বুধবার   ০৩ জুন ২০২০

ব্রেকিং:
সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোর বার্ষিক ছুটি ৭৫ দিন আগামী মার্চে ঢাকা উত্তর সিটির ভোটের ইঙ্গিত সিইসির জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় পরিদর্শনে প্রধানমন্ত্রী আস্থা ভোটে টিকে গেলেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে রাষ্ট্রপতির সঙ্গে নেপালের বিদায়ী রাষ্ট্রদূতের সাক্ষাৎ খালেদার অনুপস্থিতিতেই কারাগারে বিচার চলবে রব ও মান্নার বিয়ে যুক্তফ্রন্টে, পরকীয়া ঐক্যফ্রন্টে: মাহী এটা জোট নয়, ঘোট : তথ্যমন্ত্রী যুক্তরাষ্ট্রে রাজনৈতিক আশ্রয় পেলেন সিনহা আবারও সরকার গঠনে নৌকায় ভোট দেয়ার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর পদ্মা সেতু প্রকল্পের নামফলক উন্মোচন করলেন প্রধানমন্ত্রী
২৫৭

ধানের ভালো দাম পেয়ে হাসি মুখে ফিরেছেন কৃষক

ডেস্ক নিউজ

প্রকাশিত: ২০ মে ২০২০  

উত্তরাঞ্চলের ধানের অন্যতম বড় মোকাম বগুড়ার নন্দীগ্রাম উপজেলার রনবাঘায় মহাসড়কের পাশে বিশাল হাট। হাটজুড়ে শুধু ধান আর ধান। করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ও লকডাউন উপেক্ষা করে ভ্যান-ভটভটিতে করে হাটে বোরো ধান বিক্রির জন্য এসেছেন কৃষক। ভালো দাম পেয়ে হাসি মুখে ফিরেছেন কৃষক। অনেকেই ধান বিক্রির টাকা দিয়ে মাছ-মাংস আর তরমুজের মতো মৌসুমি ফল কিনে বাড়ি ফিরেছেন।

শুক্রবার সকালে এই হাটে মণপ্রতি মিনিকেট হিসেবে পরিচিত সরু ধান ৯৮০ থেকে ১০১০ টাকা দরে এবং কাটারিভোগ জাতের সরু ধান ৮৫০ থেকে ৮৬০ টাকা দরে বিক্রি হয়েছে। আর ব্রি-২৮ জাতের ধান বিক্রি হচ্ছে ৭৫০ টাকা দরে।

ব্যবসায়ী ও আড়তদারেরা বলছেন, এক সপ্তাহ আগে এই হাটে মিনিকেট ও কাটারিভোগ জাতের ধানের মণপ্রতি দাম ছিল যথাক্রমে ৮৪০ থেকে ৯০০ এবং ৭৪০ থেকে ৭৫০ টাকা। আর ব্রি-২৮ জাতের ধান বিক্রি হয়েছে ৬৫০ টাকা দরে। এক সপ্তাহের ব্যবধানে সব ধরনের ধানের দাম গড়ে ১০০ টাকা করে বেড়েছে।

গত মৌসুমে কাটারিভোগ ও স্থানীয় জাতের মিনিকেট ধানের দাম ছিল গড়ে প্রতি মণ ৬০০ থেকে ৬৫০ টাকা। আর ব্রি-২৮ ধান কেনাবেচা হয়েছিল ৫২০ থেকে ৫৫০ টাকা মণ দরে।
কৃষকেরা বলছেন, গত বছরের তুলনায় এবার বাজারমূল্য ও ফলন দুটোই বেশি। গত বছর বাজারমূল্য ও ফলন দুটোই কম হওয়ায় উৎপাদন খরচ তুলতে না পেরে বিঘাপ্রতি গড়ে চার থেকে পাঁচ হাজার টাকা লোকসান হয়েছে। এবার ফলন ও দাম দুটোই ভালো পাওয়ায় লাভের মুখ দেখছেন তারা।

বগুড়া জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর সূত্রে জানা গেছে, জেলায় এবার এক লাখ ৮৮ হাজার ৬১৫ হেক্টর জমিতে বোরো ধান চাষাবাদের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে। উৎপাদন লক্ষ্যমাত্রা রয়েছে ৭ লাখ ৭৫ হাজার মেট্রিক টন। অন্যবার এপ্রিল মাসের শুরুতেই ধানকাটা-মাড়াই শুরু হতো। এবার করোনাভাইরাসের সংক্রমণে ধানকাটার শ্রমিক সংকটের কারণে এপ্রিল মাসের মাঝামাঝি থেকে পুরোদমে ধান কাটা-মাড়াই শুরু হয়েছে। কৃষকের খেত থেকে ধান কাটা মাড়াই এখন শেষ প্রায়। হাট-বাজারে বোরো ধানের কেনাবেচাও এখন শেষের দিকে। এ কারণে ধানের দাম মণপ্রতি ১০০ টাকা বাড়লেও খুব বেশি কৃষক লাভবান হবেন না। কারণ অধিকাংশ কৃষকের ঘরে ধান বিক্রি প্রায় শেষের দিকে।

কৃষকেরা বলছেন, নন্দীগ্রাম উপজেলায় এবার ভারতীয় মিনিকেট জাত, কাটারিভোগ, ব্রি ধান-২৮, ব্রি ধান-৬২, বীনা-৭, ব্রি ধান-৫৮ জাতের বোরো ধান চাষাবাদ হয়েছে। গড়ে প্রতি বিঘায় এবার ২০ মণ ধান ফলন হয়েছে। গত মৌসুমে ধানের ফলন ছিল ১৫ থেকে ১৭ মণ।
নন্দীগ্রাম উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা বলেন, আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় এবার এ উপজেলায় বোরোর ফলন ভালো হয়েছে। ইতিমধ্যেই ৯০ শতাংশ বোরো ধানকাটা ও মাড়াই শেষ হয়েছে। এবার বোরো ধানের বাম্পার ফলন হয়েছে। কৃষক ভালো দাম পাওয়ায় লাভের মুখ দেখছেন।

রনবাঘা হাটে কেনাবেচা হওয়া ধান যায় কুষ্টিয়ার খাজানগর, চাঁপাইনবাবগঞ্জসহ দেশের বিভিন্ন মোকামে। করোনাভাইরাস সংক্রমণ ঝুঁকি থাকলেও এবার হাটে ধানের আমদানির পাশাপাশি ব্যাপারী ও ব্যবসায়ীদের আনাগোনাও বেশি। গতকাল এই হাটে ১০ মণ ধান বিক্রি করতে এসেছিলেন উপজেলার কালিকাপুর গ্রামের কৃষক সহির আলী। 

তিনি বলেন, ‘১২ বিঘা জমিতে বোরো চাষ করেছি। এর মধ্যে বেশির ভাগ জমি অন্যের কাছ থেকে পত্তনী নেওয়া। বোরো চাষের জন্য জমি পত্তনী খরচ বিঘাপ্রতি ৭ হাজার টাকা। এর বাইরে হালচাষ থেকে শুরু করে সার, কীটনাশক, সেচ ও কাটামাড়াই পর্যন্ত বিঘায় বোরোতে খরচ গড়ে প্রায় ১৩ হাজার টাকা। সেই হিসাবে বিঘায় খরচ ২০ হাজার টাকা। প্রতি বিঘা জমিতে বোরোর ফলন হয়েছে ২৫ মণ। ৯৮০ টাকা মণ দরে ধান বিক্রি করে হাতে পেয়েছি ২৪ হাজার ৫০০ টাকা। বিঘাপ্রতি লাভ হয়েছে ৪ হাজার ৫০০ টাকা।’

কাথম গ্রামের কৃষক জালাল উদ্দিন সরদার বলেন, ‘৮ বিঘা নিজস্ব জমিতে মিনিকেট জাতের বোরো আবাদ করেছি। কাটামাড়াই পর্যন্ত বিঘায় খরচ ১৭ হাজার টাকা। বিঘাপ্রতি ধানের ফলন হয়েছে ২২ মণ। বাজারে ৯৫০ টাকা মণ দরে ধান বিক্রি করে বিঘায় লাভ হয়েছে প্রায় ৪ হাজার টাকা।’

রনবাঘা হাটের আড়তদার ও আরিফ ট্রেডার্সের হেলাল উদ্দিন বলেন, প্রায় এক মাস ধরে হাটে নতুন ধানের আমদানি হচ্ছে। করোনাভাইরাসের কারণে মৌসুমের শুরুর দিকে পাইকারি ব্যবসায়ীরা আসতে না পারায় ধানের দাম ছিল গড়ে ৭০০ থেকে ৮০০ টাকা। এখন পাইকারদের ভিড় বেড়েছে।

রনবাঘা হাটের আড়তদার মাহবুব হোসেন বলেন, অধিকাংশ কৃষকের ঘরে বোরো ধান এখন শেষের দিকে। হাটে ধানের দাম বেড়ে যাওয়ায় শুধু যাদের ঘরে ধান আছে, তারাই লাভবান হচ্ছেন। বগুড়ার কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপপরিচালক আবুল কাশেম আযাদ বলেন, এবার বোরোর বাম্পার ফলনের পাশাপাশি বাজারমূল্যও ভালো। ফলে কৃষক বোরো চাষ করে ভালো লাভ করছেন।

আরও পড়ুন
দেশের খবর বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
  • করোনায় বন্ধ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে টিউশন ফি আদায় করলে কঠোর ব্যবস্থা

  • কঠোরভাবে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার নির্দেশনা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী

  • বাংলাদেশকে ৩৭১ মিলিয়ন ডলার সহায়তা দিবে ইউরোপীয় ইউনিয়ন

  • ‘মানুষ যাতে খেয়ে-পরে বাঁচতে পারে সেজন্যই শর্ত শিথিলের সিদ্ধান্ত’

  • ন্যাশনাল ব্যাংকের খোয়া যাওয়া ৬০ লাখ টাকা উদ্ধার

  • করোনা-আম্ফান মোকাবিলায় একনেকে প্রধানমন্ত্রীকে অভিনন্দন

  • সরকারি ত্রাণ পেয়েছে সোয়া ৬ কোটি মানুষ

  • বাংলাদেশে ৬৪১৭ কোটি বিনিয়োগ করবে এডিবি

  • প্রত্যেক জেলা হাসপাতালে আইসিইউ নিশ্চিতের নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

  • ঈদের পর কমেছে ৭ নিত্যপণ্যের দাম

  • করোনায় আক্রান্ত হলে শুরুতেই চিকিৎসা নিন

  • পঙ্গপাল নিয়ে বাংলাদেশের উদ্বিগ্ন হওয়ার কারণ নেই

  • কালো টাকা বিনিয়োগের সুযোগ দিতে হবে

  • করোনা জয় করে এখন প্লাজমা দিতে প্রস্তুত তারা

  • স্বাস্থ্যবিধি লঙ্ঘনে সরকার আরও কঠোর হবে: কাদের

  • আক্রান্ত হয়েও সেবায় পিছিয়ে নেই কুর্মিটোলার চিকিৎসাকর্মীরা

  • দু মাসের সঞ্চয়ী আমানতের বিলম্ব ফি ছাড়

  • ১০ হাজার কোটি টাকার জরুরী তহবিল

  • চলমান ক্ষুদ্র ও বৃহৎ উন্নয়ন প্রকল্পের মেয়াদ বাড়ছে

  • বাংলাদেশী হত্যাকাণ্ডে জড়িতদের বিচারের প্রতিশ্রুতি লিবিয়ার

  • করোনা রোগীদের জন্য খাবার রান্না করে খাওয়ালেন এক মা

  • করোনা আইসোলেশন সেন্টার হচ্ছে তারকা হোটেল

  • ‘আক্রান্তের মাত্রার ওপর ভিত্তি করে দেশকে ভাগ করা হবে’

  • নগদ লভ্যাংশের বিষয়ে নমনীয় হবে কেন্দ্রীয় ব্যাংক

  • ‘হাজী কামাল মধ্যপ্রাচ্যে অবৈধ প্রক্রিয়ায় শ্রমিকদের পাঠাতেন’

  • অদম্য জান্নাতুল কনুই দিয়ে লিখে পেল সাফল্য

  • ইতিহাসের অংশ হতে যাচ্ছে ভার্চুয়াল একনেক সভা

  • বিশ্ব খাদ্য কর্মসূচির শুভেচ্ছাদূত হলেন তামিম ইকবাল

  • শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের অফিস খোলার অনুমতি

  • নারায়ণগঞ্জে করোনা জয়ী ১০১ জন পুলিশ সদস্যকে সংবর্ধনা

  • প্রধানমন্ত্রী আমার জন্য হাসপাতালে কেবিন বুকড দিয়েছেন: জাফরুল্লাহ

  • ইভারম্যাকটিন, ডক্সিসাইক্লিন ব্যবহারে করোনা মুক্তির হার বেড়েছে

  • আম্ফান-কাল বৈশাখীর ক্ষতিতেও পূরণ হবে বোরোর লক্ষ্যমাত্রা

  • যুক্তরাষ্ট্রে পিপিই রপ্তানি শুরু করলো বাংলাদেশ

  • অফিস-কারখানায় ১৩ দফা স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার নির্দেশ

  • নিজের করোনা পজিটিভ রিপোর্টে নিজেই স্বাক্ষর করেন ডা. শাকিল!

  • প্রধানমন্ত্রীকে ফোন করে জাতিসংঘ মহাসচিবের শুভেচ্ছা

  • করোনা শনাক্তে দেশেই তৈরি হলো ‘ভিটিএম কিট’

  • করোনাকালীন সংকটেও কৃষির সাফল্য

  • শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধের সময়সীমা বাড়ল

  • মসলা মিশ্রিত হালকা গরম পানিতে উপকৃত হচ্ছেন করোনা রোগীরা

  • বিএনপি’র চিন্তাধারা একপেশে: তথ্যমন্ত্রী

  • আরো ১০৬ পুলিশ সদস্য সুস্থ

  • সীমিত পরিসরে গণপরিবহন চলার ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রীর সম্মতি

  • বিশ্বমানের পিপিই উৎপাদনকারী দেশের তালিকায় বাংলাদেশ

  • মালদ্বীপ থেকে ফিরলেন ১২০০ বাংলাদেশি 

  • ডিএনসিসিতে বিনামূল্যে ডেঙ্গু পরীক্ষা, জানা যাবে তাৎক্ষণিক ফল

  • ১২ লাখ যুবককে আত্মকর্মী তৈরির উদ্যোগ নিয়েছে সরকার

  • যেকোনো সঙ্কটে আত্মবিশ্বাসটাই সবচেয়ে বড়: প্রধানমন্ত্রী

  • শান্তিরক্ষীদের অবদান দেশের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল করেছে: প্রধানমন্ত্রী

  • যতদিন না করোনা সংকট কাটবে, আমি পাশে থাকবো: প্রধানমন্ত্রী

  • মৃতের জানাজায় কেউ আসেনি, এসেছিল ‘মানবিক পুলিশ’

  • জুন মাসেই প্রাথমিকের শিক্ষার্থীরা পাবে জামা-জুতা কেনার টাকা

  • দৃশ্যমান হলো পদ্মাসেতুর সাড়ে ৪ কি.মি.

  • করোনাকালে জরুরি সাহায্য পেতে ফোন করুন

  • ৬ কোটি মানুষের কাছে পৌঁছেছে সরকারি ত্রাণ

  • বাণিজ্যিক বিতান ও শপিংমল খুলবে ৩০ মে

  • উন্নত ও মানসম্মত চিকিৎসায় ১১১৯ পুলিশ সদস্যের করোনা জয় 

  • প্রত্যেক জেলা হাসপাতালে আইসিইউ নিশ্চিতের নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

  • বিএসএমএমইউ’র ফিভার ক্লিনিক আজ থেকে খোলা