বৃহস্পতিবার   ০৯ এপ্রিল ২০২০

ব্রেকিং:
সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোর বার্ষিক ছুটি ৭৫ দিন আগামী মার্চে ঢাকা উত্তর সিটির ভোটের ইঙ্গিত সিইসির জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় পরিদর্শনে প্রধানমন্ত্রী আস্থা ভোটে টিকে গেলেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে রাষ্ট্রপতির সঙ্গে নেপালের বিদায়ী রাষ্ট্রদূতের সাক্ষাৎ খালেদার অনুপস্থিতিতেই কারাগারে বিচার চলবে রব ও মান্নার বিয়ে যুক্তফ্রন্টে, পরকীয়া ঐক্যফ্রন্টে: মাহী এটা জোট নয়, ঘোট : তথ্যমন্ত্রী যুক্তরাষ্ট্রে রাজনৈতিক আশ্রয় পেলেন সিনহা আবারও সরকার গঠনে নৌকায় ভোট দেয়ার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর পদ্মা সেতু প্রকল্পের নামফলক উন্মোচন করলেন প্রধানমন্ত্রী
২৮৮০

জান্নাতির পরিবারের নুসরাতের মতো ‘সৌভাগ্য’ নেই

ডেস্ক রিপোর্ট

প্রকাশিত: ১১ জুন ২০১৯  

ফেনীর সোনাগাজীর মাদ্রাসাছাত্রী নুসরাত জাহান রাফিকে পুড়িয়ে হত্যার ঘটনায় দুই মাসের মধ্যে সব আসামিকে গ্রেপ্তার করে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)। ওই মামলার অভিযোগপত্র গ্রহণ ও অভিযোগ গঠনের শুনানির জন্য ২০ জুন দিন ধার্য  করেছেন সেখানকার আদালত। সরকারের তড়িৎ পদক্ষেপে নুসরাতের পরিবার আশা করছে, তারা দ্রুত ন্যায়বিচার পাবে।

কিন্তু নুসরাতের পরিবারের মতো সৌভাগ্য হয়নি নরসিংদীর দশম শ্রেণির ছাত্রী জান্নাতি আক্তারের (১৬) পরিবারের। কেরোসিন ঢেলে জান্নাতিকে পুড়িয়ে হত্যার পৌনে দুই মাস পার হলেও হত্যার ঘটনায় থানায় মামলা হয়নি। আদালতে মামলা হলেও তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেয়নি পিবিআই। এদিকে প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়াচ্ছে জান্নাতির হত্যাকারীরা। হত্যাকারীদের অব্যাহত হুমকির মুখে ভয়ে ও আতঙ্কে দিন কাটছে জান্নাতির পরিবারের সদস্যদের।

ঢাকায় ফেরি করে চা বিক্রি করেন নিহত জান্নাতির বাবা শরীফুল ইসলাম খান। দুই ছেলে ও দুই মেয়ে নিয়ে নরসিংদী সদর উপজেলার হাজিপুর গ্রামের একটি কুটিরে বসবাস করছেন। বাবার মুক্তিযোদ্ধা ভাতা ও চা বিক্রির টাকায় চলে তাঁদের সংসার।

পুলিশ ও নিহতের পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, প্রায় এক বছর আগে হাজিপুর  গ্রামের স্কুলছাত্রী জান্নাতি আক্তারের সঙ্গে পাশের খাচের চর গ্রামের হুমায়ুন মিয়ার ছেলে শিপলু মিয়ার প্রেম হয়। কিছুদিন পরই পরিবারের অমতে তারা পালিয়ে গিয়ে বিয়ে করেন। বিয়ের কিছুদিন যেতে না যেতেই স্বামীর আসল রূপ বেরিয়ে আসে। স্ত্রী জান্নাতিকে পারিবারিক মাদক ব্যবসায় সম্পৃক্ত করতে শাশুড়ি শান্তি বেগম ও স্বামী শিপলু তাকে চাপ প্রয়োগ দিতে থাকেন। এতে রাজি হয়নি জান্নাতি। তাই তার ওপর নেমে আসে অমানুষিক নির্যাতন। এরপর শ্বশুরবাড়ির লোকজন পাঁচ লাখ টাকা যৌতুক দাবি করে। দরিদ্রতার কারণে যৌতুকের দাবি মিটাতে পারেননি জান্নাতির বাবা। ফলে জান্নাতির ওপর নেমে আসে নির্মম নির্যাতন। যৌতুকের টাকা না দেওয়া ও মাদক ব্যবসায় জড়িত না হওয়ায় গত ২১ এপ্রিল রাতে ঘুমন্ত অবস্থায় স্বামী শিপলু, শাশুড়ি শান্তি বেগম ও ননদ ফাল্গুনী বেগম জান্নাতির শরীরে কেরোসিন ঢেলে আগুন লাগিয়ে দেন।  দগ্ধ হয়ে ছটফট করলেও তাকে হাসপাতালে নিয়ে যায়নি তারা। পরে এলাকাবাসীর চাপে তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। অবস্থার অবনতি হলে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে ভর্তি করা হয়। দীর্ঘ ৪০ দিন যন্ত্রণার পর গত ৩০ মে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

নিহত জান্নাতির বাবা শরীফুল ইসলাম খান বলেন, মেয়ের শরীরে আগুন দেওয়ার পর পরই থানায় মামলা করতে যাই। কিন্তু পুলিশ মামলা নেয়নি। পরে আদালতে মামলা দায়ের করি। আদালত থেকে পিবিআইকে তদন্তের দায়িত্ব দেওয়া হলেও তারা তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করেনি। এদিকে হত্যাকারীরা অব্যাহতভাবে আমাদের পরিবারকে ভয়-ভীতি ও হুমকি দিচ্ছে। মামলা করলে আমার ছোট মেয়েকে তুলে নিয়ে যাবে। একই সঙ্গে আমাদের সবাইকে প্রাণে মেরে ফেলবে বলেও হুমকি দিচ্ছে।

জান্নাতির মা হাজেরা বেগম বলেন, মেয়েটাকে ফুসলিয়ে তারা তুলে নিয়ে যায়। সে যখন তার ভুল বুঝতে পেরেছে, তখন তাদের বাড়ি থেকে চলে এসেছে। কিন্তু শ্বশুরবাড়ির লোকজন জোর করে তাকে নিয়ে যায়। আমরা গরিব। তাই বাধা দিয়ে রাখতে পারিনি।

হাজেরা বেগম আরো বলেন, জান্নাতির শ্বশুরবাড়ির লোকজন চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী। তাই তারা পুলিশ ও আইনকেও তোয়াক্কা করে না। তাদের বিরুদ্ধে ১০-১২টি মামলা আছে। রয়েছে পুলিশের সঙ্গে সখ্য। তাই পুলিশ আমাদের মামলা নেয়নি।

এদিকে মৃত্যুর আগে আগুন দিয়ে পোড়ানোর বর্ণানা দিয়ে গেছে জান্নাতি। তার আর্তনাদ কেঁপে উঠেছিল পুরো হাসপাতাল চত্বর। পাশের বেডে থাকা এক রোগী ভিডিও ধারণ করেছে তার করুণ আর্তনাদ। সেখানে দেখা গেছে, মৃত্যু যন্ত্রণায় ছটফট করছিল সে। তীব্র ব্যথা সইতে না পেরে দরিদ্র বাবার কাছে ব্যথানাশক একটি ইনজেকশন দেওয়ার দাবি জানায়। সেখানে সে বলছিল, ‘তোমার কাছে জীবনে আর কিছুই চাইব না বাবা। একটি ব্যথানাশক ওষুধ দাও।’ কিন্তু দরিদ্র বাবা সেই ইনজেকশন কিনে দিতে পারেননি।

জান্নাতির বাবা বলেন, একটি ইনজেকশনের দাম সাত হাজার টাকা। আরেকটির দাম তিন হাজার ৮০০ টাকা। আমি দরিদ্র চা বিক্রেতা। এত টাকা পাব কোথায়? তাই মেয়ের শেষ ইচ্ছা পূরণ করতে পারিনি। ধার-কর্জ ও ঋণ নিয়ে যত দিন ওষুধ দিতে পেরেছি তত দিন বেঁচে ছিল। এরপর আর মেয়েকে বাঁচাতে পারিনি। এখন শুধু একটাই দাবি। হত্যাকারীদের ফাঁসি চাই।

বাদীপক্ষের আইনজীবী অ্যাডভোকেট ফয়সাল সরকার বলেন, নরসিংদীতে ফেনীর নুসরাতের মতো আরো একটি ঘটনার জন্ম নিয়েছে। চাঞ্চল্যকর ঘটনা ঘটলেও থানা পুলিশ মামলা নেয়নি। বাধ্য হয়েই আদালতের দ্বারস্থ হয়েছি।

আদালত সাত দিনের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দিতে বললেও পিবিআই পুলিশ তা দেয়নি। তাই মামলার কর্যক্রম বিলম্ব হচ্ছে। আসামিও গ্রেপ্তার হচ্ছে না।

নিহত জান্নাতির দাদা বীর মুক্তিযোদ্ধা সিরাজুল ইসলাম খান বলেন, জীবন দিয়ে মাদককে না করে গেছে আগুনে দগ্ধ জান্নাতি। প্রেমের টানে ঘর ছাড়লেও যৌতুক ও মাদক ব্যবসার কাছে নতি শিকার করেনি। তার মাদক ব্যবসায়ী স্বামী ও শ্বশুরবাড়ির লোকজনের কঠোর বিচার চাই। জান্নাতির মতো করুণ পরিণতি যেন আর কারো না হয়।

নরসিংদীতে পিবিআইয়ের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এ আর এম আলিফ বলেন, সিআর (আদালতে মামলা) মামলা তদন্ত করতে একটু সময় লাগে। তার ওপর এটি একটি হত্যা মামলা। ঘটনাটিও বড়। তাই স্বচ্ছ ও পুঙ্ক্ষানুপুঙ্ক্ষভাবে সঠিক চিত্র উঠিয়ে আনতেই সময় লাগছে। এরই মধ্যে আমরা প্রাথমিক তদন্তে জান্নাতির গায়ে আগুন দেওয়া ও পরে হত্যার ঘটনার সত্যতা পেয়েছি। আরো কিছু বিষয় আছে। সেগুলো শেষ হলেই আদালতে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল হবে।

আসামিদের গ্রেপ্তার করা প্রসঙ্গে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার বলেন, সিআর মামলায় পিবিআইয়ের গ্রেপ্তার করার বিধান নেই। তবে আদালত ওয়ারেন্ট ইস্যু করলে আমরা গ্রেপ্তার করতে পারি।

আরও পড়ুন
দেশের খবর বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
  • সার্কভুক্ত দেশের বাণিজ্য ক্ষতি পোষাতে ৫ সুপারিশ

  • বঙ্গবন্ধু হত্যার দায় স্বীকার করে প্রাণভিক্ষা চেয়েছেন মাজেদ

  • রাজধানীর মোতাহার বস্তি লকডাউন

  • একাকী ইবাদতের মাধ্যমে শবে বরাত পালন করুন: আল্লামা শফী

  • সৌদি আরবের রাষ্ট্রদূত হচ্ছেন জাবেদ পাটোয়ারী?

  • লকডাউন তুলে নেয়ায় মুখরিত উহান

  • অগ্রণী ব্যাংকের কর্মকর্তা করোনায় আক্রান্ত

  • হজ নিবন্ধনের সময় বাড়লো ১৬ এপ্রিল পর্যন্ত

  • সৌদি রাজ পরিবারের ১৫০ সদস্য করোনা আক্রান্ত!

  • প্রথমবারের মতো নামাজ সম্প্রচার করবে বিবিসি রেডিও

  • ‘শবেবরাত সকলের জন্য ক্ষমা, বরকত, সমৃদ্ধি ও কল্যাণ বয়ে আনুক’

  • গোলাবারুদের চেয়ে ভালোবাসার শক্তি অনেক বেশি: মাশরাফি

  • বগুড়ায় শুরু হচ্ছে করোনা পরীক্ষা

  • বাংলাদেশকে চিকিৎসক-ভেন্টিলেটর সহায়তার আশ্বাস চীনের

  • শ্রীমঙ্গলে করোনাভাইরাস: র‌্যাবের ব্যতিক্রমী উদ্যোগ

  • এবার রাজধানীতে মসজিদের ইমাম করোনায় আক্রান্ত

  • ঢাবি’র আপ্যায়ন ব্যয়ের টাকা প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে দান

  • পবিত্র শবে বরাতে কবরস্থান ও মাজারে জনসমাগম না করার আহ্বান

  • নমুনা সংগ্রহ ও রোগী পরিবহনে ৩টি বাহন প্রস্তুত রাখার নির্দেশ

  • জরুরি প্রয়োজন ছাড়া বাইরে বের হওয়ায় ২৯ জনের জরিমানা

  • এপিবিএন সদস্য করোনা পজিটিভ, ৪৩৪ সদস্য কোয়ারেন্টাইনে

  • ‘মাজেদ বাংলাদেশের স্বাধীনতাকে ধ্বংস করার চেষ্টা করেছিল’

  • জাতিসংঘের বিশ্ব খাদ্য কর্মসূচিতে যোগ দিন

  • যুক্তরাষ্ট্রে করোনায় একদিনেই ২ হাজার মৃত্যু

  • করোনাভাইরাসে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৮৩ হাজার ছাড়ালো

  • আইজিপি হলেন বেনজীর আহমেদ, র‌্যাব মহাপরিচালক মামুন

  • ‘যতদিন প্রয়োজন ততদিন ত্রাণ সামগ্রী দেয়া হবে’

  • ‘একটি মানুষও না খেয়ে থাকবে না’

  • ‘সরকারের কাছে পর্যাপ্ত খাদ্য মজুদ রয়েছে’

  • ‘করোনা প্রমাণ করলো গোলাবারুদের চেয়ে ভালোবাসার শক্তি বেশি’

  • চীন-জাপানে ‘সাফল্য’ পাওয়া করোনার ওষুধ তৈরি করল বাংলাদেশ

  • যাত্রাবাড়ীর সেই নারীর বাসায় খাবার পৌঁছে দিলেন ওসি

  • ‘গোপনীয়তা বজায় রেখে অসহায় মধ্যবিত্তদের খাদ্যসামগ্রী দিবে সরকার’

  • মশার গান আর শুনতে চাই না: মেয়রকে প্রধানমন্ত্রী

  • ৩০ লাখ পরিবারকে ৬৮০ কোটি টাকা নগদ দেবে সরকার: তথ্যমন্ত্রী

  • বাংলাদেশে করোনার আচরণ নিয়ে গবেষকদের বিভিন্ন মত 

  • ‘খাদ্যসামগ্রী নিতে না আসা নাগরিকদের জন্য হটলাইন চালু’

  • সকল অফিসে এক মাসের ছুটি সংক্রান্ত প্রচারটি গুজব

  • মধ্যবিত্ত পরিবারগুলোকে গোপনে ত্রাণ দিবে সিএমপি

  • মানবতার পাশে দাঁড়িয়ে যেসব ছবি ভাইরাল হয়েছে

  • বিনা পারিশ্রমিকে ৫০ হাজার পিপিই তৈরি করেছেন পোশাককর্মীরা

  • বিশ্বে প্রতি মিনিটে করোনাতে আক্রান্ত ৫০, মৃত্যু ৪

  • সকল যানবাহন পর্যায়ক্রমে চালু হবে

  • ‘ঢাকা মেডিকেলে বিনা পয়সায় করোনা পরীক্ষা করা যাবে’

  • ফরিদগঞ্জে রাতের আঁধারে ঘরে ঘরে ত্রাণ পৌঁছে দিচ্ছে তরুণরা

  • করোনা সংক্রান্ত ভুল তথ্য ঠেকাতে ভাইবার ও ডব্লিউএইচও কাজ করছে

  • করোনা সংক্রমণে নতুন পাঁচ উপসর্গ

  • পোশাক শিল্পের পাশে দাঁড়াচ্ছে বিশ্বের নামিদামি ক্রেতা ব্র্যান্ড

  • ৫ এপ্রিল থেকে বস্তিবাসী পাবেন ১০ টাকা কেজিতে চাল

  • প্রধানমন্ত্রীর তহবিলে দুই দিনের বেতন দেয়ার ঘোষণা ঢাবি শিক্ষকদের

  • এবার সরাসরি ঢাকা-কক্সবাজার রেললাইন করবে সরকার

  • কঠোর অবস্থানে যাচ্ছে সেনাবাহিনী

  • শ্রম মন্ত্রণালয়ের সফলতা, ইউরোপীয় ইউনিয়নে জিএসপি বহাল

  • ১০ টাকা কেজি দরে চাল বিক্রি শুরু রোববার

  • কর্মহীনদের ঘরে খাবার পৌঁছে দিবে সরকার

  • পোশাক খাতে সুখবর আসছে

  • এক নজরে প্রধানমন্ত্রীর প্রণোদনা প্যাকেজ

  • ৭২ হাজার ৭৫০ কোটি টাকার প্রণোদনা ঘোষণা প্রধানমন্ত্রীর

  • দেশের ২ লাখ মুক্তিযোদ্ধা পাচ্ছেন নববর্ষ ভাতা

  • রোববার থেকে চালু হচ্ছে পোশাক কারখানা