মঙ্গলবার   ১৮ জানুয়ারি ২০২২

সর্বশেষ:
সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোর বার্ষিক ছুটি ৭৫ দিন আগামী মার্চে ঢাকা উত্তর সিটির ভোটের ইঙ্গিত সিইসির আস্থা ভোটে টিকে গেলেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় পরিদর্শনে প্রধানমন্ত্রী রাষ্ট্রপতির সঙ্গে নেপালের বিদায়ী রাষ্ট্রদূতের সাক্ষাৎ সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন করতে ইসি প্রতিজ্ঞাবদ্ধ: নূরুল হুদা বারবার আসতে পারব না, যত খুশি সাজা দিন: খালেদা জিয়া ‘আকাশবীণার’ উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী ত্রিভুবনে আবারও বিমান দুর্ঘটনা ট্রেন-বাসের সংঘর্ষে নিহত ২, আহত ২৫ ভুয়া ছবি দিয়ে অপপ্রচার চালাচ্ছে মিয়ানমার: প্রধানমন্ত্রী
১৪৪

বছরজুড়ে পোশাক রপ্তানিতে বিস্ময়, বেড়েছে ৩০ শতাংশ

ডেস্ক রিপোর্ট

প্রকাশিত: ৯ জানুয়ারি ২০২২  

স্বাধীনতার পরের বছর মাত্র ৩৫ কোটি ডলারের পণ্য রপ্তানি করেছিল বাংলাদেশ। তার মধ্যে ৯০ শতাংশই এসেছিল পাট ও পাটজাত পণ্য রপ্তানি থেকে। পাটের পর প্রধান রপ্তানি পণ্যের মধ্যে ছিল চা ও হিমায়িত খাদ্য। যদিও মোট রপ্তানিতে এ পণ্য দুটির অবদান ছিল ১ শতাংশের একটি বেশি।

৫০ বছর পর পণ্য রপ্তানি বাণিজ্যের পাশাপাশি দেশের অর্থনীতির চেহারার খোলনলচে বদলে দিয়েছে তৈরি পোশাক খাত। পাটকে হটিয়ে পণ্য রপ্তানির শীর্ষস্থান দখল করেছে পণ্যটি। পাঁচ দশকের ব্যবধানে রপ্তানি আয় বেড়েছে ১০০ গুণের বেশি। ৪৫ লাখ গ্রামীণ নারী-পুরুষের কর্মসংস্থান, নারীর ক্ষমতায়ন, সহযোগী শিল্পের বিকাশসহ অনেক ক্ষেত্রে অবদান রেখেছে এই পোশাকশিল্প।

আর বাংলাদেশের এই পোশাকশিল্প সবচেয়ে ভালো একটি বছর পার করল, ২০২১ সাল। করোনা মহামারির মধ্যেই ৫০ বছর পূর্তির এই বছরে প্রায় ৩ হাজার ৬০০ কোটি (৩৬ বিলিয়ন) ডলারের বিদেশি মুদ্রা দেশে এনেছে এই খাত, যা ২০২০ সালের চেয়ে ৩০ দশমিক ৩৬ শতাংশ বেশি।

বর্তমান বিনিময় হার (৮৫ টাকা ৮০ পয়সা) হিসাবে টাকার অঙ্কে ২০২১ সালে প্রায় ৩ লাখ কোটি টাকার পোশাক রপ্তানি করেছেন এ খাতের রপ্তানিকারকরা, যা চলতি ২০২১-২২ অর্থবছরের জাতীয় বাজেটের অর্ধেক। বাংলাদেশের ইতিহাসে এর আগে কখনই এক বছরে পোশাক রপ্তানি থেকে এত বেশি আয় হয়নি।

পোশাক রপ্তানির এই উল্লম্ফনে বেজায় খুশি বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি এবং পোশাকশিল্প মালিকদের দুই সংগঠন বিজিএমইএ ও বিকেএমইএ নেতারা।

তারা আশা প্রকাশ করেছেন, রপ্তানির এই ‘সুবাতাস’ আগামী দিনগুলোতেও অব্যাহত থাকবে।

রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরো (ইপিবি) রোববার রপ্তানি আয়ের হালনাগাদ যে তথ্য প্রকাশ করেছে তাতে দেখা যায়, সদ্য শেষ হওয়া ২০২১ সালে পোশাক রপ্তানি থেকে ৩ হাজার ৫৮১ কোটি ১৮ লাখ (৩৫.৮১ বিলিয়ন) ডলার আয় করেছেন রপ্তানিকারকরা। ২০২০ সালে এই আয়ের পরিমাণ ছিল ২ হাজার ৭৪৭ কোটি ৭ লাখ (২৭.৪৭ বিলিয়ন) ডলার।

এই হিসাবেই ২০২১ সালে আগের বছরের চেয়ে তৈরি পোশাক রপ্তানি থেকে ৩০ দশমিক ৩৬ শতাংশ বেশি অর্থ দেশে এসেছে।

তবে ২০২০ সালের মার্চে দেশে করোনার প্রাদুর্ভাব দেখা দেওয়ার পরের মাস এপ্রিলে পোশাক রপ্তানির বড় দুই বাজার যুক্তরাষ্ট্র, ইউরোপসহ গোটা বিশ্ব ‘স্থবির’ থাকায় বাংলাদেশের রপ্তানি তলানিতে নেমে এসেছিল। ওই মাসে মাত্র ৩৭ কোটি ৪৬ লাখ ডলারের পোশাক রপ্তানি হয়েছিল। পরের মে মাসে কম রপ্তানি হয় ১২৩ কোটি ডলার। জুন মাস থেকে অবশ্য পোশাকসহ সামগ্রিক পণ্য রপ্তানিতে গতি পেতে শুরু করে, যা ডিসেম্বর পর্যন্ত ছিল।

বছরজুড়ে পোশাক রপ্তানিতে বিস্ময়, বেড়েছে ৩০ শতাংশ

সবশেষ পাঁচ মাসে বড় উল্লম্ফন হয়েছে পোশাক রপ্তানিতে। আগস্ট মাসে ২০২০ সালের আগস্টের চেয়ে বেড়েছিল ১১ দশমিক ৫৬ শতাংশ। সেপ্টেম্বরে প্রবৃদ্ধি এক লাফে বেড়ে ৪১ দশমিক ৬৬ শতাংশে ওঠে। অক্টোবরে বাড়ে ৫৩ দশমিক ২৮ শতাংশ। নভেম্বরে প্রবৃদ্ধি হয় ৩২ দশমিক ৩৪ শতাংশ।

ডিসেম্বরে বেড়েছে ৫২ দশমিক ৫৭ শতাংশ। এই মাসে ৪০৪ কোটি ৪৫ লাখ (৪.০৪ বিলিয়ন) ডলারের পোশাক রপ্তানি হয়েছে। এর আগে কখনই এক মাসে পোশাক রপ্তানি থেকে আয় ৪ বিলিয়ন ডলার ছাড়ায়নি।

ডিসেম্বরে নিট পোশাক রপ্তানি থেকে আয় হয়েছে ২১৭ কোটি ৬০ লাখ ডলার। আর ওভেন পোশাক থেকে এসেছে ১৮৬ কোটি ৮৪ লাখ ডলার। বছরজুড়েই ওভেনের চেয়ে নিট থেকে বেশি বিদেশি মুদ্রা দেশে এসেছে।

সার্বিক এই রপ্তানি পরিস্থিতিতে সন্তোষ প্রকাশ করে বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি বলেন, ‘করোনার মধ্যে আমাদের রপ্তানি বাণিজ্য এভাবে চমক দেখাবে ভাবিনি। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে দ্রুত প্রণোদনার ব্যবস্থা করায় এই সাফল্য এসেছে। আমরা করোনার ধাক্কা সামলে ঘুরে দাঁড়িয়েছি। আগামী দিনগুলোতে শুধু পোশাক নয়, অন্যান্য খাতেও রপ্তানি বাড়বে।

তিনি বলেন, ‘চলতি অর্থবছরে আমাদের রপ্তানি ৫২ বিলিয়ন ডলার ছাড়িয়ে যাবে, যা হবে একটি মাইলফলক। বাংলাদেশের ৫০ বছরের বড় অর্জন।’

চলতি ২০২১-২২ অর্থবছরে পণ্য ও সেবা মিলিয়ে মোট ৫১ বিলিয়ন ডলার রপ্তানি আয়ের লক্ষ্য ধরেছে সরকার। এর মধ্যে পণ্য রপ্তানি থেকে আয় ধরা হয়েছে সাড়ে ৪৩ বিলিয়ন ডলার। তৈরি পোশাক থেকে আয়ের লক্ষ্য ৩৫ কোটি ১৪ বিলিয়ন ডলার। এর মধ্যে ছয় মাসে অর্থাৎ জুলাই-ডিসেম্বর সময়ে ১৯ দশমিক ৯০ বিলিয়ন ডলার ইতিমধ্যে আয় হয়েছে।

অর্থবছরের দ্বিতীয়ার্ধে অর্থাৎ জানুয়ারি-জুন সময়ে পোশাক খাত থেকে ২০ বিলিয়ন ডলারের বেশি আয় হবে পূর্বাভাস দিয়ে বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি বলেন, ‘পোশাক খাত থেকে রপ্তানি আয় ৪০ বিলিয়ন ডলার ছাড়িয়ে যাবে।’

অর্থনীতির গবেষক বাংলাদেশ উন্নয়ন গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (বিআইডিএস) গবেষণা পরিচালক মঞ্জুর হোসেন বলেন, ‘অর্থনীতির সূচকগুলোর মধ্যে সবচেয়ে ভালো অবস্থায় আছে এখন রপ্তানি খাত। সত্যিই অবাক করার মতো উল্লম্ফন দেখা যাচ্ছে এই খাতে। এই যে করোনার ধকল সামলে অর্থনীতি ঘুরে দাঁড়িয়েছে, তাতে সবচেয়ে বড় অবদান রেখে চলেছে রপ্তানি আয় অর্থাৎ পোশাকশিল্প।’

পোশাক রপ্তানিকারকদের শীর্ষ সংগঠন বিজিএমইএর সভাপতি ফারুক হাসান রপ্তানি আয়ের এই উল্লম্ফনে উচ্ছ্বাস প্রকাশ করে বলেন, ‘সত্যিই আমরা খুশি। এত দ্রুত করোনা মহামারির ধাক্কা সামলে আমরা ঘুরে দাঁড়াব, ভাবতে পারিনি।

‘তবে করোনার নতুন ধরন ওমিক্রন আমাদের নতুন চিন্তার কারণ হয়ে দেখা দিয়েছে। জানি না, কী হবে। যদি ওমিক্রন সার বিশ্বে ছড়িয়ে পড়ে, তাহলে আমাদের রপ্তানি আবার থমকে যাবে। আর যদি তেমনটি না হয়, তাহলে এই ইতিবাচক ধারা আগামী দিনেও অব্যাহত থাকবে।’

নিট পোশাক শিল্পমালিকদের সংগঠন বিকেএমইএ নির্বাহী সভাপতি মোহাম্মদ হাতেম বলেন, ‘আমরা ওমিক্রনকে পর্যবেক্ষণ করছি। সব কিছুই নির্ভর করছে করোনার এই নতুন ধরনের ওপর। যদি ওমিক্রনের ছোবল বিশ্বে ছড়িয়ে না পড়ে, তাহলে আগামী দিনগুলোতেও রপ্তানি আয়ের এই ইতিবাচক ধারা অব্যাহত থাকবে। একটি ভালো প্রবৃদ্ধি নিয়ে আমরা অর্থবছর শেষ করতে পারব।’

জাতীয় বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
  • শিল্পনীতির সুষ্ঠু বাস্তবায়নে আইনি ভিত্তি জরুরি

  • ৯০ বছর বয়সে বিয়ে করলেন কুমিল্লা আইনজীবী সমিতির সভাপতি

  • ডিএমপির ১১ কর্মকর্তাকে বদলি

  • সবাইকে নিয়ে কাজ করবো, নারায়ণগঞ্জের নতুন ডিসি

  • রেঞ্জের শ্রেষ্ঠ খুলনা জেলা পুলিশ

  • চলতি অধিবেশনেই ইসি আইন পাসের চেষ্টা: কাদের

  • জাতীয় মুক্তিযোদ্ধা কাউন্সিল আইনের খসড়া অনুমোদন

  • টিকার প্রথম ডোজ নিয়েছে ৭৭ লাখ শিক্ষার্থী

  • ‘মার্কিন নিষেধাজ্ঞায় পড়া কর্মকর্তারা দক্ষ ও দেশপ্রেমিক’

  • নির্বাচন কমিশন আইনের খসড়া অনুমোদন

  • নারায়ণগঞ্জে নেতিবাচক রাজনীতির ভরাডুবি: ওবায়দুল কাদের

  • ফায়ার সার্ভিসের ১৩ কর্মকর্তার পদোন্নতি

  • ডিসি সম্মেলন শুরু মঙ্গলবার

  • নারায়ণগঞ্জ ইসির সর্বোত্তম নির্বাচন : ইসি মাহবুব

  • ১৯৭৭ সালের সেনা হত্যাকাণ্ড গুরুত্ব দিয়ে দেখবে সরকার

  • ৫০ বছরের বেশি বয়সীরা বুস্টার ডোজ পাবেন: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

  • রাষ্ট্রপতির ভাষণের ওপর সংসদে ধন্যবাদ প্রস্তাব

  • ইসি গঠনে রাষ্ট্রপতির কাছে চার প্রস্তাব আওয়ামী লীগের

  • চরাঞ্চলগুলোতে চলছে কৃষকের কর্মযজ্ঞ

  • ১ বছরে ৩৩ বাংলাদেশি নারীকে উদ্ধার করেছে বিএসএফ

  • পর্যটনের নতুন সম্ভাবনা বান্দরবানের তমা তুঙ্গী

  • সম্পদ পুনর্মূল্যায়নের নির্দেশ পেট্রোবাংলাকে

  • বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে গেমিং অ্যাপ ‘আমার বঙ্গবন্ধু’

  • ৫০ বছর বয়সীরাও পাবেন বুস্টার ডোজ

  • বাঙালির অস্তিত্বে বারবার ফিরে আসবে শেখ মুজিব

  • বাঙালির অস্তিত্বে বারবার ফিরে আসবে শেখ মুজিব

  • নিজস্ব ভবনে যাত্রা শুরু আরএমপির সাইবার ক্রাইম ইউনিট

  • নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের নতুন কাউন্সিলর যারা

  • চাঁদপুরে শতাধিক শীতার্তদের পাশে পুনাক

  • খেলাধুলাই পারে যুবসমাজকে মাদক থেকে দূরে রাখতে : মেয়র আতিকুল

  • নগরীতে অত্যাধুনিক দৃষ্টিনন্দন আন্ডারপাস

  • নতুন ১৫৫টি আইএসপি লাইসেন্স দিচ্ছে সরকার

  • রাঙামাটির স্বপ্নের নানিয়ারচর সেতুর যাত্রা শুরু

  • যাত্রীদের নিরাপত্তা ও সড়কে অপরাধ প্রতিরোধে বসছে সিসি ক্যামেরা

  • আপাতত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে সীমিত পরিসরে ক্লাস চলবে: শিক্ষামন্ত্রী

  • আইডি বা রেজিস্ট্রেশন কার্ড দেখালেই টিকা পাবে শিক্ষার্থীরা

  • ১৫ জানুয়ারির পর টিকা ছাড়া ক্লাসে যেতে পারবে না শিক্ষার্থীরা

  • ৫৬ কোটি টাকার ‘বঙ্গা’ তৈরি হচ্ছে নওগাঁয়

  • পাসপোর্ট-ভিসার পরিবর্তে স্বল্পমেয়াদি অনুমতিপত্র ‘চালুর পরিকল্পনা’

  • ৬ মাসে হিলি বন্দরে ১৮৯ কোটি টাকার রাজস্ব আদায়

  • এক টানেই জালে ৩০০ মণ মাছ

  • বাস, ট্রেন ও লঞ্চে অর্ধেক যাত্রী নিতে হবে

  • মা হচ্ছেন পরীমণি, বাবা চিত্রনায়ক রাজ

  • ভিক্ষুক পুনর্বাসনে বরাদ্দ পাঁচ গুণ করা হচ্ছে

  • বড়শিতে ধরা পড়ল বিশাল ব্ল্যাক কার্প

  • এক যুগে কৃষি উদ্ভাবনে ঈর্ষণীয় সাফল্য

  • বাংলাদেশ থেকে দ্বিগুণ ইন্টারনেট ব্যান্ডউইডথ নেবে ভারত

  • সরিষায় সফলতা, চাষাবাদ বাড়ায় কমবে আমদানিনির্ভরতা

  • পাবনায় সরিষা ফুলের মধু থেকে আয় হবে ১০ কোটি

  • ঢাকায় হবে আন্তর্জাতিক মানের হেলিপোর্ট

  • এই বিমানেই দেশে ফিরেছিলেন বঙ্গবন্ধু

  • পাহাড়ে নবদিগন্তের সূচনা, স্বপ্ন বুনছেন রাঙামাটিবাসী

  • নারায়ণগঞ্জ আইভীরই

  • সংবিধান অনুযায়ী আইন প্রণয়ন ও ইসি গঠনের প্রস্তাব জেপির

  • পার্বত্য শান্তিচুক্তি বাস্তবায়নের কাজ চলছে: প্রধানমন্ত্রী

  • বিচ্ছেদ আবেদনের মধুর সমাপ্তি, রায়ে কাঁদলেন হাজারো মানুষ

  • কাঠের জিপ তৈরি করে ২ ভাইয়ের চমক, চলবে সৌরবিদ্যুতে

  • মেট্রোরেলের নিরাপত্তায় হচ্ছে এমআরটি পুলিশ ইউনিট

  • পাল্টে যাচ্ছে দক্ষিণাঞ্চলের স্বাস্থ্যসেবার চিত্র

  • মাঘের শীতেই লালচে-কমলা আভা ছড়াচ্ছে বসন্তের পলাশ