বুধবার   ০৩ জুন ২০২০

ব্রেকিং:
সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোর বার্ষিক ছুটি ৭৫ দিন আগামী মার্চে ঢাকা উত্তর সিটির ভোটের ইঙ্গিত সিইসির জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় পরিদর্শনে প্রধানমন্ত্রী আস্থা ভোটে টিকে গেলেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে রাষ্ট্রপতির সঙ্গে নেপালের বিদায়ী রাষ্ট্রদূতের সাক্ষাৎ খালেদার অনুপস্থিতিতেই কারাগারে বিচার চলবে রব ও মান্নার বিয়ে যুক্তফ্রন্টে, পরকীয়া ঐক্যফ্রন্টে: মাহী এটা জোট নয়, ঘোট : তথ্যমন্ত্রী যুক্তরাষ্ট্রে রাজনৈতিক আশ্রয় পেলেন সিনহা আবারও সরকার গঠনে নৌকায় ভোট দেয়ার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর পদ্মা সেতু প্রকল্পের নামফলক উন্মোচন করলেন প্রধানমন্ত্রী
৮১১

দুবাইয়ে পারিবারিক দোকান ছেড়ে নতুন মাদক ‘খাট’ পাচার

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮  

বাবা-চাচার দোকান ছিল মধ্যপ্রাচ্যের দেশ সংযুক্ত আরব আমিরাতের দুবাইয়ে। সেই দোকান দেখভাল করতে দুবাইয়ে পাড়ি জমান তিনি। তবে শুধু দোকান দেখাশোনার কাজ করতে ভালো লাগেনি তাঁর। দ্রুত ধনী হওয়ার উপায় খুঁজে নেন। শুরু করেন মদ বিক্রি। শহরে মদের বার থেকে ধীরে ধীরে জড়িয়ে পড়েন মাদক ব্যবসায়। শুরু করেন নতুন ধরনের মাদক ‘খাট’ পাচার। তবে গ্রেপ্তারের পরই জানা যায়, গ্রিন টি ব্যবসার আড়ালে তিনি মাদক ব্যবসা করে যাচ্ছিলেন।

ইয়াবার মতো প্রতিক্রিয়া সৃষ্টিকারী ‘খাট’-এর বিপুল পরিমাণ চালানসহ নাজিমউদ্দিন নামের ওই মাদক ব্যবসায়ীকে গত ৩১ আগস্ট গ্রেপ্তার করে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর। তবে নাজিমউদ্দিন গ্রেপ্তার হলেও নতুন ধরনের এই মাদক দেশের ভেতর ছড়িয়ে পড়ার শঙ্কায় রয়েছেন অধিদপ্তরের কর্মকর্তারা।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, নাজিমউদ্দিনের বাবার নাম হাজি আনোয়ার আলী। চার ভাই, দুই বোনের মধ্যে নাজিম সবার বড়। তাঁর গ্রামের বাড়ি মুন্সিগঞ্জের তেতৈতলা গ্রামে। প্রায় ২৫ বছর ধরে এ গ্রামে তাঁরা বাস করেন। এর আগে একই উপজেলার বালুয়াকান্দি ইউনিয়নের ছোট রায়পাড়া গ্রামে থাকতেন তাঁরা। নদীভাঙনে বাড়িঘর হারিয়ে আনোয়ার আলী সপরিবারে তেতৈতলায় চলে আসেন। তেতৈতলায় আসার পরপরই নাজিম তাঁর বাবার ব্যবসা দেখাশোনা করতে দুবাই পাড়ি দেন। সেখানে আনোয়ার আলীর দোকান ছিল।

স্থানীয় লোকজন জানান, নাজিমউদ্দিনকে তাঁরা লাভলু বলে ডাকতেন। প্রায় ২৫ বছর আগে লাভলু দুবাই যায়। তবে অনেক আগে থেকেই নাজিমের বাবা-চাচারা দুবাই থাকতেন। সেখানে তাদের বিভিন্ন ধরনের ব্যবসা আছে। বাবার মৃত্যুর পর নাজিমই ব্যবসার হাল ধরেন। নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁ উপজেলার পিরোজপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য মাকসুদুর রহমানের বোনের সঙ্গে ১৩ বছর আগে বিয়ে হয় নাজিমের। নাজিমের এক মেয়ে ও এক ছেলে রয়েছে। তাঁরা ঢাকায় থাকে।

কয়েক মাস পরপর দেশে আসেন নাজিম। ঢাকাতেও তাঁর ব্যবসা রয়েছে। রাজধানীর শান্তিনগর মোড়ে কাকরাইল ১২৪/৭/এ শান্তিনগর প্লাজার দোতলায় একটি কক্ষ সাত হাজার টাকা ভাড়া নিয়ে ব্যবসা করতে থাকেন নাজিম। তাঁর প্রতিষ্ঠানটির নাম ‘নওশিন এন্টারপ্রাইজ’। দোতলার অন্ধকারাচ্ছন্ন গলির শেষ দিকে তাঁর এই অফিস। অফিসের দরজার ‘অরগানিক গ্রিন টি’র একটি স্টিকার লাগানো আছে। আশপাশের দোকানগুলোর কারও সঙ্গে তিনি মিশতেন না বলে জানা গেছে। এমনকি গ্রামের বাড়ি গেলেও কারও সঙ্গে মেলামেশা করতেন না নাজিম।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে নাজিমের গ্রামের বাড়ির এক প্রতিবেশী বলেন, তাঁরা অনেক আগেই শুনেছেন, নাজিম বিদেশে মাদক ও নারী পাচারের ব্যবসা করেন। দুবাইয়ে তাঁর মদের দুটি বার রয়েছে। প্রতি ছয় মাস পরপর নাজিম দেশে আসেন। গ্রামের বাড়ি এলেও এলাকার মানুষের সঙ্গে মিশতেন না। সবশেষ এবার রমজান মাসের আগে দেশে আসেন নাজিম।
‘নওশিন এন্টারপ্রাইজ’ নামে গ্রিন টি-এর আড়ালে চলত ‘খাট’-এর ব্যবসা। ছবি: সংগৃহীত

অরগানিক গ্রিন টি’র নামে ব্যবসা 
গ্রিন টির নামেই ‘খাট’ নামে এই মাদকের ব্যবসা করতেন নাজিম। গত শুক্রবার দুপুরে হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে প্রায় ৪০০ কেজি নতুন এই মাদকের চালান জব্দ করে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর। এর আগে সকালে নাজিমকে গ্রেপ্তার করা হয়। বিমানবন্দর থেকে খাটের চালান জব্দ করার পর নাজিমকে নিয়ে তাঁর শান্তিনগরের অফিসে অভিযান চালানো হয়। সেখানে বিপুল পরিমাণ ‘খাট’ জব্দ করা হয়।

মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের অতিরিক্ত পরিচালক নজরুল ইসলাম শিকদার বলেন, ‘খাট’ আসলে নিউ সাইকোট্রফিক সাবসটেনসেস (এনপিএস) নামে এক ধরনের মাদক। আফ্রিকা থেকে গ্রিন টি নামে বাংলাদেশ আনতেন নাজিম। আফ্রিকার দেশ ইথিওপিয়ার এক নাগরিকের মাধ্যমে এই ব্যবসায় জড়িয়ে পড়েন তিনি। সেখান থেকে এনপিএস বাংলাদেশে আনেন। বাংলাদেশের অরগানিক গ্রিন টির প্যাকেট করে বিক্রি করেন। দেশে এক কেজি এনপিএসের দাম ১৫ হাজার টাকা। এখান থেকে এনপিএসের চালান বিশ্বের বিভিন্ন দেশে পাচার করতেন তিনি।

‘খাট’-এর বিস্তারে শঙ্কা 
প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে নাজিম জানান, দুই মাস আগে এনপিএসের প্রথম চালান নিয়ে আসেন তিনি। তবে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের তদন্ত-সংশ্লিষ্টদের ধারণা, নাজিম অনেক আগে থেকে এই মাদকের ব্যবসা করছেন। তাঁদের ধারণা, কয়েক মাস পরপর কার্টনে করে খাটের চালান দেশে আনেন নাজিম। তাই ইতিমধ্যে ‘খাট’-এর বিস্তার ঘটেছে কি না, তা নিয়ে তাঁরা শঙ্কিত।

মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের বেশ কয়েকজন কর্মকর্তা বলেন, আশির দশকের মাঝামাঝি সময় থেকে এ দেশে আসতে শুরু করে হেরোইন। এর অনেক আগে থেকে প্রচলন ছিল গাঁজার। হেরোইন আসার পর মাদকসেবীরা ঝুঁকে পড়েন এতে। এরপর ৯০ দশকে ভারত থেকে আসা শুরু হয় ফেনসিডিল। ফেনসিডিলের রমরমা ব্যবসাকে পেছনে ফেলে নতুন সহস্রাব্দের শুরুতে থাবা দেয় ‘ইয়াবা’। প্রায় দেড় দশক ধরে চলছে মিয়ানমার সীমান্ত দিয়ে ইয়াবা আসা। এবার নতুন আরেক ধরনের মাদক ‘খাট’ আসা শুরু হয়েছে বাংলাদেশে। সেবনের পর এটি মানবদেহে ইয়াবার মতো প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি করে। তবে ফেনসিডিল-ইয়াবার মতো সীমান্ত পথে নয়, আকাশপথে এসেছে নতুন মাদক ‘খাট’।

‘খাট’ সেবনে যা হয় 
‘খাট’ অনেকটা চায়ের পাতার গুঁড়োর মতো দেখতে। পানির সঙ্গে মিশিয়ে তরল করে এটি সেবন করা হয়। সেবনের পর মানবদেহে একধরনের উত্তেজনার সৃষ্টি হয়। আসক্তিটা অনেকটা ইয়াবার মতো। একধরনের গাছ থেকে এই ‘খাট’ বা এনপিএস তৈরি হয়। এটি ‘খ’ ক্যাটাগরির মাদক। আফ্রিকার দেশ জিবুতি, কেনিয়া, উগান্ডা, ইথিওপিয়া, সোমালিয়া ও মধ্যপ্রাচ্যের দেশ ইয়েমেনে খাটের গাছ উৎপাদন করা হয়। ‘খাট’ সেবন করলে অনিদ্রা, অবসাদ, দৃষ্টিভ্রম, ক্ষুধা মন্দাসহ মানবদেহে নানা ধরনের সমস্যা দেখা দেয়। এ ছাড়া ইন্দ্রিয় শক্তি এবং যৌনক্ষমতা হারিয়ে যাওয়ার পাশাপাশি খাট জীবনী শক্তিও কমিয়ে দেয়। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও) ১৯৮০ সালে এনপিএনকে মাদকদ্রব্য হিসেবে তালিকাভুক্ত করে।

মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের অতিরিক্ত পরিচালক নজরুল ইসলাম শিকদার বলেন, ইথিওপিয়ার আদ্দিস আবাবার জিয়াদ মোহাম্মাদ ইউসুফের নামে খাটের চালানটি এ দেশে আনেন নাজিম। তবে তাঁর সঙ্গে বড় একটি সংঘবদ্ধ চক্র জড়িত। এদের ধরতে চেষ্টা চালানো হচ্ছে।

আন্তর্জাতিক বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
  • ‘সংকটকে শেখ হাসিনার সরকার সম্ভাবনায় রূপ দিতে কাজ করে যাচ্ছে’

  • স্বপ্নের মেট্রোরেলের প্রথম পর্যায়ের ৭২ শতাংশ দৃশ্যমান

  • নতুন করে আরো ১১টি ট্রেন চালু

  • করোনার জন্য বরাদ্দ ১৬ হাজার কোটি টাকা

  • প্রবাসী পুনর্বাসনে ৭০০ কোটি টাকার তহবিল

  • করোনা সংকটে ৩১০০ কোটি টাকা দিচ্ছে ইইউ

  • সব বাধা অতিক্রম করে দেশ এগিয়ে যাবে : প্রধানমন্ত্রী

  • ডিএসসিসিতে দুর্নীতির লেশমাত্র রাখবো না: মেয়র তাপস 

  • উপজেলা পর্যায়েও টিসিবির পণ্য বিক্রির নির্দেশ হাইকোর্টের

  • জনগণ ও জনপ্রতিনিধিদের উদ্দেশ্যে প্রধানমন্ত্রীর পাঁচ নির্দেশনা

  • জীবাণু শঙ্কা-প্রাকৃতিক দুর্যোগ প্রতিরোধের চেষ্টায় প্রধানমন্ত্রী

  • স্বাস্থ্যবিমার আওতায় আসছেন ঢাবি’র সব শিক্ষার্থী

  • লিচুতে ভাগ্যবদল, ফুটপাত থেকে বাড়ি-গাড়ির মালিক

  • এশিয়া সেরা বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়াম

  • ইউনাইটেডে পাঁচ মৃত্যুর ঘটনায় ১৪ জুনের মধ্যে প্রতিবেদন

  • করোনার প্রথম ওষুধ প্রস্তুত দাবি রাশিয়ার

  • লকডাউনের মধ্যেও দেশের মূল্যস্ফীতি ভালো অবস্থানে রয়েছে

  • ‘বাজারের চাইতে এবার বাড়ি থেকেই বেশি ধান বেচাকেনা হচ্ছে’

  • ‘রোগীদের স্বাস্থ্যসেবা দিতে অবহেলা করলে ব্যবস্থা নেয়া হবে’

  • দুর্নীতিকে আমি প্রশ্রয় দেব না, বললেন মেয়র তাপস

  • করোনাকালে সরকারের ত্রাণ সহায়তা পেয়েছে সোয়া ৬ কোটি মানুষ

  • কালের কণ্ঠ থেকে ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক মোস্তফা কামালের ইস্তফা

  • অসুস্থ নায়ক জাভেদকে ১০ লাখ টাকা দিলেন প্রধানমন্ত্রী

  • জেলা হাসপাতালে আইসিইউ নিশ্চিতের নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

  • ক‌রোনায় প্রতি মি‌নি‌টে আক্রান্ত হচ্ছেন দুজন

  • করোনা আক্রান্ত রোগীদের নিয়ে যেখানে যেতে পারেন

  • মডার্নার ভ্যাকসিন নিয়ে ‘খুব আশাব্যঞ্জক’ ফল পাওয়া গেছে

  • আগামী বছরে নতুন শিক্ষাক্রমে পাঠ্যবই নয়

  • ‘আশার সুবর্ণ প্রদীপ জ্বালিয়েছেন বঙ্গকন্যা’

  • এবার রোগীদের জন্য রক্ত সংগ্রহে নামছেন ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী

  • প্রধানমন্ত্রী আমার জন্য হাসপাতালে কেবিন বুকড দিয়েছেন: জাফরুল্লাহ

  • ইভারম্যাকটিন, ডক্সিসাইক্লিন ব্যবহারে করোনা মুক্তির হার বেড়েছে

  • আম্ফান-কাল বৈশাখীর ক্ষতিতেও পূরণ হবে বোরোর লক্ষ্যমাত্রা

  • প্রধানমন্ত্রীকে ফোন করে জাতিসংঘ মহাসচিবের শুভেচ্ছা

  • অফিস-কারখানায় ১৩ দফা স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার নির্দেশ

  • নিজের করোনা পজিটিভ রিপোর্টে নিজেই স্বাক্ষর করেন ডা. শাকিল!

  • মসলা মিশ্রিত হালকা গরম পানিতে উপকৃত হচ্ছেন করোনা রোগীরা

  • করোনা শনাক্তে দেশেই তৈরি হলো ‘ভিটিএম কিট’

  • প্রত্যেক জেলা হাসপাতালে আইসিইউ নিশ্চিতের নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

  • করোনাকালীন সংকটেও কৃষির সাফল্য

  • শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধের সময়সীমা বাড়ল

  • জুন মাসেই প্রাথমিকের শিক্ষার্থীরা পাবে জামা-জুতা কেনার টাকা

  • বিএনপি’র চিন্তাধারা একপেশে: তথ্যমন্ত্রী

  • সীমিত পরিসরে গণপরিবহন চলার ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রীর সম্মতি

  • যেকোনো সঙ্কটে আত্মবিশ্বাসটাই সবচেয়ে বড়: প্রধানমন্ত্রী

  • ১২ লাখ যুবককে আত্মকর্মী তৈরির উদ্যোগ নিয়েছে সরকার

  • ডিএনসিসিতে বিনামূল্যে ডেঙ্গু পরীক্ষা, জানা যাবে তাৎক্ষণিক ফল

  • বঙ্গবন্ধুর ছবিযুক্ত ডাকটিকিট অবমুক্ত করল জাতিসংঘ

  • চট্টগ্রামের হাটহাজারীতে দুর্যোগ সহনীয় ঘর পেল ১৬ পরিবার

  • শান্তিরক্ষীদের অবদান দেশের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল করেছে: প্রধানমন্ত্রী

  • যতদিন না করোনা সংকট কাটবে, আমি পাশে থাকবো: প্রধানমন্ত্রী

  • মৃতের জানাজায় কেউ আসেনি, এসেছিল ‘মানবিক পুলিশ’

  • করোনাকালে জরুরি সাহায্য পেতে ফোন করুন

  • দৃশ্যমান হলো পদ্মাসেতুর সাড়ে ৪ কি.মি.

  • ৬ কোটি মানুষের কাছে পৌঁছেছে সরকারি ত্রাণ

  • প্রথমবারের মতো শান্তিরক্ষীদের বহন করল বাংলাদেশ বিমান

  • উন্নত ও মানসম্মত চিকিৎসায় ১১১৯ পুলিশ সদস্যের করোনা জয় 

  • অর্ধেক যাত্রী নিয়ে আগের ভাড়ায়ই চলবে ট্রেন

  • এবার স্বতন্ত্র ইবতেদায়ি মাদ্রাসা জাতীয়করণের উদ্যোগ

  • স্পটে কাউকে পাওয়া না গেলে ধরে নেবেন তার চাকরি নেই: তাপস