বুধবার   ০৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৩

সর্বশেষ:
রোকেয়া পদক পাচ্ছেন ৫ নারী আবারও শ্বাসরুদ্ধকর জয়, ৭ বছর পর ভারতের বিপক্ষে সিরিজ বাংলাদেশের একশ’ প্রভাবশালী নারীর তালিকায় বাংলাদেশের ছোঁয়া দেশের দ্বিতীয় ডিজিটাল পল্লি হবে শরীয়তপুরের ডামুড্যায় প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব হলেন তোফাজ্জল হোসেন মিয়া
৪৩

জলবায়ুর প্রভাবে বদলে যাচ্ছে রোগ-জীবাণুর ধরন

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ১৩ ডিসেম্বর ২০২২  

জলবায়ু পরিবর্তনের বিরূপ প্রভাবে বদলে যাচ্ছে রোগ-জীবাণুর ধরন। একদিকে সংক্রামক রোগগুলো যেমন নতুন মাত্রা লাভ করছে, তেমনি অসংক্রামক রোগের প্রকোপও বাড়ছে।
 
স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা বলছেন, নিত্য নতুন ভাইরাস ও ব্যাকটেরিয়া উদ্ভবের সঙ্গে আবহাওয়ার সম্পর্ক রয়েছে। জলবায়ু পরিবর্তনের সঙ্গে ডায়াবেটিস, উচ্চরক্তচাপসহ অন্যান্য অসংক্রামক রোগের প্রত্যক্ষ প্রভাব রয়েছে। বায়ুমণ্ডলের তাপমাত্রা বেড়ে গেলে বিভিন্ন ধরনের রাসায়নিক বিক্রিয়ার ফলে শরীরের নানান পদ্ধতির পরিবর্তন হয়। এসব পরিবর্তন আমাদের অসংক্রামক রোগ (ক্রনিক বা লাইফ স্টাইল ডিজিজ) বাড়িয়ে দেয়।  

তাদের মতে, জলবায়ু পরিবর্তনের আরেকটা প্রত্যক্ষ এবং পরোক্ষ প্রভাব হচ্ছে লবণাক্ত পানি। জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে সমুদ্রের পানির উচ্চতা বাড়ছে। আমাদের খাদ্য চক্রেও লবণাক্ততার পরিমাণ বাড়ছে। লবণাক্ততা বাড়ার ফলে উচ্চ রক্তচাপ বাড়ছে, সেসঙ্গে বাড়ছে হৃদরোগের ঝুঁকি। পাশাপাশি বায়ুদূষণের ফলে আমাদের বিভিন্ন ধরনের বক্ষব্যাধি রোগের প্রকোপ বাড়ছে। নিশ্বাসের সঙ্গে বিভিন্ন ক্ষতিকর পদার্থ শরীরে প্রবেশ করছে। এসব ক্ষতিকর পদার্থ শরীর থেকে বের করতে কিডনি এবং লিভারের ওপর তৈরি হচ্ছে বাড়তি চাপ। এতে শরীরে টক্সিসিটি ইফেক্ট বেড়ে যাচ্ছে। দূষণের ফলে আমাদের মানসিক অশান্তিও বেড়ে যায়। এ কারণে দৈহিক, মানসিক ও সংক্রামক এবং অসংক্রামক সব রোগ শোকে জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব রয়েছে।  

জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে স্বাস্থ্যগত ঝুঁকির বিষয়ে জানতে চাইলে জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ ও হেলথ অ্যান্ড হোপ স্পেশালাইজড হাসপাতালের পরিচালক ডা. লেলিন চৌধুরী বলেন, জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে সাধারণত যেসব রোগ জীবাণু মানুষের জন্য ক্ষতিকর নয়, সেগুলো ক্ষতিকর রূপে আবির্ভূত হয়। যে রোগগুলো অন্য কোনো পশু কিংবা প্রাণীর হওয়ার কথা, মানুষের হতো না, সেগুলো এখন পশু ও প্রাণী থেকে মানুষের হচ্ছে। অর্থাৎ আগে যে রোগগুলো বনে-বাদাড়ে সীমাবদ্ধ থাকতো, বন-বাদাড় পরিবেশ প্রকৃতি ধ্বংসের ফলে সেগুলো এখন মানুষের শরীরে সংক্রামিত হচ্ছে। যেমন করোনার মতো জুনোটিক ডিজিজ। পাশাপাশি এর ফলে জলজীবন, ভূমি জীবন, প্রাণী অথবা মানুষের জীবনের পরিপার্শিকতা ও পরিবেশ ক্ষতিগ্রস্ত হয়। মানুষের সুস্বাস্থ্য পরিবেশের সঙ্গে জীবনের যে ভারসাম্য তার ওপর নির্ভর করে। যখন সেই প্রতিবেশ এবং পরিবেশ বিপদাপন্ন হয়, তখন জীবনের সব কিছুই ক্ষতিগ্রস্ত হয়।

বিশিষ্ট চিকিৎসা বিজ্ঞানী এবং বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব হেলথ সায়েন্সেসের সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক ডা. লিয়াকত আলী বলেন, বর্তমান সময়ে জলবায়ু পরিবর্তন মানব স্বাস্থ্যের অন্যতম প্রধান ঝুঁকি। আবহাওয়া, তাপমাত্রার উঠানামা, মাটি এবং পানিতে দূষণের ফলে রোগ জীবাণুর ধরন পরিবর্তন হয়ে যাচ্ছে। কোনো কোনো রোগ জীবাণুর পুনরাবির্ভাব হচ্ছে। বেশ কিছু রোগ জীবাণুর মিউটেশন হয়ে নতুন ধরনের মারাত্মক কিছু রোগ তৈরি হচ্ছে। সাম্প্রতিককালে আমরা সেগুলোর ভয়াবহতা লক্ষ্য করেছি। ঘন ঘন এ ধরনের মহামারি দেখা দিচ্ছে, কোনোটা আবার অতিমারির রূপ লাভ করছে। জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে সংক্রামক ব্যাধিগুলোর প্রভাব শুরু হয়ে গেছে।

তিনি বলেন, জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে খাদ্যের কম্পোজিশনের পরিবর্তন হয়ে যাচ্ছে। যেমন অতিরিক্ত লবণাক্ততা এবং সুপেয় পানির অভাব। এর সঙ্গে উচ্চ রক্তচাপ এবং অন্যান্য রোগের সম্পর্ক রয়েছে। খাদ্য উপাদানেও মারাত্মক পরিবর্তন দেখা দিচ্ছে। খাদ্যের পরিমাণ বাড়লেও পুষ্টিমান কমে যাচ্ছে। ফলে পুষ্টিগত অসুখগুলো বেড়ে যাওয়ার সম্ভাবনা দেখা দিচ্ছে।

চিকিৎসাবিজ্ঞানী ডা. লিয়াকত আলী বলেন, আবহাওয়ার কারণে মানুষের আচরণগত পরিবর্তন হচ্ছে। অতিরিক্ত তাপমাত্রার কারণে মানুষের ঘরে বসে থাকার প্রবণতা বেড়েছে এবং কায়িক শ্রমের প্রবণতা কমে গেছে। ফলে স্থূলতা বাড়ছে। স্থূলতার সঙ্গে উচ্চ রক্তচাপ বা ডায়াবেটিসের ঝুঁকি বাড়ছে। বায়ুমণ্ডলে কার্বন-ডাই-অক্সাইডের পরিমাণ বেড়ে যাওয়ায় শরীরে দীর্ঘস্থায়ী প্রভাব ফেলছে। অসংক্রামক ব্যাধি যেমন ডায়াবেটিস, উচ্চ রক্তচাপ, ক্যানসার, শ্বাসতন্ত্রের রোগের সঙ্গে জলবায়ু পরিবর্তনের প্রত্যক্ষ প্রভাব রয়েছে। যত ধরনের রোগ অর্থাৎ সংক্রামক এবং অসংক্রামক কিংবা পুষ্টিগত ব্যাধি সবকিছুর মধ্যেই জলবায়ু পরিবর্তন রয়েছে।
 
জলবায়ু পরিবর্তনের বিরূপ প্রভাব দুশ্চিন্তার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। একদিকে রোগ-জীবাণুর পরিবর্তন হচ্ছে, প্রকৃতি এবং পরিবেশ পরিবর্তনে আমাদের খাদ্য উপাদান এবং অভ্যাসের পরিবর্তন হচ্ছে। সবকিছুর যোগফল স্বাস্থ্যগত ধ্বংসের দিকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে বলেও জানান চিকিৎসাবিজ্ঞানী ডা. লিয়াকত আলী।

জলবায়ু বিশেষজ্ঞ ও স্বাস্থ্য সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা বলেছেন, পৃথিবীব্যাপী এখন যে উন্নয়নের নেশা চলছে, সেই উন্নয়নকে পরিবেশের সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ করতে হবে। প্রকৃতি ও পরিবেশ ধ্বংস করে এমন যাবতীয় কর্মকাণ্ড থেকে বিরত থাকতে হবে। পরিবেশ প্রকৃতি ধ্বংস করে উন্নয়ন করলে, তাতে হিতে বিপরীত হবে এবং মানুষের স্বাস্থ্যঝুঁকিও বাড়বে।

আরও পড়ুন
স্বাস্থ্য বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
  • লালমনিরহাটে ‘বাংলা ইশারা ভাষা’ দিবস পালিত

  • নবায়নযোগ্য জ্বালানি খাতে বিনিয়োগে আগ্রহী চীন

  • সাতদিনে বইমেলায় ৫৩৫ নতুন বই

  • ভুটানের জালে ৫ গোল দিয়ে ফাইনালে বাংলাদেশের মেয়েরা

  • পদ্মাপাড়ে ‘সমুদ্র বিলাস’

  • রেলপথ মন্ত্রণালয়ের সম্মাননা পেলেন ড. অরূপরতন চৌধুরী

  • বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রীর সঙ্গে নবনিযুক্ত জাপানের রাষ্ট্রদূতের সৌজন্য

  • পাঁচ খাতে দক্ষ শ্রমিক নেবে সৌদি আরব

  • পাহাড়ে সৌর বিদ্যুতের সেচ প্রকল্পে উপকৃত বান্দরবানের কৃষকেরা

  • হজের নিবন্ধন শুরু ৮ ফেব্রুয়ারি

  • উত্তরাঞ্চলে চা উৎপাদনের রেকর্ড

  • নওগাঁয় মাশরুম চাষে সাফল্য

  • তুরস্কে প্রবাসী বাংলাদেশিদের জন্য হটলাইন চালু

  • এইচএসসির ফল প্রকাশ ৮ ফেব্রুয়ারি

  • ভোলার চরফ্যাশনে বিষমুক্ত সবজি চাষ হচ্ছে

  • তিস্তার চরে পেঁয়াজের বাম্পার ফলনের স্বপ্ন দেখছেন কৃষকরা

  • ফুলচাষেই লাভবান নওগাঁর চাষিরা

  • অক্টোবরে উদ্বোধন হবে শাহজালাল আন্তঃ বিমানবন্দরে তৃতীয় টার্মিনাল

  • পরীক্ষামূলকভাবে চালু হলো নাগরিক ভূমিসেবা কেন্দ্র

  • ১ মাসের ব্যবধানে আরিফিন শুভ`র চোখ ধাঁধানো পরিবর্তন

  • তুরস্কের পাশে দাঁড়াল বাংলাদেশ! যাচ্ছে উদ্ধারকারী দল।

  • তুরস্ক যেন এক মৃত্যুপুরী! বেড়ে চলেছে মৃতের সংখ্যা!

  • ভেজাল ওষুধ উৎপাদন বিক্রিতে যাবজ্জীবন

  • প্রেসক্রিপশন ছাড়া ওষুধ বিক্রি করলে ২০ হাজার টাকা জরিমানা

  • জানুয়ারিতে মূল্যস্ফীতি কমে ৮.৫৭ শতাংশ

  • ১১৬১ কোটি টাকার দুর্নীতি : বিমানের ২৩ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে দুদকের

  • ফ্লাইওভারের দেওয়াল লিখন ও পোস্টার সরানোর নির্দেশ

  • তুরস্ক-সিরিয়ায় ভূমিকম্পে হতাহতের ঘটনায় রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী

  • বায়ু ও শব্দদূষণের দায়ে ১৬ যানবাহন ও ১২ প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা

  • ‘মুজিব হানড্রেড সং’র মোড়ক উন্মোচন করলেন প্রধানমন্ত্রী

  • নতুন শিক্ষাব্যবস্থার যুগে বাংলাদেশ

  • আদানির বিদ্যুৎ আসছে মার্চে

  • মামলায় সরকারি সাক্ষীদের খরচ দেয়ার নির্দেশ

  • রামপালে জুনের মধ্যে দ্বিতীয় ইউনিটে উৎপাদন শুরু

  • ‘একুশ’ বাঙালির প্রথম পরিচয়

  • সমন্বিত ট্র্যাফিক ব্যবস্থাপনা চালুর পরিকল্পনা করছে সরকার

  • ‘স্মার্ট জাতি গঠনই আমাদের পরবর্তী লক্ষ্য’

  • স্পিকারের সাথে নর্ডিক রাষ্ট্রগুলোর রাষ্ট্রদূতদের সৌজন্য সাক্ষাৎ

  • জাহাজ রফতানিতে নবদিগন্ত

  • রাজস্ব আয় আরও বাড়ানোর পদক্ষেপ নিতে হবে : প্রধানমন্ত্রী

  • বাংলাদেশ একটি সফল উন্নয়নের গল্প: বিশ্ব ব্যাংক

  • জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ডিগ্রি তৃতীয় বর্ষের ফল প্রকাশ

  • জিডিপিতে আমরা মালয়েশিয়া-সিঙ্গাপুরকে পেছনে ফেলেছি : তথ্যমন্ত্রী

  • ধামরাইয়ে কৃষকদের মাঝে ঋণ বিতরণ

  • খুলনায় ১০৭ প্রতিষ্ঠানের পতিত জমিতে ফসলের ঝিলিক

  • বাংলাদেশের জন্য ৪৭০ কোটি মার্কিন ডলার ঋণ অনুমোদন করেছে আইএমএফ

  • পর্দা উঠলো অমর একুশে গ্রন্থ মেলার

  • দেশের প্রথম পাতাল রেলের নির্মাণকাজ উদ্বোধন ২ ফেব্রুয়ারি

  • জানুয়ারিতে ৫১৪ কোটি ডলারের পণ্য রপ্তানি

  • মেট্রোরেলে টিকিট বেচে আয় আড়াই কোটি টাকা

  • পাতাল রেলের যুগে বাংলাদেশ

  • উন্নয়নের নতুন মুকুট পাতালরেলের আদ্যোপান্ত

  • ঢাকায় আর্জেন্টিনার দূতাবাস চালু হচ্ছে ২৭ ফেব্রুয়ারি

  • প্রাথমিক বিদ্যালয়ে আরও সাড়ে ৭ হাজার শিক্ষক নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি আসছে

  • প্রথমবারের মতো ১২০ কিমি মিসাইল ফায়ারিং এর যুগে বাংলাদেশ

  • ২০২৬ সালেই চালু হবে মাতারবাড়ী গভীর সমুদ্র বন্দর : নৌ প্রতিমন্ত্রী

  • রিজার্ভ চুরি: সাক্ষ্য দিতে ফিলিপাইনে বাংলাদেশের কর্মকর্তারা

  • ২৭ দিনে রেমিট্যান্স এলো ১৮ হাজার কোটি টাকা

  • চীনকে পেছনে ফেলে পোশাক রপ্তানিতে শীর্ষে বাংলাদেশ

  • জানুয়ারিতে রপ্তানি আয় বেড়েছে ৫.৮৯%