শনিবার   ০৪ এপ্রিল ২০২০

ব্রেকিং:
সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোর বার্ষিক ছুটি ৭৫ দিন আগামী মার্চে ঢাকা উত্তর সিটির ভোটের ইঙ্গিত সিইসির জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় পরিদর্শনে প্রধানমন্ত্রী আস্থা ভোটে টিকে গেলেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে রাষ্ট্রপতির সঙ্গে নেপালের বিদায়ী রাষ্ট্রদূতের সাক্ষাৎ খালেদার অনুপস্থিতিতেই কারাগারে বিচার চলবে রব ও মান্নার বিয়ে যুক্তফ্রন্টে, পরকীয়া ঐক্যফ্রন্টে: মাহী এটা জোট নয়, ঘোট : তথ্যমন্ত্রী যুক্তরাষ্ট্রে রাজনৈতিক আশ্রয় পেলেন সিনহা আবারও সরকার গঠনে নৌকায় ভোট দেয়ার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর পদ্মা সেতু প্রকল্পের নামফলক উন্মোচন করলেন প্রধানমন্ত্রী
৫৫

চন্দ্র ও সূর্যগ্রহণ: ইসলামের দৃষ্টিতে...

ডেস্ক রিপোর্ট

প্রকাশিত: ২৬ ডিসেম্বর ২০১৯  

আমাদের উচিত যা কিছু পবিত্র কোরআন ও রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের সহিহ হাদিসে রয়েছে সে সম্পর্কে জানা ও সে অনুযায়ী আমল করা এবং সমস্ত কুসংস্কার ও জাহিলিয়াতকে বর্জন করা।

আমাদের আজকের আলোচনা পবিত্র কোরআন ও সহিহ হাদিসে চন্দ্র ও সূর্যগ্রহণ সম্পর্কে-

চন্দ্র ও সূর্য আল্লাহর সৃষ্টি। এরই প্রমাণস্বরূপ আল্লাহ এ দু’টির ওপর ‘গ্রহণ’ প্রদান করেন। এটি আল্লাহর শক্তিমত্তার নিদর্শন বৈ কিছুই নয়।

চন্দ্র ও সূর্যগ্রহণ তার পূজারিদের প্রতি আল্লাহর পক্ষ থেকে এ সতর্কবাণী পৌঁছে দেয় যে, এ দু’টিও অন্যান্য সৃষ্টির মতো আল্লাহর এক সৃষ্টি। এরা উপাসনার যোগ্য নয়। যেহেতু এরা নিজেরাই বিপদগ্রস্ত হয়, যা থেকে নিজেরা আত্মরক্ষা করতে পারে না, সেহেতু এগুলো উপাসনার যোগ্য হতে পারে না। বরং এ দু’টিকে আল্লাহকে চেনার নিদর্শন হিসেবে গণ্য করাই প্রকৃত বুদ্ধিমত্তার পরিচায়ক। 

মহান রাব্বুল আলামিন আল্লাহ তায়ালা বলেছেন, 

وَمِنْآ يَاتِهِ اللَّيْلُ وَالنَّهَارُ وَالشَّمْسُ وَالْقَمَرُ لَا تَسْجُدُوا لِلشَّمْسِ وَلَا لِلْقَمَرِ وَاسْجُدُوا لِلَّهِ الَّذِي خَلَقَهُنَّ إِن كُنتُمْ إِيَّاهُ تَعْبُدُونَ

‘আর তাঁর নিদর্শনসমূহের মধ্যে রয়েছে দিবস, রজনী, সূর্য ও চন্দ্র। তোমরা সূর্যকে সিজদা করো না, চন্দ্রকেও না; সিজদা করো আল্লাহকে, যিনি এগুলো সৃষ্টি করেছেন, যদি তোমরা নিষ্ঠার সঙ্গে শুধুমাত্র তাঁরই ইবাদত কর। (সূরা: হা-মীম, আয়াত: ৩৭০)।  

জাহিলি যুগে মানুষ ধারণা করত যে, বিশ্বে কোনো মহাপুরুষের জন্ম, মৃত্যু কিংবা দুর্যোগ, দুর্ভিক্ষ প্রভৃতির বার্তা দিতে সূর্য বা চন্দ্রগ্রহণ হয়ে থাকে। ইসলাম একে ভ্রান্ত ধারণা আখ্যায়িত করেছে এবং ‘গ্রহণ’-কে সূর্য ও চন্দ্রের ওপর একটি বিশেষ ক্রান্তিকাল বা বিপদের সময় বলে গণ্য করেছে। এ জন্য সূর্য বা চন্দ্রগ্রহণের সময় মুমিনদের নির্দেশ দেয়া হয়েছে, তারা যেন এ সময়ে অন্যান্য কাজকর্ম বন্ধ রেখে আল্লাহর জিকির, তাসবিহ, দোয়া, সালাত প্রভৃতি আমল করে।

হাদিসের আলোকে চন্দ্র ও সূর্যগ্রহণ:

(১) মুগিরা ইবনু শুবা (রা.) থেকে বর্ণিত। তিনি বলেছেন যে, রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের পুত্র ইব্রাহিমের মৃত্যুর দিনটিতেই সূর্যগ্রহণ হলো। তখন আমরা সকলে বলাবলি করছিলাম যে, নবিপুত্রের মৃত্যুর কারণেই এমনটা ঘটেছে। আমাদের কথাবার্তা শুনে রাসূল (সা.) বললেন, ‘সুর্য এবং চন্দ্র আল্লাহর অগণিত নিদর্শনের মধ্যে দু’টি নিদর্শন। কারোর মৃত্যু কিংবা জন্মগ্রহণের ফলে চন্দ্র বা সূর্যগ্রহণ হয় না।’ (বুখারি, আসসাহিহ : ১০৪৩; মুসলিম, আসসাহিহ : ৯১৫)।

(২) আয়িশা রাদিয়াল্লাহু আনহা থেকে বর্ণিত। তিনি বলেন, রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের জামানায় একবার সূর্যগ্রহণ হলো। গ্রহণ শুরু হবার সঙ্গে সঙ্গে রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম দ্রুত মসজিদের দিকে ধাবিত হলেন এবং সকলকে মসজিদে আসতে আহ্বান জানালেন। তিনি নামাজে দাঁড়ালেন এবং এত দীর্ঘ করলেন যে এই জামায়াতে আগে কখনো এমন করেননি। এরপর রুকুতে গেলেন এবং রুকু এত দীর্ঘ করলেন যা আগে কখনো করেননি। এরপর দাঁড়ালেন কিন্তু সিজদায় গেলেন না এবং দ্বিতীয় রাকায়াতেও কিরায়াত দীর্ঘ করলেন। এরপর আবার তিনি রুকুতে গেলেন এবং তা পূর্বের চেয়ে আরো দীর্ঘ করলেন। রুকু সমাপ্ত হলে দাঁড়ালেন এবং এরপর সিজদায় গেলেন এবং তা এত দীর্ঘ করলেন যে, আগে কখনো এমনটা করেননি। এরপর সিজদা থেকে দাঁড়িয়ে প্রথম দু’রাকায়াতের ন্যায় দ্বিতীয়বারও ঠিক একইভাবে নামাজ আদায় করলেন। ততক্ষণে সূর্যগ্রহণ শেষ হয়ে গেছে। নামাজ সমাপ্ত হলে তিনি আল্লাহর প্রশংসা পেশ করে খুতবা প্রদান করলেন। তিনি বললেন, ‘সূর্য এবং চন্দ্র আল্লাহর অগণিত নিদর্শনসমূহের মধ্যে দু’টি নিদর্শন। কারো মৃত্যু কিংবা জন্মগ্রহণের ফলে চন্দ্রগ্রহণ বা সূর্যগ্রহণ হয় না। অতএব, যখনই তোমরা চন্দ্রগ্রহণ বা সূর্যগ্রহণ প্রত্যক্ষ করবে তখনই আল্লাহকে ডাকবে, তাঁর বড়ত্ব ও মহত্ব প্রকাশ করবে এবং নামাজে রত হবে। (বুখারি, আসসাহিহ : ১০৪৪; মুসলিম, আসসাহিহ : ৯০১)।

(৩) আবু বকর (রা.) থেকে বর্ণিত। তিনি বলেন, আমরা নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এর কাছে ছিলাম। এ সময় সূর্যগ্রহণ শুরু হয়। রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম তখন উঠে দাঁড়ালেন এবং নিজের চাদর টানতে টানতে মসজিদে প্রবেশ করলেন এবং আমরাও প্রবেশ করলাম। তিনি আমাদেরকে নিয়ে সূর্য প্রকাশিত হওয়া পর্যন্ত দু’রাকাত নামাজ আদায় করলেন। এরপর তিনি বললেন, ‘কারো মৃত্যুর কারণে কখনো সূর্যগ্রহণ কিংবা চন্দ্রগ্রহণ হয় না। তোমরা যখন সূর্যগ্রহণ দেখবে তখন এ অবস্থা কেটে যাওয়া পর্যন্ত নামাজ আদায় করবে এবং দোয়া করতে থাকবে।’ (বুখারি, আসসাহিহ : ৯৮৩)।

(৪) নুমান ইবনু বাশির (রা.) সূত্রে নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম থেকে বর্ণিত যে, তিনি একদিন অতি দ্রুত মসজিদ অভিমুখে বের হয়ে গেলেন, তখন সূর্যগ্রহণ লেগে গিয়েছিল। তারপর এমনভাবে নামাজ আদায় করলেন যে, সূর্য আলোকিত হয়ে গেল। তারপর তিনি বললেন, ‘জাহিলি যুগের লোকেরা বলত যে, কোনো মহান ব্যক্তির মৃত্যু ব্যতীত চন্দ্র-সৃর্যের গ্রহণ হয় না। অথচ কারো জন্ম মৃত্যুর কারণে চন্দ্র-সূর্যের গ্রহণ হয় না, বরং তারা আল্লাহর সৃষ্ট বস্তুসমূহের দু’টি বস্তু। আল্লাহ তায়ালা তার সৃষ্টিতে যা যা ইচ্ছা নব নব সৃষ্টি করেন। অতএব, সূর্য এবং চন্দ্রের কারো যদি গ্রহণ লেগে যায়, তবে তোমরা নামাজ আদায় করতে থাকবে, তা আলোকিত হওয়া অথবা আল্লাহ তায়ালার নতুন কোনো ফয়সালা না হওয়া পর্যন্ত।’ (নাসায়ি, আসসুনান : ১৪৯৩)।

(৫) আবু মুসা (রা.) থেকে বর্ণিত। তিনি বলেন, রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের যুগে একবার সূর্যগ্রহণ হয়েছিল। তখন তিনি ওঠে দাঁড়ালেন এ আশংকায় যে, কিয়ামতের মহাপ্রলয় বুঝি সংঘটিত হবে। তিনি দ্রুত মসজিদে এলেন। অত্যন্ত দীর্ঘ কিয়াম, দীর্ঘ রুকু ও দীর্ঘ সিজদার সঙ্গে নামাজ আদায় করলেন। আমি আর কোনো নামাজে কখনো এরূপ দেখিনি। এরপর তিনি বললেন, ‘আল্লাহর প্রেরিত এসব নিদর্শনাবলি কারো মৃত্যুর জন্য হয় না, কারো জন্মের জন্যও হয় না। বরং তিনি এগুলো প্রেরণ করেন তাঁর বান্দাদের সতর্ক করার জন্য। যখন তোমরা এসব নিদর্শনাবলির কিছু দেখতে পাও, তখন তোমরা আতংকিত হৃদয়ে আল্লাহর জিকির, দোয়া ও ইস্তিগফারের মশগুল হও।’ (মুসলিম, আসসাহিহ : ১৯৮৯)।

ইসলাম বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
  • নাগরিকদের নিয়ে দ্বিতীয় চার্টার্ড ফ্লাইট যুক্তরাষ্ট্রে যাবে রোববার

  • ১৭৯৮ সালের পর প্রথমবারের মতো বাতিল হতে পারে হজ

  • বিশ্বে প্রতি মিনিটে করোনাতে আক্রান্ত ৫০, মৃত্যু ৪

  • আলমডাঙ্গায় জুমার নামাজে দূরত্ব রেখে বসতে বলায় যুবকের কাণ্ড!

  • ভারতে আটকা বাংলাদেশিরা লকডাউনের পর ফিরবেন

  • লক্ষ্মীপুরে খাবার নিয়ে দিনমজুরের বাড়িতে ডিসি

  • ঝিনাইদহে আড্ডা ঠেকাতে কেটলি নিয়ে খাবার দিচ্ছে চেয়ারম্যান

  • ‘গোপনীয়তা বজায় রেখে অসহায় মধ্যবিত্তদের খাদ্যসামগ্রী দিবে সরকার’

  • মানিকগঞ্জে টোকাইয়ের ফোনে খাবার নিয়ে হাজির ইউএনও

  • ‌‌‌‌ক্লিনিক-প্রাইভেট চেম্বার বন্ধ থাকলে ব্যবস্থা নেয়া হবে 

  • ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে করোনা ধ্বংস করছে ওষুধ

  • করোনায় মৃতের সংখ্যা ৫৮ হাজার ছাড়িয়েছে

  • করোনাভাইরাস রোধে সাত লাখ পাউন্ড দিলেন নেইমার

  • একদিনে ৬ হাজার মৃত্যু দেখল বিশ্ব

  • দক্ষিণ আফ্রিকাতে বসবাসকারী শতভাগ বাংলাদেশি করোনাভাইরাসের ঝুঁকিতে

  • ফ্রান্সে ২৪ ঘণ্টায় প্রায় দেড় হাজার মৃত্যু

  • স্পেনে ২৪ ঘণ্টায় ৯৫০ জনের মৃত্যু

  • স্বাস্থ্যকর্মীদের স্টেডিয়ামে থাকার ব্যবস্থা করলো ইংল্যান্ড

  • গাজীপুরে ঘরে ঘরে খাবার পৌঁছে দিচ্ছেন এমপি সবুজ

  • সাংবাদিক করোনায় আক্রান্ত, ৪৭ জন কোয়ারেন্টাইনে

  • বাংলাদেশে করোনার আচরণ নিয়ে গবেষকদের বিভিন্ন মত 

  • ‘খাদ্যসামগ্রী নিতে না আসা নাগরিকদের জন্য হটলাইন চালু’

  • দেশে করোনা চিকিৎসায় বসুন্ধরা ও ফর্টিস গ্রুপের আগ্রহ

  • মানবতার পাশে দাঁড়িয়ে যেসব ছবি ভাইরাল হয়েছে

  • এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের উদ্বিগ্ন না হওয়ার পরামর্শ

  • করোনা মোকাবেলায় ৩ কোটি রুপি দান করেছেন কোহলি

  • দেশে করোনায় আক্রান্ত বেশিভাগ বিদেশ থেকে এসেছেন

  • দেশে করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়াল ৬১

  • ‘সেনাবাহিনীর ত্রাণ বিতরণের সংবাদ অসত্য ও বানোয়াট’

  • রমেকে করোনা শনাক্তে নমুনা সংগ্রহের কাজ শুরু

  • কল করার ৩০ মিনিটেই বাজার নিয়ে হাজির পুলিশ!

  • করোনার সাহায্য নিয়ে নয়-ছয় করলে ছাড়ব না, হুশিয়ারি প্রধানন্ত্রীর

  • যাত্রাবাড়ীর সেই নারীর বাসায় খাবার পৌঁছে দিলেন ওসি

  • নওগাঁয় একাই ৩০ হাজার পরিবারের দায়িত্ব নিলেন জলিল জন

  • মশার গান আর শুনতে চাই না: মেয়রকে প্রধানমন্ত্রী

  • দাফনের পর মৃতদেহ থেকে করোনাভাইরাস ছড়ায় না

  • পরিস্থিতি বিবেচনায় ছুটি আরও বাড়ছে: প্রধানমন্ত্রী 

  • বাজারে নিরাপদ দূরত্ব নিশ্চিতে লালবৃত্ত এঁকে দিচ্ছে ডিএমপি

  • হায়রে কুশিক্ষিত, অর্বাচীন মেধাবী!

  • ভেন্টিলেটর তৈরির কৌশল উন্মুক্ত করলেন বাংলাদেশের ইশরাক

  • ‘করোনা রোধে প্রয়োজনে অন্য দেশকেও সহায়তা করতে প্রস্তুত বাংলাদেশ’

  • সবাইকে ঘরে থেকে পরিবারকে সময় দেয়ার অনুরোধ জানালেন করোনাজয়ী তরুণ

  • ‘পদ্মা সেতুর ৪২টি খুঁটির সবগুলোর নির্মাণ কাজ শেষ’

  • করোনার কালকেটা কেমন হবে?

  • জনগণের কল্যাণেই এবার নববর্ষের অনুষ্ঠান হবে না: প্রধানমন্ত্রী

  • ‘বৈশ্বিক মহামারীতে আমাদের যা করণীয়’

  • প্রধানমন্ত্রীর তহবিলে ২৫ কোটি টাকা দিল সশস্ত্র বাহিনী

  • ‘সতর্ক থেকে নিজে বাঁচুন, অন্যকে বাঁচতে দিন’

  • সকল অফিসে এক মাসের ছুটি সংক্রান্ত প্রচারটি গুজব

  • টানা দ্বিতীয় দিনেও নতুন কোনো করোনারোগী শনাক্ত হয়নি: আইইডিসিআর

  • করোনার বিস্তার আটকে দিতে পারে উষ্ণ আর্দ্র আবহাওয়া

  • ভারতীয় রুপির বিপরীতে শক্তিশালী হচ্ছে টাকার মান

  • ‘গোপনীয়তা বজায় রেখে অসহায় মধ্যবিত্তদের খাদ্যসামগ্রী দিবে সরকার’

  • করোনা আক্রান্তদের জন্য অস্থায়ী হাসপাতাল করবে সেনাবাহিনী

  • বিনা পারিশ্রমিকে ৫০ হাজার পিপিই তৈরি করেছেন পোশাককর্মীরা

  • ২ হাজার পরিবারকে সহায়তা দিয়েছে সাকিব আল হাসান ফাউন্ডেশন

  • জেনে নিন, করোনাভাইরাস নিয়ে সত্য মিথ্যা

  • করোনা সংক্রান্ত ভুল তথ্য ঠেকাতে ভাইবার ও ডব্লিউএইচও কাজ করছে

  • সকল যানবাহন পর্যায়ক্রমে চালু হবে

  • চীনের মতো করোনা চিকিৎসায় হাসপাতাল হচ্ছে ঢাকায়