মঙ্গলবার   ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০

ব্রেকিং:
৫ মাস পর খুললো বিনোদনকেন্দ্র, দর্শনার্থীর উপস্থিতি কম ইউপি তথ্যসেবা কেন্দ্রের মাধ্যমে এনআইডি সেবা দেওয়ার উদ্যোগ বরিশালে পারিবারিক কৃষিতে সফলতা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোর বার্ষিক ছুটি ৭৫ দিন আগামী মার্চে ঢাকা উত্তর সিটির ভোটের ইঙ্গিত সিইসির জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় পরিদর্শনে প্রধানমন্ত্রী আস্থা ভোটে টিকে গেলেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে রাষ্ট্রপতির সঙ্গে নেপালের বিদায়ী রাষ্ট্রদূতের সাক্ষাৎ খালেদার অনুপস্থিতিতেই কারাগারে বিচার চলবে রব ও মান্নার বিয়ে যুক্তফ্রন্টে, পরকীয়া ঐক্যফ্রন্টে: মাহী এটা জোট নয়, ঘোট : তথ্যমন্ত্রী যুক্তরাষ্ট্রে রাজনৈতিক আশ্রয় পেলেন সিনহা আবারও সরকার গঠনে নৌকায় ভোট দেয়ার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর পদ্মা সেতু প্রকল্পের নামফলক উন্মোচন করলেন প্রধানমন্ত্রী
১০৩

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় বাঁশ-বেত শিল্পের নীরব বিপ্লব

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ৮ সেপ্টেম্বর ২০২০  

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়া উপজেলায় বাঁশ ও বেত শিল্পের নীরব বিপ্লব ঘটেছে। পৌর শহরের তারাগন, উপজেলার মোগড়া ইউপির মোগড়া, দরুইন গ্রামের কমপক্ষে অর্ধ শতাধিক পরিবার বাঁশ বেতের চাই, ধান চাল রাখার গোলা, চালন, কুলা, চাটাই, জালি, টুকরি, পাখা, মাটি কাটার উড়াসহ গৃহস্থালির বিভিন্ন প্রকার সামগ্রী তৈরি করছেন।  ওইসব পণ্য তৈরি ও বিক্রি করে চলছে তাদের জীবন-জীবিকা।

দীর্ঘ প্রায় ৩০ বছর ধরে নানা প্রতিকূলতা উপেক্ষা করে তারা এ কাজ করছেন। নারী-পুরুষ সম্মিলিতভাবে এ কাজ করায় প্রতিটি পরিবারে সচ্ছলতা আসায় সুখে শান্তিতে দিনাতিপাত করছেন।

সরেজমিনে তারাগন ও দরুইন গ্রামে গিয়ে দেখা যায়, ওইসব পরিবারগুলোর সবাই বাড়ির আঙ্গিনায় বসে ঝুড়ি, বাঁশের চাই, ধান চাল রাখার গোলা, চালন, কুলা, জালি, পাখা, মাটি কাটার উড়াসহ গৃহস্থালির বিভিন্ন প্রকারের জিনিসপত্র তৈরি নিয়ে ব্যস্ত সময় পার করছেন। পুরুষের পাশাপাশি নারীরাও বাঁশের তৈরি পণ্যের কাজে সহযোগিতা করছেন। কেউ বাঁশ টুকরো করছে কেউ বা বেত তুলছেন কেউ বেত দিয়ে ঝুড়িসহ নানা প্রকার পণ্য তৈরির কাজ করছেন। তৈরি করা ওইসব জিনিসগুলো হাট বাজারে বিক্রি করছেন।

এক সময় যেখানে অনেক কষ্টে দিন কাটাতো বর্তমানে এ কাজে তাদের মুখে হাসি ফুটে এসেছে। তাদের পরিবারে নেই কোনো কষ্ট। দিন বদলের পাশাপাশি ছেলে মেয়েদেরকে এখন তারা পড়াশোনা শেখাচ্ছেন।

মো. কালু মিয়া বলেন, আজ থেকে ৩০ বছর আগে স্ত্রী, ছেলে মেয়ে নিয়ে জীবন নির্বাহ করা খুবই কষ্টকর ছিল। জীবন বাঁচাতে কোনো উপায় না পেয়ে তার রিকশা ও চালাতে  হয়েছে। রিকশা চালানো কষ্টকর হওয়ায় একপর্যায়ে চালানো বন্ধ করে দেন। কোনো উপায় না পেয়ে বাপের কাছ থেকে শেখানো পেশা বাঁশ বেত দিয়ে বিভিন্ন প্রকার পণ্য বানাতে শুরু করেন তিনি। স্থানীয় পর্যায়ে ভালো চাহিদা থাকা ও ভালো আয় হওয়ায় এতে তার উৎসাহ বেড়ে যায়। এরপর বাঁশ-বেত দিয়ে ঝুঁড়ি, ধান চাল রাখার গোলা, চালন, কুলাসহ বিভিন্ন পণ্য সামগ্রী তৈরি ও বিক্রি করছেন।

তিনি বলেন, প্রতিদিন ৮-১০ টা ঝুঁড়ি তৈরি করা যায়। গ্রামে ও স্থানীয় বাজারে বিক্রি করে প্রতি মাসে খরচ বাদে ১৪-১৫ হাজার টাকা তার আয় হয়। তার সংসারে স্ত্রীসহ ২ ছেলে ৩ মেয়ে রয়েছে। মেয়েদেরকে বিয়ে দেয়া হয়েছে। এক ছেলে স্কুলে পড়ছে।

তিনি আরো বলেন, পরিবারের লোকজন কাজের ফাঁকে তার এ কাজে সহায়তা করছেন। আগের মতো এখন বাঁশ পাওয়া যায় না। তাছাড়া বাঁশের দাম অনেক বৃদ্ধি পাওয়ায় আয় কমে গেছে।

মো. শফিক মিয়া  বলেন, ছোট বেলা থেকেই  নানার কাছ থেকে শিখে তিনি ঝুড়ি,  চাই, ধান চাল রাখার গোলা,  কুলা, জালি, তৈরি করে হাট বাজারে বিক্রি করছেন। লেখা পড়া না থাকায় তিনি দীর্ঘ ১৮ বছর ধরে এ পেশায় রয়েছেন।

তিনি আরো বলেন, দিনে দিনে বাঁশের দাম অনেক বৃদ্ধি পয়েছে। যেখানে একটা বাঁশ ২০০ টাকায় কেনা যেতো এখন তা ৩০০ টাকার উপর লাগছে। একটি বাঁশ দিয়ে ৬-৭ টি ঝুঁড়ি তৈরি করা যায়। প্রতিদিন ৭-৮ ঝুঁড়ি তৈরি করা যায়। একটি ঝুঁড়ি ১৫০ থেকে ২০০ টাকা বিক্রি হয়। উড়া বিক্রি হচ্ছে ১০০ টাকায়। স্থানীয় পর্যায়ে বাঁশ বেতের তৈরি সামগ্রীর প্রচুর চাহিদা আছে। খরচ বাদে প্রতি মাসে ১২-১৪ হাজার টাকা উপার্জন হয়।

তার সংসারে স্ত্রীসহ ২ ছেলে ৬ মেয়ে রয়েছে। এ আয় দিয়ে এরমধ্যে ৩ মেয়েকে বিয়ে দিয়েছেন। ২ মেয়ে ১ ছেলে স্কুলে পড়াশোনা করছে। যে টাকা আয় হচ্ছে তা দিয়ে তিনি খুশি।

তিনি বলেন, বাঁশ ক্রয় ও তৈরিকৃত পণ্য সামগ্রী বিক্রি তাকেই করতে হয়। পাশাপাশি পণ্য তৈরির কাজে পরিবারের লোকজন সার্বিকভাবে সহায়তা করছে। এই পেশায় অনেক টাকার দরকার। তবে সরকার এগিয়ে এলে এ শিল্পকে অর্থনৈতিক উন্নয়নে শক্তিশালী করা সম্ভব।

দিপালী রানী বলেন, তার সংসারে ৩ ছেলে ১ মেয়েসহ ৬ জন সদস্য রয়েছে। পড়াশোনা না থাকায় তিনি অন্য কোনো পেশায় যেতে পারেন নি। স্বামীর সঙ্গে থেকে তিনি বাঁশ বেতের কাজ শিখেছেন। বর্তমানে দুজনে চালন, কুলা, জালি, পাখা, ঝুঁড়ি তৈরি করে বিক্রিতে চলছে তাদের সংসার। সন্তানদেরকে পড়াশোনা শেখানোর চেষ্টা করছেন।  বাঁশ বেতই এখন তাদের সংসার চালিয়ে নিচ্ছে। গ্রামে-গঞ্জে ওইসব জিনিসের প্রচুর চাহিদা রয়েছে। প্রতি মাসে কমপক্ষে ১২-১৩ হাজার টাকা আয় হয়।

এ শিল্পের সঙ্গে জড়িতরা জানান, বর্তমানে তাদের পুঁজির কিছু সমস্যা হচ্ছে। বাঁশ বেত শিল্পকে টিকিয়ে রাখতে এজন্য তারা সরকারি সহায়তা কামনা করছেন।

আখাউড়া উপজেলার মোগড়া ইউপি চেয়ারম্যান মো. মনির হোসেন বলেন, বাঁশ বেতের শিল্পের বড় একটি অংশ মোগড়া এলাকায় রয়েছে। যতটুকু সম্ভব তাদেরকে সহায়তা করা হচ্ছে। তবে সরকারিভাবে আর্থিক সহায়তা পেলে এ এলাকায় বাঁশ শিল্পের ব্যাপক প্রসার ঘটবে।
 

দেশের খবর বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
  • নোয়াখালী জেলা আ. লীগের প্রস্তাবিত কমিটিতে বিএনপি-জামায়াত!

  • কৃষক উদ্যোক্তাদের জন্য শিগগিরই চালু হচ্ছে বিপণন ডাক সেবা

  • পুরোদমে চলছে বিমানবন্দরের তৃতীয় টার্মিনালের নির্মাণকাজ

  • তরমুজের বাম্পার ফলনে এবার ২০ গুণ লাভের আশা

  • স্বাভাবিক ধারায় ফিরেছে দেশের অর্থনীতি

  • বৃক্ষরোপণ সামাজিক আন্দোলনে পরিণত হয়েছে: তথ্যমন্ত্রী

  • কৃষি জমিতে শিল্পকারখানা নয় : প্রধানমন্ত্রী

  • ভাসানচর যেন আধুনিক শহর, মিলবে জীবিকার সুবিধাও

  • আসছে ৩৩৭ কোটি টাকার প্রকল্প

  • ফের চালু হবে বন্ধ সব কোভিড হাসপাতাল

  • ওসমানী বিমানবন্দর হবে বিশ্বমানের

  • প্রবাসী বাংলাদেশিদের জন্য এক বন্ডে চার সুবিধা

  • প্রধানমন্ত্রীর দূরদর্শিতায় বিদ্যুৎ খাতে বিপ্লব

  • জন্মদিনে শেখ হাসিনাকে মমতার উপহার

  • বুদ্ধিজীবী কবরস্থানে শায়িত হলেন মাহবুবে আলম

  • শ্রীলংকা যাচ্ছে না টাইগাররা

  • এইচএসসি পরীক্ষা: যে প্রস্তাব দিল আন্তঃশিক্ষা বোর্ড

  • ডিসেম্বরে বৈঠকে বসছেন শেখ হাসিনা-মোদী

  • আমার কাছ থেকে দেশের মানুষের যেন উপকারই হয়: প্রধানমন্ত্রী

  • কে হচ্ছেন অ্যাটর্নি জেনারেল

  • প্রেরণার দীপ্যমান শিখা শেখ হাসিনা: কাদের

  • ডিসেম্বর পর্যন্ত কিস্তি না দিলেও ঋণখেলাপি করা যাবে না

  • ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মানবতারও অনন্য উদাহরণ’

  • শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলা নিয়ে পরামর্শ চাইলে জানাবো:মন্ত্রিপরিষদ সচিব

  • ‘স্বাধীনতার নেতৃত্বে বঙ্গবন্ধু, শেখ হাসিনায় অর্থনৈতিক মুক্তি’

  • ‘সবার যাওয়ার ব্যাপারে আশ্বাস দিয়েছে সৌদি’

  • পিতার মতো শেখ হাসিনা দূরদৃষ্টিসম্পন্ন: রাষ্ট্রপতি

  • করোনা মোকাবেলায় মার্কেল জেসিন্ডাকে ছাড়িয়ে বঙ্গকন্যা

  • শেখ হাসিনা: একজন সফল রাষ্ট্রনায়ক

  • শেখ হাসিনা, সারা বিশ্বের বিস্ময়

  • ৫৪ হাজার রোহিঙ্গাকে বাংলাদেশে পাঠাবে না সৌদি: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

  • ভাসানচরে আধুনিক জীবনের সব সুবিধা পাবেন রোহিঙ্গারা

  • কেনার আগে মোবাইলের বৈধতা যাচাইয়ের পরামর্শ বিটিআরসির

  • পিরোজপুরে তৈরি হচ্ছে বিশ্বমানের ক্রিকেট ব্যাট

  • তিস্তায় পাল্টে যাবে জীবন

  • প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে পায়রা নদীর ওপর নির্মিত হবে সেতু

  • রোহিঙ্গাদের কারণে নানামুখী সমস্যায় পড়েছে বাংলাদেশ

  • গোয়াইনঘাটে ৩০ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মাণ হচ্ছে ৮টি আশ্রয় কেন্দ্র

  • রোহিঙ্গাদের ভাসানচরে স্থানান্তর নিয়ে প্রোপাগান্ডা করছে একটি মহল

  • মোংলাকে আধুনিক বন্দরে রূপ দিতে বাস্তবায়ন হবে ১০ প্রকল্প

  • এলইডির আলোয় ঝলমলে ঢাকা

  • পেঁয়াজ উৎপাদনে স্বয়ংসম্পূর্ণ হওয়ার পথে বাংলাদেশ

  • উদ্বোধনের অপেক্ষায় দেশের সর্ববৃহৎ সৌরবিদ্যুৎ প্রকল্প

  • সেফটিপিনের চেইন তৈরি করে গিনেস বুকে স্থান পেলো পার্থ দেব

  • ন্যাশনাল সার্ভিস কর্মসূচিতে প্রশিক্ষণ নিয়েছেন ২২ লাখের বেশি মানুষ

  • নতুন কারা মহাপরিদর্শক হলেন ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোমিনুর রহমান

  • দেশের সব মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে হবে ডিজিটাল একাডেমি

  • পেঁয়াজ আমদানিতে শুল্ক প্রত্যাহার, প্রজ্ঞাপন জারি

  • পায়রা নদীর ওপর নির্মিত হবে ‘শেখ হাসিনা পায়রা ব্রিজ’

  • বানের পানির মতো আসছে রেমিট্যান্স, রিজার্ভেও রেকর্ড

  • ইস্পাত শিল্পে কর্মসংস্থান হলো তিন লাখ মানুষের

  • নাটোরে ২২ লাখ টাকার কৃষি প্রণোদনা পাচ্ছেন ৩,০০০ কৃষক

  • গৃহহীনদের খুঁজে খুঁজে ঘর করে দেবে সরকার : জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী

  • আমন ধানের ক্ষেতে সবুজের হাসি

  • ইকামার মেয়াদ বাড়িয়েছে সৌদি সরকার

  • ১ অক্টোবর থেকে সৌদিতে ফ্লাইটের অনুমতি পেল বিমান

  • ‘পরিকল্পিত উপায়ে দেশব্যাপী রাস্তা নির্মাণে মাস্টারপ্ল্যান হবে’

  • ‘বিশ্বের ৮০ দেশে সফটওয়্যার রফতানি করছে বাংলাদেশ’

  • করোনা মোকাবিলায় দিনরাত কাজ করে যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী

  • আমন ধানে স্বপ্ন দেখছেন কৃষক