মঙ্গলবার   ১৮ জানুয়ারি ২০২২

সর্বশেষ:
সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোর বার্ষিক ছুটি ৭৫ দিন আগামী মার্চে ঢাকা উত্তর সিটির ভোটের ইঙ্গিত সিইসির আস্থা ভোটে টিকে গেলেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় পরিদর্শনে প্রধানমন্ত্রী রাষ্ট্রপতির সঙ্গে নেপালের বিদায়ী রাষ্ট্রদূতের সাক্ষাৎ সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন করতে ইসি প্রতিজ্ঞাবদ্ধ: নূরুল হুদা বারবার আসতে পারব না, যত খুশি সাজা দিন: খালেদা জিয়া ‘আকাশবীণার’ উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী ত্রিভুবনে আবারও বিমান দুর্ঘটনা ট্রেন-বাসের সংঘর্ষে নিহত ২, আহত ২৫ ভুয়া ছবি দিয়ে অপপ্রচার চালাচ্ছে মিয়ানমার: প্রধানমন্ত্রী
১০৮

বঙ্গবন্ধু রেলসেতুর কাজ ৩৬ শতাংশ শেষ, ২০২৪ সালে চলবে ট্রেন  

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ৪ জানুয়ারি ২০২২  

দ্রুতগতিতে এগিয়ে চলছে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব রেলওয়ে সেতুর নির্মাণকাজ। এরই মধ্যে প্রায় ৩৬ শতাংশ কাজ শেষ হয়েছে। এটি হবে দেশের দীর্ঘতম রেলসেতু। যথাসময়ে কাজ শেষ করা গেলে এ সেতু দিয়ে ট্রেন চলাচল শুরু হবে ২০২৪ সালে। তখন উত্তর ও পশ্চিমাঞ্চলের মানুষের যাতায়াত এবং পণ্য পরিবহনে আরও গতি আসবে।

বাংলাদেশ রেলওয়ে সূত্র জানায়, স্টিল অবকাঠামোর এই সেতুতে ডাবল লাইন থাকবে। ট্রেন চলতে পারবে সর্বোচ্চ ১২০ কিলোমিটার গতিতে। নির্মাণ শেষ হলে এটিই হবে দেশের দীর্ঘতম রেল সেতুর তকমা। যার দৈর্ঘ্য হবে ৪ দশমিক ৮ কিলোমিটার।

রাজধানীর সঙ্গে উত্তর ও পশ্চিমাঞ্চলের যোগাযোগ ব্যবস্থায় আমূল পরিবর্তন এনেছে বঙ্গবন্ধু সেতু। যমুনা নদীর ওপর স্থাপিত বঙ্গবন্ধু সেতু দিয়ে এসব অঞ্চলের যানবাহন চলাচল করে। এর এক পাশে এক লাইনের একটি রেললাইন রয়েছে। এটি দিয়ে ঘণ্টায় মাত্র ২০ কিলোমিটার গতিতে ট্রেন চলে। এতে সেতুর দুই পাশে অন্য ট্রেন অপেক্ষা করতে হয়। এ কারণে বাংলাদেশ রেলওয়ে এই সড়ক সেতুর ৩০০ মিটার উজানে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব রেলওয়ে সেতু নির্মাণ করছে। এটি টাঙ্গাইল ও সিরাজগঞ্জকে যুক্ত করবে। নতুন সেতুটিতে ঘণ্টায় চলতে পারবে সর্বোচ্চ ১২০ কিলোমিটার বেগে। এর ওপর দিয়ে যে কোনো ওজনের মালবাহী ও যাত্রীবাহী ট্রেনও চলতে পারবে। এছাড়া একাধিক লোকোমোটিভ বা ইঞ্জিন দিয়ে ট্রেন চালানো যাবে। দেশের সবচেয়ে বড় এই রেলসেতুতে মোট পিয়ার (খুঁটি বা পিলার) থাকবে ৫০টি। রেলসেতুর এসব পিয়ার হবে কংক্রিটের। উপরের সুপার স্ট্রাকচার হবে স্টিলের। পিয়ারের কাজ শেষ হলেই বিদেশ থেকে সুপার স্ট্রাক্চার এনে বসিয়ে দেওয়া হবে।

গত নভেম্বরে এই সেতুর নির্মাণকাজের অগ্রগতি প্রতিবেদন তৈরি করেছে বাংলাদেশ রেলওয়ে। এই প্রতিবেদনে বলা হয়, রেলসেতুর ৫০টি পিয়ারের মধ্যে ডব্লিউডি-১ প্যাকেজের ১১টি পিয়ারের (৪০, ৪১, ৪২, ৪৩, ৪৪, ৪৫, ৪৬, ৪৭, ৪৮, ৪৯ ও ৫০) কাজ শেষ হয়েছে। ৩৬, ৩৮ এবং ৩৯ পিয়ার নম্বর পিয়ারের স্টিল পাইপ-শিল পাইপ (এসপিএসপি) ড্রাইভিং ও ৩৪ নম্বর পিয়ারের গাইড ফ্রেমের কাজ চলছে। ক্রেনের সাহায্যে হ্যামার দিয়ে বসানো হচ্ছে পাইলিং পাইপ। ২ নম্বর পিয়ারের গাইড ফ্রেমের কাজ শুরু হয়েছে। এছাড়া গত ১৪ ডিসেম্বর সেতুর ৪৮ নম্বর এবং ১৭ ডিসেম্বর ৪৬ নম্বর পিয়ারের টপ স্লাব কনসারটিংয়ের কাজ শেষ হয়েছে।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব রেলওয়ে সেতু নির্মাণ প্রকল্প সূত্র জানায়, ২০১৬ সালের ৬ ডিসেম্বর এই প্রকল্পের অনুমোদন দেয় একনেক সভা। তখন এর ব্যয় ধরা হয়েছিল ৯ হাজার ৭৩৪ কোটি টাকা। কিন্তু নানা কারণে তখন সেতু নির্মাণে জটিলতা তৈরি হয়। পরে গত বছরের ৩ ফেব্রুয়ারি প্রথম সংশোধিত প্রকল্প একনেক সভায় অনুমোদিত হয়। অনুমোদিত প্রকল্প ব্যয় ধরা হয় ১৬ হাজার ৭৮০ কোটি ৯৫ লাখ টাকা। এর মধ্যে ১২ হাজার কোটি টাকার বেশি জাপান ইন্টারন্যাশনাল কো-অপারেশন বা জাইকার কাছ থেকে ঋণ হিসেবে পাবে বাংলাদেশ। বাকি অর্থ দেবে বাংলাদেশ সরকার।

২০২০ সালের ২৯ নভেম্বর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রকল্পের নির্মাণকাজের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন। রেলসেতুটির কাজ শেষ করার সময়সীমা ২০২৪ সালের আগস্ট মাসে নির্ধারণ করা হয়েছে। দ্রুত চলমান এই প্রকল্পের ব্যয় ও সময়সীমা বাড়ানো লাগবে না। অনুমোদিত ব্যয় ও সময়ের মধ্যেই প্রকল্পের কাজ শেষ হবে বলে দাবি সংশ্লিষ্টদের।

এছাড়া সেতুর দুই পাশে দশমিক ৫ কিলোমিটার ভায়াডাক্ট, ৭ দশমিক ৬৬৭ কিলোমিটার রেলওয়ে অ্যাপ্রোচ এমব্যাংকমেন্ট এবং লুপ ও সাইডিংসহ মোট ৩০ দশমিক ৭৩ কিলোমিটার রেললাইন নির্মাণ করা হবে। বঙ্গবন্ধু সেতু পূর্ব ও বঙ্গবন্ধু সেতু পশ্চিম স্টেশন ভবন আধুনিকের পাশাপাশি ইয়ার্ড রিমডেলিং করা হবে। সেতুর এই দুই পাশের স্টেশনের সিগন্যাল ও টেলিকমিউনিকেশন ব্যবস্থা করা হবে উন্নত। ওই সেতু এলাকায় নির্মিত হবে রেলওয়ে সেতু জাদুঘর।

জানতে চাইলে প্রকল্প পরিচালক আল ফাত্তাহ মো. মাসউদুর রহমান বলেন, প্রকল্পের ভৌত অগ্রগতি ৩৬ শতাংশ। আর্থিক অগ্রগতি ২৩ দশমিক ৫২ শতাংশ। আশা করি, ২০২৪ সালের আগস্ট মাসে প্রকল্পের কাজ শেষ হবে।

তিনি বলেন, বর্তমানে বাংলাদেশের যে রেলসেতুগুলো রয়েছে তাতে আছে একটি করে লাইন। এই সেতুতে দুটি লাইন থাকবে। সেতু পার হওয়ার জন্য কোনো ট্রেনকে অপেক্ষা করতে হবে না। সেতুতে একসঙ্গে দুটো ট্রেন দুদিকে চলে যেতে পারবে। সাধারণত মালবাহী ট্রেনগুলোকে প্রায়ই দুটি ইঞ্জিন দিয়ে টানতে হয়। বঙ্গবন্ধু সড়কসেতুতে যা সম্ভব হয় না। এ কারণেই যমুনা নদীর ওপারে পার্বতীপুরের কারখানায় মেরামতের জন্য ইঞ্জিন নিয়ে যাওয়া সম্ভব হয় না। রেলসেতুটি নির্মাণ করা হলে এ সমস্যার সমাধান হবে।

বাংলার উন্নয়ন বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
  • শিল্পনীতির সুষ্ঠু বাস্তবায়নে আইনি ভিত্তি জরুরি

  • ৯০ বছর বয়সে বিয়ে করলেন কুমিল্লা আইনজীবী সমিতির সভাপতি

  • ডিএমপির ১১ কর্মকর্তাকে বদলি

  • সবাইকে নিয়ে কাজ করবো, নারায়ণগঞ্জের নতুন ডিসি

  • রেঞ্জের শ্রেষ্ঠ খুলনা জেলা পুলিশ

  • চলতি অধিবেশনেই ইসি আইন পাসের চেষ্টা: কাদের

  • জাতীয় মুক্তিযোদ্ধা কাউন্সিল আইনের খসড়া অনুমোদন

  • টিকার প্রথম ডোজ নিয়েছে ৭৭ লাখ শিক্ষার্থী

  • ‘মার্কিন নিষেধাজ্ঞায় পড়া কর্মকর্তারা দক্ষ ও দেশপ্রেমিক’

  • নির্বাচন কমিশন আইনের খসড়া অনুমোদন

  • নারায়ণগঞ্জে নেতিবাচক রাজনীতির ভরাডুবি: ওবায়দুল কাদের

  • ফায়ার সার্ভিসের ১৩ কর্মকর্তার পদোন্নতি

  • ডিসি সম্মেলন শুরু মঙ্গলবার

  • নারায়ণগঞ্জ ইসির সর্বোত্তম নির্বাচন : ইসি মাহবুব

  • ১৯৭৭ সালের সেনা হত্যাকাণ্ড গুরুত্ব দিয়ে দেখবে সরকার

  • ৫০ বছরের বেশি বয়সীরা বুস্টার ডোজ পাবেন: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

  • রাষ্ট্রপতির ভাষণের ওপর সংসদে ধন্যবাদ প্রস্তাব

  • ইসি গঠনে রাষ্ট্রপতির কাছে চার প্রস্তাব আওয়ামী লীগের

  • চরাঞ্চলগুলোতে চলছে কৃষকের কর্মযজ্ঞ

  • ১ বছরে ৩৩ বাংলাদেশি নারীকে উদ্ধার করেছে বিএসএফ

  • পর্যটনের নতুন সম্ভাবনা বান্দরবানের তমা তুঙ্গী

  • সম্পদ পুনর্মূল্যায়নের নির্দেশ পেট্রোবাংলাকে

  • বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে গেমিং অ্যাপ ‘আমার বঙ্গবন্ধু’

  • ৫০ বছর বয়সীরাও পাবেন বুস্টার ডোজ

  • বাঙালির অস্তিত্বে বারবার ফিরে আসবে শেখ মুজিব

  • বাঙালির অস্তিত্বে বারবার ফিরে আসবে শেখ মুজিব

  • নিজস্ব ভবনে যাত্রা শুরু আরএমপির সাইবার ক্রাইম ইউনিট

  • নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের নতুন কাউন্সিলর যারা

  • চাঁদপুরে শতাধিক শীতার্তদের পাশে পুনাক

  • খেলাধুলাই পারে যুবসমাজকে মাদক থেকে দূরে রাখতে : মেয়র আতিকুল

  • নগরীতে অত্যাধুনিক দৃষ্টিনন্দন আন্ডারপাস

  • নতুন ১৫৫টি আইএসপি লাইসেন্স দিচ্ছে সরকার

  • রাঙামাটির স্বপ্নের নানিয়ারচর সেতুর যাত্রা শুরু

  • যাত্রীদের নিরাপত্তা ও সড়কে অপরাধ প্রতিরোধে বসছে সিসি ক্যামেরা

  • আপাতত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে সীমিত পরিসরে ক্লাস চলবে: শিক্ষামন্ত্রী

  • আইডি বা রেজিস্ট্রেশন কার্ড দেখালেই টিকা পাবে শিক্ষার্থীরা

  • ১৫ জানুয়ারির পর টিকা ছাড়া ক্লাসে যেতে পারবে না শিক্ষার্থীরা

  • ৫৬ কোটি টাকার ‘বঙ্গা’ তৈরি হচ্ছে নওগাঁয়

  • পাসপোর্ট-ভিসার পরিবর্তে স্বল্পমেয়াদি অনুমতিপত্র ‘চালুর পরিকল্পনা’

  • ৬ মাসে হিলি বন্দরে ১৮৯ কোটি টাকার রাজস্ব আদায়

  • এক টানেই জালে ৩০০ মণ মাছ

  • বাস, ট্রেন ও লঞ্চে অর্ধেক যাত্রী নিতে হবে

  • মা হচ্ছেন পরীমণি, বাবা চিত্রনায়ক রাজ

  • ভিক্ষুক পুনর্বাসনে বরাদ্দ পাঁচ গুণ করা হচ্ছে

  • বড়শিতে ধরা পড়ল বিশাল ব্ল্যাক কার্প

  • এক যুগে কৃষি উদ্ভাবনে ঈর্ষণীয় সাফল্য

  • বাংলাদেশ থেকে দ্বিগুণ ইন্টারনেট ব্যান্ডউইডথ নেবে ভারত

  • সরিষায় সফলতা, চাষাবাদ বাড়ায় কমবে আমদানিনির্ভরতা

  • পাবনায় সরিষা ফুলের মধু থেকে আয় হবে ১০ কোটি

  • ঢাকায় হবে আন্তর্জাতিক মানের হেলিপোর্ট

  • এই বিমানেই দেশে ফিরেছিলেন বঙ্গবন্ধু

  • পাহাড়ে নবদিগন্তের সূচনা, স্বপ্ন বুনছেন রাঙামাটিবাসী

  • নারায়ণগঞ্জ আইভীরই

  • সংবিধান অনুযায়ী আইন প্রণয়ন ও ইসি গঠনের প্রস্তাব জেপির

  • পার্বত্য শান্তিচুক্তি বাস্তবায়নের কাজ চলছে: প্রধানমন্ত্রী

  • বিচ্ছেদ আবেদনের মধুর সমাপ্তি, রায়ে কাঁদলেন হাজারো মানুষ

  • কাঠের জিপ তৈরি করে ২ ভাইয়ের চমক, চলবে সৌরবিদ্যুতে

  • মেট্রোরেলের নিরাপত্তায় হচ্ছে এমআরটি পুলিশ ইউনিট

  • পাল্টে যাচ্ছে দক্ষিণাঞ্চলের স্বাস্থ্যসেবার চিত্র

  • মাঘের শীতেই লালচে-কমলা আভা ছড়াচ্ছে বসন্তের পলাশ