রোববার   ১১ এপ্রিল ২০২১

সর্বশেষ:
সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোর বার্ষিক ছুটি ৭৫ দিন আগামী মার্চে ঢাকা উত্তর সিটির ভোটের ইঙ্গিত সিইসির আস্থা ভোটে টিকে গেলেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় পরিদর্শনে প্রধানমন্ত্রী রাষ্ট্রপতির সঙ্গে নেপালের বিদায়ী রাষ্ট্রদূতের সাক্ষাৎ সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন করতে ইসি প্রতিজ্ঞাবদ্ধ: নূরুল হুদা বারবার আসতে পারব না, যত খুশি সাজা দিন: খালেদা জিয়া ‘আকাশবীণার’ উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী ত্রিভুবনে আবারও বিমান দুর্ঘটনা ট্রেন-বাসের সংঘর্ষে নিহত ২, আহত ২৫ ভুয়া ছবি দিয়ে অপপ্রচার চালাচ্ছে মিয়ানমার: প্রধানমন্ত্রী
৭৯

পদ্মাসেতুর অগ্রগতি ৯২%, যান চলবে ২০২২ সালের জুনে

ডেস্ক রিপোর্ট:

প্রকাশিত: ৭ এপ্রিল ২০২১  

বাংলাদেশের মানুষের স্বপ্নের পদ্মাসেতু এরই মধ্যে দৃশ্যমান। এরই মধ্যে মূল সেতুর ৯২ শতাংশ কাজ শেষে হয়েছে। ৪১টি স্প্যান বসানোর মধ্যদিয়ে প্রমত্তা পদ্মার এপার-ওপারের মধ্যে বাধাহীন পথ তৈরি করেছে ৬ দশমিক ১৫ কিলোমিটার দীর্ঘ পদ্মা বহুমুখী সেতু। চার লেনের এই সেতুর প্রস্থ ৭২ ফুট। তবে সম্পূর্ণ প্রকল্পের সার্বিক অগ্রগতি দাঁড়িয়েছে ৮৪ শতাংশ। গত জানুয়ারি পর্যন্ত অগ্রগতির এ চিত্র তুলে ধরা হয়েছে ফাস্টট্র্যাক প্রকল্পগুলোর অগ্রগতি প্রতিবেদনে। আগামী বছরের জুনে সেতুটি যান চলাচলের জন্য খুলে দেওয়া হতে পারে। এজন্য ব্যাপক কর্মযজ্ঞ পরিচালনা করা হচ্ছে বলে জানা গেছে।

জানতে চাইলে প্রকল্প পরিচালক প্রকৌশলী শফিকুল ইসলাম বলেন, ‘২০২২ সালের জুনে সেতুটি খুলে দেওয়ার জন্য আমাদের সর্বোচ্চ চেষ্টা রয়েছে। সে লক্ষ্য নিয়েই আমরা এগিয়ে চলছি।’ মেয়াদ বাড়ানো প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘পুরো প্রকল্পের কার্যক্রম শেষ করতে কিছুটা সময় লাগবে। এজন্য আমরা দুই বছর মেয়াদ বাড়ানোর আবেদন করেছি।’

ফাস্টট্র্যাক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, পদ্মা বহুমুখী সেতু নির্মাণ প্রকল্পটির কার্যক্রম শুরু হয় ২০০৯ সালের জানুয়ারিতে। কয়েক দফা মেয়াদ বাড়িয়ে ২০২১ সালের জুন পর্যন্ত করা হয়েছে। এখন আরও দুই বছর বাড়িয়ে ২০২৩ সালের জুন পর্যন্ত করা হচ্ছে। গত জানুয়ারি মাস পর্যন্ত প্রকল্পটির আওতায় ব্যয় হয়েছে ২৪ হাজার ৫৩২ কোটি ৪৮ লাখ টাকা। নদী শাসন কাজ শেষ হয়েছে ৭৯ শতাংশ। এছাড়া সার্ভিস এরিয়া-২ এবং জাজিরা ও মাওয়া প্রান্তের অ্যাপ্রোচ সড়কের কাজসহ অন্যান্য কাজ শতভাগ শেষ হয়েছে।

ফাস্টট্র্যাক প্রতিবেদনটি পর্যালোচনা করে দেখা যায়, চলতি ২০২০-২১ অর্থবছরের এ প্রকল্পের অনুকূলে বরাদ্দ দেওয়া হয় ৫ হাজার কোটি টাকা। সেখান থেকে গত জানুয়ারি পর্যন্ত ব্যয় হয়েছে ১ হাজার ১১০ কোটি ৩৪ লাখ টাকা, যা মোট বরাদ্দের ২২ দশমিক ২০ শতাংশ। এ অবস্থায় সংশোধিত বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচিতে বরাদ্দ কমানো হয়েছে। এক্ষেত্রে মূল বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচি (এডিপি) থেকে দুই হাজার ৯’শ কোটি টাকা কমিয়ে সংশোধিত বরাদ্দ ধরা হয়েছে দুই হাজার ৯৯ কোটি ৯৩ লাখ টাকা।

পরিকল্পনা কমিশনের সাধারণ অর্থনীতি বিভাগের সদস্য (সিনিয়র সচিব) ড. শামসুল আলম বলেন, ‘স্বপ্নময় এ প্রকল্প বাস্তবায়ন হলে অবকাঠামো ও পরিবহন সংকট অনেকটাই কেটে যাবে। দক্ষিণাঞ্চলের ২১ জেলার সঙ্গে যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়ন এবং অর্থনীতি সুসংহত হবে। পণ্য ও মানুষের চলাচল অনেক বেশি সহজ হবে। সেতুটির নির্মাণ শেষ হলে প্রায় ১ থেকে দেড় শতাংশ প্রবৃদ্ধি বেড়ে যাবে বলে আশা করা হচ্ছে। ফলে ব্যাপক বিনিয়োগ আসবে এবং কর্মসংস্থান বাড়বে। সব মিলিয়ে উচ্চতর প্রবৃদ্ধিতে যাওয়ার যে লক্ষ্যমাত্রা তা পূরণে সহায়ক ভূমিকা রাখবে।’

তিনি বলেন, ‘সেতুটি নির্মাণ শেষ হলে তা হবে জাতির জন্য এক বড় অর্জন। দেশের নিজস্ব অর্থে এত বড় অবকাঠামো এই প্রথম। ফলে জাতি হিসেবে আমাদের যে সক্ষমতা তার বহিঃপ্রকাশ ঘটবে।’

পদ্মা সেতুর পেছনের ইতিহাস

তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সময়ে ২০০৭ সালের ২০ আগস্ট একনেকে অনুমোদিত পদ্মাসেতু নির্মাণ প্রকল্পের প্রাক্কলিত ব্যয় ধরা হয়েছিল ১০ হাজার ১৬১ কোটি টাকা (১ দশমিক ৪৭ বিলিয়ন মার্কিন ডলার)। শুধু সড়ক সেতু নির্মাণের পরিকল্পনায় এর দৈর্ঘ্য হিসাব করা হয়েছিল ৫ দশমিক ৫৮ কিলোমিটার। তত্ত্বাবধায়ক সরকারের মেয়াদের শেষদিকে ২০০৮ সালের ডিসেম্বরে অনুষ্ঠিত সাধারণ নির্বাচনে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ জয়লাভ করলে ২০০৯ সালের ৬ জানুয়ারি বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আওয়ামী লীগ সরকার গঠন করে। পরে জানুয়ারিতেই সেতুর বিস্তারিত নকশা প্রণয়নের জন্য যুক্তরাষ্ট্র-নিউজিল্যান্ড-অস্ট্রেলিয়াভিত্তিক পরামর্শক প্রতিষ্ঠানকে নিযুক্ত করা হয়। ডিজাইন পরামর্শক কাজ শুরু করলে উন্নয়ন সহযোগী সংস্থাগুলোর মধ্যে বিশ্বব্যাংক ১ হাজার মিলিয়ন ডলার, এডিবি ৫০০ মিলিয়ন ও জাইকা ৩০০ মিলিয়ন ডলার ঋণ সহযোগিতার ইঙ্গিত দেয়। সেতু বিভাগ ও উন্নয়ন সহযোগীদের সঙ্গে আলোচনা করে ডিজাইন পরামর্শক প্রতিষ্ঠানের সম্ভাব্যতা সমীক্ষায় প্রস্তাবিত চার লেনবিশিষ্ট সড়ক সেতুর ডিজাইন পরিবর্তন করে ডেনমার্কের একটি সেতুর অনুরূপ দ্বিতল সেতুর ডিজাইন প্রস্তাব করা হয়।

এর পর সেতু নির্মাণের প্রাক্কলিত ব্যয় সংশোধন করে ২ দশমিক ৪ বিলিয়ন ডলার অর্থাৎ প্রায় ১৬ হাজার ৯৭০ কোটি টাকা নির্ধারণ করা হয়। ইস্পাতের তৈরি অবকাঠামোর ওপর নির্মিত চার লেনবিশিষ্ট সড়ক সেতুর নিচ দিয়ে হবে রেলসেতু। ডিজাইন প্রণয়নের চূড়ান্ত পর্যায়ে উন্নয়ন সহযোগীদের সঙ্গে সম্ভাব্য ঋণও চূড়ান্ত হয়।বিশ্বব্যাংক ১ হাজার ২০০ মিলিয়ন, এডিবি ৬১৫ মিলিয়ন, জাপান ৪৩০ মিলিয়ন ও আইডিবি ১৪০ মিলিয়ন ডলার ঋণের প্রতিশ্রুতি দেয় এবং পরবর্তী সময়ে ঋণ চুক্তি সই করে। এরই মধ্যে সেতুর ডিজাইন অনুযায়ী প্রাক্কলিত ব্যয় দাঁড়ায় ২০ হাজার ৫০৭ কোটি টাকা বা ২ হাজার ৯৭২ মিলিয়ন ডলার। সংশোধিত ডিপিপি (উন্নয়ন প্রকল্প প্রস্তাব) ২০১১ সালের ১১ জানুয়ারি একনেকে অনুমোদিত হয়।

বিশ্ব ব্যাংকসহ উন্নয়নসহযোগীদের সরে যাওয়া

২০১১ সালের জুলাই-আগস্টে উন্নয়ন সহযোগী বিশ্বব্যাংক প্রকল্পে দুর্নীতির অভিযোগ তোলে। এবং সেপ্টেম্বর থেকে প্রকল্পের কাজ স্থগিত করে দেয়। সেপ্টেম্বরে বিশ্বব্যাংকের একজন ভাইস প্রেসিডেন্টসহ একটি প্রতিনিধি দল প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করে আনুষ্ঠানিক অভিযোগ করলে প্রধানমন্ত্রী তাদের সুনির্দিষ্ট প্রমাণ দিতে বলেন। এরই মধ্যে বিশ্বব্যাংক কানাডিয়ান প্রতিষ্ঠান এসএনসি লাভালিনের বিরুদ্ধে দুর্নীতির ষড়যন্ত্রের অভিযোগ করে কানাডীয় রয়্যাল মাউন্টেড পুলিশের (আরসিএমপি) কাছে অভিযেআগ করে। পরে তদন্ত করে আরসিএমপি কানাডীয় আদালতে মামলা করে। ২০১২ সালের ২৮ জুন বিশ্বব্যাংকের তৎকালীন প্রেসিডেন্ট রবার্ট জয়েলিক পদ্মাসেতুর ঋণ চুক্তি বাতিল করলে অন্যান্য উন্নয়ন সহযোগীও প্রকল্প থেকে সরে দাঁড়ায়।

উন্নয়নসহযোগীদের ফেরানোর প্রচেষ্টা

বিশ্বব্যাংককে পদ্মাসেতু প্রকল্পে ফিরিয়ে আনতে বাংলাদেশ সরকার বিশ্বব্যাংকের কঠিন শর্তে রাজি হয়ে যায়। তখনকার সেতু সচিব মোশারফ হোসেন ভুঁইয়াকে বাধ্যতামূলক ছুটিতে পাঠানো হয় এবং যোগাযোগমন্ত্রী সৈয়দ আবুল হোসেনকে পদত্যাগ করানো হয়। দুর্নীতি দমন কমিশন তদন্ত শুরু করে এবং বিশ্বব্যাংক নিয়োজিত তিন সদস্যবিশিষ্ট শক্তিশালী আইনজ্ঞ প্যানেলের চাপে কয়েকজন কর্মকর্তার বিরুদ্ধে মামলা করে। বিশ্বব্যাংক দুদকের কাজে সন্তুষ্ট হয় না। তারা সাবেক যোগাযোগমন্ত্রী সৈয়দ আবুল হোসেন, সাবেক প্রতিমন্ত্রী আবুল হাসান চৌধুরী এবং প্রধানমন্ত্রীর অর্থনৈতিক উপদেষ্টা ড. মসিউর রহমানের বিরুদ্ধেও মামলা করতে বলে। কিন্তু বিশ্বব্যাংক প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী পদ্মাসেতুর কাজে ফিরে আসেনি।

প্রধানমন্ত্রীর দৃঢ় সিদ্ধান্ত

বিশ্বব্যাংকের গড়িমসির কারণে ২০১৩ সালের ৩১ জানুয়ারি প্রধানমন্ত্রী বিশ্বব্যাংকের ঋণ প্রত্যাখ্যান করে নিজস্ব অর্থায়নে পদ্মাসেতু নির্মাণের ঘোষণা দেন। ২০১৫ সালে সেতুর কাজ উদ্বোধন। ২০১৭ সালে নদীর বুকে পদ্মাসেতুর প্রথম স্প্যান স্থাপিত হয়। সবশেষ গত বছরের ১০ ডিসেম্বর ৪১তম তথা শেষ স্প্যানটি বসানোর মাধ্যমে পূর্ণাঙ্গ রূপ নিয়ে এখন পদ্মার বুকে দৃশ্যমান পুরো পদ্মাসেতু।

আরও পড়ুন
জাতীয় বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
  • ১৩ এপ্রিল পর্যন্ত চলবে চলমান লকডাউন : কাদের

  • করোনায় স্বাস্থ্যসেবা সমন্বয়ে ৬৪ জেলার দায়িত্বে ৬৪ সচিব

  • চাইলে বাংলাদেশকে টিকা দেবে যুক্তরাষ্ট্র

  • পদ্মা সেতুর অগ্রগতি ৯৩ শতাংশের বেশি

  • মুজিব নগর সরকারের দলিল পত্রসমূহ

  • ইসলামের জন্য বঙ্গবন্ধু ও শেখ হাসিনার ঐতিহাসিক অবদান

  • গণভবনে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে জন কেরির সৌজন্য সাক্ষাৎ

  • রাজধানীর দুই এলাকায় করোনার সর্বাধিক সংক্রমণ

  • চলতি বছরই ২০ লাখের বেশি কর্মসংস্থান: পলক

  • ‘বঙ্গবন্ধুর স্বাধীনতার ঘোষণাই বাংলাদেশের অভ্যুদয়ের ভিত্তি’

  • দেশে অরাজকতার চেষ্টা করলে ব্যবস্থা নেবে সরকার: আইনমন্ত্রী

  • স্বাধীন সার্বভৌম বাংলাদেশ সরকার গঠিত হয় একাত্তরের ১০ এপ্রিল

  • ‘নিরাপদ মহাসড়ক নেটওয়ার্ক গড়ে তুলতে কাজ করছে সরকার’

  • বইমেলা শেষ হচ্ছে ১২ এপ্রিল: সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী

  • বহুমুখী প্রকল্পে বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাতে বিপ্লব

  • করোনার ইস্যুতে ৬৪ জেলার দায়িত্ব পেলেন ৬৪ সচিব

  • সাংবাদিক হাসান শাহরিয়ারের মৃত্যুতে প্রধানমন্ত্রীর শোক

  • কাস্টমস ও ভ্যাট: করোনাকালেও চলছে ২৪ ঘণ্টা সেবা

  • ভোক্তাপর্যায়ে এলপিজির দাম ঘোষণা সোমবার

  • নদীর বুকে পুকুর-ফসলি জমি

  • যৌবন ফিরেছে তিস্তায়, কৃষক-জেলেদের স্বস্তি

  • মুড়ির গ্রাম তিমিরকাঠি, ঘরে ঘরে ব্যস্ততা

  • ১৭২ কোটি ব্যয়ে বিষমুক্ত সবজি উৎপাদনে বিপ্লব

  • আগাম পাহাড়ি কাঁঠালে বাড়ছে চাহিদা

  • আইসিটি খাতকে জরুরি সেবার আওতায় দেখতে চান উদ্যোক্তারা

  • বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ বেড়েছে ৫৩২ শতাংশ

  • বোরো সংগ্রহে ব্যবহার হবে আধুনিক কৃষিযন্ত্র

  • উত্তরা থেকে আগারগাঁও পর্যন্ত মেট্রোরেলের অগ্রগতি ৮৪ শতাংশ

  • শিমের লবণসহিষ্ণু নতুন জাত উদ্ভাবন

  • এবার ভারত থেকে জি-টু-জিতে চাল আমদানির সিদ্ধান্ত

  • মধুমতিতে নির্মিত হচ্ছে  ৬ লেনের সেতু

  • ২৫ মিনিটে প্রদক্ষিণ করা যাবে ঢাকা

  • রাজধানীতে নামছে ৬০টি দ্বিতল বাস

  • লকডাউনে থেমে নেই মেগা প্রকল্পগুলো

  • মাঠজুড়ে বোরো ধানের সবুজ সমারোহ

  • গণপরিবহন চলাচলে নিষেধাজ্ঞা 

  • মসজিদে নামাজ আদায়ে নতুন নির্দেশনা

  • তারাগঞ্জে সূর্যমুখীর চাষ বেড়েছে 

  • করোনা সংক্রমণ রোধে ফুলহাতা শার্ট পরার নির্দেশ পুলিশের

  • দেশের বাইরেও খ্যাতি ছড়িয়েছে চট্টগ্রামের ঐতিহ্যবাহী ‘মেজবান’

  • যানজট নিরসনে ঢাকায় হবে ৬১ কিলোমিটার পাতাল রেল

  • ১১ নির্দেশনা দিয়ে লকডাউনের প্রজ্ঞাপন, না মানলে আইনি ব্যবস্থা

  • জোর করে ঘরে রাখার চেয়ে সচেতনতা বৃদ্ধির চেষ্টা করছি

  • লকডাউন শুরু

  • সোলার প্ল্যান্টে সেচ সুবিধা, কৃষিতে নতুন সম্ভাবনা

  • উৎসব-নববর্ষ-বিজয় দিবস ভাতা পাবেন সব বীর মুক্তিযোদ্ধা

  • লকডাউনে ব্যাংক লেনদেন আড়াই ঘণ্টা

  • শতবর্ষী ঐতিহ্য, আতাইকুলার লুঙ্গি-গামছার হাট

  • পদ্মা সেতুর অগ্রগতি ৯৩ শতাংশের বেশি

  • বুধবার থেকে চলবে গণপরিবহন

  • আন্তরিকভাবে কাজ করতে এনএসআই’র প্রতি আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

  • করোনা টেস্টের ফি দেওয়া যাচ্ছে ‘নগদ’-এ

  • বাম্পার ফলনের তরমুজ নিয়ে বিপাকে চাষি

  • মেগা প্রকল্পে বদলাচ্ছে দক্ষিণাঞ্চল

  • উন্নয়নের পূর্বশর্ত হলো শান্তি শৃঙ্খলা বজায় রাখা: প্রধানমন্ত্রী

  • রোহিঙ্গাদের প্রতি অসাধারণ মানবতায় কৃতজ্ঞ বাইডেন

  • রাঙামাটিতে তরমুজের ফলন ভালো, খুশি কৃষক-ব্যবসায়ী 

  • হাজারো মানুষের ভাগ্য বদলে দিয়েছে যে বন্দর

  • অবশেষে চালু হলো গঙ্গা-কপোতাক্ষ সেচ প্রকল্প

  • কাল থেকে গণপরিবহন বন্ধ : সেতুমন্ত্রী