সোমবার   ২০ সেপ্টেম্বর ২০২১

সর্বশেষ:
সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোর বার্ষিক ছুটি ৭৫ দিন আগামী মার্চে ঢাকা উত্তর সিটির ভোটের ইঙ্গিত সিইসির আস্থা ভোটে টিকে গেলেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় পরিদর্শনে প্রধানমন্ত্রী রাষ্ট্রপতির সঙ্গে নেপালের বিদায়ী রাষ্ট্রদূতের সাক্ষাৎ সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন করতে ইসি প্রতিজ্ঞাবদ্ধ: নূরুল হুদা বারবার আসতে পারব না, যত খুশি সাজা দিন: খালেদা জিয়া ‘আকাশবীণার’ উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী ত্রিভুবনে আবারও বিমান দুর্ঘটনা ট্রেন-বাসের সংঘর্ষে নিহত ২, আহত ২৫ ভুয়া ছবি দিয়ে অপপ্রচার চালাচ্ছে মিয়ানমার: প্রধানমন্ত্রী
৫৯

ভালো-মন্দ স্বপ্ন দেখলে করণীয়

ডেস্ক রিপোর্ট:

প্রকাশিত: ২ সেপ্টেম্বর ২০২১  

মানবজীবনের একটি বড় অংশ ঘুমে অতিবাহিত হয়। স্বপ্ন ঘুমন্ত জীবনের অপরিহার্য অংশ। কাজেই স্বপ্ন দেখা মানুষের স্বাভাবিক প্রক্রিয়া। ঘুমন্ত অবস্থায় ইন্দ্রিয় স্থিমিত হলেও পুরোপুরি নিষ্ক্রিয় হয় না। তখন নানারূপ কল্পনাশ্রয়ী চিন্তা ও দৃশ্য উদিত হয়। এসব দৃশ্য দেখাকে স্বপ্ন বলা হয়।

স্বপ্নের প্রকারভেদ : স্বপ্ন সাধারণত তিন প্রকার। এক. ভালো স্বপ্ন, যা মহান আল্লাহর পক্ষ থেকে সুসংবাদ হিসেবে বিবেচিত হয়। দুই. ভীতিপ্রদ স্বপ্ন, যা শয়তানের পক্ষ থেকে প্ররোচনামূলকভাবে দেখানো হয়। তিন. মানুষের চিন্তা-চেতনার কল্পচিত্র, যা স্বপ্নের আকারে প্রকাশ পায়। হাদিসে এসেছে, আবু হুরায়রা (রা.) থেকে বর্ণিত, নবী (সা.) বলেন, ‘স্বপ্ন তিন প্রকার। এক. ভালো স্বপ্ন, যা আল্লাহর পক্ষ থেকে সুসংবাদ। দুই. ভীতিপ্রদ স্বপ্ন, যা শয়তানের পক্ষ থেকে হয়ে থাকে। তিন. যা মানুষ চিন্তা-ভাবনা ও ধারণা অনুযায়ী দেখে থাকে।’ (আবু দাউদ, হাদিস : ৫০২১)

 

ভালো স্বপ্ন নবুয়তের অংশ : নবী (সা.) ৪০ বছর বয়সে নবুয়ত লাভ করেন। তাঁর নবুয়তকাল ছিল ২৩ বছর। নবুয়তের আগে তিনি সত্য স্বপ্ন দেখতে শুরু করেন। ক্রমান্বয়ে তাঁর কাছে একাকিত্ব প্রিয় হয়ে উঠলে তিনি হেরা গুহায় ধ্যানমগ্ন থাকেন। মাঝেমধ্যে বাড়িতে এসে খাদ্য-পাথেয় নিয়ে যেতেন। এভাবে ছয় মাস অতিক্রম হওয়ার পর ওহির সূচনা হয়। ২৩ বছরে ৪৬টি ছয় মাস আছে। কাজেই নবুয়তের আগে নবী (সা.) যে ছয় মাস সত্য স্বপ্ন দেখেছেন সেটি নবুয়তের ৪৬ ভাগের এক ভাগ। আবু সাইদ খুদরি (রা.) থেকে বর্ণিত, তিনি রাসুলুল্লাহ (সা.)-কে বলতে শুনেছেন, ‘ভালো স্বপ্ন নবুয়তের ৪৬ ভাগের এক ভাগ।’ (বুখারি, হাদিস : ৬৫৮৮; মুসলিম, হাদিস : ৬০৫৯)

 

যাদের স্বপ্ন সত্য হয় : নবী-রাসুলদের স্বপ্ন সত্য হয়। স্বপ্ন আল্লাহর পক্ষ থেকে ওহি অবতরণের অন্যতম পদ্ধতি। স্বপ্নের মাধ্যমেও মহান আল্লাহ তাঁদের নির্দেশনা দিয়েছেন। যেমন—ইসমাঈল (আ.)-কে কোরবানি করার বিষয়টি ইবরাহিম (আ.)-কে স্বপ্নে জানানো হয়েছে। তিনি স্বপ্ন দেখে কোরবানি করতে প্রস্তুত হয়েছেন। (সুরা সাফফাত, আয়াত : ১০২-১০৫)

নবী-রাসুল ছাড়া যে যত সত্যবাদী হয় তার স্বপ্নও তত সত্য হয়। এর কারণ প্রথমত, প্রকৃত সত্যবাদী মানুষের চিন্তা-চেতনা ও ধ্যান-ধারণায় সত্যের বহিঃপ্রকাশ ঘটে। ফলে তারা কল্পনাপ্রসূত অবান্তর স্বপ্ন দেখে না। দ্বিতীয়ত, শয়তান সত্যবাদী মানুষ থেকে দূরে থাকে। ফলে শয়তানের পক্ষ থেকে আসা উদ্ভট স্বপ্নও তারা দেখে না। তাই সত্যবাদী মানুষের স্বপ্ন সত্য হয়। আবু হুরায়রা (রা.) থেকে বর্ণিত, নবী (সা.) বলেন, ‘যে যত সত্যবাদী, তার স্বপ্ন তত সত্য হবে।’ (আবু দাউদ, হাদিস : ৫০২১)

 

যে স্বপ্ন সত্য হয় : স্বপ্নে রাসুলুল্লাহ (সা.)-কে দেখা যায়। সুন্নাহর অনুসরণের মাধ্যমে রাসুল (সা.)-এর প্রতি ভালোবাসা গভীর হলে এবং বেশি বেশি দরুদ-সালাম পাঠ করলে মহান আল্লাহ স্বপ্নের মাধ্যমে রাসুল (সা.)-কে দেখাতে পারেন। স্বপ্নে রাসুল (সা.)-কে দেখার অর্থ প্রকৃতই তাঁকে দেখা। কারণ শয়তান নবী (সা.)-এর আকৃতি ধারণ করতে পারে না। আবু হুরায়রা (রা.) থেকে বর্ণিত, নবী (সা.) বলেন, ‘তোমরা আমার নামে নাম রেখো। তবে আমার উপনামে নাম রেখো না। আর যে স্বপ্নে আমাকে দেখে সে আমাকেই দেখে। কারণ শয়তান আমার আকৃতি ধারণ করতে পারে না। আর যে আমার ওপর মিথ্যা অপবাদ দেয় সে জাহান্নামে নিজের ঠিকানা বানিয়ে নেয়।’ (বুখারি, হাদিস : ৫৮৪৪; মুসলিম, হাদিস : ২০১৫)

 

ভালো স্বপ্ন দেখলে যা করতে হয় : এক. আল্লাহর প্রশংসা করে ‘আল-হামদুলিল্লাহ’ বলবে। দুই. প্রিয়জনদের সুসংবাদ হিসেবে জানাবে। আবু কাতাদা (রা.) থেকে বর্ণিত, রাসুল (সা.) বলেন, ‘যখন তোমাদের কেউ এমন স্বপ্ন দেখে, যা তার ভালো লাগে, তাহলে সে বুঝে নেবে যে এটা আল্লাহর পক্ষ থেকে। সে এ স্বপ্নের জন্য আল্লাহর প্রশংসা করবে আর অন্যকে এ ব্যাপারে জানাবে।’ (বুখারি, হাদিস : ৬৫৮৪)

 

খারাপ স্বপ্ন দেখলে যা করতে হয় : এক. তিনবার বাম দিকে থুথু নিক্ষেপ করবে। দুই. স্বপ্নের ক্ষতি ও অনিষ্ট থেকে আল্লাহর কাছে আশ্রয় প্রার্থনা করে তিনবার ‘আউজুবিল্লাহি মিনাশ শাইতানির রজিম’ বলবে। তিন. পার্শ্বপরিবর্তন করে ঘুমাবে। চার. অন্যের কাছে বলবে না এবং নিজেও এর ব্যাখ্যা করতে চেষ্টা করবে না। পাঁচ. স্বপ্ন দেখার পর ঘুম ভেঙে গেলে উঠে দুই রাকাত নামাজ পড়বে। জাবির (রা.) থেকে বর্ণিত, রাসুল (সা.) বলেন, ‘যদি তোমাদের কেউ এমন স্বপ্ন দেখে, যা সে পছন্দ করে না, তাহলে তিনবার বাম দিকে থুথু দেবে, তিনবার শয়তান থেকে আল্লাহর কাছে আশ্রয় প্রার্থনা করবে এবং যে পাশে শুয়েছিল, তা পরিবর্তন করবে।’ (মুসলিম, হাদিস : ৬০৪১)

অন্য হাদিসে বলা হয়েছে, আবু হুরায়রা (রা.) থেকে বর্ণিত, নবী (সা.) বলেন, ‘...যদি তোমাদের কেউ এমন স্বপ্ন দেখে, যা সে পছন্দ করে না, তাহলে উঠে নামাজ পড়বে এবং মানুষের কাছে তা বর্ণনা করবে না।’ (মুসলিম, হাদিস : ৬০৪২)

স্বপ্ন ইসলামী শরিয়তের কোনো দলিল নয়। তবে সত্যবাদী মুমিনের ভালো স্বপ্ন সুসংবাদ হয়ে থাকে। ভীতিকর স্বপ্ন দেখলে ভয় না পেয়ে মহান আল্লাহর আশ্রয় প্রার্থনা করতে হয়। স্বপ্নের মনগড়া ব্যাখ্যা বানিয়ে বিচলিত হওয়ার কোনো কারণ নেই। তবে পবিত্র অবস্থায় দোয়া-কালাম পড়ে ঘুমালে এবং অসময়ের ঘুম পরিহার করলে দুঃস্বপ্ন থেকে বেঁচে থাকা যায়। 

 লেখক : সহযোগী অধ্যাপক, আরবি বিভাগ, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়

ইসলাম বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
  • আবার চালু হচ্ছে স্পট রেজিস্ট্রেশনের মাধ্যমে টিকাদান

  • নিরাপদ নগর সূচকে ঢাকা এগোলো আরো দুই ধাপ

  • ৫৯ আইপি টিভি বন্ধ করলো বিটিআরসি 

  • স্কুল-কলেজে বাড়ছে সাপ্তাহিক ছুটি

  • ৯ পৌরসভাসহ ১৬০ ইউপিতে ভোটগ্রহণ আজ

  • ঘরে বসেই মিলবে রাজউকের সেবা 

  • ১ অক্টোবর থেকে বিএসএমএমইউর বৈকালিক সেবা চালু

  • দুদকের ২ ডজনের বেশি কর্মকর্তার তথ্য সংগ্রহ শুরু

  • ৩০ টাকা কেজিতে পেঁয়াজ বিক্রি করবে টিসিবি

  • বাংলাদেশের সুগন্ধি চাল বিশ্বময় সুবাস ছড়াচ্ছে

  • বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় এমপি হচ্ছেন ডা. প্রাণ গোপাল

  • ক্যানসার চিকিৎসায় বাংলাদেশের আরও এক ধাপ উন্নতি

  • ব্রহ্মপুত্র ঘিরে পরিবর্তনের ঢেউ

  • দুর্নীতিতে জিরো টলারেন্স চান প্রধানমন্ত্রী

  • ৫ অক্টোবরই খুলছে ঢাবির হল
    প্রবেশে লাগবে বৈধ পরিচয়পত্র-সনদ

  • ডায়াবেটিস নিয়ে ৭ ভুল ধারণা

  • জেল পালানো শেষ দুই ফিলিস্তিনীও আটক

  • সাপ্তাহিক লেনদেনের ২৩ শতাংশ ১০ কোম্পানির শেয়ারে

  • যে সবজির এক গ্লাস জুসেই মুক্তি মিলবে হার্টের সমস্যার

  • মরুর বুকে শুরু স্থগিত আইপিএলের বাকি অংশ

  • ইসলামী অর্থনীতির লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য

  • মালদ্বীপে বসে মিটিং করছেন ঢাকার নায়িকা

  • মোটরসাইকেলের আদলে কাঠের সাইকেল বানিয়ে তাক লাগালেন হবিগঞ্জের লক্ষণ

  • লাল শাপলায় রঙিন রাবানের বিল

  • ওয়াশিংটনে বাংলাদেশ দূতাবাসে ই-পাসপোর্ট সার্ভিস উদ্বোধন

  • ভ্রমণ পিপাসুদের টানছে রৌমারি বিল

  • ৫ অক্টোবরই খুলছে ঢাবির হল

  • গিনেস বুকে আবারো নাম লেখালেন ব্রাহ্মণবাড়িয়ার পার্থ

  • চাহিদার তুলনায় অনেক বেশি আলু উৎপাদন হয়েছে: বাণিজ্যমন্ত্রী

  • সংবিধানের আলোকে আগামী দিনে নির্বাচন হবে: কৃষিমন্ত্রী

  • ডিসেম্বরের মধ্যে আসবে ২০ কোটি ডোজ টিকা

  • হচ্ছে উড়াল সড়ক, যোগাযোগের নতুন দিগন্তে হাওর

  • আধুনিকায়ন হচ্ছে দেশের ৫২ রেলস্টেশন

  • পোশাক রপ্তানিতে ভিয়েতনামকে ছাড়াল বাংলাদেশ

  • ‘২০২৪ সালের মধ্যে দেশে হুন্দাইয়ের গাড়ি তৈরি হবে’

  • বিআরটি’র সার্বিক অগ্রগতি ৬৩.২৭ শতাংশ

  • সৌরবিদ্যুৎ উৎপাদনের কেন্দ্রস্থল হতে যাচ্ছে উত্তরাঞ্চল

  • ২৪ কোটি টিকা লাইন-আপে রয়েছে: ড. মোমেন

  • চাঁপাইনবাবগঞ্জে নতুন জাতের আম ‘ইলামতি’

  • জন্মসনদ দিয়েও টিকার নিবন্ধন করা যাবে: শিক্ষামন্ত্রী

  • রেলের চাকা ঘুরবে সারা দেশে

  • রূপপুরে চলতি মাসেই নিউক্লিয়ার চুল্লি স্থাপন

  • ‘১৬ কোটি মানুষের বাসস্থান-খাদ্য নিশ্চিত করেছে সরকার’

  • স্কুলের বেতন নিয়ে অভিভাবকদের চাপ নয়: শিক্ষামন্ত্রী

  • মুন্সিগঞ্জের বাঁশ-বেতের পণ্য যাচ্ছে বিদেশে

  • নবম-দশম শ্রেণিতে থাকছে না কোনো বিভাগ: শিক্ষামন্ত্রী

  • এনআইডি না থাকলেও যেভাবে পাবেন করোনার টিকা

  • মুগ্ধতা ছড়াচ্ছে কলাবাগান ঝরনা

  • আড়াই ফুটের গলি এখন ৬০ ফুট প্রশস্ত সড়ক

  • ৫ বিদ্যুৎকেন্দ্র উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী

  • রপ্তানির নতুন দিগন্ত ইউরেশিয়া

  • দেশে মোবাইল ইন্টারনেটের গতি বেড়েছে ১৫ শতাংশ

  • জ্বালানি তেল খালাসে নতুন যুগে বাংলাদেশ

  • নিকলী হাওড়ে পর্যটক নৌযানে লাইফ জ্যাকেট বাধ্যতামূলক

  • দ্বীপ রাঙ্গাবালীতে আলোর ঝলকানি

  • টিউলিপ রেজওয়ানা সিদ্দিক, শুভ জন্মদিন

  • পিইসি-জেএসসি পরীক্ষা থাকছে না

  • মহেশখালীতে ৪শ’ কোটি টাকার বিদ্যুৎ হাব

  • ৩ হাজার কনস্টেবল নিয়োগ: আবেদন করবেন যেভাবে

  • মাসে কোটির বেশি টিকা পাওয়ার ব্যবস্থা হয়েছে: প্রধানমন্ত্রী