শনিবার   ১৫ আগস্ট ২০২০

ব্রেকিং:
সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোর বার্ষিক ছুটি ৭৫ দিন আগামী মার্চে ঢাকা উত্তর সিটির ভোটের ইঙ্গিত সিইসির জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় পরিদর্শনে প্রধানমন্ত্রী আস্থা ভোটে টিকে গেলেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে রাষ্ট্রপতির সঙ্গে নেপালের বিদায়ী রাষ্ট্রদূতের সাক্ষাৎ খালেদার অনুপস্থিতিতেই কারাগারে বিচার চলবে রব ও মান্নার বিয়ে যুক্তফ্রন্টে, পরকীয়া ঐক্যফ্রন্টে: মাহী এটা জোট নয়, ঘোট : তথ্যমন্ত্রী যুক্তরাষ্ট্রে রাজনৈতিক আশ্রয় পেলেন সিনহা আবারও সরকার গঠনে নৌকায় ভোট দেয়ার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর পদ্মা সেতু প্রকল্পের নামফলক উন্মোচন করলেন প্রধানমন্ত্রী
২৮

কষ্ট ভুলে পাল্টে গেছে ছিটমহলবাসীর জীবন

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ১ আগস্ট ২০২০  

ছিটমহলের বিলুপ্তির পর উন্নয়ন ও মানুষের কঠোর পরিশ্রমে পাল্টে গেছে দাসিয়ারছড়ার মানুষের জীবন। ছিটমহল এখন তাদের জন্য শুধু ইতিহাস ও স্মৃতি। ২০১৫ সালের ৩১ জুলাই বাংলাদেশ-ভারত মুজিব-ইন্দিরা সীমান্ত চুক্তির বাস্তাবায়নের মধ্য দিয়ে শুরু হয় নতুন অধ্যায়। দীর্ঘ ৬৮ বছরের বঞ্চনার পর ১৬২টি ছিটমহল একীভূত হলে নাগরিকরা পছন্দমত দেশের হতে পারেন। ঐতিহাসিক দিনটির ছয় বছরে পদার্পণ উপলক্ষে কুড়িগ্রাম জেলার ফুলবাড়ী উপজেলার বিলুপ্ত ছিটমহল দাসিয়ারছড়ার চলছে সাজসাজ রব।

কর্মসূচিতে রয়েছে- শুক্রবার সন্ধ্যা ৭টায় সংক্ষিপ্ত আলোচনা সভা, রাত ১২টা ১ মিনিটে ৬৮টি মোমবাতি জ্বালানো শেষে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পমাল্য অর্পণ। এছাড়াও রাতে দাসিয়ারছড়ার প্রতিটি বাড়িতে আলোকসজ্জ্বাসহ শনিবার আয়োজন করা হয়েছে হা-ডু-ডু খেলা। পাশাপাশি মসজিদে মসজিদে হবে মিলাদ মাহফিল আর মন্দিরে বিশেষ প্রার্থনা। ছিটমহল বিনিময়ের ৫ বছর পূর্তিতে প্রত্যাশার চেয়ে বেশি প্রাপ্তিতে মহাখুশি বিলুপ্ত ছিটমহলের বাসিন্দারা।

ফুলবাড়ী উপজেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, গত ৫ বছরে প্রায় ২২ কোটি টাকার বিভিন্ন উন্নয়ন কর্মকান্ড পরিচালনা করা হয় দাসিয়ারছড়া উন্নয়নে। এর মধ্যে এক কোটি ৫০ লাখ টাকা ব্যয়ে তিনটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভবন, ১৮ কোটি টাকা ব্যয়ে এলজিইডির মাধ্যমে ২৪ কিলোমিটার পাকা রাস্তা, ২০ লাখ টাকা ব্যয়ে কমিউনিটি রির্সোস সেন্টার, ৯০ লাখ টাকা ব্যয়ে পাঁচটি মসজিদ, ২০ লাখ টাকা ব্যয়ে একটি মন্দির, দুই কোটি ১৯ লাখ টাকা ব্যয়ে একটি ব্রিজ, ১০ লাখ টাকা ব্যয়ে ১০টি হত দরিদ্র পরিবারের বসতবাড়ী নির্মাণ, ২২ কিলোমিটার পাকা সড়ক, দুস্থ পরিবারে স্যানিটারি ল্যাট্রিন স্থাপন, দুঃস্থ পরিবারে নলকূপ স্থাপন, একটি করে শ্মশান ঘাট, শহীদ মিনার, নীলকমল নদীতে এক কোটি ৩০ লাখ টাকা ব্যয়ে সেতু নির্মাণ, ১৫ মিটার দৈর্ঘের চারটি ব্রিজ/কালর্ভাট নির্মাণ, ৭৮২ জন বয়স্ক ভাতা, ৩৩৯ জন বিধবা ভাতা, ৫১৫ জন প্রতিবন্ধী ভাতা, বিশুদ্ধ পানীয় সরবরাহের জন্য ৪ টি নলকুপ স্থাপন, এক হাজার ৮৫৯ জনকে ভিজিডি কার্ড, মাতৃত্বকালিন ভাতা দুইশ জনকে, সেলাই মেশিন ৫৫ জনকে, একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্পে ৩৬০ জনকে মোট ২৪ লাখ ২৩ হাজার টাকার ঋণ প্রদান, ৫০০ হতদরিদ্র পরিবারকে খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির আওতায় অন্তর্ভুক্ত করা, একটি নি¤œ মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়, দুটি মাধ্যমিক বিদ্যালয়, একটি কলেজের একাডেমিক স্বীকৃতি। এছাড়াও একটি মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও শেখ ফজিলাতুন্নেছা দাখিল মাদরাসা নামে একটি মাদরাসা সাম্প্রতি সময়ে সরকার জাতীয়করণ ঘোষণা করেছেন। সেই সঙ্গে দীর্ঘ ৬৮ বছর পিছিয়ে থাকা বিলুপ্ত ছিটমহলবাসীদের আইসিটি বিষয়ে প্রশিক্ষণ ও কর্মসংস্থানের জন্য ৮৬ লাখ টাকা ব্যয়ে দ্বিতল ডিজিটাল সার্ভিস ইমপ্লয়েন্টমেন্ট এন্ড ট্রেনিং সেন্টার মুজিব বর্ষে উপহার দেওয়া হয়েছে।

অন্যদিকে ভূমি জটিলতার বিষয়টি সম্পুর্ণভাবে নিরসন হয়ে গেছে। ভূমি মন্ত্রণালয়ের অধীন এক হাজার ৬৪৩ দশমিক ৪৪ একর ও সরকারি খাস খতিয়ান ভুক্ত ৯ একর জমির প্রাক জরিপ শেষ করে খতিয়ান হস্তান্তর করা হয়েছে। স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত কল্পে স্বাস্থ্য বিভাগ কর্তৃক ৩টি কমিউনিটি ক্লিনিক নির্মাণ করা হয়েছে। দাসিয়ারছড়াসহ বিলুপ্ত ছিটমহলে বাংলাদেশে অন্তর্ভুক্তির ৭৫ দিনের মধ্যে প্রায় দুই হাজার ৫৬২ পরিবারে বিদ্যুৎ সংযোগ দেওয়া হয়েছে। এখন আর কোনো বাড়িই বিদ্যুৎ বিহীন নেই। দেওয়া হয়েছে দ্রুত গতির ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট সংযোগ। ডিজিটাল সাব সেন্টার থেকে স্বল্পমূল্যে দেওয়া হচ্ছে তথ্য প্রযুক্তির সেবা। ইউনিসেফের অর্থায়নে বাংলাদেশ শিশু একাডেমি স্থাপন করেছে ১৫টি প্রাক প্রাথমিক শিক্ষা কেন্দ্র। এছাড়া ইসলামিক ফাউন্ডেশন প্রতিষ্ঠা করেছে ১৪টি মসজিদ ভিত্তিক শিশু ও গণশিক্ষা কেন্দ্র। উপজেলা কৃষি অফিসার অর্থায়নে কৃষকদের প্রশিক্ষণ ও কৃষি যন্ত্রপাতি দেওয়া হয়েছে। দাসিয়ারছড়ায় ঘরে ঘরে সুপেয় পানি আর স্যানিটেশন ব্যবস্থা নিশ্চিত হয়েছে। আত্মকর্মসংস্থান সৃষ্টির লক্ষ্যে যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর বেকার যুব ও যুব মহিলাদের দেয়া হয়েছে নানা ট্রেডে প্রশিক্ষণ। দুই হাজার ১৬০ জন নারী-পুরুষকে স্বাক্ষরতার আওয়াতায় আনা হয়েছে

বিলুপ্ত দাসিয়ারছড়া ছিটমহলের অধিবাসী মোজাফ্ফর হোসেন,নুর আলম ,মনিরুজ্জামান ও তানিয়া বেগম জানান, চুক্তি বাস্তবায়নের মাধ্যমে ৬৮ বছরে আমাদের অবরুদ্ধ জীবনের অবসান ঘটেছে। মূল ভূ-খন্ডে যুক্ত হওয়ার পাঁচ বছরের মধ্যে বর্তমান সরকার ঘরে ঘরে বিদ্যুত, রাস্তা ঘাট,ব্রীজ কালভাট,স্কুল-কলেজ,মাদ্রাসা ,কমিউনিটি ক্লিনিকসহ দাসিয়ারছড়ায় ব্যাপক উন্নয়ন কর্মকান্ডের বিল্পব ঘটেছে। আমরা কখনো কল্পনা করিনি সরকার এতো দ্রুত দাসিয়ারছড়ায় উন্নয়ন করবে। সরকারের কাছে দাসিয়ারছড়াবাসী চির ঋণি। সরকারের কাছে দাসিয়ারছড়াবাসীর শেষ দাবি, দাসিয়ারছড়াকে একটি স্বতত্র ইউনিয়ন ঘোষণা করা হোক।

শিক্ষার্থী সোহেল রানা ও জেসমিন আক্তার জুঁই জানান, পাঁচ থেকে ছয় বছর আগে আমরাসহ অনেকেই মিথ্যা ঠিকানা দিয়ে ভয় ভয় করে পড়াশুনা করেছি। এখন আর ভয় নেই। গত পাঁচ বছর ধরে নিজ জন্মভুমিতে পড়ালেখা করছি। আমরা এখন বাংলাদেশি নাগরিক হয়ে দেশের বিভিন্ন জায়গায় পড়ালেখা করছি। সরকার আমাদের নতুন বই ও উপবৃত্তি দিয়েছে। তাই আমরা নিজ জন্ম ভুমিতে হাসিমুখে পড়ালেখা চালিয়ে নিজের পাঁয়ে দাঁড়াতে চাই।

দাসিয়ারছড়া কমিউনিটি ক্লিনিকের স্বাস্থ্য কর্মী মোহেছেনা আক্তর মিনা জানান, গত পাঁচ বছর ধরে বিলুপ্ত ছিটমহলে গড়ে প্রতিদিন গর্ভবতী মাসহ ৪০ থেকে ৫০ জন রোগী স্বাস্থ্য সেবা নিচ্ছেন। চিকিৎসা সেবা পাওয়ায় দাসিয়ারছড়াবাসীরা খুবেই খুশী।

সাবেক বাংলাদেশ-ভারত ছিটমহল বিনিময় সমন্বয় কমিটির আন্দোলনের নেতা গোলাম মোস্তফা ও মইনুল হক জানান, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মুজিব-ইন্দিরা স্থল সীমান্ত চুক্তি’র বাস্তবায়ন করে ছিটবাসীর মুক্তি দিয়েছেন তার কন্যা বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সেই সাথে আমরা দাসিয়ারছড়াবাসী মুজিব বর্ষে ৬ষ্ঠ বছরে পদার্পন করায় আমরা গর্বিত। মুজিব বর্ষে বর্ষপূর্তি ব্যাপক আয়োজনে পালন করার কথা থাকলেও করোনার কারণে তা কাঁটছাট করা হয়েছে। তারা আরও জানান গত পাঁচ বছরে সরকার দাসিয়ারছড়ায় ব্যাপক উন্নয়ন করায় আমরা সরকারের কাছে কৃতজ্ঞ। সরকার সম্প্রতি সময়ে দাসিয়ারছড়ায় একমাত্র মাদ্রাসা শেখ ফজিলাতুন্নেছা দাখিল মাদ্রসাটি জাতীয়করণ করায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে অনেক অনেক শুভ কামনা। সেই সাথে বাকি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো এমপিও ভুক্তি করার দাবি জানাচ্ছি।

এ প্রসঙ্গে ফুলবাড়ী উপজেলা নির্বাহী অফিসার তৌহিদুর রহমান বলেন,‘বিলুপ্ত ছিটমহলের মানুষের অধিকার প্রতিষ্ঠায় সরকার বদ্ধপরিকর। গত পাঁচ বছরে সরকার প্রতিটি ঘরে ঘরে বিদ্যুত ,ক্লিনিক,একটি সরকারী মাদ্রাসা ,স্কুল –কলেজ, রাস্তা-ঘাট, ব্রীজ-কালভাটসহ সব সেক্টরে ব্যাপক উন্নয়ন ঘটেছে। সরকারের এ উন্নয়ন দাসিয়ারছড়ায় চলমান থাকবে।

উল্লেখ্য, ২০১৫ সালের ৩১ জুলাই মধ্য রাতে বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে মুজিব-ইন্দিরা স্থল সীমান্ত চুক্তি’র বাস্তবায়ন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এই দিন বাংলাদেশের অভ্যন্তরের ১১১টি ছিটমহল এবং ভারতের অভ্যন্তরে বাংলাদেশের ৫১ টি ছিটমহল দুই-দেশের ভু-খন্ডে যুক্ত হয়। দীর্ঘ ৬৮ বছরের বঞ্চনার পর ১৬২টি ছিটমহল একীভূত হলে এর অীধবাসিরা নাগরিকত্ব লাভ করেন ।

আরও পড়ুন
জাতীয় বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
  • দিল্লিতে আমাদের নামও পরিবর্তন করতে হয়েছিল : শেখ রেহানা 

  • ‘বঙ্গবন্ধু হত্যার কুশীলবদের মুখোশ উন্মোচনে কমিশন গঠন প্রয়োজন’ 

  • ‘বঙ্গবন্ধুর পলাতক ৫ খুনিকে ফিরিয়ে আনার প্রচেষ্টা অব্যাহত থাকবে’

  • ‘সোনার বাংলা’ প্রতিষ্ঠায় বঙ্গবন্ধুর শিক্ষাভাবনা

  • বঙ্গবন্ধুর সমান উচ্চতার নেতা বিশ্বে বিরল

  • তোমরাই আমার সব থেকে আপন : এতিমদের প্রতি প্রধানমন্ত্রী

  • আজ জাতীয় শোক দিবস

  • ‘ভারতের সঙ্গে সম্পর্ক কখনোই দুর্বল হওয়ার নয়’

  • বাংলাদেশিদের জন্য ভারতীয় ভিসা চালু হচ্ছে শিগগিরই

  • স্বাস্থ্যের অতিরিক্ত মহাপরিচালক হলেন ডা. সেব্রিনা ফ্লোরা

  • বিএএফ জুনিয়র কমান্ড ও স্টাফ কোর্সের সনদপত্র বিতরণী অনুষ্ঠিত

  • পদ্মাসেতুর আরো তিন স্প্যান বসছে মাওয়ায়

  • ঢাকা-কুয়ালালামপুর রুটে বিমানের ফ্লাইট শুরু ১৮ আগস্ট

  • ‘প্রস্তুতি ছিলো বলেই করোনা নিয়ন্ত্রণে সক্ষম হয়েছে সরকার’

  • ‘রাজনৈতিক উদ্দেশ্যেই বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করা হয়’

  • যেকোনো দুর্যোগে জনগণের পাশে আছি: পলক

  • যেখানে-সেখানে ইন্ডাস্ট্রি নয়: অর্থমন্ত্রী

  • সবাই একত্রিত হয়ে সমবায়কে এগিয়ে নিতে হবে

  • বাংলাদেশে ভারতের নতুন হাইকমিশনার বিক্রম দোরাইস্বামী

  • অন্যের টিকেটে রেল ভ্রমণ করলে তিন মাসের জেল-জরিমানা

  • আট বিভাগে হচ্ছে বিশেষায়িত হাসপাতাল: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

  • যাত্রীদের জন্য ‘রেল পানি’ আনছে রেলওয়ে

  • চলতি বছরেই আসছে গ্লোবের করোনা ভ্যাকসিন

  • ঢাকার যানজট কমাতে তৈরি হচ্ছে ১০ ইউটার্ন ও ২২ ইউলুপ

  • অপব্যবহার রোধে আসছে কঠোর সিদ্ধান্ত

  • করোনার টিকা সবাই যেন পায়: রাষ্ট্রপতি

  • প্রধানমন্ত্রীর দূরদর্শিতায় শক্ত ভিতে অর্থনীতি

  • মুজিববর্ষে সব উপজেলায় বঙ্গবন্ধু কর্নার

  • বাংলাদেশের কোথাও আর নদীভাঙন থাকবে না: উপমন্ত্রী শামীম

  • চাহিদার তুলনায় পানির উৎপাদন বৃদ্ধি, ঘুরে দাঁড়াচ্ছে ঢাকা ওয়াসা

  • বাস্তবায়নের পথে ব-দ্বীপ স্বপ্ন

  • তৈরি পোশাক রপ্তানিতে ২য় অবস্থান ধরে রেখেছে বাংলাদেশ

  • দুর্গম ৩১ দ্বীপে উচ্চগতির ইন্টারনেট দিচ্ছে বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট 

  • ২৫৪ টাকায় করোনার ডোজ পাবে বাংলাদেশ

  • ফোরলেন হচ্ছে যশোর-ঝিনাইদহ সড়ক, উপকৃত হবে ২ কোটি মানুষ

  • রেলে চড়ে পণ্য যাবে নেপালে

  • পুঁজিবাজারে গতি ফিরেছে, ঘুরে দাঁড়াচ্ছে দেশের অর্থনীতি

  • উত্তরের কৃষকদের স্বপ্ন দেখাচ্ছে ‘সোনালি আঁশ’

  • অন্যের টিকিট নিয়ে ট্রেন ভ্রমণ করলেই কারাদণ্ড

  • দেড় লাখ কৃষককে সোয়া ১০ কোটি টাকা প্রণোদনা দিবে সরকার 

  • প্রথমবার ২ কোটি টন উৎপাদন ছাড়ালো বোরো

  • দীর্ঘস্থায়ী বন্যা মোকাবিলায় প্রস্তুতির নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

  • ‘একজন দক্ষ সামরিক কর্মকর্তা ছিলেন মেজর (অব.) সিনহা’

  • করোনাকালেও আমদানি বাণিজ্যে রেকর্ড

  • স্বাস্থ্যখাতের দুর্নীতি দূর করতে সরকার কঠোর: হানিফ

  • বিদ্যুৎ ব্যবস্থা উন্নয়নে সরকারের দেড় হাজার কোটি টাকার প্রকল্প

  • পুরোদমে চলছে শাহজালালের তৃতীয় টার্মিনালের নির্মাণ কাজ

  • ক্রয় আদেশ ফিরছে, পোশাক খাতে স্বস্তি

  • বাগেরহাটে শসার বাম্পার ফলন, দামও ভালো

  • শেখ হাসিনার দেওয়া পাকাঘর পেলো আত্রাইয়ের ১৮ গৃহহীন পরিবার 

  • রেমিট্যান্স পাঠানোয় শীর্ষে সৌদি প্রবাসীরা

  • সুন্দরবনে মধু ও মোমের উৎপাদন বেড়েছে

  • বঙ্গবন্ধু হাইটেক সিটিতে কর্মসংস্থান হচ্ছে দুই হাজার মানুষের

  • লেবাননে খাদ্য ও মেডিকেল সামগ্রীসহ মেডিকেল টিম পাঠাচ্ছে বাংলাদেশ

  • করোনা ভ্যাকসিন: বাংলাদেশসহ ৯২ দেশের জন্য সুসংবাদ

  • ইলিশে সরগরম মাছের আড়তগুলো

  • বর্জ্য থেকে বিদ্যুৎ উৎপাদনে যাচ্ছে সরকার

  • তার যাবে মাটির নিচে, আসছে ২০ হাজার কোটি টাকার প্রকল্প

  • তিস্তা নদীর দুই পাড় ঘিরে স্থায়ী উন্নয়নের মহাপরিকল্পনা

  • পটুয়াখালীতে সাবমেরিন ক্যাবলে ত্রুটি, ইন্টারনেটে ধীরগতি