রোববার   ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২১

সর্বশেষ:
সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোর বার্ষিক ছুটি ৭৫ দিন আগামী মার্চে ঢাকা উত্তর সিটির ভোটের ইঙ্গিত সিইসির আস্থা ভোটে টিকে গেলেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় পরিদর্শনে প্রধানমন্ত্রী রাষ্ট্রপতির সঙ্গে নেপালের বিদায়ী রাষ্ট্রদূতের সাক্ষাৎ সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন করতে ইসি প্রতিজ্ঞাবদ্ধ: নূরুল হুদা বারবার আসতে পারব না, যত খুশি সাজা দিন: খালেদা জিয়া ‘আকাশবীণার’ উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী ত্রিভুবনে আবারও বিমান দুর্ঘটনা ট্রেন-বাসের সংঘর্ষে নিহত ২, আহত ২৫ ভুয়া ছবি দিয়ে অপপ্রচার চালাচ্ছে মিয়ানমার: প্রধানমন্ত্রী
৬২

দেশে গণতন্ত্র কায়েমে বঙ্গবন্ধুর সংকল্প ঘোষণা

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২১  

প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান অত্যন্ত সুস্পষ্ট ও দ্ব্যর্থহীন কণ্ঠে ঘোষণা করেন যে, রক্তাক্ত বিপ্লবের মাধ্যমে স্বাধীনতা অর্জনের পর এত কম সময়ের মধ্যে তিনি নির্বাচন দেওয়ার কথা ঘোষণা করেছেন এই জন্য যে, দেশে একটি গণতান্ত্রিক রাজনৈতিক ব্যবস্থা প্রতিষ্ঠা হোক। বঙ্গবন্ধু বলেন, ‘স্বাধীনতার পর এত কম সময়ের মধ্যে দেশের সাধারণ নির্বাচন ইতিহাসে বিরল।’ ১৯৭৩ সালের এই দিনে নড়াইল ও ঝিনাইদহ শহরে অনুষ্ঠিত জনসভায় তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, ‘আওয়ামী লীগ গণতান্ত্রিক অধিকারের জন্য দীর্ঘকাল ধরে সংগ্রাম করছে। জনগণের গণতান্ত্রিক অধিকার আদায়ের জন্য আওয়ামী লীগের ঐতিহ্য আছে। আওয়ামী লীগ দেশে গণপ্রতিনিধিদের শাসন কামনা করে, ব্যক্তির শাসন নয়।’ তিনি আবারও দৃঢ় আশ্বাস দেন যে, নির্বাচন সম্পূর্ণ অবাধ ও নিরপেক্ষ হবে। নির্বাচনে কোনও অবস্থাতেই কোনোরকম হস্তক্ষেপ হবে না। তিনি বলেন, ‘কিছু লোক নির্বাচন বানচালের অপচেষ্টায় লিপ্ত রয়েছে। জনগণ তা নস্যাৎ করে দেবে।’

ক্ষমতার রাজনীতি তিনি করেন না

বঙ্গবন্ধু বলেন, ক্ষমতার রাজনীতি তিনি করেন না। ক্ষমতার রাজনীতি করলে অনেকবারই তিনি ক্ষমতায় আসতে পারতেন। জনগণের স্বার্থকে বিসর্জন দিয়ে তিনি কখনও প্রধানমন্ত্রী হতে চাননি। তিনি বলেন, তাঁর একমাত্র লক্ষ্য ছিল ঔপনিবেশিক শাসন থেকে বাঙালি জাতিকে মুক্ত করা। আর জাতীয় স্বাধীনতার পর তার একমাত্র লক্ষ্য হলো জনগণকে সুখী ও সমৃদ্ধশালী করে তোলা। সোনার বাংলায় আজ তাঁর প্রধান লক্ষ্য—৩০ লাখ প্রাণের বিনিময়ে অর্জিত আমাদের প্রিয়তম স্বাধীনতা যাতে বৃথা না যায়। স্বাধীনতা যাতে দেশের প্রতিটি মানুষের জন্য অর্থবহ হয়ে ওঠে। প্রতিটি মানুষের অন্ন, বস্ত্র আর সুখী-সমৃদ্ধশালী জীবনের নিশ্চয়তা যাতে বিধান করা যায়, সেজন্য উৎপাদনের সর্বক্ষেত্রে কঠোর পরিশ্রমের জন্য তিনি আহ্বান জানান।

সমাজবিরোধীদের ফের হুঁশিয়ারি

যারা নির্বাচন বানচাল করার অপচেষ্টায় লিপ্ত, গুপ্তহত্যার সঙ্গে জড়িত ও জনগণের শান্তিপূর্ণ জীবনযাপন বিঘ্নিত করছে যারা, তাদের প্রতি কঠোর হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে বঙ্গবন্ধু বলেন, তাদের সকল সমাজবিরোধী তৎপরতা নির্মূল করা হবে। সরকার তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করবে। তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য পুলিশ, রক্ষীবাহিনী ও অন্যান্য সংস্থার প্রতি নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। প্রয়োজন হলে তাদের বিরুদ্ধে সেনাবাহিনী নিয়োগ করা হবে। বঙ্গবন্ধু বলেন, জাতির জনক হিসেবে দুষ্কৃতকারী ও সমাজবিরোধীদের প্রতি বারবার তিনি আহ্বান জানিয়েছেন, সতর্ক করে দিয়েছেন, হুঁশিয়ার করে দিয়েছেন। কিন্তু সমাজবিরোধী ও দুষ্কৃতকারীরা তাতে আত্মশুদ্ধি না করে তাদের ঘৃণ্য তৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছে। বঙ্গবন্ধু বলেন, ‘বাংলাদেশের জনগণ বর্বর এক বাহিনীর বিরুদ্ধে যুদ্ধ করে দেশকে স্বাধীন করেছে। দুষ্কৃতকারীদের কীভাবে শাস্তি দিতে হয়, তা তারা জানে।’

যশোর অঞ্চল ছিল উৎসবে মত্ত

১৯৭৩ সালের এই দিনে নড়াইল ও ঝিনাইদহ শহরের জনসভা ছিল ঐতিহাসিক। এত বড় জনসভা এই দুটি শহরে আর কখনও অনুষ্ঠিত হয়নি। নারী-পুরুষ নির্বিশেষে সকল মানুষ সমবেত হয়েছিল বঙ্গবন্ধুর ভাষণ শোনার জন্য। দুটি জনসভাতেই বঙ্গবন্ধুর ভাষণে উদ্বেলিত হয়েছিল সমবেত বিশাল জনতা। বঙ্গবন্ধুর বক্তৃতার মাঝেই জনতা স্বতঃস্ফূর্তভাবে বারবার স্লোগান দিয়ে ওঠেন—বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বের প্রতি দৃঢ় আস্থা ঘোষণা করে। আসন্ন নির্বাচনে বঙ্গবন্ধু ও তার দল আওয়ামী লীগের পক্ষে বজ্রকণ্ঠে তারা তাদের সমর্থন ঘোষণা করে। বঙ্গবন্ধু যখন জানতে চান, তাঁর প্রতি আস্থা আছে কিনা? সহযোগিতার হাত তুলে একই কণ্ঠে জনতা ঘোষণা করেন—আছে আছে আছে। আমরা আপনার নেতৃত্বে বিশ্বাস করি। জনগণ স্লোগান দেয়—বঙ্গবন্ধু জিন্দাবাদ, বঙ্গবন্ধু যেখানে আমরা আছি সেখানে। বঙ্গবন্ধু জনসভায় ঘোষণা করেন যে, আসন্ন নির্বাচন হবে অবাধ ও নিরপেক্ষ।

সমাজ থেকে দুর্নীতি নির্মূল করতে হবে

বাসসের খবরে বলা হয়, সকালে নড়াইলে এক বিশাল জনসভায় বক্তৃতা করার পর বিকালে ঝিনাইদহের জনসভায় বক্তৃতা করেন বঙ্গবন্ধু। তিনি বলেন, ‘সমাজ থেকে দুর্নীতি নির্মূল করতে হবে। যারা অস্ত্র জমা না দিয়ে গুপ্তহত্যা, চুরি ডাকাতি ও অন্যান্য সমাজবিরোধী তৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছে, তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’ পুলিশ রক্ষীবাহিনী ও আইন প্রয়োগকারী অন্যান্য সংস্থাকে তিনি দুষ্কৃতকারীদের খুঁজে বের করা এবং তাদের সকল তৎপরতার তথ্য দেওয়ার আহ্বান জানান।

তিনি বলেন, ‘প্রয়োজন হলে এদের বিরুদ্ধে সেনাবাহিনী নিয়োগ করা হবে।’ প্রধানমন্ত্রী বলেন, নির্বাচন দিয়ে তিনি দেশবাসীকে দেশের প্রকৃত ক্ষমতা হস্তান্তর করেছেন। একমাত্র জনগণের ভালোবাসা ছাড়া আর কিছুই তিনি কামনা করেন না। তিনি রাষ্ট্রের বিঘোষিত চারটি মৌলনীতির ব্যাখ্যা করে বলেন, ‘বাংলাদেশে আঞ্চলিকতা ও সাম্প্রদায়িকতার কোনও ঠাঁই নেই।’

আরও পড়ুন
জাতীয় বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
  • উত্তরা-আগারগাঁও মেট্রোরেল দৃশ্যমান

  • সুনাম ছড়াচ্ছে আড়িয়াল বিলের করলা

  • সংবাদ সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রী
    মুজিববর্ষে অনন্য মাইলফলকে দেশ

  • আধুনিক বিশ্বের মতো উন্নত বিদ্যুৎ ব্যবস্থায় যাচ্ছে দেশ

  • আগাম আনারসে কৃষকের হাসি

  • চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের জন্য বাংলাদেশের প্রস্তুতি সম্পন্ন

  • জিএসপি প্লাস সুবিধা আদায়ে প্রস্তুতি নেয়া হচ্ছে

  • ইচ্ছেকৃত ঋণখেলাপিদের গাড়ি ও বাড়ি ক্রয়ে নিষেধাজ্ঞা আসছে

  • ১৭ দিনে দেশে টিকা নিয়েছেন প্রায় ৩০ লাখ মানুষ

  • মুশতাকের মৃত্যু
    স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ৫ সদস্যের তদন্ত কমিটি

  • বদলে যাবে এসিআর, আসছে এপিএআর

  • ১৯ বছর পর আরিচা-কাজিরহাট রুটে পুনরায় ফেরি সার্ভিস চালু

  • চট্টগ্রামে উদ্বোধনের অপেক্ষায় শেখ হাসিনা পানি শোধনাগার

  • উন্নয়নশীল দেশে উত্তরণের অর্জন নতুন প্রজন্মের : প্রধানমন্ত্রী

  • ঝিনাইদহে ঘর পেলো ১শ’ ভূমিহীন পরিবার

  • ১৩ হাজার একর ভূমিতে অর্থনৈতিক অঞ্চল

  • ২০২১ সালেই দেশে আসবে হাইড্রোজেনচালিত কার

  • মানসম্মত তেল পাওয়ার লক্ষ্যে করা হচ্ছে সূর্যমুখী চাষ 

  • উন্নয়নশীল দেশে উত্তরণের চূড়ান্ত সুপারিশ পেল বাংলাদেশ

  • ঢাকা–জলপাইগুড়ি যাত্রীবাহী ট্রেন চালু ২৬ মার্চ

  • পিরোজপুরে পল্লী অবকাঠামো উন্নয়নে সরকারের ৬শ কোটি টাকার প্রকল্প

  • ৩০ হাজার বীর মুক্তিযোদ্ধার জন্য তৈরি হচ্ছে ‘বীর নিবাস’

  • দৃষ্টিশক্তি বাড়াতে সাহায্য করে তুলসি পাতা

  • রকমারি সবজি দিয়ে ভেজিটেবল নাগেটস

  • বাংলাদেশ-ভারত স্বরাষ্ট্র সচিব পর্যায়ের বৈঠক আজ 

  • স্বল্পোন্নত দেশ থেকে উত্তরণ : প্রধানমন্ত্রীর সংবাদ সম্মেলন আজ 

  • ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন মানুষের নিরাপত্তার জন্য

  • উন্নয়নশীল দেশে উত্তরণ: শনিবার সংবাদ সম্মেলনে আসছেন প্রধানমন্ত্রী

  • সুখবরের অপেক্ষায় বাংলাদেশ; বের হতে পারে এলডিসি থেকে

  • সন্ত্রাসী নয়; একটি সংগ্রামী পরিবারের অজানা গল্প

  • ৪০ হাজার যুবককে ড্রাইভিং প্রশিক্ষণ দেবে সরকার

  • নারী পুলিশকে আরও স্মার্ট করেছে স্কুটি

  • মসলিনের সোনালি যুগে ফিরছে বাংলাদেশ

  • বাংলাদেশ থেকে ১২ হাজার কর্মী নেবে সিঙ্গাপুর, রোমানিয়া

  • বিশ্ব র‌্যাঙ্কিংয়ে অনেক এগিয়েছে চট্টগ্রাম বন্দর

  • প্রতিযোগিতায় ভালো অবস্থানে পোশাক খাত

  • রাত-দিন চলছে কাজ, মেট্রোরেলের লাইন বসেছে ৭ কিলোমিটার

  • বিমান বাহিনীর একটা গৌরবময় ইতিহাস রয়েছে: প্রধানমন্ত্রী 

  • তাঁতশিল্পকে আরো উন্নত এবং সমৃদ্ধশালী করতে কাজ করছে সরকার

  • ‘তথ্যের স্বচ্ছতা-নিরাপত্তা নিশ্চিতে ব্লকচেইন ব্যবহার করছে সরকার’

  • হাসপাতাল পেয়ে খুশি ৪০ গ্রামের লক্ষাধিক মানুষ

  • ভাষা শহীদদের প্রতি রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর পক্ষে শ্রদ্ধা 

  • নিবন্ধনের আওতায় আসছে অটোরিকশা-ইজিবাইক

  • আলোকিত হবে দ্বীপকন্যা ‘চর কুকরি-মুকরি’

  • ৫৭ লাখ কৃষক পেলেন ৩৭২ কোটি টাকার প্রণোদনা

  • বাংলাদেশের সঙ্গে সম্পর্ক সুগভীর চান বাইডেন

  • ১৩ দিনে করোনার টিকা নিলেন ২৩ লাখ মানুষ

  • দিনরাত কাজ করে পদ্মা সেতু চালুর চিন্তা

  • বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বীরা শান্তিপ্রিয় : প্রধানমন্ত্রী

  • উন্নয়নশীল দেশে উত্তরণ: শনিবার সংবাদ সম্মেলনে আসছেন প্রধানমন্ত্রী

  • মেয়েদের শিক্ষা ও জীবনমান উন্নয়নের প্রশংসায় এডিবি

  • বঙ্গবন্ধুর সততা থেকে শিক্ষা নিয়ে এগিয়ে যেতে হবে

  • বাংলাদেশ-ভারত স্বরাষ্ট্র সচিব পর্যায়ের বৈঠক আজ 

  • শখের ‘গ্লাডিওলাস’ ফুল চাষে সাফল্য

  • রিজার্ভ ৪৪ বিলিয়ন ডলার ছাড়াল

  • উন্নয়নশীল দেশে উত্তরণের চূড়ান্ত সুপারিশ পেল বাংলাদেশ

  • খুলনায় এই প্রথম বাণিজ্যিকভাবে ক্যাপসিকাম চাষ

  • উত্তরাঞ্চয়ে কাঁচা মরিচের বাম্পার ফলন, খুশি কৃষক

  • ২৭ বছর পর উন্মুক্ত হলো আমদানির দ্বার

  • চট্টগ্রামে উদ্বোধনের অপেক্ষায় শেখ হাসিনা পানি শোধনাগার