সোমবার   ২৭ জানুয়ারি ২০২০

ব্রেকিং:
সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোর বার্ষিক ছুটি ৭৫ দিন আগামী মার্চে ঢাকা উত্তর সিটির ভোটের ইঙ্গিত সিইসির জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় পরিদর্শনে প্রধানমন্ত্রী আস্থা ভোটে টিকে গেলেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে রাষ্ট্রপতির সঙ্গে নেপালের বিদায়ী রাষ্ট্রদূতের সাক্ষাৎ খালেদার অনুপস্থিতিতেই কারাগারে বিচার চলবে রব ও মান্নার বিয়ে যুক্তফ্রন্টে, পরকীয়া ঐক্যফ্রন্টে: মাহী এটা জোট নয়, ঘোট : তথ্যমন্ত্রী যুক্তরাষ্ট্রে রাজনৈতিক আশ্রয় পেলেন সিনহা আবারও সরকার গঠনে নৌকায় ভোট দেয়ার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর পদ্মা সেতু প্রকল্পের নামফলক উন্মোচন করলেন প্রধানমন্ত্রী
৮১৪

নারীর ক্ষমতায়নে আওয়ামী লীগ সরকারের অবদান

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ২ অক্টোবর ২০১৮  

বাংলাদেশে নারীর ক্ষমতায়ন একটি গুরুত্বপূর্ণ ধাপে এসে পৌঁছেছে। শুরুটা সেই ২০০৯’র মহাজোট সরকারের আমল থেকে। ক্রমান্বয়ে এ অগ্রযাত্রা আজ বিশ্ব স্বীকৃত। নারীর অগ্রযাত্রা ও ক্ষমতায়নে বাংলাদেশ এখন বিশ্বের বুকে রোল মডেল।

অর্থনৈতিক অংশগ্রহণ, শিক্ষা, স্বাস্থ্য ও রাজনীতিতে নারী-পুরুষ সমতা নিশ্চিত করার ক্ষেত্রে দেশটির উন্নতি অভূতপূর্ব, মন্তব্য ওয়ার্ল্ড ইকোনোমিক ফোরামের (ডব্লিউইএফ)। তারা বাংলাদেশকে নারীর উন্নয়নে একটি আদর্শ দেশ হিসেবে চিহ্নিত করেছে। গত বছর অর্থাৎ, ২০১৪ সালে ডব্লিউইএফ’র লিঙ্গ বৈষম্য সূচকের বার্ষিক প্রতিবেদনে ১৪২টি দেশের মধ্যে ৬৮তম স্থান দখল করে বাংলাদেশ। ২০১৩ সালে ১৩৬ দেশের মধ্যে বাংলাদেশের অবস্থান ছিল ৭৫। তারও আগে ২০১২ সালে ছিল ৮৬ এবং ২০০৯ সালে ৯৩। পরিসংখ্যানই বলে দিচ্ছে ক্রমাগত উন্নতির দিকে বাংলাদেশ, কমছে নারী-পুরুষের বৈষম্য। এশিয়ার মধ্যে ভারত, পাকিস্তান, জাপানকে পেছনে ফেলে বাংলাদেশের এই অর্জন। ডব্লিউইএফ’র তথ্যমতে, ২০১৩ সালের সূচকে ভারতের অবস্থান ছিল ১০১, পাকিস্তান ১৩৫, জাপান ১০৫ ও চীন ৬৯। রাজনীতিতে অংশগ্রহণ, অর্থনৈতিক সমতা, শিক্ষা এবং স্বাস্থ্যসেবা প্রাপ্যতার ভিত্তিতে ২০০৬ সাল থেকে এ তালিকা প্রকাশ করে আসছে ডব্লিউইএফ।

সার্বিকভাবে লিঙ্গ বৈষম্যের দিক দিয়ে বাংলাদেশ ১১১তম, যেখানে পাকিস্তান ১২৩ এবং ভারত ১৩৩ নম্বরে। এই সূচকে এশিয়ার মধ্যে বাংলাদেশের অবস্থান সুদৃঢ়। বিষয়টিতে আরও এগিয়ে যাচ্ছে দেশ। রাজনীতিতে লিঙ্গ বৈষম্য হ্রাস করে আঞ্চলিক নেতৃত্বে সাফল্যের জন্য বাংলাদেশ মর্যাদাপূর্ণ ওমেন ইন পার্লামেন্টস (ডব্লিউআইপি) গ্লোবাল ফোরাম অ্যাওয়ার্ড লাভ করেছে। দক্ষিণ ও দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া অঞ্চলের জোনাল ক্যাটাগরিতে রাজনীতিতে লিঙ্গ বৈষম্য কমিয়ে আনায় অসামান্য অবদানের জন্য বাংলাদেশ এ বিজয় গৌরব অর্জন করে। ইথিওপিয়ার আদ্দিস আবাবায় আফ্রিকান ইউনিয়নের সদর দফতরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পক্ষে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম চলতি বছরের মার্চে এ পুরস্কার গ্রহণ করেন। যা বাংলাদেশের জন্য একটি বিরাট সম্মান। এটি নারী উন্নয়নে কাজ করে অন্তর্জাতিক বড় বড় স্বীকৃতিগুলোর একটি।

বাল্যবিয়ে রোধ করে শিক্ষা গ্রহণে আগ্রহী করতে বিভিন্ন পদক্ষেপ নেওয়া, অসহায়-অবহেলিত-প্রতিবন্ধী নারীদের সামাজিক নিরাপত্তা বলয়ের আওতায় নিয়ে আসা, নারীর প্রতি সহিংসতা রোধে কর্মযজ্ঞ, নারীদের দক্ষতা বাড়াতে কার্যক্রম পরিচালনা, তৃণমূল নারীদের বাণিজ্যিকভাবে পণ্য উৎপাদন ও বিপণনের জন্য জয়িতা ফাউন্ডেশন (কার্যক্রম পর্যায়ক্রমে বিভাগীয়, জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে সম্প্রসারিত করা হয়েছে) কাজ করছে। এছাড়াও নারীদের ড্রাইভিং, ক্যাটারিং প্রশিক্ষণসহ আইসিটি সেক্টরেও কাজের সুযোগ তৈরি হয়েছে।

আমাদের দেশের প্রথম ও দ্বিতীয় বৃহত্তম দলের প্রধান নারী। প্রধানমন্ত্রীও নারী। বিরোধীদলের নেতাও নারী। অপর একটি বড় রাজনীতিক দলের প্রধানও নারী। তিনিও সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও বিরোধীদলের নেত্রী ছিলেন। স্পিকারও নারী। বাকি আছে একজন নারী প্রেসিডেন্ট করার। সেটাও হয়তো যেকোন সময় হয়ে যেতে পারে। বাংলাদেশের শীর্ষ-পর্যায়ে নারীরা নেতৃত্ব দিচ্ছেন। এখন সচিব, বিচারপতিও নারী আছেন। এছাড়াও বিভিন্ন সেক্টরে নারীরা ক্রমশ এগিয়ে যাচ্ছেন। সেনাবাহিনী ও পুলিশেও নারীরা ভালো করছেন। বাংলাদেশ সেনাবাহিনীতে প্রথমবারের মতো মেজর জেনারেল পদে একজন নারীকে প্রমোশন দেওয়া হয়েছে। একটা সময় এ অবস্থা ছিল না। অনেক কষ্ট করেই আমাদের এখানে আসতে হয়েছে। সমাজে নারীর ক্ষমতায়নের ব্যাপারে অনেকেই বিস্মিত হয়। এ ব্যাপারে সবচেয়ে বেশি কৌতূহলী জিজ্ঞাসার সম্মুখীন হতে হয় বিদেশে।

২০০৯ খ্রিস্টাব্দে ক্ষমতা গ্রহণের পর শেখ হাসিনার সরকার নারী উন্নয়নের জন্য নানাবিধ কর্মসূচি ও প্রকল্প গ্রহণ শুরু করেন। বাংলাদেশ সরকারের ষষ্ঠ পঞ্চবার্ষিক পরিকল্পনা (২০১১-২০১৫), যেখানে জাতীয়, মাঝারি পর্যায়ের উন্নয়ন-পরিকল্পনায় বাংলাদেশকে ২০২১ সাল (ভিশন ২০২১ নামেও পরিচিত) নাগাদ একটি মধ্য আয়ের রাষ্ট্র হিসাবে গড়ে তোলায় অঙ্গীকারবদ্ধ, নারীকে রাজনীতিক ও আর্থনীতিক কর্মকাণ্ড সম্পৃক্ত করাকে নারীর ক্ষমতায়নের প্রধানতম চালিকাশক্তি হিসাবে বিবেচনায় আনা হয়েছে। শেখ হাসিনা নারীর কার্যকর ক্ষমতায়নের লক্ষ্যে নানা উদ্যোগ গ্রহণ করেন। ইতোমধ্যে অর্থনৈতিক এবং সামাজিক উদ্যোগ, মাতৃত্ব ও স্বাস্থ্য, শিক্ষা, জাতীয় নারী উন্নয়ন নীতি ২০১১, নারীর প্রতি সহিংসতা দমন, অকাল এবং বাল্যবিবাহের সমাপ্তি, রাজনীতি, প্রশাসন এবং নিরাপত্তায় প্রভৃতিতে নারীরা উল্লেখযোগ্য।

লিঙ্গ-সমতা স্থাপনের অন্যতম নিয়ামক রাজনীতিক ক্ষমতায় নারী-পুরুষের আনুপাতিক অবস্থান। এক্ষেত্রে বাংলাদেশ সারাবিশ্বে সৃষ্টি করেছে অনুকরণীয় দৃষ্টান্ত। বিশ্ব আর্থনীতিক ফোরাম প্রকাশিত গ্লোবাল জেন্ডার গ্যাপ রিপোর্ট ২০১৩ অনুযায়ী, ১৩৬টি দেশের মধ্যে লিঙ্গবৈষম্য নিরসনে বাংলাদেশের অবস্থান ৭৫তম, যা ১০ বছরে এগিয়েছে ১১ ধাপ। অন্যদিকে শুধু রাজনীতিক ক্ষমতায়নে নারীর অংশগ্রহণের বিষয় বিবেচনায় বাংলাদেশের স্থান পৃথিবীর মধ্যে অষ্টম। যা ১৯৯১ খ্রিস্টাব্দ থেকে পর্যায়ক্রমে দুই নেত্রীর রাজনীতিক ক্ষমতায় থাকা এবং সংসদে নারীর অংশগ্রহণ বৃদ্ধি পেয়ে ২০ শতাংশে পৌঁছানোর কারণে সম্ভব হয়েছে।

বাংলার উন্নয়ন বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
  • গ্রাহককে জিম্মি করে কোটিপতি ইভ্যালি

  • আতিকুলের ইশতেহার ঘোষণা

  • সুপ্রিম কোর্টে বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকীর ক্ষণগণনা শুরু

  • বাণিজ্য মেলায় জমে উঠেছে শেষ মুহূর্তের কেনাকাটা

  • ৪৮ নম্বর ওয়ার্ডে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী বহিষ্কার

  • পার্বত্য চট্টগ্রামে শান্তি চুক্তি বাস্তবায়নে সরকার আন্তরিক

  • ‘নির্বাচনী প্রচারণায় সংঘর্ষে তদন্ত করে ব্যবস্থা’

  • দুই সিটি নির্বাচনে ১২৯ ম্যাজিস্ট্রেট নিয়োগ

  • জমাদিউস সানি শুরু আজ

  • ‘ভারতের এনআরসি ইস্যুতে বাংলাদেশে প্রভাব পড়বে না’

  • একগুচ্ছ উন্নয়ন প্রকল্প উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী

  • তাপসের প্রচারণা ক্যাম্পে ইশরাক সমর্থকদের গুলি, আহত ১৭

  • ‘নির্বাচন বানচাল করতেই বিএনপির হামলা’

  • ডিজিটাল ও গ্রিন ভোটিং সফল হোক

  • ‌‘ইভিএমে অনৈতিক কাজ কোনোভাবে সম্ভব নয়’

  • ইভিএমসহ ভোটের পরিস্থিতি চার রাষ্ট্রদূতকে জানালো ইসি

  • সাময়িক স্থগিত হতে পারে বাংলাদেশ-চীন গমনাগমন

  • তৃণমূলের উন্নয়ন ছাড়া দেশের উন্নয়ন সম্ভব নয়: প্রধানমন্ত্রী

  • বিএনপি সাম্প্রদায়িক রাজনীতির পৃষ্ঠপোষক, বললেন কাদের

  • ভোটার তালিকা হালনাগাদে সময় বাড়িয়ে বিল পাস

  • পুকুর খনন করায় জরিমানা

  • ‘প্রবাসে কারিগরি শিক্ষার মূল্যায়ন বেশি’

  • কুমিল্লায় পুকুরে মিলল অবিস্ফোরিত মর্টার শেল

  • পুলিশ হয়রানি করলে ৯৯৯-এ কল দিন, বললেন আইজিপি

  • করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগীকে জরিমানা, হতে পারে জেল

  • ৫৫ লাখ টাকাসহ প্রতারক গ্রেফতার

  • রাজধানীতে ১৩ রোহিঙ্গা নারী উদ্ধার, গ্রেফতার ২

  • বৃহস্পতিবার ঢাকাবাসীকে ইভিএমের ব্যবহার শেখাবে ইসি

  • সরকারের ওপর দেশের জনগণের ৮৫ শতাংশই সন্তুষ্ট

  • শেখ হাসিনায় আস্থা ৮৬ শতাংশ জনতার, বিএনপিতে সন্তুষ্ট ৬ শতাংশ

  • ভারত শিক্ষা দিয়েছে, আর পেঁয়াজ আমদানি নয়: বাণিজ্যমন্ত্রী

  • ঈদের নাটকে নোবেল-শখের সাথে উদীয়মান আশিক

  • শেখ হাসিনা মেডিক‌্যাল কলেজ হাসপাতালসহ ৮ প্রকল্প অনুমোদন

  • মওলানা ভাসানীর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস আজ

  • অনুসৃত হোক বঙ্গবন্ধুর আদর্শ

  • ই-পাসপোর্টের জন্য ই-সিগনেচার দিলেন প্রধানমন্ত্রী

  • জেনে নিন ই-পাসপোর্ট সংগ্রহ করতে কত টাকা লাগবে

  • আইসিটি এডুকেশন অ্যাওয়ার্ড গ্রহণ করলেন প্রধানমন্ত্রী

  • বঙ্গবন্ধুর ভাষণের দিন এবারও নিউ ইয়র্কে ‘বাংলাদেশি ইমিগ্র্যান্ট ডে

  • পুরুষের চেয়ে বেশি আয়ে ৬৪ দেশের শীর্ষে বাংলাদেশের নারীরা

  • প্রধানমন্ত্রীর হাত ধরে ই-পাসপোর্ট যুগে বাংলাদেশ

  • সাকিব-শিশিরের জন্য রান্না করে পাঠালেন প্রধানমন্ত্রী

  • বঙ্গবন্ধুর সমবায় নির্দেশনায় লাভবান হবে কৃষক: প্রধানমন্ত্রী

  • ‘বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব শিল্পনগর’: অপরিকল্পিত শিল্পায়ন নিষিদ্ধ

  • মুজিববর্ষে দরিদ্র পরিবার পাবে পাকা বাড়ি

  • একনেকে ৮টি প্রকল্পটি অনুমোদন

  • প্রার্থীর ওপর হামলা রোধে ইসির ব্যবস্থা নেয়া উচিত, বললেন কাদের

  • আজ গণঅভ্যুত্থান দিবস

  • পদ্মা সেতুর ছবি নিজের ক্যামেরায় ধারণ করলেন প্রধানমন্ত্রী

  • মুজিববর্ষে বাড়ি পাবে ৬৮ হাজার দরিদ্র পরিবার

  • প্রধানমন্ত্রীর উদ্যোগে ইতিবাচক শেয়ারবাজার, বিনিয়োগকারীদের ধন্যবাদ

  • ‘প্রয়োজন হলে শিক্ষকদের বিদেশে পাঠাও’

  • ‘আবদ্ধ ঘর নির্মাণ না করে খোলামেলা ঘর নির্মাণ করতে হবে’

  • ‘বঙ্গবন্ধু পরিষদ’ ওয়েবসাইটের শুভ উদ্বোধন

  • দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন হবে দুর্নীতি মুক্ত: তাপস

  • WZPDCL to ensure 100pc electricity in its area by June

  • চালু হতে যাচ্ছে ই-পাসপোর্ট, বুধবার উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী

  • রাবেয়া-রোকেয়া ভাল আছে: প্রধানমন্ত্রী

  • মুজিববর্ষের লোগো ব্যবহারের বিশেষ নির্দেশনা

  • পদ্মায় মূল সেতুর ৮৫.৫ ভাগ কাজ সম্পন্ন