মঙ্গলবার   ০৯ মার্চ ২০২১

সর্বশেষ:
সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোর বার্ষিক ছুটি ৭৫ দিন আগামী মার্চে ঢাকা উত্তর সিটির ভোটের ইঙ্গিত সিইসির আস্থা ভোটে টিকে গেলেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় পরিদর্শনে প্রধানমন্ত্রী রাষ্ট্রপতির সঙ্গে নেপালের বিদায়ী রাষ্ট্রদূতের সাক্ষাৎ সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন করতে ইসি প্রতিজ্ঞাবদ্ধ: নূরুল হুদা বারবার আসতে পারব না, যত খুশি সাজা দিন: খালেদা জিয়া ‘আকাশবীণার’ উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী ত্রিভুবনে আবারও বিমান দুর্ঘটনা ট্রেন-বাসের সংঘর্ষে নিহত ২, আহত ২৫ ভুয়া ছবি দিয়ে অপপ্রচার চালাচ্ছে মিয়ানমার: প্রধানমন্ত্রী
১৭৯

কৃষিতে প্রযুক্তির ব্যবহার, ভাগ্য বদলেছে কৃষকের

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০২১  

আধুনিক প্রযুক্তি, সময়োপযোগী কৃষিনীতি আর কৃষকদের অক্লান্ত পরিশ্রমে বদলে গেছে দেশের কৃষির চিত্র। কৃষিক্ষেত্রে সবজি চাষে নীরব বিপ্লব ঘটেছে। সবজির উৎপাদন দ্বিগুণ বৃদ্ধি পেয়েছে। কৃষকদের আয়ও বেড়েছে। দেশের পূর্বাঞ্চলের কৃষক বিবর্তিত জলবায়ুর সাথে সংগ্রাম করে কৃষি বিপ্লবে এখন মাঠে ময়দানে কাজ করছেন। বৈরী আবহাওয়াকে চ্যালেঞ্জ করে মাথার ঘাম পায়ে ফেলে ফসল ফলাতে এখন কঠোর পরিশ্রম করছেন। এ যুদ্ধ গ্রামে গ্রামে মাঠে মাঠে বাড়ির আঙ্গিনায় আঙ্গিনায়। এ সংগ্রাম যেন সর্বত্র।

মাটির মাঝে তুলে আনছে ফসলের খাটি সোনা। গত দুই যুগ আগের কৃষি কাজের সাথে বিস্তার ফারাক এখনকার প্রযুক্তি। যেখানে একদা সবজি চাষ ছিল আকাশকুসুম কল্পনা মাত্র সেখানে সবজি চাষ এখন আশীর্বাদ। সবজির মূল্যও এখন কম নয়। সারা বছর গড়ে কোন সবজির দামই ৪০ টাকার নিচে নয়। কৃষক তাই কোমর বেধে কৃষিযজ্ঞে আমুল পরিবর্তন আনছে। তাই উচ্চফলনশীল সবজি চাষ পূর্বাঞ্চলের কৃষকের ভাগ্য ক্রমেই বদলে দিয়েছে এই সবজি চাষ বিপ্লব। গ্রামে গ্রামে চাষ হচ্ছে এ সবজি। পূর্বাঞ্চলের বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা গেছে কম খরচে অধিক লাভ হওয়ায় কৃষকরা এখন উচ্চফলনশীল জাতের শাক-সবজির চাষ করছেন। চাষিরা দেশীয় বীজ বাদে হাইব্রিড চাষ করে অধিকফলন ফলাচ্ছে। 

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতর ও বাংলাদেশ কৃষি উন্নয়ন করর্পোরেশন সাম্প্রতিক প্রতিবেদনের তথ্য অনুযায়ী, এখন দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলে কৃষিকাজে সেকেলে যন্ত্রপাতির বদলে আধুনিক যন্ত্রপাতি ব্যবহারে আগ্রহ বাড়ছে কৃষকদের। কেবল জমি চাষই নয়, জমিতে সার দেওয়া, কীটনাশক ছিটানো থেকে শুরু করে সবই আধুনিক যন্ত্রের মাধ্যমে করা যাচ্ছে।

কৃষি অধিদফতরের তথ্য অনুযায়ী ফেনী, নোয়াখালী, লক্ষীপুর, ব্রাক্ষণবাড়িয়াসহ দেশের পূর্বাঞ্চলে আধুনিক যন্ত্রপাতি ব্যবহার করে মাঠে ঘাটে সবজি চাষ অব্যাহত রেখেছেন। কৃষিবিদরা মনে করছেন সরকারের যুগোপযোগী পরিকল্পনা, কৃষিতে প্রযুক্তির ব্যবহার, পরিশ্রমী কৃষক এবং মেধাবী কৃষি বিজ্ঞানী যৌথ প্রয়াসেই এমন সাফল্য এসেছে।

কৃষি বিভাগের পরামর্শে পূর্বাঞ্চলের হাজার হাজার হেক্টর জমিতে সবজি চাষ এখন নজর কাড়ার মত। যেখানে কোনদিন সবজি চাষের অস্তিত্বই ছিল না সেখানে এখন সবুজের সমরাহ। বুড়িচং উপজেলার শিকারপুর গ্রামের কৃষক রমিজ উদ্দিন জানান, ১১-১২ বছর ধরে তিনি কৃষি কাজের সাথে আছেন। এটি তার প্রধান পেশা। চলতি বছর ৫ বিঘা জমিতে লাউ চাষ করে প্রায় সাড়ে ৩ লাখ টাকার বেচা কেনা করেছেন। প্রতিদিন ২শ’ থেকে ৩শ’ লাউ বাজারজাত করেন। সাথে কপি ও শিম চাষ চলছে। ডুবাইরচর গ্রামের কৃষক আব্দুল করিম (৫২) ছোট বেলা থেকেই কৃষি কাজ করে সংসার চালান। এ বছর ২ একর জমিতে বরবটি লাগিয়েছেন। প্রতিদিন ১-২ মণ বরবটি তুলছেন। এতে তার খরচ হয়েছে মাত্র ৪৫ হাজার টাকা। ইতোমধ্যেই তিনি ৪০ হাজার টাকার বরবটি বিক্রি করেছেন।

শ্রীমন্তপুর গ্রামের কৃষক আমিরুল ইসলাম তিন বছর ধরে শিম আবাদ করে ভালো দাম পেয়েছেন। এবার শিমের পাশাপাশি অন্যান্য সবজিও চাষ করেছেন। অল্প সময়ে ফসল তোলার পাশাপাশি রোগবালাই এবং লোকসানের শঙ্কা কম বলে আমিরুলের মতো অনেকেই এখন সবজি চাষ করছেন। ডুবাইরচর গ্রামের কৃষক রমজান আলী বলেন, তার জমিতে লাউ, বরবটি, মূলা ও ডাটা শাক রোপন করে তার খরচের টাকা উঠে এখন লাভের মুখ দেখেছে। গত বছর ৩শ’ ঝাড়ে আলাভী গ্রীণ জাতের শসা, টিয়া জাতের করলা এবং মার্টিনা জাতের লাউ বীজ রোপণ করেছিলেন। এবার লাউ শাক বিক্রি করে বেশ টাকা এসেছে।

এ ব্যাপারে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের পরিচালক সুরজিত দত্ত বলেন, ফলন ভালো হওয়ায় কৃষক উচ্চফলনশীল সবজি চাষে আগ্রহী হয়ে উঠেছে। উচ্চফলনশীল সবজি চাষে অল্প খরচে দ্বিগুণ লাভ হওয়ায় চাষিদের মাঝে ব্যপক সাড়া ফেলেছে। কৃষিতে আধুনিক যন্ত্রপাতি ব্যবহারে রীতিমতো বিপ্লব ঘটেছে। চাষাবাদে কাঠের লাঙ্গলের ব্যবহার হয় না বললেই চলে। কৃষি কাজের মধ্যে সবচেয়ে শ্রমনির্ভর কাজ হচ্ছে বীজ বা চারা রোপণ, আগাছা দমন ও ফসল কাটা। মৌসুমের নির্দিষ্ট সময়ে বীজ বপন, চারা রোপণ এবং ফসল কেটে ঘরে তুলতে কৃষককে বেশ সঙ্কটে পড়তে হয়। ওই সময়ে কৃষি শ্রমিকের মজুরি অস্বাভাবিকভাবে বেড়ে যায়। কখনো কখনো দ্বিগুণ মজুরি দিয়েও কৃষি শ্রমিক পাওয়া যায় না। ফলে বিলম্বে বীজ রোপণের জন্য ফলন কম হয়, পোকা-মাকড় ও রোগ-বালাইয়ের আক্রমণ বৃদ্ধি পায়। এসব থেকে রক্ষা পেতেই কৃষি কাজে আধুনিক যন্ত্রপাতি ব্যবহার করায় এতে যেমন সময় কম লাগছে, তেমনি বেশি ফসলও উৎপাদন হচ্ছে। যার ফলে কৃষক লাভবান হচ্ছে।

সবজি চাষ করে ভাগ্যের চাকা ঘুরিয়েছেন ফেনি’র কৃষকেরাও। এক সময় তারা ধানের উপর নির্ভনশীল থাকলেও এখন সবজি চাষ করছেন। অল্প সময়ে ফলন, খরচ কম এবং দাম ভালো পাওয়ায় কৃষকদের মাঝে আগ্রহ বাড়ছে সবজি চাষে। ব্রাক্ষণবাড়িয়া জেলার কসবা’র কৃষক শাহআলম সোহেল তিন বছর ধরে শিম আবাদ করে ভালো দাম পেয়েছেন। এবার শিমের পাশাপাশি অন্যান্য সবজিও চাষ করেছেন। অল্প সময়ে ফসল তোলার পাশাপাশি রোগবালাই এবং লোকসানের শঙ্কা কম বলে শাহআলম সোহেলের মতো অনেকেই এখন সবজি চাষ করছেন। কৃষি বিপণন অধিদফতরের মতে, শস্য বিন্যাসের পাশাপাশি চাহিদা ও উৎপাদন কাছাকাছি থাকায় ভালো দাম পাচ্ছেন কৃষক। যার ফলে ফলন বাড়ার সাথে সাথে ভাগ্যে বদলাছে কৃষকেরও।

আরও পড়ুন
বাংলার উন্নয়ন বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
  • যেভাবে তৈরি করবেন মচমচে নারকেল কুকিজ

  • ‘ফেক আইডি’এর সেই মেয়েটিই এখন বউ!

  • ৭ই মার্চের ভাষণটি কপিরাইটে বড় ভূমিকা একজন নারীর

  • মুজিববর্ষে ঢাকায় আসছেন দক্ষিণ এশিয়ার চার রাষ্ট্র ও সরকার প্রধান

  • ৭ মার্চের ভাষণ প্রকৃত অর্থেই স্বাধীনতার ঘোষণা: প্রধানমন্ত্রী

  • জাতিসংঘের শান্তিরক্ষা মিশনে চার বাংলাদেশি নারী বিচারক

  • তৃণমূলের এক কোটি নারীর ক্ষমতায়ন হবে

  • রোজায় আসছে ২৫ হাজার টন ভোজ্য তেল

  • খুলনায় দেড় লাখ খুদে কণ্ঠে বঙ্গবন্ধুর ঐতিহাসিক ভাষণ

  • আহসানউল্লাহ মাস্টারসহ স্বাধীনতা পুরস্কার পাচ্ছেন ৯ ব্যক্তি

  • মহামারিতেও এগিয়ে চলেছে অর্থনীতি

  • পদোন্নতি পেয়ে উপসচিব হলেন ৩৩৭ কর্মকর্তা

  • সম্মাননা পেলেন শ্রেষ্ঠ পাঁচ জয়িতা

  • ‘মুজিব দর্শন’ উদ্বোধন

  • মোটরসাইকেল ও খাদ্য প্রক্রিয়াকরণে বিনিয়োগে আগ্রহ ভারতের

  • লিঙ্গবৈষম্য সূচকে দ. এশিয়ায় সবার ওপরে বাংলাদেশ

  • দেশের ইমেজ সবার আগে : প্রধান বিচারপতি

  • স্বাবলম্বী হচ্ছে নারী

  • অধিকারটা আদায় করে নিতে হবে: প্রধানমন্ত্রী

  • ‘নারীর উন্নতি ছাড়া একটি সমাজ উন্নত হতে পারে না’

  • স্মারক ডাকটিকিট অবমুক্ত করলেন প্রধানমন্ত্রী

  • দেশের একমাত্র নারী জেলা পরিষদ চেয়ারম্যানের জীবনযুদ্ধ

  • নতুন লুকে সিনেমাপ্রেমীদের নজর কাড়লেন শাকিব খান

  • বিদেশে ‘সোনা’ খুললেন প্রিয়াঙ্কা

  • রাস্তার ওপর মাথা ঘুরে পড়ে গেলেন চিত্রনায়িকা আইরিন

  • খিরা চাষে বাম্পার ফলন, কৃষকের মুখে হাসি

  • ৭ মার্চের ভাষণ সারাবিশ্বে স্বাধীনতার বক্তব্যের একমাত্র প্রামাণ্য

  • একসঙ্গে দেড় লাখ শিশুর কণ্ঠে বঙ্গবন্ধুর ভাষণ

  • চার বাংলাদেশি নারী বিচারক যাচ্ছেন জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশনে

  • দেশের ইমেজ সবার আগে: প্রধান বিচারপতি

  • ডিসেম্বরেই চালু হচ্ছে মেট্রোরেল, চলছে শেষ ধাপের প্রস্তুতি

  • শেখ হাসিনা অন্যতম অনুপ্রেরণাদায়ী নেত্রী: কমনওয়েলথ মহাসচিব

  • চট্টগ্রামের ডেল্টা শিপইয়ার্ড তৈরি করলো এলপিজি ট্যাংকার

  • কুড়িগ্রামে আলুর বাম্পার ফলন, কৃষকের মুখে হাসি 

  • পোশাক খাতে ভিয়েতনামকে পেছনে ফেললো বাংলাদেশ

  • আজ আন্তর্জাতিক নারী দিবস

  • চার বাংলাদেশি নারী বিচারক যাচ্ছেন জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশনে

  • আরও ৪ কোটি ডোজ টিকা কেনার চেষ্টা বাংলাদেশের

  • সীতাকুণ্ডে শিম চাষে ১৫০ কোটি টাকা আয়, কৃষকের মুখে হাসি 

  • করোনার টিকা নিলেন প্রধানমন্ত্রী

  • শিক্ষা সহায়তা ট্রাস্টের উপবৃত্তি পাচ্ছে দেড় লাখ শিক্ষার্থী 

  • ভাসানচরে রোহিঙ্গাদের দেয়া সুযোগ-সুবিধায় ওআইসি’র সন্তোষ

  • এইচ টি ইমাম আর নেই

  • ভারত-পাকিস্তানকে পেছনে ফেলে রপ্তানিতে অভাবনীয় অগ্রগতি বাংলাদেশের

  • দক্ষ নাবিক তৈরিতে তিন জেলায় হচ্ছে মেরিটাইম ইনস্টিটিউট

  • ফারুকের ‘ডিজিটাল’ ঢেঁকি, ভাঙে ধানও

  • ফেব্রুয়ারিতেও রেকর্ড রেমিট্যান্স

  • ২২ দিন বয়সী সেই শিশুকে মায়ের কোলে ফিরিয়ে দিলেন ডিসি

  • রোবটকে বাংলায় কথা বোঝানোর প্রযুক্তি তৈরি হচ্ছে: পলক

  • বেকারত্ব ঘোচাতে সম্ভাবনাময় স্কোয়াশ চাষ

  • ১০ বছরে জিডিপি প্রবৃদ্ধিতে শীর্ষে বাংলাদেশ

  • মুজিববর্ষে ঘর পাচ্ছেন জয়নব

  • স্কুল-কলেজের ক্লাস শুরু হচ্ছে আগামী ৩০ মার্চ: শিক্ষামন্ত্রী

  • ঢাকা-জলপাইগুড়ি ট্রেন উদ্বোধন করবেন হাসিনা-মোদি

  • বিদেশে রপ্তানি হচ্ছে নারীদের তৈরি বাহারি টুপি

  • টি-শার্টে বিশ্বের সর্ববৃহৎ উৎপাদন কেন্দ্র নারায়ণগঞ্জ

  • এইচ টি ইমামের মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ প্রধানমন্ত্রীর

  • মেট্রো রেল প্রকল্পে গড় অগ্রগতি ৫৬.৯৪%

  • ‘টিকা দেয়ার ক্ষেত্রে বাংলাদেশ অস্ট্রেলিয়ার থেকেও এগিয়ে’

  • টিকা নিয়েছেন ৩৩ লাখ ৪১ হাজার, নিবন্ধন ৪৫ লাখ ছাড়িয়েছে