সোমবার   ২১ অক্টোবর ২০১৯

ব্রেকিং:
সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোর বার্ষিক ছুটি ৭৫ দিন আগামী মার্চে ঢাকা উত্তর সিটির ভোটের ইঙ্গিত সিইসির জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় পরিদর্শনে প্রধানমন্ত্রী আস্থা ভোটে টিকে গেলেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে রাষ্ট্রপতির সঙ্গে নেপালের বিদায়ী রাষ্ট্রদূতের সাক্ষাৎ খালেদার অনুপস্থিতিতেই কারাগারে বিচার চলবে রব ও মান্নার বিয়ে যুক্তফ্রন্টে, পরকীয়া ঐক্যফ্রন্টে: মাহী এটা জোট নয়, ঘোট : তথ্যমন্ত্রী যুক্তরাষ্ট্রে রাজনৈতিক আশ্রয় পেলেন সিনহা আবারও সরকার গঠনে নৌকায় ভোট দেয়ার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর পদ্মা সেতু প্রকল্পের নামফলক উন্মোচন করলেন প্রধানমন্ত্রী
৫৬৩

প্রধানমন্ত্রীর আগ্রহে ফিরছে ঢাকাই মসলিনের বাজার

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ৪ অক্টোবর ২০১৯  

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বিশেষ আগ্রহে মসলিনের সুতা তৈরির প্রযুক্তি ও মসলিন কাপড় পুনরুদ্ধার নামে একটি প্রকল্প হাতে নিয়েছে বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয়। এই প্রকল্পের অধীনে মসলিন কাপড় তৈরির কাজ দ্রুত এগিয়ে চলছে। বাংলাদেশ তাঁত বোর্ড এই প্রকল্প বাস্তবায়ন করছে।

তাঁত বোর্ড সূত্রে জানা গেছে, সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী উইভিংয়ের অগ্রগতি ৮০ ভাগ। মসলিনের তুলা ও সুতা শনাক্তকরণ-সংক্রান্ত গবেষণা কার্যক্রমের অগ্রগতি ২০ এবং স্পিনিংয়ের অগ্রগতি ৫৫ ভাগ এগিয়েছে। তাঁত বোর্ডের চেয়ারম্যানের নেতৃত্বে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়, বাংলাদেশ টেক্সটাইল বিশ্ববিদ্যালয়, তুলা উন্নয়ন বোর্ড, বাংলাদেশ টেক্সটাইল মিলস করপোরেশন-বিটিএমসি এবং বাংলাদেশ তাঁত বোর্ডের সমন্বয়ে গঠিত বিশেষজ্ঞ কমিটি গবেষণা কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে। পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের অনুমোদনের পর গত বছরের জুনে প্রকল্পটির কার্যক্রম শুরু হয়। আগামী ডিসেম্বরে প্রকল্পের প্রথম পর্যায়ের কাজ শেষ হবে। শাড়ি ছাড়াও আন্তর্জাতিক চাহিদার সঙ্গে মিল রেখে ফ্যাশনদুরস্ত পোশাক করা গেলে বর্তমানের মৌলিক মানের পোশাক থেকে উচ্চমূল্যের পোশাক রফতানির সুযোগ নেওয়া সম্ভব হবে। রফতানি পণ্যে বৈচিত্র্য আসবে। স্থানীয় বাজারেও মিলবে মসলিন। 


এ বিষয়ে তাঁত বোর্ডের পরিকল্পনা এবং বাস্তবায়ন বিভাগের প্রধান মো. আয়ুব আলী বলেন, বাণিজ্যিক ভিত্তিতে মসলিন উৎপাদনের জন্য দেশের উদ্যোক্তাদের সঙ্গে বৈঠক করবেন তারা, যাতে মসলিনের উৎপাদন কৌশল, তুলাসহ কাঁচামাল সম্পর্কে তাদের সম্যক অবহিত করা যায়। কারণ, সরকার মসলিনকে বাণিজ্যিক উৎপাদনের উপযোগী পর্যায়ে নিয়ে আসছে। তবে রফতানি বাণিজ্য কিংবা দেশের বাজারে মসলিনের বাণিজ্যিক সরবরাহের কাজটি উদ্যোক্তারাই করবেন।

 
তিনি জানান, আগের সেই অবিকল ঢাকাই মসলিন উৎপাদন সম্ভব। সম্পূর্ণ হাতে তৈরি হওয়ায় আপাতত একটা মসলিন শাড়ির মূল্য পড়বে ৫০ হাজার টাকার মতো। অবশ্য উৎপাদন দক্ষতা বাড়লে ব্যয় কমে আসবে। বাণিজ্যিকভাবে উৎপাদন শুরু হলে রফতানিতে উচ্চ মূল্যের একটি পণ্য যুক্ত হবে। আয় বাড়বে বড় অঙ্কে।


সূত্র জানিয়েছে, মসলিন বিলুপ্তির সঙ্গে সঙ্গে উৎপাদন প্রযুক্তি, মসলিন তৈরির বিশেষ তুলা গাছ হারিয়ে যায়। ইতিহাস ঘেঁটে গবেষণার পর মসলিনের সুতার জন্য উপযোগী তুলা গাছ ফুটি কার্পাস শনাক্ত করা হয়েছে। গাছটির একটি নমুনা স্কেচ তৈরি করে অনুরূপ গাছ খুঁজে বের করতে পার্বত্য চট্টগ্রাম, গাজীপুরসহ দেশের বিভিন্ন বনবাদাড়ে ৫০০ শিক্ষার্থীকে পাঠানো হয়। অনেক খোঁজাখুঁজির পর কাপাসিয়ায় ফুটি কার্পাসের সন্ধান পাওয়া যায়। পরে চাষ শুরু হয়। বছরে দু'বার ফলন পাওয়া যাবে ফুটি কার্পাস থেকে। ঠিক মসলিনের কারিগর না পাওয়ায় আদি-খাদির কারিগরদের এনে প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়েছে। জাপানের তায়ামো বিশ্ববিদ্যালয়ের একদল গবেষক ঢাকাই মসলিন বিষয়ে গবেষণা অনেক দূর এগিয়ে নিয়ে গেছেন। জিআই পণ্য হিসেবে ঢাকার দাবির কারণে তারা মসলিন থেকে সরে আসেন। এরই মধ্যে জিআই সনদের জন্য আবেদন করেছেন তারা।


প্রকল্প এগিয়ে নিতে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের বায়োলজিক্যাল সায়েন্সের পরিচালক অধ্যাপক মনজুর হোসেনের নেতৃত্বে ১০ সদস্যের কমিটি গঠন করা হয়। এ বিষয়ে তিনি বলেন, কাজে নেমে তারা দেখেন, আদি-আসল মসলিনের নমুনা কোথাও খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। লন্ডনের ভিক্টোরিয়া অ্যান্ড অ্যালবার্ট মিউজিয়ামে মসলিনের খোঁজে গিয়েছিলেন তারা। সেখানে ঢাকাই মসলিন পাওয়া গেছে। ভিক্টোরিয়া অ্যান্ড অ্যালবার্ট মিউজিয়াম কর্তৃপক্ষ বাংলাদেশকে নমুনা দিয়ে সহযোগিতা করেছে। আদি মসলিন যে তুলার সুতায় তৈরি হতো সেই ফুটি কার্পাস উদ্ধার করা হয়েছে। 


অধ্যাপক মনজুর হোসেনের মতে, রফতানিমুখী তৈরি পোশাক খাতে এখন তুলার যে বিশাল আমদানি চাহিদা তা উন্নত দেশি ফুটি কার্পাস দিয়েই মেটানো সম্ভব হবে। কারণ, উচ্চমূল্যের পোশাক উৎপাদনে এ ধরনের তুলা খুবই উপযোগী।


তবে এই প্রত্যাশার বিপরীতে কিছুটা ভিন্নমত দিয়েছেন বেসরকারি গবেষণা সংস্থা পিআরআইর নির্বাহী পরিচালক ড. আহসান এইচ মনসুর। তিনি বলেন, এ ধরনের উদ্যোগ জাতির জন্য সুখবর। বৈচিত্র্যহীন রফতানিমুখী তৈরি পোশাক পণ্যে বৈচিত্র্য আসবে। মূল্য সংযোজিত পণ্যের মাধ্যমে রফতানি বাণিজ্যে বড় ধরনের সুবিধা করে নিতে পারবে বাংলাদেশ। সমস্যা হচ্ছে, সরকারি খাতে যে কোনো উদ্যোগেরই সফলতা নিয়ে সংশয় থাকে। বেসরকারি খাতকে সম্পৃক্ত না করলে এ উদ্যোগ শেষ পর্যন্ত কতটা সফল হবে তা নিয়ে সন্দেহ আছে।


তিনি বলেন, গবেষণা ও উৎপাদন দুই পর্যায়েই বেসরকারি খাতের উদ্যোক্তাদের সম্পৃক্ত করা গেলে খুব সফলভাবে ঢাকাই মসলিন আবার বিশ্বজয় করতে পারবে। উচ্চমূল্যের পোশাক উৎপাদনের মাধ্যমে রফতানি বাণিজ্যে শক্তিশালী অবস্থান করে নিতে পারবে বাংলাদেশ।

আরও পড়ুন
অর্থনীতি বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
  • ২০১৮-১৯ অর্থবছরে সরকারের যত অর্জন

  • ২৮৪ কোটি টাকা ব্যয়ে ঝুঁকিপূর্ণ শিশুশ্রম নিরসন প্রকল্প গ্রহণ 

  • ‘চরের মানুষ পাকা রাস্তা,পড়ালেখার জন্য স্কুল-মাদ্রাসা পেয়েছে’

  • ‘সাড়ে ২২ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন হচ্ছে’

  • দেশকে শীর্ষ পঞ্চাশে নেওয়ার লক্ষ্য জয়ের

  • অনলাইনে সরকারি সেবা দিতে ‘একপে’, ‘একসেবা’ ও ‘একশপ’-এর যাত্রা শুরু

  • আপনার সন্তান খায় না, তাহলে এভাবে দিন

  • বিরতিহীন দীর্ঘতম বিমান যাত্রায় ফ্লাইট সিডনিতে পৌঁছেছে

  • ‘গণতন্ত্রকে খুন করেছে মমতা’

  • কনের আত্মীয়রা মল মূত্র খাওয়ালো বরের পিতাকে

  • আটক ইসরাইলি সেনাদের বিষয়ে হামাসের ভিডিও বার্তা

  • কুর্দি এলাকায় সিরীয় সেনা মানে যুদ্ধ: তুরস্ক

  • এক অন্য রকম শিক্ষকের গল্প

  • নেতার অভাবেই ক্ষমতায় মোদি: অভিজিৎ

  • বড় সিরীয় ঘাঁটি ছাড়ল যুক্তরাষ্ট্র

  • ভারতের হামলায় পাকিস্তানের ১০ সেনা নিহত

  • বিশ্বে প্রথমবার ড্রোনে পণ্য ডেলিভারি

  • কানাডার জাতীয় নির্বাচন আজ

  • কাশ্মীর নিয়ে কথা বলায় তুরস্ক সফর বাতিল মোদির

  • সিংড়ায় বোনকে তালাক দেয়ায় দুলাভাইকে পিটিয়ে জখম

  • হাইডেলবার্গ বিশ্ববিদ্যালয়ে ফের চালু হচ্ছে ‘বঙ্গবন্ধু চেয়ার’

  • আল-আকসায় ফের শত শত কট্টরপন্থী ইহুদির অনুপ্রবেশ

  • মেহেরপুরে যৌন উত্তেজক সিরাপ তৈরির কারখানার সন্ধান

  • লক্ষ্মীপুরে ছাত্রলীগ নেতার ওপর হামলা

  • টিউবওয়েলে দেশলাই ধরলেই আগুন!

  • সেই কলেজছাত্রীকে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে হত্যার অভিযোগ

  • যুবরাজ শয়তানের ঘনিষ্ঠ: সৌদির শীর্ষ আলেম

  • প্রবাসী স্বামীর প্রতি গৃহবধূর ভালোবাসার অনন্য দৃষ্টান্ত

  • মালদ্বীপের জালে বাংলাদেশের ৬ গোল

  • উত্ত্যক্তের কারণে ছাত্রীর কলেজ যেতে ভয়

  • আজ ‘কুড়িগ্রাম এক্সপ্রেস’ ও ১৩টি সেতু উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী

  • ১৪ হাজার মুক্তিযোদ্ধাকে পাকা বাড়ি দেওয়া হবে: মোজাম্মেল হক

  • মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষায় দেশসেরা রংপুরের রাগীব নূর

  • পাতাল মেট্রোরেলে বদলে যাবে ঢাকা শহর

  • বাংলাদেশের প্রথম তৃতীয় লিঙ্গের ভাইস চেয়ারম্যান পিংকী

  • ২০১৯ সালে বিশ্বে তৃতীয় সর্বোচ্চ প্রবৃদ্ধি বাংলাদেশে: আইএমএফ

  • বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত ১৫৭ পরিবার পেল অর্থ সহায়তা ও বীজ

  • অর্থনীতিকে এগিয়ে নেবে উদ্ভাবনী প্রযুক্তি: মোমেন

  • পর্যটন শিল্প বিকাশে অবদান রাখবে পটিয়া বাইপাস সড়ক

  • ভুলতা উড়ালসড়কের উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী

  • আগামী প্রজন্মকে পরিচ্ছন্ন হয়ে ওঠার আহ্বান স্থানীয় সরকারমন্ত্রীর

  • দ্রুত এগুচ্ছে ৬ লেনের মাতামুহুরী সেতুর নির্মাণকাজ

  • ‘সবচেয়ে সুবিধাজনক অবস্থায় বাংলাদেশের অর্থনীতি’

  • প্রকাশ পেল ‌‌‘আহাদ ফাহিম’ এর গান ‘আমি মিথ্যে বলিনি’ এর ভিডিও

  • সরকারি উদ্যোগে সব উপজেলায় গঠন হচ্ছে কিশোর-কিশোরী ক্লাব

  • যানজট নিরসনে ঢাকায় আরও ২টি মেট্রোরেলের প্রকল্প অনুমোদন

  • মুসলিমবান্ধব পর্যটন বিকাশে বাংলাদেশ আদর্শ: পর্যটন প্রতিমন্ত্রী

  • আবরারকে পিটিয়ে হত্যার কারণ জানালেন ডিএমপি

  • নকল জুস তৈরির কারখানায় অভিযান, ৪০ হাজার টাকা জরিমানা 

  • মুন্সিগঞ্জের ১৩ সেতুর উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী

  • প্রধানমন্ত্রীর প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশের ভাষা আমার নেই: আবরারের মা

  • শুধু উন্নয়ন নয়,দেশ এখন দুর্যোগ মোকাবেলাতেও রোল মডেল:প্রধানমন্ত্রী

  • সেনাপ্রধান কাতার যাচ্ছেন মঙ্গলবার

  • ‘‌আমাকে কবর থেকে বের করো, এখানে ভীষণ অন্ধকার’‌

  • এক বাঘিনীর জন্য দুই বাঘের তুমুল লড়াই

  • হাওরের ৩ উপজেলায় রেসিডিন্সিয়াল স্কুল-কলেজ হবে: রাষ্ট্রপতি

  • জেরুজালেমের গভর্নরকে তুলে নিয়ে গেল ইসরাইল

  • যুগোপযোগী সিলেবাস প্রণয়ন করা হবেঃ শিক্ষা উপমন্ত্রী

  • ‘সুন্দরবনকে অক্ষত রেখেই মোংলা ইকোনমিক জোনের কাজ শুরু হয়েছে’

  • নতুন ঘর পাবেন ১৫ হাজার মুক্তিযোদ্ধাঃ  মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী