বৃহস্পতিবার   ২৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৪

সর্বশেষ:
আরও ১০৮ শহীদ বুদ্ধিজীবীর তালিকা প্রকাশ সরকারি চাকরিতে লাখ লাখ পদ খালি, নিয়োগের উদ্যোগ বিশ্ব বাণিজ্য সংস্থার বৈঠক : সুবিধা পেতে সর্বোচ্চ জোর এলাকার উন্নয়নে প্রত্যেক সংসদ সদস্যরা পাবেন ২০ কোটি টাকা শিগগির চালু হবে বিরল স্থলবন্দর ১২ সিটির বর্জ্য রিসাইকেলের উদ্যোগ বিশ্ব নেতাদের নজর কেড়েছে শেখ হাসিনার ৬ প্রস্তাব
৯১২

এক সংকল্প আর আত্মমর্যাদার নাম পদ্মা সেতু

সৈয়দ ইশতিয়াক রেজা

প্রকাশিত: ২৬ মে ২০২২  

অবশেষে একটা তারিখ পাওয়া গেলো– ২৫ জুন পদ্মা সেতুর উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। উদ্বোধনের পরই সেতুটি যান চলাচলের জন্য খুলে দেওয়া হবে। পদ্মা সেতুর নাম পদ্মা নদীর নামেই থাকছে, যদিও বিভিন্ন ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠান থেকে নানা নামের প্রস্তাব উঠেছিল।

আমি নিজেও বলেছিলাম ‘বিজয় সেতু’ রাখা যেতে পারে, কারণ এ সেতু বানাতে লড়াই করতে হয়েছে এবং সেই লড়াইয়ে বিজয় অর্জিত হয়েছে। এই সেতু নির্মাণকে ষড়যন্ত্রের ফাঁকে আটকানোর চেষ্টা হয়েছে এবং সেই অপচেষ্টার বিরুদ্ধে প্রধানমন্ত্রীকে লড়াই করতে হয়েছে দৃঢ়তা নিয়ে। অথবা হতে পারতো ‘জয়বাংলা সেতু’, যে শ্লোগানে দেশ স্বাধীন হয়েছিল। যাইহোক, নদীর নামে সেতু হওয়াই বেশিরভাগ মানুষের কাছে যুক্তিযুক্ত মনে হয়েছে, কারণ এ নাম ছড়িয়ে পড়েছে দেশ দেশান্তরে।

আমাদের দক্ষিণাঞ্চলের মানুষের স্বপ্নপূরণ হতে যাচ্ছে। কিন্তু এটি শুধু সেই অঞ্চলের মানুষ নয়, উপকার করবে সারাদেশের মানুষের।  পদ্মা বহুমুখী সড়ক-রেল সেতু যা বাংলাদেশের নিজস্ব অর্থায়নে নির্মিত হলো। সেতুটি মুন্সীগঞ্জকে শরীয়তপুর এবং মাদারীপুরের সাথে সংযুক্ত করছে, এবং দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলকে উত্তর ও পূর্বাঞ্চলের সঙ্গে সংযুক্ত করছে।

বাংলাদেশের ইতিহাসে সবচেয়ে চ্যালেঞ্জিং উন্নয়ন প্রকল্প এই সেতু। পদ্মা নদী পৃথিবীর উত্তাল বা খরস্রোতা নদীগুলোর মধ্যে একটি। এত উত্তাল নদীর ওপর সেতু নির্মাণ তো চ্যালেঞ্জিং ছিলই, কিন্তু বেশি ছিল অ-কারিগরি চ্যালেঞ্জ।  সরকার যখন প্রকল্পটি হাতে নিল সবাই তখন উদ্বেলিত। কিন্তু অনেকেই খুশি নয়। শাসক দলের রাজনৈতিক প্রতিপক্ষ বিএনপি নেত্রী খালেদা জিয়া ‘সেতু হবে না’, ‘করতে পারবে না’, ‘আমরা ক্ষমতায় গেলে দুটি পদ্মা সেতু করবো’, এসব কথাও বলেছিলেন। তবে বাংলাদেশের মানুষ এই প্রকল্পকে স্বাগত জানিয়েছে অন্তর থেকে, কারণ  সেতুটা হলে দেশের যোগাযোগ ব্যবস্থাটাই বদলে যাবে। এক প্রান্ত থেকে অন্য প্রান্ত ছোঁয়া যাবে হাওয়ার বেগে, নদী আর পথ রুখতে পারবে না। এমন একটি প্রকল্পে যুক্ত থাকার জন্য নিজ থেকেই এগিয়ে এসেছিল বিশ্বব্যাংক। এমন একটা ঐতিহাসিক কাজে তাদের ছিল ব্যাপক আগ্রহ। আর্থিক সাহায্যের হাতও ছিল উন্মুক্ত। স্বপ্নের সেতু নির্মাণ শুরু হলো। কিন্তু আচমকা ছেদ। বিশ্বব্যাংকের ঘোষণা, তারা সাহায্য করতে অপরাগ। প্রথম প্রথম কোনও কথা বলেনি বিশ্বব্যাংক। তবে ধীরে ধীরে মুখ খুলে বললো, দুর্নীতি হয়েছে, তাই তারা এখানে থাকবে না।

বাংলাদেশেরই কিছু খ্যাতনামা ব্যক্তি ও গণমাধ্যমও সুর মেলায় এই দাতা সংস্থার সঙ্গে। হতাশ হয়ে পড়েন দক্ষিণাঞ্চলসহ গোটা দেশের মানুষ। বিব্রত সরকার। পদ্মা সেতু প্রকল্পে দুর্নীতির ষড়যন্ত্রের অভিযোগ ওঠার পর তৎকালীন যোগাযোগমন্ত্রী সৈয়দ আবুল হোসেনকে মন্ত্রিপরিষদ থেকে বাদ দেওয়া এবং যোগাযোগ সচিব মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়াকে কারাগারে পাঠানোর ঘটনাও ঘটেছিল। কিন্তু সরকারের অবস্থান ছিল দৃঢ়। সরকার প্রমাণ চায়। বিশ্বব্যাংক ছেঁড়া ছেঁড়া কিছু অভিযোগ তুললো। এতে বড় কিছু প্রমাণ হয় না। পদ্মা সেতু থেমে রইলো না। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আত্মবিশ্বাসের সঙ্গে ঘোষণা করলেন, পদ্মা সেতুর কাজ যেমন চলছে, তেমনই চলবে। বিশ্বব্যাংকের সাহায্যের দরকার নেই। বাংলাদেশ নিজের টাকায় এ কাজ করবে। কথাটা বিশ্বাস করেনি বিশ্বব্যাংক, অন্যান্য দাতা সংস্থা এবং এদেশের কিছু মানুষ। তাদের ভাবনায় ছিল এটি অসম্ভব। তারা বুঝতে পারেনি শেখ হাসিনার সরকারের সক্ষমতা। শেখ হাসিনা শক্ত হাতে হাল ধরলেন পদ্মা সেতুর এবং নির্মাণ কাজ দুর্বার গতিতে চলে আজ এই সেতু বাস্তব।

সেতু সম্পূর্ণ হয়েছে। তবে বাংলাদেশের বিজয় হয়েছে অন্য এক জায়গায়ও। কানাডার আদালতে দুর্নীতি প্রমাণ করতে পারেনি বিশ্বব্যাংক। মামলা বাতিল করে দিল আদালত, কারণ এর কোনও সারবত্তা নেই। অবশেষে লজ্জার মাথা খেয়ে বাংলাদেশের প্রশংসায় মাতলো বিশ্বব্যাংক। তাই এই সেতু এক বিজয়ের নাম, এক সংকল্পের নাম, এক আত্মবিশ্বাসের নাম এবং আত্মমর্যাদার নাম।

পদ্মা সেতু নিয়ে যে সকল রাজনীতিকে পরাজিত করা হয়েছে। এর অর্থনৈতিক উপকারিতার কথা ভাবলে প্রথমেই যে কথা আসবে তা হলো মানুষ ও জনপদের সংযোগ। দক্ষিণাঞ্চলের ২১টি জেলার সঙ্গে ঢাকার যোগাযোগ ২ থেকে ৪ ঘণ্টা কমে যাবে।

রাজধানীর সাথে সরাসরি যোগাযোগের কারণে ব্যবসা-বাণিজ্যের প্রসার, কাঁচামাল সরবরাহ এবং শিল্পায়ন সহজ হবে। একুশটি জেলায় গড়ে উঠবে ছোট-বড় শিল্প। কৃষির ব্যাপক উন্নতি হবে। কৃষকরা পণ্যের দাম ভালো পাবেন এবং ফলে উৎপাদন বাড়বে। বলা হচ্ছে দক্ষিণের জেলা সমূহের বার্ষিক জিডিপি ২.০ শতাংশ এবং দেশের সামগ্রিক জিডিপি ১.০ শতাংশের বেশি বাড়াতে সাহায্য করবে পদ্মাসেতু। 

সেতুটি নির্মাণের ফলে দেশের দক্ষিণাঞ্চল ট্রান্স-এশিয়ান হাইওয়ে ও ট্রান্স-এশিয়ান রেলওয়ের সঙ্গে সংযুক্ত হবে। ফলে ভারত, ভুটান ও নেপালের সঙ্গে বাংলাদেশের আন্তর্জাতিক যোগাযোগ সহজ হবে।  সেতুর দুই পাশে গড়ে তোলা হবে অর্থনৈতিক অঞ্চল, হাইটেক পার্ক ও বেসরকারি শিল্প শহর। ফলস্বরুপ, বিনিয়োগ ও কর্মসংস্থান বাড়বে। এবং পর্যটন শিল্পের বিকাশে বড় আবদান রাখবে এই সেতু।  দক্ষিণাঞ্চলের কুয়াকাটা সমুদ্র সৈকত, সুন্দরবন, ষাট গম্বুজ মসজিদ, টুঙ্গিপাড়ায় বঙ্গবন্ধুর মাজার, মাওয়া ও জাজিরায় পুরনো-নতুন রিসোর্টসহ নতুন-পুরনো পর্যটনকেন্দ্র দেশি-বিদেশি পর্যটকদের আকৃষ্ট করতে শুরু করবে শিগগিরই।

পদ্মা সেতু নির্মাণ দেশকে নিয়ে গেলো এক অন্য উচ্চতায়। নিজের অর্থায়নে এত বিশাল সেতু নির্মাণ করায় ধীরে ধীরে আরও অবকাঠামোগত উন্নয়ন নিজ অর্থেই সম্পন্ন করার ভিতটা সৃষ্টি হলো। আমাদের প্রকৌশলী, কারিগরি কর্মী প্রত্যেকের জন্য এই সেতু উপহার দিল আস্থা, সক্ষমতা ও দৃঢ় মনোবল।
লেখক: সাংবাদিক  

আরও পড়ুন
সাক্ষাৎকার বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
  • শপথ নিলেন আওয়ামী লীগের সংরক্ষিত আসনের সংসদ সদস্যরা

  • সাধারণ মানুষ এখনো থানায় যেতে ভয় পায় : রাষ্ট্রপতি

  • একটি গোষ্ঠী নারীসমাজকে বিপথে নিতে চায় : নানক

  • ‘নির্বাচনের পর ষড়যন্ত্রকারীদের মুখ ফ্যাকাসে হয়ে গেছে’

  • ‘নিত্যপণ্যের দাম নিয়ে গুজবে কান দেবেন না’

  • ‘দক্ষিণ সিটিতে ২২১ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে হবে নতুন ভবন’

  • সরকারিভাবে বড় ইফতার পার্টি না করার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

  • ‘মজুতের বিধান সংশোধনে বাজারে ধানের সরবরাহ স্বাভাবিক রয়েছে’

  • ডেপুটি গভর্নর হচ্ছেন খুরশীদ আলম ও হাবিবুর রহমান

  • এবার আইজিপি ব্যাজ পেলেন ৪৮৮ পুলিশ সদস্য

  • পাঁচ দফা দাবিতে সিলেটে পরিবহন ধর্মঘট

  • স্বস্তি দেওয়ার মানসিকতা থেকে কাজ করতে হবে : ভূমিমন্ত্রী

  • সরকারিভাবে বড় ইফতার পার্টি আয়োজন না করার নির্দেশ

  • ‘রমজানে নতুন অফিস সময়সূচি নির্ধারণ করেছে সরকার’

  • জিমেইলের বিকল্প এক্সমেইল আনছে ইলন মাস্ক

  • জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে স্নাতকে ভর্তির আবেদন শেষ হচ্ছে আজ

  • মডেল মৌকে আত্মসমর্পণের নির্দেশ হাইকোর্টের

  • জাতিসংঘে দেওয়া প্রধানমন্ত্রীর ভাষণের বইয়ের মোড়ক উন্মোচন

  • ‘ন্যায্য লাভ’ করার অনুরোধ এফবিসিসিআই সভাপতির

  • ‘২২১টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে নতুন ভবন নির্মাণ করা হবে’

  • পুলিশ সদস্যদের মাদক সংশ্লিষ্টতার বিষয়ে কঠোর হুঁশিয়ারি আইজিপির

  • জনগণের সেবা করুন, সন্ত্রাস দমন করুন : প্রধানমন্ত্রী

  • ‘গভীর সমুদ্র থেকে গ্যাস উত্তোলন করবে সরকার’

  • পর্ষদের অনিয়ম কেন্দ্রীয় ব্যাংককে জানাবেন এমডি

  • অবৈধ ক্লিনিক হাসপাতাল বন্ধে বছরজুড়ে অভিযান 

  • সংরক্ষিত নারী আসনের এমপিদের শপথ আজ

  • পোশাক রপ্তানিতে স্বপ্ন দেখাচ্ছে ডেনিম

  • প্রাথমিকে নিয়োগ পাচ্ছেন ২ হাজার ৪৯৭ শিক্ষক

  • ছাব্বিশে পাতাল রেল যুগে বাংলাদেশ

  • ‘আ. লীগের নেতৃত্বেই দেশের মানুষ ভোট-ভাতের অধিকার ফিরে পায়’

  • গৌরবের অমর একুশে আজ

  • জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলায় পর্যাপ্ত অর্থ দেবে জাতিসংঘ

  • ভারত সীমান্তে চালু হচ্ছে আরেকটি স্থলবন্দর

  • ইরানে কুরআন প্রতিযোগিতায় চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশি কিশোর

  • ‘হঠাৎ টাকা হয়ে গেলে মানুষ ভাবে ইংরেজিতে কথা বলা স্মার্টনেস’

  • একটা বিজাতীয় ভাষা আমাদের ওপর চাপিয়ে দেওয়ার চেষ্টা হয়

  • ‘বাংলাকে জাতিসংঘের দাপ্তরিক ভাষা করাই এখন লক্ষ্য’

  • প্রথম প্রহরে ভাষা শহীদদের প্রতি রাষ্ট্রপতি-প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা

  • ‘রমজান মাসে দ্রব্যমূল্য সহনীয় পর্যায়ে রাখতে পদক্ষেপ নেবে সরকার’

  • দুই সপ্তাহে রিজার্ভ আবারো ২০ বিলিয়ন ডলার ছাড়াল

  • এপ্রিলেই শেষ হবে শাহজালাল বিমানবন্দরের তৃতীয় টার্মিনাল কাজ

  • বাংলাদেশ ও ঘানা ব্যবসা-বাণিজ্য বাড়াতে সম্মত

  • শেখ হাসিনার ইউরোপ জয়

  • চালের বস্তায় যেসব তথ্য দেওয়া বাধ্যতামূলক করল সরকার 

  • বেসরকারি হাসপাতাল-ক্লিনিককে মানতে হবে ১০ নির্দেশনা

  • ২৬৩ জন সাংবাদিকের জন্য ২ কোটি ৩ লাখ টাকা অনুমোদন

  • ‘এক সময় একবেলা খাওয়ার আশা করতো, এখন মানুষ ৪ বেলা খায়’

  • রাজধানীতে ৬ কোটি টাকার খাস জমি উদ্ধার

  • ভারত সীমান্তে চালু হচ্ছে আরেকটি স্থলবন্দর

  • রিজার্ভ ফের ছাড়াল ২০ বিলিয়ন ডলার

  • যাদের পুনর্বাসন করে দিয়েছি, খোঁজখবর নিয়েন : প্রধানমন্ত্রী

  • মাতৃভাষার পাশাপাশি অন্য ভাষাও শিখতে হবে: প্রধানমন্ত্রী

  • সুখবর দিলেন মেহজাবিন

  • দই বিক্রেতা জিয়াউল হকের স্বপ্ন পূরণের ঘোষণা প্রধানমন্ত্রীর

  • ‘দক্ষতা ও যোগ্যতা না থাকলে শুধুমাত্র গ্র্যাজুয়েশন দিয়ে লাভ নেই’

  • রমজানে দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণসহ প্রধানমন্ত্রীর ১৫ নির্দেশনা

  • ভূমির অপরিকল্পিত ব্যবহার বন্ধে আইন হচ্ছে

  • বাংলাদেশে বৈশ্বিক গণমাধ্যম তৈরিতে সহযোগিতা করবে কাতার

  • ‘পুলিশ জনগণের বন্ধু, এটা প্রতিষ্ঠিত হওয়া একান্ত দরকার’

  • নারী উদ্যোক্তা তৈরির ‘উদ্যোক্তা’ ফাহমিদা নিজাম