শুক্রবার   ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০

ব্রেকিং:
সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোর বার্ষিক ছুটি ৭৫ দিন আগামী মার্চে ঢাকা উত্তর সিটির ভোটের ইঙ্গিত সিইসির জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় পরিদর্শনে প্রধানমন্ত্রী আস্থা ভোটে টিকে গেলেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে রাষ্ট্রপতির সঙ্গে নেপালের বিদায়ী রাষ্ট্রদূতের সাক্ষাৎ খালেদার অনুপস্থিতিতেই কারাগারে বিচার চলবে রব ও মান্নার বিয়ে যুক্তফ্রন্টে, পরকীয়া ঐক্যফ্রন্টে: মাহী এটা জোট নয়, ঘোট : তথ্যমন্ত্রী যুক্তরাষ্ট্রে রাজনৈতিক আশ্রয় পেলেন সিনহা আবারও সরকার গঠনে নৌকায় ভোট দেয়ার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর পদ্মা সেতু প্রকল্পের নামফলক উন্মোচন করলেন প্রধানমন্ত্রী
১৭০

‘বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব শিল্পনগর’: অপরিকল্পিত শিল্পায়ন নিষিদ্ধ

ডেস্ক নিউজ

প্রকাশিত: ২০ জানুয়ারি ২০২০  

‘বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব শিল্পনগর’র আশপাশে অপরিকল্পিত শিল্পায়ন ও আবাসিক এলাকা গড়ে তোলা নিষিদ্ধসহ ১১ দফা অনুশাসন দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এ শিল্পনগরীর ‘মাস্টার প্ল্যানকে’ সংশোধনের মাধ্যমে এসব অনুশাসনকে অন্তর্ভুক্ত করতে বলা হয়।

সম্প্রতি প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত এই শিল্পনগরের মাস্টার প্ল্যান সংক্রান্ত সভায় এসব অনুশাসন দেয়া হয়। প্রধানমন্ত্রীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত ওই বৈঠকের কার্যবিবরণী থেকে পাওয়া গেছে এসব তথ্য।

জানতে চাইলে বেজার নির্বাহী চেয়ারম্যান পবন চৌধুরী যুগান্তরকে জানান, প্রধানমন্ত্রীর দেয়া অনুশাসনগুলো কার্যকর করতে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় ও বিভাগকে চিঠির মাধ্যমে জানিয়ে দেয়া হয়েছে। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব শিল্পনগরীর সঙ্গে বেশ কয়েকটি মন্ত্রণালয় ও বিভাগ সম্পৃক্ত। এ ব্যাপারে সংশ্লিষ্টরা অবশ্যই দায়িত্ব পালন করবেন।

ওই বৈঠকের কার্যবিবরণী থেকে জানা গেছে, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব শিল্পনগরী মাস্টার প্ল্যান নিয়ে বৈঠকে বেজার নির্বাহী চেয়ারম্যান তথ্য তুলে ধরেন। এরপর প্রধানমন্ত্রী এ বিশেষ শিল্পনগরী নিয়ে অনুশাসন প্রদান করেন। অনুশাসনগুলোর মধ্যে রয়েছে এই শিল্পনগরীর পার্শ্ববর্তী এলাকা নিয়ে একটি সামগ্রিক পরিকল্পনা গ্রহণ করা। এটি বাস্তবায়ন করবে গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়। এছাড়া বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব শিল্পনগরীর মাস্টার প্ল্যানে বঙ্গোপসাগরের তীরবর্তী ঘূর্ণিঝড়, জলোচ্ছ্বাস, জলাবদ্ধতা ও বন্যা প্রতিরোধ কার্যক্রম গ্রহণ করতে বলা হয়। এছাড়া মাস্টার প্ল্যানে প্রস্তাবিত সমুদ্রবন্দর নির্মাণ কাজ ত্বরান্বিত করার বিষয়েও প্রয়োজনীয় নির্দেশনা দেয়া হয়।

আরও জানা গেছে, বৃষ্টির পানি সংরক্ষণ, জলধারা, স্টেডিয়াম, খেলার মাঠ ও উন্মুক্ত এলাকা রাখাসহ পর্যাপ্ত বৃক্ষরোপণের ব্যবস্থা করতেও অনুশসান দেয়া হয়েছে। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব শিল্পনগরে প্রতিদিন পানির চাহিদা হবে ১১২ কোটি ৫০ লাখ লিটার। সেখানে ‘পানি শোধনাগার ও গভীর নলকূপ স্থাপন’ নামে একটি প্রকল্প হাতে নিচ্ছে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়।

এছাড়া শ্রমিকদের সহজে যাতায়াত যোগ্য স্থানে পর্যাপ্তসংখ্যক মানসম্মত আবাসিক এলাকা নিশ্চিত করতে হবে। এর সঙ্গে বিনিয়োগকারীরাও যেন শ্রমিকদের মানসম্মত আবাসিক ব্যবস্থা নিশ্চিত করার নির্দেশ দেয়া হয়।

প্রধানমন্ত্রীর অনুশাসনে আরও বলা হয়, মাস্টার প্ল্যানে সলিড ওয়েস্ট, লিকুইড ওয়েস্ট ও ই-ওয়েস্টসহ সব ধরনের বর্জ্য ব্যবস্থাপনাকে অন্তর্ভুক্ত করতে হবে। পাশাপাশি পরিকল্পিত, পরিচ্ছন্ন ও পরিবেশবান্ধব হিসেবে এ শিল্পনগরীকে গড়ে তুলতে হবে। এছাড়া শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, হাসপাতাল, ফায়ার সার্ভিস, বাণিজ্য ও বিনোদন কেন্দ্র, শপিংমলসহ সব ধরনের আধুনিক ইউটিলি নির্মাণ করতে হবে। পাশাপাশি অভ্যন্তরীণ যোগাযোগব্যবস্থা মানসম্মত করা, বিশেষ করে শিল্পনগর থেকে চট্টগ্রাম হয়ে কক্সবাজার পর্যন্ত একটি আধুনিক যোগাযোগ এবং কক্সবাজারের মেরিন ড্রাইভের সঙ্গে সংযোগ স্থাপন করতে সড়ক ও জনপথ বিভাগকে প্রয়োজনীয় উদ্যোগ নিতে বলা হয়েছে।

এছাড়া বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব শিল্পনগরের নির্মাণাধীন সুপার ডাইকের পাশে বনায়ন সৃষ্টি, সাগর তীরে পর্যাপ্ত বৃক্ষরোপণের মাধ্যমে নতুন ভূমি গঠন, শিল্পানগরের নিকটবর্তী সন্দ্বীপ ও অন্য দ্বীপগুলো পর্যায়ক্রমে সংযুক্ত করতে হবে।

প্রধানমন্ত্রীর অনুশাসনে আরও বলা হয়, বিনিয়োগকারীদের জন্য বর্জ্য ব্যবস্থাপনা, শ্রমিক কল্যাণ, পানির ব্যবস্থাপনা ও পরিবেশ সংরক্ষণসহ অন্য বিষয়ে গাইডলাইন প্রণয়ন ও মনিটর করবে বেজা।

প্রসঙ্গত, প্রায় ৩০ হাজার একর জমিতে স্থাপিত বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব শিল্পনগর। বৃহত্তম এই অর্থনৈতিক অঞ্চল তৈরি সম্পন্ন হলে প্রাথমিক পর্যায়ে অন্তত ৫ লাখ মানুষের কর্মসংস্থান হবে। মীরসরাই সংলগ্ন সীতাকুণ্ড ও সোনাগাজী উপজেলা পর্যন্ত এলাকায় এটি হবে দক্ষিণ এশিয়ার সবচেয়ে বড় শিল্পজোন। প্রকল্পটি বাস্তবায়নের মাধ্যমে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব শিল্পনগরে শিল্প প্রতিষ্ঠান স্থাপনের উপযোগী পরিবেশ সৃষ্টি হলে বিদেশি বিনিয়োগ আকৃষ্ট হবে এবং ব্যবসা-বাণিজ্য বৃদ্ধিসহ কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি হবে।

এই শিল্পনগরের পুরো অংশে পানির প্রাপ্যতার বিষয়ে ইন্সটিটিউট অব ওয়াটার মডেলিং (আইডব্লিউএম) একটি সম্ভাব্যতা সমীক্ষার কাজ চলমান রয়েছে। আইডব্লিউএম এর মধ্যে ইনটার্ম রিপোর্ট-১ এবং ইনটার্ম রিপোর্ট-২ দাখিল করেছে। এই শিল্পনগরের ২এ, ২বি, ৩, ৪ এবং ৫ জোনগুলোর প্রায় ২ হাজার একর এলাকায় শিগগিরই শিল্প ইউনিট স্থাপনের কাজ শুরু হবে।

উন্নয়ন নিশ্চিতকল্পে সরকার বাংলাদেশ অর্থনৈতিক অঞ্চল কর্তৃপক্ষের (বেজা) মাধ্যমে বিভিন্ন স্থানে ২০১৫ থেকে ২০৩০ সালের মধ্যে ১৫ বছরে ১০০টি অর্থনৈতিক অঞ্চল গঠনের পরিকল্পনা নিয়েছে। এর মধ্যে চলতি বছরের সেপ্টেম্বর পর্যন্ত মোট ৮৮টি অর্থনৈতিক অঞ্চল প্রতিষ্ঠার অনুমোদন দেয়া হয়েছে। অনুমোদনপ্রাপ্ত অর্থনৈতিক অঞ্চলগুলোর মধ্যে ৫৯টি সরকারি ও ২৯টি বেসরকারি।

আরও পড়ুন
জাতীয় বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
  • আতিক ১৩ মে দায়িত্ব নেবেন, তাপস ১৭ মে

  • হজযাত্রীদের নিবন্ধন শুরু ১ মার্চ

  • ‘সোনার বাংলায় কেউ গৃহহীন থাকবে না’

  • মুজিব বর্ষে জাতির পিতার ভাষণ পাঠ করবে কোটি শিক্ষার্থী

  • কলেজ ভর্তিতেও কোটা পদ্ধতি বাতিলের সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার

  • রাজধানীতে বিভিন্ন শিক্ষাবোর্ডের জাল সনদসহ আটক এক

  • অপূর্বের সঙ্গে ‘মিথ্যে প্রেম’-এ তানহা

  • রাজধানী ইস্কাটনের আগুন নিয়ন্ত্রণে, নিহত ৩

  • দিল্লিতে সংঘর্ষ: নিহত বেড়ে ৩৪

  • সাংবাদিকদের নিয়োগপত্র ছাড়া কাজ না করার আহ্বান তথ্যমন্ত্রীর

  • বিদ্যুতের দাম বৃদ্ধি, ইউনিট ৭.১৩ টাকা

  • মোদিকে ‘ফ্যাসিস্ট’ বললেন রকস্টার গিটারিস্ট রজার ওয়াটার্স

  • মুসলিমদের চোখে অ্যাসিড ঢালছে উগ্রবাদীরা!

  • রোহিঙ্গাদের জন্য পঞ্চম চালানে ত্রাণ পাঠালো ভারত

  • শিক্ষার্থীর ব্যয় কমাতে মোবাইলে কলেজ ভর্তির আবেদন বাতিল

  • স্মার্টফোন নয়, সন্তানের হাতে বই তুলে দিন: তথ্যমন্ত্রী

  • বাঘাবাড়ীকে আধুনিক বন্দরে পরিণত করা হবে: নৌ প্রতিমন্ত্রী

  • বাংলাদেশে ক্ষুধা, দারিদ্র্য থাকবে না: অর্থমন্ত্রী 

  • কলেজ ভর্তিতে কোটা পদ্ধতি বাতিলের সিদ্ধান্ত

  • ১১টি দেশ ইলিশ আহরণ করে, শীর্ষে বাংলাদেশ

  • পেঁয়াজ রফতানির ওপর নিষেধাজ্ঞা তুলে নিয়েছে ভারত

  • তাজমহল দেখে বিস্ময় প্রকাশ করেছেন ইভাঙ্কা ট্রাম্প

  • মৃত্যুর তিন হাজার পর তার দরকার হয়েছিলো পাসপোর্টের!

  • ‘গুচ্ছগ্রাম এলাকায় বঙ্গবন্ধু স্মৃতিস্তম্ভ নির্মাণ করা হবে’

  • জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলায় খালেদা জিয়ার জামিন আবেদন খারিজ

  • স্বাস্থ্য প্রতিবেদন দেখেই খালেদার বিষয়ে সিদ্ধান্ত হাইকোর্টের

  • স্বাস্থ্য প্রতিবেদন গভীরভাবে দেখেই সিদ্ধান্ত দিয়েছেন হাইকোর্ট

  • করোনাভাইরাসের কারণে ওমরাহ ভিসা বন্ধ

  • ঢাকার নবনির্বাচিত মেয়র তাপস-আতিকুলের শপথ গ্রহণ

  • মিয়ানমারকে সহযোগিতা স্থগিত ঘোষণা জার্মানির

  • একুশ শিখিয়েছে মাথা নত না করতে: প্রধানমন্ত্রী 

  • এবার চার কিলোমিটার দৃশ্যমান হচ্ছে পদ্মাসেতু

  • আসছে স্বর্ণ ও রৌপ্য মুদ্রা, সঙ্গে ২০০ টাকার নোট

  • ঐতিহাসিক ৭ মার্চকে জাতীয় দিবস ঘোষণা

  • দেশের প্রথম পাতাল মেট্রো রুটের নির্মাণ ডিসেম্বরে

  • বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর লেখা পড়বে প্রাথমিকের শিক্ষার্থীরা

  • রাজশাহীতে বছরে ৪০০ কোটি টাকার কলা উৎপাদন

  • শ্রদ্ধার জন্য প্রস্তুত শহীদ মিনার

  • মিয়ানমার থেকে এলো ১৪শ’মেট্রিক টন পেঁয়াজ

  • আমি সশস্ত্র বাহিনীকে উন্নত করতে চাই: প্রধানমন্ত্রী

  • কক্সবাজারে হচ্ছে দেশের সবচেয়ে বড় বিমানবন্দর

  • ২০ গুণীজনকে একুশে পদক দিলেন প্রধানমন্ত্রী

  • সোমবার থেকে সারাদেশে বজ্রবৃষ্টি

  • দারিদ্র্য জয় করেছেন তিস্তাপাড়ের মানুষ

  • পুলিশ কর্মকর্তার উদ্যোগে দৌলতদিয়ায় আরেক যৌনকর্মীর জানাজা

  • মাকে বাঁচাতে অর্ধেক লিভার দিলো ছেলে

  • পার্বত্য জেলায় কাজু বাদাম চাষে বিলিয়ন ডলার আয়ের হাতছানি

  • প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ: ৪১ জেলায় আসছে সুখবর

  • ২০২৩ সালের মধ্যেই সব প্রাথমিক স্কুলে মিড ডে মিল

  • রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে বঙ্গবন্ধু পাঠাগার ও রিলিফ ভাস্কর্য উন্মোচন

  • করোনা আতঙ্ক: ওমরাহ যাত্রীদের সৌদি প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা

  • পিলখানা ট্র্যাজেডিতে নিহত শহীদদের গভীর শ্রদ্ধায় স্মরণ করলো জাতি

  • ‘অন্যায়ের বিচার করার সৎ সাহস আছে সরকারের’

  • এবার ঘরে বসে পুরনো পণ্য কেনা-বেচার সাইট ‘সোয়্যাপ’ চালু

  • দেশে নিয়মিত শুরু হলো লিভার প্রতিস্থাপন

  • মুজিববর্ষ উপলক্ষে ‘ন্যাশনাল বিচ ক্লিনআপ’ কর্মসূচি ২৫ ফেব্রুয়ারি

  • বঙ্গবন্ধু জন্মশতবর্ষে উদ্বোধন হচ্ছে দৃষ্টিনন্দন আন্ডারপাস

  • নারী উদ্যোক্তাদের ১৫ কোটি টাকা ঋণ দেবে এসএমই ফাউন্ডেশন

  • এবার মুজিববর্ষের আয়োজনে যোগ দিতে মার্চে আসছেন মোদি

  • আসন্ন সেচ মৌসুমে লোডশেডিংয়ের কোনো শঙ্কা নেই