বৃহস্পতিবার   ২৪ অক্টোবর ২০১৯

ব্রেকিং:
সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোর বার্ষিক ছুটি ৭৫ দিন আগামী মার্চে ঢাকা উত্তর সিটির ভোটের ইঙ্গিত সিইসির জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় পরিদর্শনে প্রধানমন্ত্রী আস্থা ভোটে টিকে গেলেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে রাষ্ট্রপতির সঙ্গে নেপালের বিদায়ী রাষ্ট্রদূতের সাক্ষাৎ খালেদার অনুপস্থিতিতেই কারাগারে বিচার চলবে রব ও মান্নার বিয়ে যুক্তফ্রন্টে, পরকীয়া ঐক্যফ্রন্টে: মাহী এটা জোট নয়, ঘোট : তথ্যমন্ত্রী যুক্তরাষ্ট্রে রাজনৈতিক আশ্রয় পেলেন সিনহা আবারও সরকার গঠনে নৌকায় ভোট দেয়ার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর পদ্মা সেতু প্রকল্পের নামফলক উন্মোচন করলেন প্রধানমন্ত্রী
৭৪১

নারীর ক্ষমতায়নে আওয়ামী লীগ সরকারের অবদান

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ২ অক্টোবর ২০১৮  

বাংলাদেশে নারীর ক্ষমতায়ন একটি গুরুত্বপূর্ণ ধাপে এসে পৌঁছেছে। শুরুটা সেই ২০০৯’র মহাজোট সরকারের আমল থেকে। ক্রমান্বয়ে এ অগ্রযাত্রা আজ বিশ্ব স্বীকৃত। নারীর অগ্রযাত্রা ও ক্ষমতায়নে বাংলাদেশ এখন বিশ্বের বুকে রোল মডেল।

অর্থনৈতিক অংশগ্রহণ, শিক্ষা, স্বাস্থ্য ও রাজনীতিতে নারী-পুরুষ সমতা নিশ্চিত করার ক্ষেত্রে দেশটির উন্নতি অভূতপূর্ব, মন্তব্য ওয়ার্ল্ড ইকোনোমিক ফোরামের (ডব্লিউইএফ)। তারা বাংলাদেশকে নারীর উন্নয়নে একটি আদর্শ দেশ হিসেবে চিহ্নিত করেছে। গত বছর অর্থাৎ, ২০১৪ সালে ডব্লিউইএফ’র লিঙ্গ বৈষম্য সূচকের বার্ষিক প্রতিবেদনে ১৪২টি দেশের মধ্যে ৬৮তম স্থান দখল করে বাংলাদেশ। ২০১৩ সালে ১৩৬ দেশের মধ্যে বাংলাদেশের অবস্থান ছিল ৭৫। তারও আগে ২০১২ সালে ছিল ৮৬ এবং ২০০৯ সালে ৯৩। পরিসংখ্যানই বলে দিচ্ছে ক্রমাগত উন্নতির দিকে বাংলাদেশ, কমছে নারী-পুরুষের বৈষম্য। এশিয়ার মধ্যে ভারত, পাকিস্তান, জাপানকে পেছনে ফেলে বাংলাদেশের এই অর্জন। ডব্লিউইএফ’র তথ্যমতে, ২০১৩ সালের সূচকে ভারতের অবস্থান ছিল ১০১, পাকিস্তান ১৩৫, জাপান ১০৫ ও চীন ৬৯। রাজনীতিতে অংশগ্রহণ, অর্থনৈতিক সমতা, শিক্ষা এবং স্বাস্থ্যসেবা প্রাপ্যতার ভিত্তিতে ২০০৬ সাল থেকে এ তালিকা প্রকাশ করে আসছে ডব্লিউইএফ।

সার্বিকভাবে লিঙ্গ বৈষম্যের দিক দিয়ে বাংলাদেশ ১১১তম, যেখানে পাকিস্তান ১২৩ এবং ভারত ১৩৩ নম্বরে। এই সূচকে এশিয়ার মধ্যে বাংলাদেশের অবস্থান সুদৃঢ়। বিষয়টিতে আরও এগিয়ে যাচ্ছে দেশ। রাজনীতিতে লিঙ্গ বৈষম্য হ্রাস করে আঞ্চলিক নেতৃত্বে সাফল্যের জন্য বাংলাদেশ মর্যাদাপূর্ণ ওমেন ইন পার্লামেন্টস (ডব্লিউআইপি) গ্লোবাল ফোরাম অ্যাওয়ার্ড লাভ করেছে। দক্ষিণ ও দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া অঞ্চলের জোনাল ক্যাটাগরিতে রাজনীতিতে লিঙ্গ বৈষম্য কমিয়ে আনায় অসামান্য অবদানের জন্য বাংলাদেশ এ বিজয় গৌরব অর্জন করে। ইথিওপিয়ার আদ্দিস আবাবায় আফ্রিকান ইউনিয়নের সদর দফতরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পক্ষে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম চলতি বছরের মার্চে এ পুরস্কার গ্রহণ করেন। যা বাংলাদেশের জন্য একটি বিরাট সম্মান। এটি নারী উন্নয়নে কাজ করে অন্তর্জাতিক বড় বড় স্বীকৃতিগুলোর একটি।

বাল্যবিয়ে রোধ করে শিক্ষা গ্রহণে আগ্রহী করতে বিভিন্ন পদক্ষেপ নেওয়া, অসহায়-অবহেলিত-প্রতিবন্ধী নারীদের সামাজিক নিরাপত্তা বলয়ের আওতায় নিয়ে আসা, নারীর প্রতি সহিংসতা রোধে কর্মযজ্ঞ, নারীদের দক্ষতা বাড়াতে কার্যক্রম পরিচালনা, তৃণমূল নারীদের বাণিজ্যিকভাবে পণ্য উৎপাদন ও বিপণনের জন্য জয়িতা ফাউন্ডেশন (কার্যক্রম পর্যায়ক্রমে বিভাগীয়, জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে সম্প্রসারিত করা হয়েছে) কাজ করছে। এছাড়াও নারীদের ড্রাইভিং, ক্যাটারিং প্রশিক্ষণসহ আইসিটি সেক্টরেও কাজের সুযোগ তৈরি হয়েছে।

আমাদের দেশের প্রথম ও দ্বিতীয় বৃহত্তম দলের প্রধান নারী। প্রধানমন্ত্রীও নারী। বিরোধীদলের নেতাও নারী। অপর একটি বড় রাজনীতিক দলের প্রধানও নারী। তিনিও সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও বিরোধীদলের নেত্রী ছিলেন। স্পিকারও নারী। বাকি আছে একজন নারী প্রেসিডেন্ট করার। সেটাও হয়তো যেকোন সময় হয়ে যেতে পারে। বাংলাদেশের শীর্ষ-পর্যায়ে নারীরা নেতৃত্ব দিচ্ছেন। এখন সচিব, বিচারপতিও নারী আছেন। এছাড়াও বিভিন্ন সেক্টরে নারীরা ক্রমশ এগিয়ে যাচ্ছেন। সেনাবাহিনী ও পুলিশেও নারীরা ভালো করছেন। বাংলাদেশ সেনাবাহিনীতে প্রথমবারের মতো মেজর জেনারেল পদে একজন নারীকে প্রমোশন দেওয়া হয়েছে। একটা সময় এ অবস্থা ছিল না। অনেক কষ্ট করেই আমাদের এখানে আসতে হয়েছে। সমাজে নারীর ক্ষমতায়নের ব্যাপারে অনেকেই বিস্মিত হয়। এ ব্যাপারে সবচেয়ে বেশি কৌতূহলী জিজ্ঞাসার সম্মুখীন হতে হয় বিদেশে।

২০০৯ খ্রিস্টাব্দে ক্ষমতা গ্রহণের পর শেখ হাসিনার সরকার নারী উন্নয়নের জন্য নানাবিধ কর্মসূচি ও প্রকল্প গ্রহণ শুরু করেন। বাংলাদেশ সরকারের ষষ্ঠ পঞ্চবার্ষিক পরিকল্পনা (২০১১-২০১৫), যেখানে জাতীয়, মাঝারি পর্যায়ের উন্নয়ন-পরিকল্পনায় বাংলাদেশকে ২০২১ সাল (ভিশন ২০২১ নামেও পরিচিত) নাগাদ একটি মধ্য আয়ের রাষ্ট্র হিসাবে গড়ে তোলায় অঙ্গীকারবদ্ধ, নারীকে রাজনীতিক ও আর্থনীতিক কর্মকাণ্ড সম্পৃক্ত করাকে নারীর ক্ষমতায়নের প্রধানতম চালিকাশক্তি হিসাবে বিবেচনায় আনা হয়েছে। শেখ হাসিনা নারীর কার্যকর ক্ষমতায়নের লক্ষ্যে নানা উদ্যোগ গ্রহণ করেন। ইতোমধ্যে অর্থনৈতিক এবং সামাজিক উদ্যোগ, মাতৃত্ব ও স্বাস্থ্য, শিক্ষা, জাতীয় নারী উন্নয়ন নীতি ২০১১, নারীর প্রতি সহিংসতা দমন, অকাল এবং বাল্যবিবাহের সমাপ্তি, রাজনীতি, প্রশাসন এবং নিরাপত্তায় প্রভৃতিতে নারীরা উল্লেখযোগ্য।

লিঙ্গ-সমতা স্থাপনের অন্যতম নিয়ামক রাজনীতিক ক্ষমতায় নারী-পুরুষের আনুপাতিক অবস্থান। এক্ষেত্রে বাংলাদেশ সারাবিশ্বে সৃষ্টি করেছে অনুকরণীয় দৃষ্টান্ত। বিশ্ব আর্থনীতিক ফোরাম প্রকাশিত গ্লোবাল জেন্ডার গ্যাপ রিপোর্ট ২০১৩ অনুযায়ী, ১৩৬টি দেশের মধ্যে লিঙ্গবৈষম্য নিরসনে বাংলাদেশের অবস্থান ৭৫তম, যা ১০ বছরে এগিয়েছে ১১ ধাপ। অন্যদিকে শুধু রাজনীতিক ক্ষমতায়নে নারীর অংশগ্রহণের বিষয় বিবেচনায় বাংলাদেশের স্থান পৃথিবীর মধ্যে অষ্টম। যা ১৯৯১ খ্রিস্টাব্দ থেকে পর্যায়ক্রমে দুই নেত্রীর রাজনীতিক ক্ষমতায় থাকা এবং সংসদে নারীর অংশগ্রহণ বৃদ্ধি পেয়ে ২০ শতাংশে পৌঁছানোর কারণে সম্ভব হয়েছে।

আরও পড়ুন
বাংলার উন্নয়ন বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
  • ‘বিশ্ব পোলিও দিবস’ আজ

  • জামালপুর থেকে অনলাইন ক্যাসিনোর ৫ সদস্য আটক

  • পাকিস্তান সফরে যশোরের মেয়ে নারী ক্রিকেট দলের মেঘলা

  • ম্যাজিস্ট্রেটের ওপর জেলেদের হামলা, পুলিশসহ ১২ জন আহত

  • ইতিহাসের অপেক্ষায় মৌসুমী

  • মিষ্টি দোকান থেকে বেরিয়ে এলো লক্ষ লক্ষ তেলাপোকা!

  • মৌসুমী জয়ী হলে পদত্যাগ করবেন সবাই

  • রণবীর-আলিয়ার বিয়ে ২২ জানুয়ারি

  • বাগাতিপাড়ায় পিকআপের তাণ্ডবে আহত ১০

  • নভেম্বরে শুরু হচ্ছে ঢাকা ফোকফেস্ট

  • সাভারে সাংবাদিক পরিচয়ে চাঁদাবাজি, আটক ২

  • ভয়ঙ্কর ধর্ষণের শিকার চলচ্চিত্র পরিচালক

  • মা হলেন নায়িকা রুমানা

  • এবার ফোকফেস্ট মাতাবেন ২ শতাধিক শিল্পী

  • ডিভোর্স লেটার পাননি বলে জানালেন অভিনেতা সিদ্দিক

  • বিসিসিআইর সিংহাসনে সৌরভ গাঙ্গুলি

  • জয়ে ফিরেছে ভারতের মোহনবাগান

  • দুর্দান্ত জয়ে ধারাবাহিক চট্টগ্রাম আবাহনী

  • প্রধানমন্ত্রীর উপপ্রেস সচিব আশরাফুল আলম খোকনের আজ জন্মদিন

  • জাতিসংঘ দিবস আজ

  • অবশেষে কার্যকর হচ্ছে সড়ক পরিবহন আইন

  • আপত্তিকর অবস্থায় আটক সেই পুলিশ কর্মকর্তা প্রত্যাহার

  • আপাতত আমরা খুশি, বললেন সাকিব

  • নুসরাত হত্যার রায় আজ

  • অতিরিক্ত সচিব হলেন ১৫৬ কর্মকর্তা

  • প্রথম ‘মিস ইউনিভার্স বাংলাদেশ’ হলেন শিলা

  • সাকিবদের সব দাবি মেনে নিয়েছে বিসিবি

  • কক্সবাজারের ডিসির বিরুদ্ধে দুপুরে মামলা, বিকালে খারিজ

  • দ. আফ্রিকায় ডাকাতের দেয়া আগুনে শিবচরের যুবকের মৃত্যু

  • জাতিসংঘ দফতরের সামনে গায়ে আগুন

  • আজ ‘কুড়িগ্রাম এক্সপ্রেস’ ও ১৩টি সেতু উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী

  • মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষায় দেশসেরা রংপুরের রাগীব নূর

  • অনলাইনে সরকারি সেবা দিতে ‘একপে’, ‘একসেবা’ ও ‘একশপ’-এর যাত্রা শুরু

  • ২০১৯ সালে বিশ্বে তৃতীয় সর্বোচ্চ প্রবৃদ্ধি বাংলাদেশে: আইএমএফ

  • বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত ১৫৭ পরিবার পেল অর্থ সহায়তা ও বীজ

  • এক মিনিটেই ‘নগদ’ হিসাব

  • ২৮৪ কোটি টাকা ব্যয়ে ঝুঁকিপূর্ণ শিশুশ্রম নিরসন প্রকল্প গ্রহণ 

  • পর্যটন শিল্প বিকাশে অবদান রাখবে পটিয়া বাইপাস সড়ক

  • ভুলতা উড়ালসড়কের উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী

  • প্রকাশ পেল ‌‌‘আহাদ ফাহিম’ এর গান ‘আমি মিথ্যে বলিনি’ এর ভিডিও

  • দ্রুত এগুচ্ছে ৬ লেনের মাতামুহুরী সেতুর নির্মাণকাজ

  • দেশকে শীর্ষ পঞ্চাশে নেওয়ার লক্ষ্য জয়ের

  • ‘সাড়ে ২২ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন হচ্ছে’

  • ‘সবচেয়ে সুবিধাজনক অবস্থায় বাংলাদেশের অর্থনীতি’

  • আগামী প্রজন্মকে পরিচ্ছন্ন হয়ে ওঠার আহ্বান স্থানীয় সরকারমন্ত্রীর

  • নতুন ঘর পাবেন ১৫ হাজার মুক্তিযোদ্ধাঃ  মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী

  • নদীর ভাঙন রোধে কাজ করছে সরকার: পানি সম্পদ উপমন্ত্রী

  • ২০১৮-১৯ অর্থবছরে সরকারের যত অর্জন

  • ‘চরের মানুষ পাকা রাস্তা,পড়ালেখার জন্য স্কুল-মাদ্রাসা পেয়েছে’

  • ডিজিটাল বাংলাদেশ এখন স্বপ্ন নয় বাস্তবঃ জয়

  • মুসলিমবান্ধব পর্যটন বিকাশে বাংলাদেশ আদর্শ: পর্যটন প্রতিমন্ত্রী

  • যানজট নিরসনে ঢাকায় আরও ২টি মেট্রোরেলের প্রকল্প অনুমোদন

  • রাজধানীর কারওয়ান বাজারে ১৬৫ ভাসমান স্থাপনা উচ্ছেদ

  • যুবলীগ চেয়ারম্যানকে অব্যাহতি, চয়ন আহ্বায়ক ও হারুন সদস্য সচিব

  • ‘‌আমাকে কবর থেকে বের করো, এখানে ভীষণ অন্ধকার’‌

  • মুন্সিগঞ্জের ১৩ সেতুর উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী

  • ক্যাসিনো সংশ্নিষ্টতা পেলেই আইনি ব্যবস্থা: তথ্যমন্ত্রী

  • এক বাঘিনীর জন্য দুই বাঘের তুমুল লড়াই

  • বরিশালে ৪শ কেজি অবৈধ পলিথিনসহ আটক ২

  • এমপিওভুক্তি: অগ্রাধিকার পাবে প্রত্যন্ত অঞ্চল: শিক্ষামন্ত্রী