মঙ্গলবার   ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২০

ব্রেকিং:
সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোর বার্ষিক ছুটি ৭৫ দিন আগামী মার্চে ঢাকা উত্তর সিটির ভোটের ইঙ্গিত সিইসির জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় পরিদর্শনে প্রধানমন্ত্রী আস্থা ভোটে টিকে গেলেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে রাষ্ট্রপতির সঙ্গে নেপালের বিদায়ী রাষ্ট্রদূতের সাক্ষাৎ খালেদার অনুপস্থিতিতেই কারাগারে বিচার চলবে রব ও মান্নার বিয়ে যুক্তফ্রন্টে, পরকীয়া ঐক্যফ্রন্টে: মাহী এটা জোট নয়, ঘোট : তথ্যমন্ত্রী যুক্তরাষ্ট্রে রাজনৈতিক আশ্রয় পেলেন সিনহা আবারও সরকার গঠনে নৌকায় ভোট দেয়ার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর পদ্মা সেতু প্রকল্পের নামফলক উন্মোচন করলেন প্রধানমন্ত্রী
৯৯৮

বীরশ্রেষ্ঠ মতিউর রহমানের ৪৮তম শাহদাৎ বার্ষিকী আজ

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ২০ আগস্ট ২০১৯  

বীরশ্রেষ্ঠ মতিউর রহমানের ৪৮তম শাহদাৎ বার্ষিকী আজ। ১৯৭১ সালের এই দিনে উড়োজাহাজ বিধ্বস্ত হয়ে তিনি শাহদাৎ বরণ করেন।

বাংলাদেশের শ্রেষ্ঠ সন্তানদের একজন ফ্লাইট লেফটেন্যান্ট মতিউর রহমান। মহান মুক্তিযুদ্ধে চরম সাহসিকতা আর অসামান্য বীরত্বের স্বীকৃতিস্বরূপ যে সাতজন বীরকে বাংলাদেশের সর্বোচ্চ সামরিক সম্মান “বীরশ্রেষ্ঠ” উপাধিতে ভূষিত করা হয় তাদের অন্যতম তিনি।

জন্ম এবং শিক্ষা জীবন:
মতিউর রহমান ১৯৪১ সালের ২৯ অক্টোবর পুরান ঢাকার ১০৯, আগা সাদেক রোডের ‘মোবারক লজ’-এ জন্মগ্রহণ করেন। তার পৈতৃক নিবাস নরসিংদী জেলার রায়পুরা থানার রামনগর গ্রামে। যা এখন মতিনগর নামে পরিচিত।

৯ ভাই ও ২ বোনের মধ্যে তিনি ছিলেন ৬ষ্ঠ। তাঁর বাবা মৌলভী আবদুস সামাদ, মা সৈয়দা মোবারকুন্নেসা খাতুন। ঢাকা কলেজিয়েট স্কুল থেকে ষষ্ঠ শ্রেণী পাস করার পর সারগোদায় পাকিস্তান বিমান বাহিনী পাবলিক স্কুলে ভর্তি হন। ডিস্টিংকশনসহ মেট্রিক পরীক্ষায় সাফল্যের সাথে প্রথম বিভাগে উত্তীর্ণ হন।

কর্মজীবন:
মতিউর রহমান ১৯৬১ সালে পাকিস্তান বিমান বাহিনীতে যোগ দেন। ১৯৬৩ সালে রিসালপুর পি.এ.এফ কলেজ থেকে পাইলট অফিসার হিসেবে কমিশন লাভ করেন। কমিশন প্রাপ্ত হবার পর তিনি করাচির মৌরিপুর (বর্তমান মাসরুর) এয়ার বেজ এর ২ নম্বর স্কোয়ার্ডন এ জেনারেল ডিউটি পাইলট হিসাবে নিযুক্ত হন। এখানে তিনি টি-৩৩ জেট বিমানের উপর কনভার্সন কোর্স সম্পন্ন করেন এবং ৭৫.৬৬% নম্বর পেয়ে উর্ত্তীর্ণ হন।

এরপর তিনি এফ-৮৬ স্যাবর জেট এর উপরেও কনভার্সন কোর্স করেন এবং ৮১% নম্বর পেয়ে উর্ত্তীর্ণ হন। বৈমানিক কনভার্সন কোর্স এ ভালো ফলাফলের ভিত্তিতে তাকে পেশোয়ারে (১৯ নং স্কোয়ার্ডন) এ পোস্টিং দেয়া হয়।

১৯৬৫ তে ভারত-পাকিস্তান যুদ্ধের সময় ফ্লাইং অফিসার অবস্থায় কর্মরত ছিলেন। এরপর মিগ কনভার্সন কোর্সের জন্য পুনরায় সারগোদায় যান। সেখানে ১৯৬৭ সালের ২১ জুলাই তারিখে একটি মিগ-১৯ বিমান চালানোর সময় আকাশে সেটা হঠাৎ বিকল হয়ে গেলে দক্ষতার সাথে প্যারাসুট যোগে মাটিতে অবতরণ করেন।

১৯৬৭ সালে তিনি ফ্লাইট লেফটেন্যান্ট পদে পদোন্নতি লাভ করেন। ইরানের রানী ফারাহ দিবার সম্মানে পেশোয়ারে অনুষ্ঠিত বিমান মহড়ায় তিনি ছিলেন একমাত্র বাঙালি পাইলট। রিসালপুরে দু'বছর ফ্লাইং ইন্সট্রাক্টর হিসাবে কাজ করার পর ১৯৭০ এ বদলি হয়ে আসেন জেট ফ্লাইং ইন্সট্রাক্টর হয়ে।

মুক্তিযুদ্ধে ভূমিকা:
১৯৭১ সালের শুরুতে জানুয়ারির শেষ সপ্তাহে মতিউর রহমান সপরিবারে ঢাকা্য় দুই মাসের ছুটিতে আসেন। ২৫ মার্চের কালরাতে তিনি ছিলেন নরসিংদীর রায়পুরার রামনগর গ্রামে৷ যুদ্ধ শুরু হয়ে গেলে, পাকিস্তান বিমান বাহিনীর একজন ফ্লাইট লেফটেন্যান্ট হয়েও অসীম ঝুঁকি ও সাহসিকতার সাথে ভৈরবে একটি ট্রেনিং ক্যাম্প খুললেন৷ যুদ্ধ করতে আসা বাঙালি যুবকদের প্রশিক্ষণ দিতে থাকলেন ৷ তিনি দৌলতকান্দিতে জনসভা করেন এবং বিরাট মিছিল নিয়ে ভৈরব বাজারে যান।

মুক্তিযোদ্ধাদের বিভিন্ন স্থান থেকে সংগ্রহ করা অস্ত্র দিয়ে গড়ে তোলেন প্রতিরোধ বাহিনী। পাক-সৈন্যরা ভৈরব আক্রমণ করলে বেঙ্গল রেজিমেন্টে ই,পি,আর-এর সঙ্গে থেকে প্রতিরোধ বুহ্য তৈরি করেন। ১৯৭১ সালের ১৪ এপ্রিল পাকিস্তানি বিমান বাহিনী এফ-৮৬ স্যাবর জেট থেকে তাঁদের ঘাঁটির উপর বোমাবর্ষণ করে ৷ মতিউর রহমান পূর্বেই এটি আশঙ্কা করেছিলেন৷ তাই ঘাঁটি পরিবর্তন করেন এবং ক্ষয়ক্ষতি থেকে রক্ষা পান তিনি ও তাঁর বাহিনী৷

এরপর ১৯৭১ সালের ২৩ এপ্রিল ঢাকা আসেনও ৯ মে সপরিবারে করাচি ফিরে যান ৷ কর্মস্থলে ফিরে গিয়ে জঙ্গি বিমান দখল এবং সেটা নিয়ে মুক্তিযুদ্ধে যোগদানের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেন। তাকে তখন বিমানের সেফটি অফিসারের দ্বায়িত্ব দেয়া হয়েছিলো। তিনি বিমান দখলের জন্য ২১ বছর বয়সী রাশেদ মিনহা্জ নামে একজন শিক্ষানবীশ পাইলটের উড্ডয়নের দিন (২০ই আগস্ট,১৯৭১) টার্গেট করেন। তাঁর পরিকল্পনা ছিলো মিনহাজ কন্ট্রোল টাওয়ারের অনুমতি পেয়ে গেলে তিনি তাঁর কাছ থেকে বিমানটির নিয়ন্ত্রন নেবেন। পরিকল্পনা অনুসারে অফিসে এসে শিডিউল টাইমে গাড়ি নিয়ে চলে যান রানওয়ের পূর্ব পাশে৷ সামনে দুই সিটের প্রশিক্ষণ বিমান টি-৩৩ ।

পাইলট রাশেদ মিনহাজ বিমানটি নিয়ে দ্বিতীয় বারের মত একক উড্ডয়নের প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন। কন্ট্রোল টাওয়ার ক্লিয়ারেন্সের পর মিনহাজ বিমানটি নিয়ে রানওয়েতে উড্ডয়নের প্রস্তুতি নিলে মতিউর রহমান সেফটি অফিসারের ক্ষমতাবলে বিমানটি থামাতে বলেন। মিনহাজ বিমানটি থামান এবং ক্যানোপি ( জঙ্গি বিমানের বৈমানিকদের বসার স্থানের উপরের স্বচ্ছ আবরন) খুলে বিমান থামানোর কারণ জানতে চান।

এসময় মতিউর রহমান বিমানের ককপিটে চড়ে বসেন এবং রাশেদ মিনহাজকে ক্লোরোফর্ম দিয়ে অচেতন করে ফেলেন। জ্ঞান হারানোর আগে রাশেদ মিনহাজ কন্ট্রোল রুমে জানাতে সক্ষম হন তিনিসহ বিমানটি হাইজ্যাক হয়েছে। বিমানটি ছোট পাহাড়ের আড়ালে থাকায় কেউ দেখতে না পেলেও কন্ট্রোল টাওয়ার মিনহাজের বার্তা শুনতে পায় এবং রাডারে বিমানের অবস্থান বুঝে অপর চারটি জঙ্গি বিমান মতিউরের বিমানকে ধাওয়া করে। মৃত্যু আসন্ন জেনেও মতিউর রহমান বিমানটি নির্ধারিত সীমার নিচে চালিয়ে রাডার কে ফাঁকি দিয়ে বাংলাদেশের অর্থাৎ তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তানের আসার চেষ্টা করেন।

মৃত্যু:
প্রায় ভারতের সীমান্তে পৌঁছে যাওয়া অবস্থায় রাশেদ মিনহাজ জ্ঞান ফিরে পান এবং বিমানটির নিয়ন্ত্রন নিতে চেষ্টা করেন। রাশেদ চাইছিলেন, মতিউর রহমানের বিমান ছিনিয়ে নেয়ার পরিকল্পনা সফল হওয়ার চাইতে বিমানটি বিধ্বস্ত করা ভালো। এ সময় রাশেদের সাথে মতিউরের ধ্বস্তাধস্তি চলতে থাকে এবং এক পর্যায়ে রাশেদ ইজেক্ট সুইচ চাপলে মতিউর বিমান থেকে ছিটকে পড়েন। বিমানটি কম উচ্চতায় উড্ডয়ন করার ফলে একসময় রাশেদ সহ বিমানটি ভারতীয় সীমান্ত থেকে মাত্র ৩৫ মাইল দূরে থাট্টা এলাকায় বিধ্বস্ত হয়। মতিউর রহমানের সাথে প্যারাসুট না থাকাতে তিনি নিহত হন। তাঁর মৃতদেহ ঘটনাস্থল হতে প্রায় আধ মাইল দূরে পাওয়া যায়।

২০ই আগস্ট,১৯৭১ এ মতিউর রহমান এবং রাশেদ মিনহাজ স্ব স্ব দেশের জন্য মৃত্যুবরণ করেন। বাংলাদেশ সরকার মতিউর রহমান কে তাঁর সাহসী ভূমিকার জন্য বীরশ্রেষ্ঠ উপাধিতে ভূষিত করে এবং রাশেদ মিনহাজ কে পাকিস্তান সরকার সম্মানসূচক খেতাব দান করে। প্রসঙ্গত: একই ঘটনায় দুই বিপরীত ভূমিকার জন্য দুইজনকে তাদের দেশের সর্বোচ্চ সম্মানসূচক খেতাব প্রদানের এমন ঘটনা বিরল।

সমাধি স্থানান্তর:
পাকিস্তান সরকার মতিউর রহমানের মৃতদেহ করাচির মাসরুর বেসের চতুর্থ শ্রেণির কবরস্থানে সমাহিত করে। পরবর্তীতে বাংলাদেশ স্বাধীন হয়ার পর, ২০০৬ সালের ২৪ জুন মতিউর রহমানের দেহাবশেষ পাকিস্তান হতে বাংলাদেশে ফিরিয়ে আনা হয়। তাঁকে পূর্ণ মর্যাদায় ২৫শে জুন শহীদ বুদ্ধিজীবী গোরস্থানে পুনরায় দাফন করা হয়।

সম্মাননা:
বাংলাদেশ বিমান বাহিনীর যশোর বিমান ঘাটি তারঁ নামে নামকরণ করা হয়েছে। বিমান বাহিনী তাঁর নামে একটি ট্রফি চালু করেছে। বিমান প্রশিক্ষনে সেরা কৃতিত্ব প্রদর্শনকারীকে এটি প্রদান করা হয়।

জাতীয় বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
  • মেগা সড়কের প্রথম ধাপের ৫৫ ভাগ কাজ শেষ

  • বিশ্বের ১৯৫ দেশে উদযাপন হবে মুজিববর্ষ

  • দারিদ্র্য জয় করেছেন তিস্তাপাড়ের মানুষ

  • গাজীপুরে বর্জ্য থেকে উৎপাদন হবে জৈব সার

  • উপবৃত্তির আওতায় ১০ লাখ শিক্ষার্থী পাবে ২৯২ কোটি টাকা

  • বাংলাদেশের মানুষের মাথাপিছু আয় দাঁড়াবে ১২,৫০০ ডলারে

  • ডা: শাহাদাতই চসিকে বিএনপির মেয়র প্রার্থী

  • ঢাকার দুই সিটি করপোরেশন নির্বাচন ছিল ‘শান্তিপূর্ণ’

  • শোকাবহ পিলখানা ট্র্যাজেডি দিবস আজ

  • মুশফিকের ডাবল সেঞ্চুরিতে বাংলাদেশের রানের পাহাড়

  • তৃতীয় দ্বি-শতকে দেশ সেরা মুশফিক

  • ‘বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিশ্ববিদ্যালয়’ এর চূড়ান্ত অনুমোদন

  • চলতি বছরের জুলাইয়ে ঢাকা-সিলেট ছয় লেনের কাজ শুরু

  • মেগা সড়কের প্রথম ধাপের ৫৫ ভাগ কাজ শেষ

  • মাকে বাঁচাতে অর্ধেক লিভার দিলো ছেলে

  • বাংলাদেশি ৬ বছরের এই শিশুর সঙ্গে ‘অবিচার’ করছে অস্ট্রেলিয়া!

  • কৃষিতে বিশ্বের নতুন আতঙ্ক পঙ্গপাল, ঝুঁকিতে বাংলাদেশও

  • প্রথম নারী প্রধানমন্ত্রী পাচ্ছে মালয়েশিয়া!

  • ৭৬ বছর পর সন্ধান মিলল বিধ্বস্ত হওয়া ৩ বিমানের

  • করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ৬ বাংলাদেশির অবস্থা অপরিবর্তিত

  • নরসিংদীর পাপিয়ার ১৫ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর

  • মুজিব বর্ষে বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কার শিল্পীদের চিত্র প্রদর্শনী

  • সালমান শাহ আত্মহত্যা করেছে: পিবিআই

  • এবার পদত্যাগ করলেন মাহাথির

  • যে ৫ কারণে আত্মহত্যা করে সালমান শাহ 

  • দেশের প্রথম পাতাল মেট্রো রুটের নির্মাণ ডিসেম্বরে

  • রাজবাড়ীতে অসহায়দের মাঝে চেক বিতরণ

  • ২০২২ সাল থেকে প্রাথমিকে চালু হচ্ছে প্রাক-প্রাথমিক শিক্ষা

  • চলতি বছরেই হচ্ছে ন্যাশনাল প্রোডাক্টিভিটি মাস্টারপ্ল্যান

  • সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ে ডিজিটাল সেবা চালু

  • একুশ শিখিয়েছে মাথা নত না করতে: প্রধানমন্ত্রী 

  • এবার চার কিলোমিটার দৃশ্যমান হচ্ছে পদ্মাসেতু

  • ৬০ দিনের মধ্যে সব কারখানায় ব্রেস্ট ফিডিং কর্নার করার নির্দেশ

  • মিয়ানমার থেকে এলো ১৪শ’মেট্রিক টন পেঁয়াজ

  • শ্রদ্ধার জন্য প্রস্তুত শহীদ মিনার

  • রাজশাহীতে বছরে ৪০০ কোটি টাকার কলা উৎপাদন

  • আসছে স্বর্ণ ও রৌপ্য মুদ্রা, সঙ্গে ২০০ টাকার নোট

  • ২০ গুণীজনকে একুশে পদক দিলেন প্রধানমন্ত্রী

  • সোমবার থেকে সারাদেশে বজ্রবৃষ্টি

  • পুলিশ কর্মকর্তার উদ্যোগে দৌলতদিয়ায় আরেক যৌনকর্মীর জানাজা

  • আমি সশস্ত্র বাহিনীকে উন্নত করতে চাই: প্রধানমন্ত্রী

  • রেজিমেন্টাল কালার প্রাপ্তি বিরল সম্মান, বলেছেন সেনাপ্রধান

  • চলন্ত ট্যাক্সি থেকে ছুঁড়ে ফেলা হল ৮ মাসের শিশু, বাঁচাল পুলিশ

  • উল্টা পাল্টা জোকসের মোড়ক উন্মোচন

  • বাংলাদেশ অর্থনৈতিকভাবে সিঙ্গাপুর থেকেও শক্তিশালী: প্রধানমন্ত্রী

  • ২০২৩ সালের মধ্যেই সব প্রাথমিক স্কুলে মিড ডে মিল

  • রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে বঙ্গবন্ধু পাঠাগার ও রিলিফ ভাস্কর্য উন্মোচন

  • রংপুরে গ্লাডিওলাস চাষে কৃষকের ভাগ্য পরিবর্তন

  • এবার ঘরে বসে পুরনো পণ্য কেনা-বেচার সাইট ‘সোয়্যাপ’ চালু

  • দেশে নিয়মিত শুরু হলো লিভার প্রতিস্থাপন

  • প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ: ৪১ জেলায় আসছে সুখবর

  • মুজিববর্ষ উপলক্ষে ‘ন্যাশনাল বিচ ক্লিনআপ’ কর্মসূচি ২৫ ফেব্রুয়ারি

  • এবার মুজিববর্ষের আয়োজনে যোগ দিতে মার্চে আসছেন মোদি

  • মংলা বন্দরের জন্য ৬ হাজার কোটি টাকার প্রকল্প

  • আসন্ন সেচ মৌসুমে লোডশেডিংয়ের কোনো শঙ্কা নেই

  • দেশের প্রথম পাতাল মেট্রো রুটের নির্মাণ ডিসেম্বরে

  • মুজিববর্ষে ১৪ হাজার অসচ্ছল মুক্তিযোদ্ধাদের দেওয়া হবে বাড়ি

  • নারী উদ্যোক্তাদের ১৫ কোটি টাকা ঋণ দেবে এসএমই ফাউন্ডেশন

  • মাকে বাঁচাতে অর্ধেক লিভার দিলো ছেলে

  • সব উপজেলায় বুদ্ধিপ্রতিবন্ধী বিদ্যালয় হবে: সমাজকল্যাণ মন্ত্রী