বুধবার   ০১ এপ্রিল ২০২০

ব্রেকিং:
সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোর বার্ষিক ছুটি ৭৫ দিন আগামী মার্চে ঢাকা উত্তর সিটির ভোটের ইঙ্গিত সিইসির জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় পরিদর্শনে প্রধানমন্ত্রী আস্থা ভোটে টিকে গেলেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে রাষ্ট্রপতির সঙ্গে নেপালের বিদায়ী রাষ্ট্রদূতের সাক্ষাৎ খালেদার অনুপস্থিতিতেই কারাগারে বিচার চলবে রব ও মান্নার বিয়ে যুক্তফ্রন্টে, পরকীয়া ঐক্যফ্রন্টে: মাহী এটা জোট নয়, ঘোট : তথ্যমন্ত্রী যুক্তরাষ্ট্রে রাজনৈতিক আশ্রয় পেলেন সিনহা আবারও সরকার গঠনে নৌকায় ভোট দেয়ার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর পদ্মা সেতু প্রকল্পের নামফলক উন্মোচন করলেন প্রধানমন্ত্রী
৮৮

যে কারণে ধৈর্যশীলদের মর্যাদা বেশি

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ২২ ডিসেম্বর ২০১৯  

ধৈর্যধারণ মহান রাব্বুল আলামিন আল্লাহ তয়ালার অন্যতম গুণ। আল্লাহ তায়ালা মানুষকে তার এ গুণে নিজেদের রঙিন করার ঘোষণা দিয়েছেন। হাদিসে প্রিয় নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম ধৈর্যধারণকারীদের জন্য সুনিশ্চিত অসংখ্য নেয়ামত লাভের ঘোষণা দিয়েছেন।

যারা আল্লাহর অনুসরণ ও অনুকরণে সব কাজে নিজেদের ধৈর্যশীল হিসেবে প্রস্তুত করবেন আল্লাহ তাদের শুধু সাহায্যই করবেন। দুনিয়া ও পরকালে শুধু নেয়ামতই দান করবেন না বরং তাদের সঙ্গে থাকবেন। এমন ঘোষণাই দিয়েছেন তিনি। 

আল্লাহ তায়ালা বলেন, 

يَا أَيُّهَا الَّذِينَ آمَنُواْ اسْتَعِينُواْ بِالصَّبْرِ وَالصَّلاَةِ إِنَّ اللّهَ مَعَ الصَّابِرِينَ
‘হে ঈমানদারগণ! তোমরা ধৈর্য্য ও নামাজের মাধ্যমে সাহায্য প্রার্থনা কর।  নিশ্চয় আল্লাহ ধৈর্যশীলদের সঙ্গে আছেন।’ (সূরা: বাকারা, আয়াত: ১৫৩)। 
ধৈর্যশীলদের মর্যাদা যে কারণে বেশি:
সৃষ্টি জগতে সবচেয়ে বেশি ধৈর্যধারণ করেন মহান আল্লাহ তায়ালা। প্রত্যেক ঈমানদার ব্যক্তির জন্য রয়েছে এখানে মহান শিক্ষা। তিনিই সেই মহান সত্তা যিনি সবচেয়ে বেশি ধৈর্যশীল। কারণ-
আল্লাহ তায়ালা সৃষ্টি জগতের সব অবাধ্য সৃষ্টি জীবের অবাধ্যতা ও বিরোধিতায় ধৈর্যধারণ করেন। এ সৃষ্টি জগতে আল্লাহর আদেশ-নিষেধের কোনো তোয়াক্কা না করে যারা তার স্বেচ্ছাচারিতা তথা তার নিয়মের বাইরে নিজেদের পরিচালিত করেন। তাদের ক্ষেত্রে আল্লাহ ধৈর্যশীল।

তিনি সেই মহান সত্তা, যিনি সর্ব শক্তিমান। তিনি ইচ্ছা করলেই মুহূর্তের মধ্যে সব অবাধ্যকারীকেই ধ্বংস করে দিতে পারেন। কিন্তু না, তিনিই সেই মহান সত্তা যিনি চরম অবাধ্যতায় সৃষ্টি জগতের কাউকে ধ্বংস করেন না। বরং পরম ধৈর্যের সঙ্গে অকৃতজ্ঞ ও অবাধ্য বান্দার সব অন্যায় ও অনিয়ম সহ্য করেন।

চরম অবাধ্যতায় আল্লাহ তায়ালা অকৃতজ্ঞ বান্দাদেরও তিনি আলোবাতাস ও রিজিক দিয়ে সুস্থ, সবল ও সুন্দরভাবেই বাঁচিয়ে রাখেন।

বান্দার ধৈর্যের পরীক্ষা ও নেয়ামতের ঘোষণা:
মহান আল্লাহ তায়ালার এ ধৈর্য থেকে অনুগত মুমিন বান্দারা তারই ধৈর্যের গুণে নিজেদের রঙিন করবেন। ধৈর্যের মহান শিক্ষাগ্রহণ করবেন।

আল্লাহ তায়ালা মানুষকে চরম বিপদ ও হতাশা দিয়ে ধৈর্যের পরীক্ষা নেবেন। সব ধরনের বিপদ ও হতাশায় অধৈর্য না হয়ে, ভেঙে না পড়ে ঈমানের দৃঢ়তায় এ পরীক্ষায় পাস করতে হবে। যেভাবে আল্লাহ তায়ালা সৃষ্টি জগতের সব সৃষ্টির অবাধ্যতায় নিজে ধৈর্যধারণ করেন, ঠিক সেভাবেই ঈমানদার বান্দাও সব বাধা ও বিপদের মধ্যে ধৈর্যধারণ করবেন।
 
চরম বিপদ ও হতাশায় যখনই মানুষ ধৈর্যের পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হবে তখনই সে পরিপূর্ণ ঈমানদার হওয়ার প্রতিযোগিতায় অর্ধেক ঈমান পরিপূর্ণ করবেন।

কেননা হাদিসে পাকে প্রিয় নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম ঘোষণা করেন, ‘সবর বা ধৈর্যধারণ ঈমানের অঙ্গবিশেষ।’ তাদের ব্যাপারেই আল্লাহ তায়ালা ঘোষণা করেন, ‘নিশ্চয়ই আল্লাহ তায়ালা ধৈর্যশীলদের সঙ্গে আছেন।’

ধৈর্যধারণ প্রসঙ্গে রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম অসংখ্য নেয়ামতের ঘোষণা দিয়েছেন। যাতে মানুষ ধৈর্যধারণে উদ্বুদ্ধ হয়। অধৈর্য না হয়। আর তাহলো-
> রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন, ‘যে ব্যক্তি বিপদে ধৈর্যধারণ করে, আল্লাহ তায়ালা তার ধৈর্যগুণ আরো বাড়িয়ে দেন।’

> ধৈর্য মানুষের জন্য অনেক বড় নেয়ামত। রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন, ‘মুমিন পুরুষ-নারীদের দৈহিক, আর্থিক ও পারিবারিক বিপদ-আপদ মৃত্যু পর্যন্ত আসতেই থাকে। যারা এতে ধৈর্যধারণ করে, এ দ্বারা তাদের গুনাহ ক্ষমা হয়।’

> রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম আরো বলেন, ‘যে মুসলমান মানুষের সঙ্গে মিলেমিশে বসবাস করে এবং তাদের অত্যাচার-উৎপীড়ন ধৈর্যের সঙ্গে বরণ করে নেয়; নির্জনবাসী সুফিসাধক ব্যক্তি থেকে তারা বহুগুণে উত্তম।’

> রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম ইরশাদ করেন, আল্লাহ তায়ালা কোনো লোককে যে বিশেষ মর্যাদা দান করেছেন, তা কোনো ইবাদত-বন্দেগি দ্বারা অর্জিত হয়। বরং শুধু ধৈর্যজনিত কারণেই আল্লাহ তায়ালা তা দান করেছেন।’

> ধৈর্যধারণ মুমিনের জন্য কত বড় নেয়ামত। যে ব্যক্তি নিজের জান-মালের ক্ষতি গোপন করে ধৈর্যধারণ করবে, আল্লাহর জন্য সে ব্যক্তিকে ক্ষমা করা ওয়াজিব হয়ে যায়। হাদিসের ঘোষণা-
‘রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম আরো ইরশাদ করেছেন, যার জানমালের প্রতি বিপদ এসেছে, কিন্তু সে তা গোপন রেখেছে; (হাহুতাশ ও হৈচৈ করে) লোকের কাছে তা প্রকাশ করেনি, তাকে ক্ষমা করা আল্লাহ তায়ালার জন্য ওয়াজিব হয়ে যায়।

> আল্লাহ যাকে ভালোবাসেন তাকেই বেশি বেশি বিপদ-আপদ দিয়ে পরীক্ষা করেন। আবার যারা এ বিপদে ধৈর্যের পরীক্ষায় পাস করেন তাদের ব্যাপারে হাদিসে ঘোষণা-
রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম ঘোষণা করেন, মানুষের সাওয়াবের প্রাচুর্য বিপদের প্রাচুর্যের প্রতি নির্ভরশীল। আল্লাহ যে সম্প্রদায়কে অধিক ভালবাসেন, তাদের প্রতি অধিক বিপদ দিয়ে থাকেন। যে ব্যক্তি বিপদে ধৈর্যধারণ করে, কেয়ামতের দিন ওই বান্দার সন্তুষ্টিলাভ সুনিশ্চিত। আর যে ব্যক্তি বিপদে অধৈর্য হয়ে পড়ে, কেয়ামতের পেরেশানিও তার জন্য সুনিশ্চিত।
 
সুতরাং মুমিন মুসলমানের উচিত বিপদ যত কঠিনই হোক না কেন, ধৈর্যধারণই তার সর্বোত্তম কাজ ও গুণ। যে গুণে নিজেকে রাঙাতে পারলেই যেমনি সফল হবে দুনিয়ার জীবন তেমনি পরকালের জীবনেও সে হবে সফল।

ধৈর্যধারণকারীদের জন্য হাদিসে বর্ণিত মহান আল্লাহ তায়ালার একটি বিশেষ নেয়ামতের ঘোষণায় উল্লেখ করা জরুরি। আর তাহলো-
রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম ঘোষণা করেছেন, ‘কেয়ামতের দিন দাতা ও শহীদদের সব হিসাব গ্রহণ করা হবে; কিন্তু বিপদ-আপদের (ধৈর্যের) হিসাব গ্রহণ করা হবে না। তাদের আমল ওজনের জন্য দাঁড়িপাল্লা স্থাপন করা হবে না। তাদের প্রতি শুধু সাওয়াবের ধারা বর্ষিত হতে থাকবে। তখন (এসব নেয়ামত দেখে) দুনিয়ার যারা কোনো রূপ বিপদগ্রস্ত হয়নি, শুধু নিরবচ্ছিন্ন সুখ-শান্তি ভোগ করেছে, তারা আফসোস করে বলতে থাকবে, হায়! দুনিয়াতে যদি আমরাও দুঃখ-কষ্ট ভোগ করতাম! এমনকী যদি কাঁচি দিয়ে আমাদের গায়ের চামড়া খসিয়ে ফেলা হতো! (আজ আমরা সুখী হতাম, আল্লাহর নেয়ামত ভোগ করতাম)।

আল্লাহ তায়ালা মুসলিম উম্মাহকে দুনিয়ার সবক্ষেত্রেই সর্বোচ্চ ধৈর্যধারণ করার তাওফিক দান করুন। আমিন।

আরও পড়ুন
ইসলাম বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
  • ৩ হাজার কোটি টাকা অনুদান দেবে বিশ্বব্যাংক

  • সরকার ৩ হাজার হাজতিকে মুক্তি দেওয়ার কথা ভাবছে

  • ৬৫ শতাংশ মানুষের শেষ ১৪ দিনের কোয়ারেন্টাইন

  • ভারতে আটকে পড়াদের জন্য হটলাইন

  • গার্মেন্টস খাতকে দুই শতাংশ সুদে ঋণ দেয়া হবে: বাণিজ্যমন্ত্রী

  • ফরিদগঞ্জে রাতের আঁধারে ঘরে ঘরে ত্রাণ পৌঁছে দিচ্ছে তরুণরা

  • করোনা পরিস্থিতির মধ্যেই পদ্মাসেতুর সবকটি পিয়ারের কাজ সম্পন্ন

  • শ্বাসতন্ত্রে আক্রান্ত রোগী মার্চে ১৪ গুণ বেশি: স্বাস্থ্য অধিদপ্তর

  • করোনাভাইরাসে আক্রান্ত না হলে মাস্ক ব্যবহার নয়: ডব্লিউএইচও

  • বাংলাদেশে মাত্র তিন ঘণ্টায় পরীক্ষা করা যাবে ৯৬ করোনা রোগী!

  • দেশের বিভিন্ন স্থানে মারা যাওয়া কারো শরীরে করোনা সংক্রমণ ছিলো না

  • করোনাভাইরাস মোকাবিলায় চিন্তিত বিশ্ব নেতারাও

  • খুলনায় বাজারে আগুনে পুড়ল একশ দোকান

  • স্বপ্নের শেষ সিঁড়িতে পদ্মাসেতু

  • মৃতের সংখ্যায় চীনকে ছাড়িয়ে গেল যুক্তরাষ্ট্র

  • করোনাভাইরাসে ইতালিতে মৃতের সংখ্যা ১২ হাজার ছাড়াল

  • করোনায় মৃতের সংখ্যা ছাড়ালো ৪১ হাজার

  • রফতানি বৃদ্ধির সিদ্ধান্ত সৌদির

  • হ্যারি-মেগানের পদত্যাগ

  • নিষেধাজ্ঞা থাকলেও মানছে না জেলেরা

  • করোনাতে আক্রান্ত হয়ে মারা গেলেন কঙ্গোর সাবেক প্রেসিডেন্ট

  • হঠাৎ চীনে ভয়াবহ দাবানল, নিহত ১৯

  • নাইজেরিয়া লকডাউন

  • করোনাভাইরাস: যুক্তরাষ্ট্রে ভেন্টিলেটর নিয়ে হিমশিম খাচ্ছে!

  • কিউবান চিকিৎসকদের চাহিদা বাড়ছে

  • করোনা: সৌদি আরবে আরও এক বাংলাদেশি মারা গেছেন

  • চট্টগ্রামে নাভানা গ্রুপের করোনা চিকিৎসার ‘ফিল্ড’ হাসপাতাল

  • করোনাভাইরাস: স্পেনে ৬৬ বাংলাদেশি আক্রান্ত

  • করোনা: দেশে বেড়েছে মোবাইল ব্যাংকিংয়ের জনপ্রিয়তা 

  • মশার গান আর শুনতে চাই না: মেয়রকে প্রধানমন্ত্রী

  • করোনায় আক্রান্ত হওয়ার নতুন উপসর্গ

  • কল করার ৩০ মিনিটেই বাজার নিয়ে হাজির পুলিশ!

  • নওগাঁয় একাই ৩০ হাজার পরিবারের দায়িত্ব নিলেন জলিল জন

  • করোনার সাহায্য নিয়ে নয়-ছয় করলে ছাড়ব না, হুশিয়ারি প্রধানন্ত্রীর

  • চিকিৎসা সরঞ্জাম নিয়ে ঢাকায় চীনের বিশেষ বিমান

  • বাজারে নিরাপদ দূরত্ব নিশ্চিতে লালবৃত্ত এঁকে দিচ্ছে ডিএমপি

  • হায়রে কুশিক্ষিত, অর্বাচীন মেধাবী!

  • দাফনের পর মৃতদেহ থেকে করোনাভাইরাস ছড়ায় না

  • লার্জ ফার্মায় ৪ টাকার হ্যান্ডগ্লাভস ২০ টাকা, ১ লাখ টাকা জরিমানা

  • ‘করোনা রোধে প্রয়োজনে অন্য দেশকেও সহায়তা করতে প্রস্তুত বাংলাদেশ’

  • পরিস্থিতি বিবেচনায় ছুটি আরও বাড়ছে: প্রধানমন্ত্রী 

  • করোনা প্রতিরোধে সোচ্চার বাংলাদেশ সেনাবাহিনী

  • সবাইকে ঘরে থেকে পরিবারকে সময় দেয়ার অনুরোধ জানালেন করোনাজয়ী তরুণ

  • ‘পদ্মা সেতুর ৪২টি খুঁটির সবগুলোর নির্মাণ কাজ শেষ’

  • করোনার কালকেটা কেমন হবে?

  • ভেন্টিলেটর তৈরির কৌশল উন্মুক্ত করলেন বাংলাদেশের ইশরাক

  • ‘বৈশ্বিক মহামারীতে আমাদের যা করণীয়’

  • জনগণের কল্যাণেই এবার নববর্ষের অনুষ্ঠান হবে না: প্রধানমন্ত্রী

  • মশার গান আর শুনতে চাই না: মেয়রকে প্রধানমন্ত্রী

  • ভারতীয় রুপির বিপরীতে শক্তিশালী হচ্ছে টাকার মান

  • ‘সতর্ক থেকে নিজে বাঁচুন, অন্যকে বাঁচতে দিন’

  • টানা দ্বিতীয় দিনেও নতুন কোনো করোনারোগী শনাক্ত হয়নি: আইইডিসিআর

  • এবার চোখ রাঙাচ্ছে হান্টাভাইরাস

  • আজ জাতীয় গণহত্যা দিবস

  • প্রধানমন্ত্রীর তহবিলে ২৫ কোটি টাকা দিল সশস্ত্র বাহিনী

  • গণহত্যা দিবসে প্রধানমন্ত্রীর বাণী

  • করোনার বিস্তার আটকে দিতে পারে উষ্ণ আর্দ্র আবহাওয়া

  • মানবিক দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন প্রধানমন্ত্রী

  • জেনে নিন, করোনাভাইরাস নিয়ে সত্য মিথ্যা

  • করোনা প্রতিরোধে ৩১ লাখ টাকা দিলেন টাইগাররা