মঙ্গলবার   ২৪ নভেম্বর ২০২০

সর্বশেষ:
সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোর বার্ষিক ছুটি ৭৫ দিন আগামী মার্চে ঢাকা উত্তর সিটির ভোটের ইঙ্গিত সিইসির আস্থা ভোটে টিকে গেলেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় পরিদর্শনে প্রধানমন্ত্রী রাষ্ট্রপতির সঙ্গে নেপালের বিদায়ী রাষ্ট্রদূতের সাক্ষাৎ সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন করতে ইসি প্রতিজ্ঞাবদ্ধ: নূরুল হুদা বারবার আসতে পারব না, যত খুশি সাজা দিন: খালেদা জিয়া ‘আকাশবীণার’ উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী ত্রিভুবনে আবারও বিমান দুর্ঘটনা ট্রেন-বাসের সংঘর্ষে নিহত ২, আহত ২৫ ভুয়া ছবি দিয়ে অপপ্রচার চালাচ্ছে মিয়ানমার: প্রধানমন্ত্রী
২১৩

রাজশাহীতে চালু হচ্ছে নৌবন্দর

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ২২ অক্টোবর ২০২০  

মরা পদ্মায় জাহাজ চলবে। পণ্য আনা নেয়া হবে বাংলাদেশ ভারতের মধ্যে। পণ্য পরিবহন হবে সাশ্রয়ী। আর খানিকটা হলেও ফিরে পাবে পদ্মা তার হারানো রূপ। এমনি উদ্যোগ নিয়েছে বিআইডব্লিউটিএ কর্তৃপক্ষ। গত ১২ অক্টোবর এর সম্ভাব্যতা যাচাইয়ে রাজশাহী এসেছিলেন সংস্থাটির চেয়ারম্যান কমোডর গোলাম সাদেক। সরেজমিন পরিদর্শন করেছেন বিআইডব্লিউটিএ ও নৌ-পরিবহন মন্ত্রণালয়ের প্রতিনিধি দল।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, এ নিয়ে মন্ত্রণালয়ের সভায় সিদ্ধান্ত হয়েছে বাংলাদেশের রাজশাহী আর ভারতের ধুলিয়ান নৌরুট চালুর। রাজশাহী থেকে ভারতের পশ্চিমবঙ্গের মুর্শিদাবাদের ধুলিয়ান পর্যন্ত ৭৮ কিলোমিটার একটি নৌপথের অনুমোদন থাকলেও তা কার্যকর নেই। তাই রুটটি সংক্ষিপ্ত করে রাজশাহীর গোদাগাড়ী উপজেলার সুলতানগঞ্জ থেকে ভারতের মুর্শিদাবাদের মায়া নৌবন্দর পর্যন্ত আড়াআড়িভাবে কুড়ি কিলোমিটার পদ্মা নদী পাড়ি দিয়ে পণ্য আনা নেয়া করবে। শুরুতে পাথর বালি খাদ্য সামগ্রী আনা হবে।

অন্যদিকে এখান থেকে যাবে পাট ও কৃষিজাত পণ্য। মূলত পাথর বেশী আসবে। ব্যবসায়ীরা জানান, বাংলাদেশে উন্নয়ন কাজের জন্য যত পাথর ব্যবহার হয় তার বেশির ভাগ আসে ভারত থেকে। বর্তমানে রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রের মতো বড় বড় প্রকল্পে ব্যবহার হচ্ছে মুর্শিদাবাদের পাকুর পাথর। যা সড়ক ও রেলপথের মাধ্যমে আসছে। সড়ক পথে আমদানি খরচে বেশি পড়ে। নৌপথে আনা গেলে খরচ কম পড়বে।

এক সময় রাজশাহীর গোদাগাড়ীতে নৌবন্দর ছিল। পদ্মা নদীর ঘাট পর্যন্ত ছিল রেল যোগাযোগ ব্যবস্থা। এ নৌবন্দর দিয়ে ভারতের সঙ্গে পণ্য আনা-নেয়া হতো। বন্দরটি ছিল ব্যস্ততম। দেশ ভাগের পর নৌবন্দর বন্ধ হয়ে যায়। রেলপথও গুটিয়ে নেয়া হয়। মানুষও ভুলে যায় এখানকার নৌবন্দরের কথা। রাজশাহী নগরীর আলুপট্টি ঘাট, ফুদকিপাড়া ঘাট, কাজলার জাহাজ ঘাট। এমন ঘাটগুলো এখনও নাম নিয়ে বেঁচে আছে। প্রবীণরা এখনও প্রমত্ত পদ্মার ভরা যৌবনের কথা স্মৃতিচারণ করে বলেন, এক সময় পদ্মা দিয়ে কত জাহাজ চলত। বড় নৌকা আসা-যাওয়া করত। এখন এসব অতীত। সেই পদ্মা এখন মরণবাঁধ ফারাক্কার অভিশাপে বালিচরের নীচে চাপা পড়ে আর্তনাদ করছে।

১৯৭৪ সালে ফারাক্কা বাঁধ চালুর মাধ্যমে পদ্মার দফারফা করা হয়েছে। পদ্মায় পানির বদলে বালির উত্তাপ থাকে বছরের আটমাস ধরে। বালি জমতে জমতে পঁয়তাল্লিশ বছরে নদীর তলদেশ ভরতে ভরতে আঠারো ফুট ওপরে উঠে এসেছে। নদীর বুকে মাইলের পর মাইলজুড়ে জমেছে বিশাল ধূ ধূ বালুচর। নদীর মূলধারা বিভক্ত হয়ে পড়েছে অসংখ্য সরু ও ক্ষীণ স্রোতধারায়। ফারাক্কা পরবর্তী সময়ে গঙ্গা অববাহিকার নদীগুলোতে নাব্য সঙ্কটে নৌপরিবহন ব্যবস্থা ভয়ানকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। সাড়ে তিনশো কিলোমিটারের বেশি প্রধান ও মধ্যম নৌপথ বন্ধ হয়ে গেছে। বছরের আটমাস পানি আটকে রাখলেও বর্ষার সময় ওপারের বন্যার চাপ সামলাতে ফারাক্কার গেটগুলো খুলে দিয়ে এপার ডুবিয়ে ফেলে। শুকনো মওসুমে শুকিয়ে মারা আর বন্যার সময় ডুবিয়ে মারার খেলা চলে আসছে বছরের পর বছর ধরে। নদী বিশেষজ্ঞরা বলছেন নৌরুট চালু করা ভাল খবর। তবে এজন্য ব্যাপক ড্রেজিং করে নদীর নাব্যতা ধরে রাখতে হবে। আর ফারাক্কার গেটও উন্মুক্ত রাখতে হবে। যাতে প্রয়োজনীয় পানির প্রবাহ থাকে।

সম্প্রতি নৌরুটের অবস্থা দেখার জন্য রাজশাহী এসেছিলেন বিআইডব্লিউটি’র চেয়ারম্যান কমোডর গোলাম সাদেক। নগর ভবনে সিটি মেয়র খায়রুজ্জামান লিটনের সাথে মত বিনিময় করেন। এ সময় মেয়র ভারতের মুর্শিদাবাদের ধুলিয়ান থেকে রাজশাহী হয়ে পাবনার ঈশ্বরদী পর্যন্ত পদ্মা নদীতে ড্রেজিং করার প্রয়োজনীয়তার উপর গুরুত্বারোপ করেন। ড্রেজিংয়ের মাধ্যমে নদীতে নাব্য আনা গেলে রাজশাহীতে আন্তর্জাতিক নৌবন্দর প্রতিষ্ঠা করা যাবে। যার মাধ্যমে রাজশাহীতে ব্যবসা বাণিজ্যের প্রসার ঘটবে। অর্থনীতি শক্তিশালী হবে।

নৌ কর্তৃপক্ষ সূত্র জানায়, নদীতে ড্রেজিংয়ের মাধ্যমে রুটটি আরিচা পর্যন্ত নেয়ার পরিকল্পনা রয়েছে। আগামী ১৫ নভেম্বর থেকে রুটটিতে পরীক্ষামূলকভাবে পণ্য পরিবহন শুরু করার পরিকল্পনার কথা।

আরও পড়ুন
দেশের খবর বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
  • সিঙ্গাপুরের চেয়েও শক্তিশালী বাংলাদেশের অর্থনীতি 

  • ঢাকাকে আধুনিক করতে বিশেষ পরিকল্পনা

  • ‘বঙ্গবন্ধু শিল্পনগরে ১৫ লাখ কর্মসংস্থান হবে’

  • বিমানের বহরে যুক্ত হচ্ছে ‘ধ্রুবতারা’, নাম দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী

  • বেকার যুবকদের মডেল কুষ্টিয়ার হাফিজুল

  • হেলথ আইডি কার্ড স্বাস্থ্যসেবায় আরেক মাইলফলক : স্বাস্থ্যমন্ত্রী

  • ট্রেনে সংযোজন হচ্ছে বায়ো-টয়লেট, বাঁচবে অর্থ-পরিবেশ

  • জন্মের পরই ইউনিক আইডি পাবে শিশু 

  • সরকারি মেডিকেল কলেজে ২৮২টি আসন বাড়ছে

  • পাঁচ দশকে ১০৫ ধানের জাত উদ্ভাবন করেছে ব্রি

  • পদ্মা সেতুর পৌনে ৬ কিলোমিটার দৃশ্যমান

  • ফায়ার সার্ভিসের সক্ষমতা বাড়াতে সব উপজেলায় ফায়ার স্টেশন

  • আন্তর্জাতিক পুরস্কার পেল আইসিটি বিভাগের আইডিয়া প্রকল্প

  • এক মাসে মোবাইল সংযোগ বাড়লো সাড়ে ৯ লাখ

  • সেতু নির্মাণে দুঃখ ঘুচলো মাইনীমুখ বাসিন্দাদের

  • আমনে রঙিন কৃষকের মাঠ

  • বদলে যাচ্ছে বুড়িগঙ্গা ও তুরাগ, নির্মাণ হচ্ছে ডিজিটাল ওয়াকওয়ে

  • কালিগঙ্গা নদীর উপরে সেতু নির্মাণ কাজ এগিয়ে চলেছে

  • রাজধানীবাসীর চাহিদা মেটাচ্ছে যশলদিয়া পানি শোধনাগার

  • চমেকে ১০০ শয্যার পূর্ণাঙ্গ ক্যান্সার চিকিৎসা সেন্টার হচ্ছে 

  • মেট্রোরেল প্রকল্পের প্রথম অংশের কাজ এখন দৃশ্যমান

  • রোহিঙ্গা সংকট সমাধানের লক্ষ্যে জাতিসংঘে রেজুলেশান পাস

  • এক বছরে ই-কমার্স লেনদেন বেড়েছে ১০৮ শতাংশ

  • বিশ্বসেরা বিজ্ঞানীদের তালিকায় জাবি অধ্যাপক ইব্রাহিম খলিল 

  • গ্রামীণ অবকাঠামো উন্নয়নে সরকারের বৃহৎ পরিকল্পনা 

  • ‘শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে বাচ্চাদের মৃত্যুর ঝুঁকিতে ফেলা যাবে না’

  • ‘করোনার সময়েও আমরা চেষ্টা করেছি অর্থনীতির চাকা সচল রাখতে’

  • ‘দেশের সার্বভৌমত্ব রক্ষায় আমরা সদা-প্রস্তুত ও দৃঢ় সংকল্পবদ্ধ’

  • জানুয়ারির মধ্যেই কাজ শুরু

  • সারা বিশ্বে ছড়িয়ে পড়েছে সশস্ত্র বাহিনীর কর্মদক্ষতা: প্রধানমন্ত্রী

  • দৃশ্যমান হলো পদ্মা সেতুর পৌনে ৬ কিলোমিটার

  • ডিসেম্বরের মধ্যে বসবে পদ্মা সেতুর বাকি ৪ স্প্যান

  • ভ্যাকসিনে সুখবর বাংলাদেশে, প্রতি ডোজ ৩৯৯ টাকা 

  • ১৬ ডিসেম্বর চিলাহাটি-হলদিবাড়ি লাইনে রেল চলাচল শুরু: রেল মন্ত্রী

  • বুড়িগঙ্গা-তুরাগ তীরে নির্মাণ হচ্ছে ডিজিটাল ওয়াকওয়ে

  • ৮টি এলএনজি ভিত্তিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মিত হচ্ছে

  • ১০ মডেল গ্রামের মানুষ পাবে শহরের সব সুবিধা

  • জুড়ীতে ৪ কোটি টাকায় নির্মাণ হচ্ছে বৃন্দারঘাট ব্রিজ

  • দুই শতাধিক নতুন জাতের ধানের উদ্ভাবক স্বর্ণপদকপ্রাপ্ত নূর

  • নেপালের বিপক্ষে সিরিজ জয় বাংলাদেশের

  • ভ্যাকসিনের জন্য ১০০০ কোটি টাকা বুকিং দিয়েছে বাংলাদেশ

  • গ্রামীণ অবকাঠামো উন্নয়নে সরকারের বৃহৎ পরিকল্পনা 

  • হাঁস পালন করে স্বাবলম্বী দোহারের রেনু বেগম

  • এশিয়ার ‘আউটস্ট্যান্ডিং লিডার’ পুরস্কার পেলেন আজিজ খান

  • মেট্রোরেল প্রকল্পের প্রথম অংশের কাজ এখন দৃশ্যমান

  • চুয়াডাঙ্গায় ১৩ কোটি টাকা ব্যয়ে নিরাপদ পানির পাম্প চালু  

  • বিশ্বের সেরা ২০ নারী ক্রিকেটারের একজন মুর্শিদা

  • কটন কাগজে আসছে নতুন ১০ টাকার নোট

  • কুমির চাষে সম্ভাবনা দেখছে বাংলাদেশ

  • আটটি এলএনজি ভিত্তিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র হচ্ছে

  • অ্যান্টিবায়োটিকের যথেচ্ছ ব্যবহারের ঝুঁকি মারাত্মক : প্রধানমন্ত্রী

  • সাকিবকে হত্যার হুমকিদাতা গ্রেপ্তার

  • এক বছরে ই-কমার্স লেনদেন বেড়েছে ১০৮ শতাংশ

  • সুফিয়া কামালের আদর্শ বাঙালি নারীর প্রেরণার উৎস : প্রধানমন্ত্রী

  • রাত আটটার মধ্যে দোকান-পাট বন্ধের আহ্বান

  • প্রত্যেক উপজেলায় ফায়ার স্টেশন হচ্ছে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

  • এশিয়ার সেরা ১০ ফুটবলারের তালিকায় বাংলাদেশের সাদ

  • নাটোরে মাস্ক না পরায় ৪০ জন আটক

  • আমরা যে ধর্মেরই হই না কেন সবাই বাঙালি: জয়

  • ‘দেশের সার্বভৌমত্ব রক্ষায় আমরা সদা-প্রস্তুত ও দৃঢ় সংকল্পবদ্ধ’