বুধবার   ২৭ জানুয়ারি ২০২১

সর্বশেষ:
সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোর বার্ষিক ছুটি ৭৫ দিন আগামী মার্চে ঢাকা উত্তর সিটির ভোটের ইঙ্গিত সিইসির আস্থা ভোটে টিকে গেলেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় পরিদর্শনে প্রধানমন্ত্রী রাষ্ট্রপতির সঙ্গে নেপালের বিদায়ী রাষ্ট্রদূতের সাক্ষাৎ সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন করতে ইসি প্রতিজ্ঞাবদ্ধ: নূরুল হুদা বারবার আসতে পারব না, যত খুশি সাজা দিন: খালেদা জিয়া ‘আকাশবীণার’ উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী ত্রিভুবনে আবারও বিমান দুর্ঘটনা ট্রেন-বাসের সংঘর্ষে নিহত ২, আহত ২৫ ভুয়া ছবি দিয়ে অপপ্রচার চালাচ্ছে মিয়ানমার: প্রধানমন্ত্রী
৩০৮

মনপুরা হচ্ছে দেশের প্রথম সূর্য দ্বীপ

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ১২ ডিসেম্বর ২০২০  

বিদ্যুতের আলো জ্বলে ওঠাতে উপকূলের জীবনে বছর কয়েক আগেই লেগেছিল উন্নয়নের ছোঁয়া। শিক্ষা, স্বাস্থ্য এবং কর্মসংস্থানে বিদ্যুতের স্পর্শ জাদুর কাঠির মতোই কাজ করেছে। উপকূলের এই উন্নয়নের ছোঁয়া পর্যটন শিল্পেরও ব্যাপক প্রসারের সম্ভাবনা সৃষ্টি করেছে। এবার মনপুরাতে যা আরও বিস্তৃত হওয়ার আশা জাগাচ্ছে। মনপুরাতে দুই হাজার ৫০০ গ্রাহককে সোলার মিনি গ্রিডের মাধ্যমে বিদ্যুত বিতরণ করা হচ্ছিল। এর বাইরে সেখানে আরও ৮৫৩ জন গ্রাহক রয়েছে। সব মিলিয়ে তিন হাজার ৩৫৩ জন গ্রাহক সার্বক্ষণিক বিদ্যুত পাবেন। যার পুরোটাই আসবে নবায়নযোগ্য জ্বালানি থেকে। শতভাগ নবায়নযোগ্য জ্বালানিতেই চলবে মনপুরা।

পৃথিবীর উন্নত দেশগুলো শতভাগ নবায়নযোগ্য জ্বালানিতে বিদ্যুতের সংস্থান নিশ্চিত করার জন্য কাজ করছে। দেশেও ক্রমে নবায়নযোগ্য জ্বালানির প্রসার ঘটছে। তবে বিদ্যুতের মূল্য বিবেচনাতে এখনই শতভাগ নবায়নযোগ্য জ্বালানিতে বিদ্যুত উৎপাদনকে সমর্থন করেন না অনেকে। তবে উপকূলীয় এলাকার বায়ুর গতিকে কাজে লাগিয়ে বিদ্যুত উৎপাদন করা গেলে নবায়নযোগ্য জ্বালানির ব্যাপক সম্প্রসারণ সম্ভব বলে মনে করা হচ্ছে।

ভোলা থেকে প্রায় ৮০ কিলোমিটার দূরে মনপুরার অবস্থান। তিন দিকে মেঘনার মোহনা এক দিবে বঙ্গোপসাগর। অতিপ্রাচীন এই দ্বীপটির রয়েছে ৬০০ বছরের ইতিহাস। তবে এই ৬০০ বছরের মধ্যে সেখানে বিদ্যুত পৌঁছানোর ইতিহাস খুব পুরাতন নয়। মাত্র কয়েক বছর আগে তিনটি সোলার মিনি গ্রিড নির্মাণ করা হয়। এই মিনি গ্রিড থেকে ৬৭৫ কিলোওয়াট বিদ্যুত উৎপাদন করা হয়। উৎপাদিত বিদ্যুত দিয়ে আড়াই হাজার মানুষের বিদ্যুতের চাহিদা মেটানো হয়। গ্রাহক পর্যায়ে যে বিদ্যুতের প্রতি ইউনিটের দাম ৩৫ থেকে ৪০ টাকা। অন্যদিকে একই ধরনের গ্রাহকের বিদ্যুতের দাম ইউনিট প্রতি চার টাকার নিচে। গ্রিডের সঙ্গে যুক্ত থাকা গ্রাহক এই সুবিধা পেলেও পাচ্ছে না অবহেলিত মনপুরার বাসিন্দারা।

কৃষি আর মৎস্যজীবী মানুষগুলো বেশি দামে হলেও এই বিদ্যুত কিনে আধুনিক স্রোতের সঙ্গে নিজেদের শামিল করছে। অবহেলিত এই জনপদের চোখে এখন দেশের মূলধারায় মিলে-মিশে একাকার হওয়ার স্বপ্ন জেগেছে। এই স্বপ্নকে বাস্তবায়ন করতে ওয়েস্টজোন পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি (ওজোপাডিকো) এই উদ্যোগ নিয়েছে।
কোম্পানিটির ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রকৌশলী মোঃ শফিক উদ্দিন বলেন, আমরা মনপুরাতে একটি তিন মেগাওয়াটের সৌর বিদ্যুত কেন্দ্র নির্মাণ করতে যাচ্ছি। আইপিপি মডেলে নির্মাণ হওয়া কেন্দ্র থেকে আমরা সব বিদ্যুত কিনে নিয়ে দ্বীপবাসীর মধ্যে বিতরণ করব।

পিডিবি সূত্র বলছে, শুরুতে কেন্দ্রটি নির্মাণের জন্য হাইব্রিড প্রথা অনুসরণ করার কথা ছিল। এতে দিনে সৌর বিদ্যুত আর রাতে ডিজেল দিয়ে দ্বীপের চাহিদা মেটানোর কথা ছিল। তবে পিডিবি মনে করছে ডিজেলের পরিবর্তে রাতেও ব্যটারিতে বিদ্যুত ধরে রাখা সম্ভব। এখন লিথিয়াম আয়োন ব্যাটারির মাধ্যমে খুব কম সময়ে বেশি বিদ্যুত চার্জ করা সম্ভব। লিথিয়াম আয়োন ব্যাটারির এই প্রযুক্তিই ভোলায় ব্যবহার করা হবে।

মনপুরার বিদ্যুতের দামও কমিয়ে আনার চিন্তা করছে সরকার। মিনি গ্রিড এবং তিন মেগাওয়াটের সৌর বিদ্যুত কেন্দ্র থেকে যে বিদ্যুত পাওয়া যাবে তার পুরোটাই কিনে নেবে ওজোপাডিকো। আর ওজোপাডিকো যেহেতু বিদ্যুত বিতরণ করতে তাই এর দামও আলাদা হবে। তবে উচ্চ মূল্যের এই বিদ্যুতের দাম কি হবে তা এখনও নির্ধারণ করা হয়নি। এ্যানার্জি রেগুলেটরি কমিশনের নির্ধারিত দামেই এই বিদ্যুত বিতরণ করা হবে না অন্য কোন প্রক্রিয়া অনুসরণ হবে সে বিষয়ে এখনও সিদ্ধান্ত হয়নি। তবে দ্বীপটির মানুষকে আর ৩৫/৪০ টাকা দরের উচ্চ মূল্যের বিদ্যুত কিনতে হবে না। এজন্য সরকারের তরফ থেকে ভর্তুকি দেয়ার চিন্তা করা হচ্ছে।

অর্থাৎ নির্ধারিত দামের বাইরে উদ্যোক্তাদের কাছ থেকে বিদ্যুত কেনার অতিরিক্ত অর্থ ভর্তুকি দেবে সরকার। ওজোপাডিকো সূত্র বলছে, ওয়েস্টার্ন রিনিউবেল এ্যানার্জি (ডব্লিউআরইএন) আইপিপিভিত্তিক সোলার বিদ্যুত কেন্দ্রটি নির্মাণ করবে। এজন্য তারা প্রাথমিকভাবে প্রতি ইউনিট বিদ্যুতের দাম ২৭ টাকা নির্ধারণের প্রস্তাব করেছে। তবে এটি এখন পিডিবির ট্যারিফ নেগোসিয়েশন কমিটিতে রয়েছে। এখানে দরকষাকষির মাধ্যমেই বিদ্যুতের দাম নির্ধারণ হবে। সাধারণ সৌর বিদ্যুত কেন্দ্রের বিদ্যুতের দাম ইউনিট প্রতি ১০ টাকার নিচে নেমে এসেছে। তবে ব্যাটারির মাধ্যমে বিদ্যুত সংরক্ষণ করতে হলে এই দাম আরও কিছুটা বাড়বে।

বাংলার উন্নয়ন বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
  • প্রয়োজনে আরও টিকা ক্রয় করা হবে: প্রধানমন্ত্রী

  • কমলগঞ্জে পাকা ঘরে উঠলেন ৬০ গৃহহীন পরিবার

  • তারল্য বাড়াতে ১০০ কোটি ডলারের বন্ড ছাড়বে আইসিবি

  • দুর্ভোগ থেকে মুক্তি পাচ্ছে নিরপরাধরা

  • টিকায় এগিয়ে বাংলাদেশ

  • ‘কাজ ঝুলিয়ে রাখা ঠিকাদারদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে’

  • প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের কড়া নির্দেশনা

  • অ্যান্টিবায়োটিকের যত্রতত্র ব্যবহার বন্ধে প্রধানমন্ত্রীর ৬ প্রস্তা

  • সিলেটে ঘর পাচ্ছে ৪১৭৮টি পরিবার

  • ধর্ষণের হুমকিতে আমি ভয় পায় না: নুসরাত

  • মুক্তমনে স্বাধীনভাবে খেলছে শিশুরা

  • আন্তর্জাতিক অ্যাওয়ার্ড পেলেন ঢাবি ছাত্রী সাজিয়া

  • যুক্তরাষ্ট্রের পাঠ্যপুস্তকে রাজুব ভৌমিকের আরেকটি বই

  • দেশের ইতিহাসে প্রথম টিকা নিচ্ছেন নার্স রুনু

  • কৃষিযন্ত্রের বাজার বাড়ছে

  • নির্ভরতার কৃষিতে ছুটছে অর্থনীতির চাকা

  • মাষকলাইয়ে আগ্রহ ফেরাতে প্রণোদনা

  • ‘সৌন্দর্যের’ কাঠবাদামে বাণিজ্যিক সম্ভাবনা

  • ধান চাষে বেড়েছে প্রযুক্তির ব্যবহার

  • দ্বিগুণ লাভে গাজর চাষে বিপ্লব!

  • বৈশ্বিক উদ্যোগ ব্যর্থ অর্থ ও সদিচ্ছার অভাবে: প্রধানমন্ত্রী

  • চাল আমদানির ফলে বাজার স্থিতিশীল হয়েছে: কৃষিমন্ত্রী

  • আগামী বছরের জুনেই শেষ হবে পদ্মাসেতুর কাজ

  • টিকা প্রদানে প্রস্তুত কুর্মিটোলা হাসপাতাল

  • সারাদেশে টিকাদান ৭ ফেব্রুয়ারি শুরু: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

  • মার্চে খুলছে ঢাবির হল

  • দক্ষিণ এশিয়ায় একমাত্র বাংলাদেশেরই বাড়ছে জিডিপি

  • পররাষ্ট্রমন্ত্রীকে ফোন করবেন জন কেরি

  • বাসা-ভাড়াটিয়ার তথ্য সংগ্রহ করবে ডিএমপি

  • ঘরে বসেই খাজনা পরিশোধ: ভূমিমন্ত্রী

  • মুজিবর্ষে ৭০ হাজার গৃহহীন পরিবারকে ঘর দিলেন প্রধানমন্ত্রী

  • অনুমোদন পেল বাংলাদেশে উদ্ভাবিত কোভিড টেস্ট কিট

  • বিনাশুল্কে চীনের বাজারে যাচ্ছে ৮২৫৬ বাংলাদেশি পণ্য

  • স্বপ্নের মেট্রোরেল: উত্তরা থেকে আগারগাঁও ৮০ ভাগ কাজ সম্পন্ন

  • ২০২৩ সালের মধ্যে বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-২ উৎক্ষেপণ

  • বাংলাদেশে পৌঁছালো ভারতের উপহারের ২০ লাখ ডোজ টিকা

  • ৩ থেকে ৫ কোটি টাকা ঋণ পাবে ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পের উদ্যোক্তারা

  • আজ ‘স্বপ্ননীড়ে’ পা রাখছে ৬৬ হাজার ১৮৯ পরিবার

  • বাড়ি পেয়ে প্রধানমন্ত্রীর দীর্ঘায়ু কামনা করলেন গৃহহীনরা

  • কারা নিতে পারবেন না করোনা ভ্যাকসিন

  • দেশের প্রথম স্বয়ংক্রিয় দুগ্ধ খামার চালু

  • ২০৩০ সালে শিল্পখাতের উৎপাদনশীলতা হবে ৫.৬ শতাংশ: শিল্পমন্ত্রী

  • আপাতত সপ্তাহে একদিন ক্লাসের পরিকল্পনা : শিক্ষামন্ত্রী

  • ১৫ টাকা কেজিতে বিক্রি হচ্ছে টিসিবির পেঁয়াজ

  • ৫০ বছর পর সুন্দরী খাল সংস্কার

  • নতুন ৬টি দেশে শ্রমিক পাঠানোর উদ্যোগ নিয়েছে সরকার

  • শাহজালাল বিমানবন্দর হবে দক্ষিণ এশিয়ার কেন্দ্রবিন্দু

  • দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের কৃষির উন্নয়নে হচ্ছে বিশ্বমানের গবেষণাকেন্দ্র

  • সর্বপ্রথম ভ্যাকসিন নিতে অর্থমন্ত্রীর আগ্রহ প্রকাশ

  • এক ‘মা’ জন্ম দিয়েছেন, আরেক ‘মা’ দিলেন ঘর

  • করোনা টিকা নিয়ে গুজব রোধে সতর্ক সরকার

  • দেশের সব নদী দখলমুক্ত করা হবে: নৌপ্রতিমন্ত্রী

  • আগামী মাসে বাড়ি পাচ্ছে আরও ১ লাখ পরিবার

  • বাংলাদেশ ও বঙ্গবন্ধুকে তুলে ধরতে ৫০ দেশ ঘুরবে গাড়ি

  • দু-একদিনের মধ্যেই আরও ৫০ লাখ টিকা আসবে: পাপন

  • চলতি অর্থবছরে ১২ শিল্পনগরী স্থাপন হচ্ছে: শিল্পমন্ত্রী

  • নয়াদিল্লির রাজপথে কুচকাওয়াজে বাংলাদেশের সেনা বাহিনী

  • অবশেষে ফেব্রুয়ারিতে খুলছে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান

  • বাংলাদেশের কেনা টিকার প্রথম চালান আসবে ২৫ জানুয়ারি

  • কুমিল্লায় অতিথি পাখির মিলনমেলা