঘুমধুম পর্যন্ত সিঙ্গেল লাইন ডুয়েলগেজ ট্র্যাক নির্মাণ প্রকল্পের ভৌত অগ্রগতি ৩৩ শতাংশ, আর্থিক অগ্রগতি ২৩ দশমিক ৯৩ শতাংশ সম্পন্ন হয়েছে।
 
দেশের যেকোন নদীতে সেতু নির্মাণের আগে সেই নদীর চরিত্র সম্পর্কে জানার নির্দেশনা প্রদান করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘নদীতে ব্রিজ বা কোন কিছু করতে গেলে আমাদের কিন্তু নদীর চরিত্রটা কেমন, বর্ষাকালে কি রূপ ধারণ করে বা শীতকালে কি রূপ ধারণ করে, এগুলো জেনে নিয়ে কাজ করা উচিত।’ ‘নদীকে শাসন করতে গেলে সে শাসন সে মানবে না। সব নদী সব শাসন মানে না। সেটা মাথায় রেখে আমাদের কাজ করতে হবে,’ বলেন প্রধানমন্ত্রী। এ প্রসঙ্গে পদ্মা নদীর কথা তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘এই সেতুটা করার সময় নদী শাসন করে আমি কিন্তু নদী ছোট করতে দেইনি। তিনি বলেন, ‘এই নদীটা অসম্ভব ভাঙ্গনপ্রবণ। এখানে বাঁধ দিয়ে ছোট করতে গেলে এই নদী মানবে না। আমাদের ব্রিজটাই বড় করতে হবে। এখানে জায়গাও রাখতে হবে বাফার জোনও থাকবে। যাতে বন্যার পানিটা ধারণ করতে পারে।’

আরও পড়ুন
জাতীয় বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
  • ১ মার্চ ‘বীমা দিবস’ উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী

  • ৬৭৭ কোটি টাকা ব্যয়ে মেহেরপুর-কুষ্টিয়া সড়ক ৪ লেন হচ্ছে

  • আতিক ১৩ মে দায়িত্ব নেবেন, তাপস ১৭ মে

  • হজযাত্রীদের নিবন্ধন শুরু ১ মার্চ

  • ‘সোনার বাংলায় কেউ গৃহহীন থাকবে না’

  • মুজিব বর্ষে জাতির পিতার ভাষণ পাঠ করবে কোটি শিক্ষার্থী

  • কলেজ ভর্তিতেও কোটা পদ্ধতি বাতিলের সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার

  • রাজধানীতে বিভিন্ন শিক্ষাবোর্ডের জাল সনদসহ আটক এক

  • অপূর্বের সঙ্গে ‘মিথ্যে প্রেম’-এ তানহা

  • রাজধানী ইস্কাটনের আগুন নিয়ন্ত্রণে, নিহত ৩

  • দিল্লিতে সংঘর্ষ: নিহত বেড়ে ৩৪

  • সাংবাদিকদের নিয়োগপত্র ছাড়া কাজ না করার আহ্বান তথ্যমন্ত্রীর

  • বিদ্যুতের দাম বৃদ্ধি, ইউনিট ৭.১৩ টাকা

  • মোদিকে ‘ফ্যাসিস্ট’ বললেন রকস্টার গিটারিস্ট রজার ওয়াটার্স

  • মুসলিমদের চোখে অ্যাসিড ঢালছে উগ্রবাদীরা!

  • রোহিঙ্গাদের জন্য পঞ্চম চালানে ত্রাণ পাঠালো ভারত

  • শিক্ষার্থীর ব্যয় কমাতে মোবাইলে কলেজ ভর্তির আবেদন বাতিল

  • স্মার্টফোন নয়, সন্তানের হাতে বই তুলে দিন: তথ্যমন্ত্রী

  • বাঘাবাড়ীকে আধুনিক বন্দরে পরিণত করা হবে: নৌ প্রতিমন্ত্রী

  • বাংলাদেশে ক্ষুধা, দারিদ্র্য থাকবে না: অর্থমন্ত্রী 

  • কলেজ ভর্তিতে কোটা পদ্ধতি বাতিলের সিদ্ধান্ত

  • ১১টি দেশ ইলিশ আহরণ করে, শীর্ষে বাংলাদেশ

  • পেঁয়াজ রফতানির ওপর নিষেধাজ্ঞা তুলে নিয়েছে ভারত

  • তাজমহল দেখে বিস্ময় প্রকাশ করেছেন ইভাঙ্কা ট্রাম্প

  • মৃত্যুর তিন হাজার পর তার দরকার হয়েছিলো পাসপোর্টের!

  • ‘গুচ্ছগ্রাম এলাকায় বঙ্গবন্ধু স্মৃতিস্তম্ভ নির্মাণ করা হবে’

  • জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলায় খালেদা জিয়ার জামিন আবেদন খারিজ

  • স্বাস্থ্য প্রতিবেদন দেখেই খালেদার বিষয়ে সিদ্ধান্ত হাইকোর্টের

  • স্বাস্থ্য প্রতিবেদন গভীরভাবে দেখেই সিদ্ধান্ত দিয়েছেন হাইকোর্ট

  • করোনাভাইরাসের কারণে ওমরাহ ভিসা বন্ধ

  • বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর লেখা পড়বে প্রাথমিকের শিক্ষার্থীরা

  • আসছে স্বর্ণ ও রৌপ্য মুদ্রা, সঙ্গে ২০০ টাকার নোট

  • দেশের প্রথম পাতাল মেট্রো রুটের নির্মাণ ডিসেম্বরে

  • ঐতিহাসিক ৭ মার্চকে জাতীয় দিবস ঘোষণা

  • রাজশাহীতে বছরে ৪০০ কোটি টাকার কলা উৎপাদন

  • মিয়ানমার থেকে এলো ১৪শ’মেট্রিক টন পেঁয়াজ

  • আমি সশস্ত্র বাহিনীকে উন্নত করতে চাই: প্রধানমন্ত্রী

  • দারিদ্র্য জয় করেছেন তিস্তাপাড়ের মানুষ

  • কক্সবাজারে হচ্ছে দেশের সবচেয়ে বড় বিমানবন্দর

  • করোনা আতঙ্ক: ওমরাহ যাত্রীদের সৌদি প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা

  • সোমবার থেকে সারাদেশে বজ্রবৃষ্টি

  • পুলিশ কর্মকর্তার উদ্যোগে দৌলতদিয়ায় আরেক যৌনকর্মীর জানাজা

  • মাকে বাঁচাতে অর্ধেক লিভার দিলো ছেলে

  • পার্বত্য জেলায় কাজু বাদাম চাষে বিলিয়ন ডলার আয়ের হাতছানি

  • প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ: ৪১ জেলায় আসছে সুখবর

  • ২০২৩ সালের মধ্যেই সব প্রাথমিক স্কুলে মিড ডে মিল

  • রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে বঙ্গবন্ধু পাঠাগার ও রিলিফ ভাস্কর্য উন্মোচন

  • পিলখানা ট্র্যাজেডিতে নিহত শহীদদের গভীর শ্রদ্ধায় স্মরণ করলো জাতি

  • ‘অন্যায়ের বিচার করার সৎ সাহস আছে সরকারের’

  • এবার ঘরে বসে পুরনো পণ্য কেনা-বেচার সাইট ‘সোয়্যাপ’ চালু

  • দেশে নিয়মিত শুরু হলো লিভার প্রতিস্থাপন

  • মুজিববর্ষ উপলক্ষে ‘ন্যাশনাল বিচ ক্লিনআপ’ কর্মসূচি ২৫ ফেব্রুয়ারি

  • বঙ্গবন্ধু জন্মশতবর্ষে উদ্বোধন হচ্ছে দৃষ্টিনন্দন আন্ডারপাস

  • নারী উদ্যোক্তাদের ১৫ কোটি টাকা ঋণ দেবে এসএমই ফাউন্ডেশন

  • মেগা সড়কের প্রথম ধাপের ৫৫ ভাগ কাজ শেষ

  • আসন্ন সেচ মৌসুমে লোডশেডিংয়ের কোনো শঙ্কা নেই

  • সব উপজেলায় বুদ্ধিপ্রতিবন্ধী বিদ্যালয় হবে: সমাজকল্যাণ মন্ত্রী

  • শোকাবহ পিলখানা ট্র্যাজেডি দিবস আজ

  • ৫৪ হাজার কোটি টাকার জাপানি বিনিয়োগে পাল্টে যাবে অর্থনীতি

  • ২০২২ সাল থেকে প্রাথমিকে চালু হচ্ছে প্রাক-প্রাথমিক শিক্ষা