শনিবার   ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২০

ব্রেকিং:
৫ মাস পর খুললো বিনোদনকেন্দ্র, দর্শনার্থীর উপস্থিতি কম ইউপি তথ্যসেবা কেন্দ্রের মাধ্যমে এনআইডি সেবা দেওয়ার উদ্যোগ বরিশালে পারিবারিক কৃষিতে সফলতা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোর বার্ষিক ছুটি ৭৫ দিন আগামী মার্চে ঢাকা উত্তর সিটির ভোটের ইঙ্গিত সিইসির জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় পরিদর্শনে প্রধানমন্ত্রী আস্থা ভোটে টিকে গেলেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে রাষ্ট্রপতির সঙ্গে নেপালের বিদায়ী রাষ্ট্রদূতের সাক্ষাৎ খালেদার অনুপস্থিতিতেই কারাগারে বিচার চলবে রব ও মান্নার বিয়ে যুক্তফ্রন্টে, পরকীয়া ঐক্যফ্রন্টে: মাহী এটা জোট নয়, ঘোট : তথ্যমন্ত্রী যুক্তরাষ্ট্রে রাজনৈতিক আশ্রয় পেলেন সিনহা আবারও সরকার গঠনে নৌকায় ভোট দেয়ার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর পদ্মা সেতু প্রকল্পের নামফলক উন্মোচন করলেন প্রধানমন্ত্রী
১৪০

রাজশাহীতে পাম চাষে সাফল্যের হাতছানি

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২০  

বাংলাদেশে অপার সম্ভাবনার দুয়ার খুলে দিতে পারে বাণিজ্যিক পাম চাষ। রাজশাহীতে পরীক্ষামূলক পাম চাষে মিলেছে সাফল্যের হাতছানি। রাস্তা কিংবা রেললাইনের ধারে, পতিত ও অনাবাদি জমি পাম চাষের আওতায় আনার সুপারিশ করেছেন বাংলাদেশ বিজ্ঞান ও শিল্প গবেষণা পরিষদের (বিসিএসআইআর) গবেষকরা।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, এ সম্ভাবনা কাজে লাগাতে বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচির (এডিপি) আওতায় বড় প্রকল্প নেওয়া জরুরি। যাতে যন্ত্রপাতি সমৃদ্ধ ল্যাব স্থাপন, বাণিজ্যিক ভিত্তিতে পাম চাষ, তেল উৎপাদন ও বাজারজাত করা যায়। এতে ভোজ্য তেলের আমদানি নির্ভরতা কমবে। রফতানি করেও আয় করা সম্ভব প্রচুর বৈদেশিক মুদ্র। সম্ভাবনাময় পাম পাল্টে দিতে পারে দেশের অর্থনীতির গতিধারা।

জানা গেছে, গবেষণা ও উন্নয়ন প্রকল্পের আওতায় ২০১৬-১৭ অর্থবছরে রাজশাহীতে বিসিএসআইআর গবেষণা কেন্দ্রে পাম চাষ শুরু করে। দেশে পাম গাছের প্রজনন, বৃদ্ধি, উৎপাদন এবং ফলের পুষ্টিগুণ সম্পর্কে জানতেই এ গবেষণা প্রকল্প। তিন বছরের মধ্যেই ফল এসেছে ৩ একর জমিতে রোপণ করা ৩শ পাম গাছে। গবেষকরা বলছেন, পুরোদমে উৎপাদনে আসতে আরও বছরদুয়েক সময় লাগবে।

তবে এরই মধ্যে শেষ হয়ে গেছে প্রকল্পের মেয়াদ। গতমাসে প্রকল্পের তত্ত্বাবধায়ক বিসিএসআইআরের অয়েল, ফ্যাট অ্যান্ড ওয়েক্সেস রিসার্চ ডিভিশনের প্রিন্সিপ্যাল সায়েন্টিফিক অফিসার মো. মইনউদ্দিন প্রকল্পের চূড়ান্ত প্রতিবেদন দাখিল করেছেন। তাতে রাজশাহী অঞ্চলে পাম চাষ নিয়ে তুলে ধরা হয়েছে অপার সম্ভাবনার কথা।

মইনউদ্দিন বলেন, ‘বাংলাদেশের আবহাওয়া ও জলবায়ু পাম গাছের জন্য খুবই উপযোগী। সঠিকভাবে পামের চাষাবাদ, উৎপাদন ও প্রক্রিয়াকরণের মাধ্যমে দেশে ভোজ্য তেলের স্বয়ংসম্পূর্ণতা অর্জন সম্ভব। সেই সাথে দেশের চাহিদা মিটিয়ে বিদেশেও পাম তেল রফতানি করে তেল উৎপাদনশীল দেশের তালিকায় শীর্ষে অবস্থান সম্ভব।’

বিসিএসআইআর বলছে, এশিয়া ও আফ্রিকান দেশগুলোতে পাম গাছ প্রচুর পরিমাণে থাকায় তারা দীর্ঘদিন যাবৎ এ পাম ওয়েল সিড থেকে তেল নিঃসরণ করে সেটি ভোজ্য তেল হিসেবে ব্যবহার করছে। এতে ফ্যাটি অ্যাসিড ও কোলেস্টরেল থাকলেও তাতে ক্ষতি হচ্ছে না।

তাছাড়া পামে আছে ভিটামিন ই। যা ক্যান্সার প্রতিরোধে খুবই শক্তিশালী ও কার্যকর। আবার পুষ্টিমানের দিক থেকে গাজরের তুলনায় পামে রয়েছে ১৫ গুণ এবং টমেটোর তুলনায় ৩০০ গুণ বিটা-ক্যারোটিন। যা মানবদেহে ভিটামিন এ উৎপাদনে সহায়তা করে। সঙ্গত কারণেই পাশ্চাত্যে এখন পাম তেলের ব্যবহার বেড়েছে বহুগুণে।

এ ছাড়া পামের বীজ থেকেও তেল উৎপাদন সম্ভব। কিন্তু এ বীজ থেকে সামান্যই তেল পাওয়া যায়। ফলে বীজ ব্যবহার হয় সাবান ও প্রসাধনী তৈরির কোম্পানিগুলোয়। কাজেই পামের প্রতিটি উপাদানেই রয়েছে অর্থনৈতিকভাবে লাভবান হওয়ার সুযোগ।

মইনউদ্দিন আরও বলেন, ‘বিশেষ করে রাজশাহী অঞ্চলের মাটি, আর্দ্রতা, তাপমাত্রা ও গড় বৃষ্টিপাত পাম গাছের বৃদ্ধির জন্য খুবই উপযোগী। এ ছাড়া দেশের দক্ষিণাঞ্চল, চট্টগ্রাম, সিলেট, ময়মনসিংহ বিভাগীয় অঞ্চলগুলোর অনাবাদি জমিতেও পাম চাষে যেমন সম্ভাবনা রয়েছে। এখানকার পাম ফল মালেশিয়ায় উৎপাদিত পাম ফলের চেয়ে আকারে বড়। উৎপাদনও প্রায় দ্বিগুণ। আবার পাম গাছে বছরে ৩ বার ফল নামানো যায়।’

তিনি জানান, প্রথমে রাজশাহী, নাটোর, নওগাঁ, টাঙ্গাইলের ঘাটাইল সেনা ক্যাম্প থেকে পাম গাছের চারা ও ফল সংগ্রহ করেন। পরবর্তীতে তিনি সিলেটসহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে পাম গাছ ও তার ফল সংগ্রহে নেমে পড়েন। রাজশাহীর বেলপুকুর এলাকায় মহাসড়কের পাশে লাগানো পাম গাছ থেকে পাম সংগ্রহ করে প্রথম গবেষণায় ভালো ফলাফল পান। পরবর্তীতে নওগাঁর ফজলুল হক নামের এক কলেজ শিক্ষকের কাছ থেকে ৩শ চারা এনে গবেষণাগারের পতিত জমিতে বাগান তৈরি করেন। ৩ বছর বয়সী পাম গাছে ফল এসেছে। পুরোদমে উৎপাদনে আসতে আরও অন্তত ২ বছর সময় লাগবে।

প্রথমে ফল থেকে তেল সংগ্রহের বিষয়টি বেশ কঠিন ছিল জানিয়ে মইনউদ্দিন বলেন, ‘পাম ফলের বীজ ও উপরের মাংসল অংশ থেকে ভোজ্য তেল পাওয়া যায়। মালয়েশিয়ান ও আফ্রিকান স্থানীয়রা ব্লিচিং পদ্ধতিতে পাম ফল থেকে তেল বের করেন। গুগল ও ইউটিউবে বিভিন্ন তথ্যের মাধ্যমে ল্যাবেও প্রাথমিকভাবে ব্লিচিং পদ্ধতিতে তেল বের করেন তারা। এখন ইঞ্জিনিয়ারিং মেশিন পদ্ধতিতে তেল উৎপাদনের অপেক্ষা। এ ধাপে তাদের সাথে যুক্ত হয়েছে ময়মনসিংহ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়। মেশিনটি তৈরি হলেই সঠিকতা যাচাই করে পুরোপুরি বাণিজ্যিক ধাপে পাম তেল উৎপাদনে যাওয়া যাবে।’

বাংলাদেশের পাম তেলের সম্ভাবনার বিষয়ে তিনি জানান, বর্তমানে সরকার ১২-১৫ হাজার কোটি টাকার তেল আমদানি করে। আমদানিকৃত ভোজ্য তেলের ৬০ শতাংশই পাম ওয়েল। এ ছাড়াও ভোজ্য তেলের দিক থেকে বিশ্বে প্রথম পাম তেল। তাছাড়া আবহাওয়া ও জলবায়ুগত দিক দিয়ে বাংলাদেশ ও বিশ্বের শীর্ষ পাম তেল উৎপাদনকারী দেশ মালয়েশিয়ার খুব একটি পার্থক্য নেই।

মালয়েশিয়ার চেয়ে বাংলাদেশের জমির উর্বরতা শক্তিও বেশি। এ উপযোগিতা ও সম্ভাবনা কাজে লাগিয়ে অনাবাদী, পতিত জমি এবং রাস্তা কিংবা রেল লাইনের ধার ঘেঁষে পাম চাষ করা যায়। এতে পাম তেলে শুধু সমৃদ্ধই হবে না বরং বিদেশে তেল রফতানি করে প্রচুর বৈদেশিক মুদ্রা অর্জন করা সম্ভব। এটি কেবলই আশাব্যঞ্জক নয় উৎসাহব্যঞ্জকও বটে।

সম্ভাবনাময় পাম চাষ গবেষণায় সফলতায় আশাবাদী রাজশাহী বিসিএসআইআরের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ড. মো. ইব্রাহিম। তিনি বলেন, ‘এ গবেষণা প্রকল্পের ফলাফল খুবই ভালো এসেছে। প্রয়োজনীয় সরকারি পদক্ষেপ ও সহযোগিতা পেলে হয়তো এ প্রকল্পের মাধ্যমে বাংলাদেশও হতে পারে ভোজ্য তেল উৎপাদনে বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় দেশ।’

তাছাড়া বহু বাংলাদেশি মালয়েশিয়ায় গিয়ে সেখানকার বাণিজ্যিক পাম বাগানে শ্রম দেন। এদের দেশে ফিরিয়ে এনে বাণিজ্যিক পাম চাষে কাজে লাগানো যায়। বাণিজ্যিক পাম চাষ, ভোজ্য তেল উৎপাদন ও বিপণন সম্ভব হলে বাংলাদেশের অর্থনীতির গতিধারা পাল্টে যাবে।

বাংলার উন্নয়ন বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
  • নতুন সম্ভাবনা সুন্দরবনে, ২৫ কোটি টাকার প্রকল্প গ্রহণ

  • শুরুর আগেই সরে দাঁড়ালেন ম্যাকমিলান

  • সিনেমায় আসছেন না মেহজাবীন

  • ভারত থেকে এলো আরও ১৯৯ মেট্রিক টন পেঁয়াজ

  • নিজ মাদ্রাসায় চিরনিদ্রায় শায়িত আল্লামা শফী

  • মিয়ানমার থেকে এসেছে ৩০ মেট্রিক টন পেঁয়াজ

  • ভোমরা বন্দর দিয়ে ভারতীয় পেঁয়াজ আমদানি শুরু

  • আধা ঘণ্টায় গাজীপুর, বদলে যাবে উত্তর দিগন্ত

  • করোনায় ১১.২ বিলিয়ন আর্থিক সহায়তা দিয়েছে এডিবি

  • ১০ জেলায় মাছের উৎপাদন বাড়বে ৬৩ হাজার টন

  • ২৫ হাজার টন পেঁয়াজ রফতানির অনুমতি দিল ভারত

  • ঘুরে দাঁড়াচ্ছে বাংলাদেশের অর্থনীতি

  • গোপালগঞ্জে বাড়ছে ভাসমান সবজি চাষ

  • শিশু শিক্ষার আধুনিক অ্যাপ তৈরি করলো চুয়েট শিক্ষার্থীরা

  • বর্জ্য থেকে বিদ্যুৎ হবে নারায়ণগঞ্জে

  • মহামারি কাটিয়ে ঘুরে দাঁড়াচ্ছে বাংলাদেশের অর্থনীতি: ওয়াশিংটন পোস্ট

  • করোনায় একমাত্র আওয়ামী লীগই মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছে: প্রধানমন্ত্রী

  • শেখ হাসিনাঃ একজন মানবিক নেতা ও ফেনী নদী চুক্তি

  • আইনের বাইরে এ শহরে কেউ  কিছু করতে পারবেন না : মেয়র আতিকুল

  • তিস্তা প্রকল্পে বদলে যাবে উত্তরাঞ্চলের ৫ জেলার মানুষের ভাগ্য  

  • করোনাকালেও খাদ্য উৎপাদনে রেকর্ড বাংলাদেশের

  • পেঁয়াজ আমদানি প্রক্রিয়া সহজ করার উদ্যোগ নেয়া হয়েছে

  • মাদক চালান রোধে শিগগির শুরু হচ্ছে মেরিন ইউনিটের কার্যক্রম 

  • সরকারি চাকরিতে বয়স ছাড় দিতে মন্ত্রণালয়গুলোকে নির্দেশ

  • ঘুষ-দুর্নীতিমুক্ত প্রশাসনিক ব্যবস্থা গড়তে চাই: প্রধানমন্ত্রী

  • অটিস্টিক শিশুর স্বপ্ন পূরণ করলেন প্রধানমন্ত্রী

  • শাহজালাল বিমানবন্দরে আন্তর্জাতিক ফ্লাইট চলাচল শুরু

  • ১৪ অক্টোবর থেকে ২২ দিন ইলিশ ধরা বন্ধ

  • ‘পুলিশ সদস্য কোন অন্যায় করে ছাড় পাবে না’

  • বিসিএস ছাড়া সরকারি চাকরিতে বয়স ছাড়ের নির্দেশ

  • চূড়ান্ত ধাপের জন্য প্রস্তুত গ্লোবের ভ্যাকসিন

  • একতলা বাড়ি পাচ্ছেন অসচ্ছল মুক্তিযোদ্ধারা

  • ৫ দেশ থেকে আসছে ১২ হাজার টন পেঁয়াজ

  • ৬টি দেশ থেকে আসছে ৪০ হাজার টন পেঁয়াজ

  • বেড়েছে রপ্তানি, ফিরছে পাটের সোনালি অতীত

  • পর্যটকদের জন্য চালু হচ্ছে ‘হোম স্টে’ সার্ভিস

  • ক্যামব্রিজকে পেছনে ফেলে দ্বিতীয় স্থানে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়

  • এগিয়ে চলেছে ঢাকা-চট্টগ্রাম ডাবল রেল লাইন নির্মাণের কাজ 

  • ইউএনডিপির নির্বাহী সদস্য হলো বাংলাদেশ

  • লবণাক্ততা সহনশীল ধানের নতুন ৩টি জাত উদ্ভাবন করলো ব্রি

  • ৪ পঞ্চবার্ষিক পরিকল্পনায় উন্নত বাংলাদেশ বাস্তবায়নের রূপরেখা

  • নোবেল পুরস্কারের জন্য মনোনীত হলেন বাংলাদেশি চিকিৎসক আবিদ

  • মাথা তুলে দাঁড়িয়েছে মেট্রোরেলের উত্তরা দক্ষিণ স্টেশন

  • জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশনে ফের প্রথম স্থানে বাংলাদেশ

  • উচ্চতর গ্রেড পাচ্ছেন ৭ হাজার শিক্ষক

  • ৮০ টাকা কেজি পেঁয়াজ, ৬ ব্যবসায়ীকে জরিমানা

  • বিশ্বে মোট উৎপাদিত ইলিশের ৮৬ শতাংশই বাংলাদেশের

  • মাল্টায় স্বাবলম্বী পিরোজপুরের ৬শ’ চাষি

  • শিক্ষার্থীদের জন্য শিক্ষা ঋণ চালুর কথা ভাবছে সরকার

  • বন্ধ পাটকল শ্রমিকদের পাওনা দেওয়া শুরু

  • রাজশাহীতে দৃশ্যমান হচ্ছে বঙ্গবন্ধু নভোথিয়েটার

  • অনলাইনে কর সনদ পাবেন সঞ্চয়পত্রের গ্রাহক

  • আসছে ১৬৫ ট্রাক পেঁয়াজ

  • আজ কলকাতার বাজারে উঠছে পদ্মার ইলিশ

  • চামড়া শিল্পে ন্যূনতম মজুরি ৭১০০ টাকা চূড়ান্ত

  • প্রয়োজনীয় জিনিস কিনতে শিক্ষার্থীদের আমরা এক হাজার করে টাকা দেব

  • অনলাইনেও কেনা যাবে টিসিবির পেঁয়াজ

  • চলতি অর্থবছরে বাংলাদেশের জিডিপি প্রবৃদ্ধি হবে ৬.৮ শতাংশ: এডিবি

  • চলতি মাসে প্রবাসী আয়ে বড় ধরনের উত্থান

  • কাজকর্ম স্বাভাবিক: ঘুরে দাঁড়াচ্ছে দেশের অর্থনীতি