বুধবার   ২১ ফেব্রুয়ারি ২০২৪

সর্বশেষ:
আরও ১০৮ শহীদ বুদ্ধিজীবীর তালিকা প্রকাশ সরকারি চাকরিতে লাখ লাখ পদ খালি, নিয়োগের উদ্যোগ বিশ্ব বাণিজ্য সংস্থার বৈঠক : সুবিধা পেতে সর্বোচ্চ জোর এলাকার উন্নয়নে প্রত্যেক সংসদ সদস্যরা পাবেন ২০ কোটি টাকা শিগগির চালু হবে বিরল স্থলবন্দর ১২ সিটির বর্জ্য রিসাইকেলের উদ্যোগ বিশ্ব নেতাদের নজর কেড়েছে শেখ হাসিনার ৬ প্রস্তাব
১৩৭

একক মাসে রেকর্ড ৫৭২ কোটি ডলার আয়ে প্রবৃদ্ধির ধারায় রপ্তানি

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ৫ ফেব্রুয়ারি ২০২৪  

টানা তিন মাস কমে যাওয়ার পর জানুয়ারিতে একক মাসে রেকর্ড গড়ে ইতিবাচক ধারায় ফিরেছে রপ্তানি আয়। সদ্য সমাপ্ত মাসে পণ্য রপ্তানি থেকে আয় এসেছে ৫৭২ কোটি ৪৩ লাখ ডলার, যা আগের অর্থবছরের একই সময়ের চেয়ে ১১ দশমিক ৪৫ শতাংশ বেশি।

আগের মাস ডিসেম্বরেও একক মাসে পণ্য রপ্তানি থেকে আগের যে কোনো সময়ের চেয়ে বেশি রপ্তানি আয় এসেছিল। ওই মাসে ৫৩৬ কোটি ৫১ লাখ ৯০ হাজার ডলারের পণ্য রপ্তানি হয়, যা এতদিন পর্যন্ত এক মাসের সর্বোচ্চ রপ্তানি আয়। এক মাস পর জানুয়ারিতেই তা ছাপিয়ে গেল।

তবে রোববার (৪ ফেব্রুয়ারি) রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরো (ইপিবি) প্রকাশিত হালনাগাদ তথ্য থেকে দেখা গেছে, ডিসেম্বরের মতো জানুয়ারিতেও একক মাসের লক্ষ্যমাত্রা পূরণ হয়নি। রেকর্ড আয় এলেও সবশেষ এ দুই মাসেই লক্ষ্যমাত্রার থেকে পিছিয়ে ছিল রপ্তানি। গত জানুয়ারিতে ৫৭৬ কোটি ৪০ লাখ ডলারের লক্ষ্যমাত্রা থেকে শূন্য দশমিক ৬৯ শতাংশ পিছিয়ে রয়েছে একক মাসের আয়। ডিসেম্বরে রপ্তানির অর্জন লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে ১ দশমিক ০৩ শতাংশ পিছিয়ে ছিল।

চলতি ২০২৩-২৪ অর্থবছরের সপ্তম মাস জানুয়ারিতে ২০২২-২৩ অর্থবছরের একই সময়ের চেয়ে ৫৮ কোটি ডলার বেড়ে হয়েছে ৫৭২ কোটি ৪৩ লাখ ডলার। গত অর্থবছরের জানুয়ারিতে যা ছিল ৫১৩ কোটি ৬২ লাখ ডলার, প্রবৃদ্ধি হয়েছে ১১ দশমিক ৪৫ শতাংশ।

সদ্য সমাপ্ত জানুয়ারির রেকর্ড আয়ে ভর করে সাত মাসের রপ্তানি আয়েও প্রবৃদ্ধি শূন্যের ঘর পেরিয়ে আড়াই শতাংশ ছাড়িয়েছে। চলতি অর্থবছরের জুলাই থেকে জানুয়ারি পর্যন্ত এ সময়ে ৩ হাজার ৩২৬ কোটি ৪৭ লাখ ডলারের পণ্য রপ্তানি হয়েছে। গত ২০২২-২৩ অর্থবছরের একই সময়ে যা ছিল প্রায় ৩ হাজার ২৪৫ কোটি ডলার। সেই হিসাবে সার্বিক রপ্তানিতে প্রবৃদ্ধি হয়েছে ২ দশমিক ৫২ শতাংশ, ডিসেম্বর শেষে ছয় মাসে যা ছিল শূন্য দশমিক ৮৪ শতাংশ।

তবে সাত মাসে সরকার রপ্তানির যে লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করেছিল সেটি পূরণ হয়নি। গত জুলাই থেকে জানুয়ারি সময়ে ৩ হাজার ৫৮৮ কোটি ডলার লক্ষ্যমাত্রার বিপরীতে আয় কম হয়েছে প্রায় দশমিক ৬৯ শতাংশ।

চলতি অর্থবছরে সরকার মোট ৬২ বিলিয়ন ডলারের পণ্য রপ্তানির লক্ষ্যমাত্রা ঠিক করেছে। বিদেশি মুদ্রার প্রধান এ উৎস থেকে অর্থবছরের শুরুতে আয়ে ঊর্ধ্বমুখী ধারা থাকলেও অক্টোবর থেকে ধাক্কা খায় রপ্তানি। অক্টোবর থেকে ডিসেম্বর পর্যন্ত একক মাসগুলোতে আগের বছরের একই সময়ের চেয়ে কমে যায় আয়।

বরাবরের মতো গত জানুয়ারিতে রপ্তানি আয়ের বেশির ভাগ এসেছে তৈরি পোশাক থেকে। এ সময়ে এ খাতে প্রবৃদ্ধি হয়েছে ৩ দশমিক ৪৫ শতাংশ, মোট আয় এসেছে ২ হাজার ৮৩৬ কোটি ডলারের। আগের অর্থবছরের একই সময়ে যার পরিমাণ ছিল ২ হাজার ৭৪২ কোটি ডলার। পোশাকের রপ্তানির ওপর ভর করে সার্বিক রপ্তানি ইতিবাচক ধারায় রয়েছে।

পোশাক খাতে শুধু জানুয়ারি মাসে আয় হয়েছে ৪৯৭ কোটি ডলার, যা আগে কখনও হয়নি।

এই সাত মাসে নিটওয়্যার পোশাক খাত থেকে রপ্তানি আয় ১ হাজার ৬১৭ কোটি ডলার, যা গত অর্থবছরের একই সময়ের তুলনায় ৮ দশমিক ১৫ শতাংশ বেশি।

অন্যদিকে এ সময়ে কমেছে ওভেন পোশাক রপ্তানি। এ খাত থেকে আয় এসেছে ১ হাজার ২১৮ কোটি ডলার, যা গত অর্থবছরের এই সময়ের তুলনায় ২ দশমিক ২০ শতাংশ কম।

তৈরি পোশাক রপ্তানিকারকদের সংগঠন বিজিএমইএর পরিচালক মহিউদ্দিন রুবেল বলেন, “ওভেন পোশাকে আমরা আগের মতোই স্ট্রাগল করছি। নিটে কিছুটা বেড়েছে। তবে একটা ভালো বিষয় হচ্ছে, আমরা জানুয়ারিতে প্রায় ৫ বিলিয়ন ডলার মতো আমরা রপ্তানি করেছি। যেটা আগে হয়নি।

“তবে এটা হয়েছে বিভিন্ন কারণে। বিভিন্ন দেশ তাদের ইকোনমির উন্নয়নে যে উদ্যোগ নিয়েছে, সে কারণেই জানুয়ারিতে রপ্তানি বেড়েছে।”

জানুয়ারিতে পরিস্থিতির উন্নতি হলেও এ রপ্তানিকারক মনে করছেন, বিশ্ব অর্থনীতি এখনও খুব ভালো করছে না। মোটের উপর এ বছর খুব একটা ভালো কিছু হবে না বলেই পূর্বাভাস মিলছে।

আরও পড়ুন
জাতীয় বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
  • বাংলাদেশের প্রতিরক্ষা সরঞ্জাম উৎপাদনে অংশীদার হতে আগ্রহী ভারত

  • যে কোনো সংকট মোকাবিলায় ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করার আহ্বান আইজিপির

  • বিএনপির জগাখিচুড়ি ঐক্যজোট এখন কোথায় : কাদের

  • বাংলাদেশ ও ঘানা ব্যবসা-বাণিজ্য বাড়াতে সম্মত

  • প্রথম প্রহরে ভাষা শহীদদের প্রতি রাষ্ট্রপতি-প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা

  • গৌরবের অমর একুশে আজ

  • যৌন নিপীড়নের ঘটনায় জাবি সহকারী অধ্যাপক বরখাস্ত

  • দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণে সরকারের প্রশংসনীয় উদ্যোগ

  • স্বল্পমূল্যে টিসিবির পণ্য ও টিআর কার্ডে খাদ্য সহায়তা করছে সরকার

  • মুর্শিদাবাদ-রাজশাহী নৌপথের নবযাত্রা

  • মুর্শিদাবাদ-রাজশাহী নৌপথের নবযাত্রা

  • বিসিবির নতুন দায়িত্ব পেয়ে যা বললেন হাবিবুল বাশার

  • অভিনেতা ঋতুরাজ সিং মারা গেছেন

  • উপজেলা নির্বাচন বিধিমালা ও আচরণবিধিতে আসছে পরিবর্তন

  • দুই শিশুর মৃত্যুর কারণ অনুসন্ধানে আইইডিসিআর

  • শূন্য পদে দ্রুত নিয়োগে জনপ্রশাসনের তাগিদ

  • ২১ গুণীজনকে একুশে পদক দিলেন প্রধানমন্ত্রী

  • হুথি আক্রমণে সুয়েজ খালের আয় কমেছে ৫০ শতাংশ: মিশর

  • মানুষের মল দিয়ে জ্বালানি তৈরি কেনিয়ায়

  • নাভালনির সঙ্গে নিজের যে মিল দেখতে পান ট্রাম্প

  • গাজা ইস্যুতে ইউটার্ন, যুদ্ধবিরতি চায় যুক্তরাষ্ট্র

  • ২১ আমাদের শিখিয়েছে মাথানত না করা: প্রধানমন্ত্রী

  • প্রাথমিকের দ্বিতীয় ধাপের পরীক্ষার ফল হতে পারে আজ

  • দাম কমলো সয়াবিন তেলের

  • তিউনিসিয়া উপকূলে নৌযানে অগ্নিকাণ্ড, ৮ বাংলাদেশির মৃত্যু

  • বঙ্গবন্ধু স্মৃতি জাদুঘর পরিদর্শন ঘানার পররাষ্ট্রমন্ত্রীর

  • কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে কোনো হুমকি নেই : র‍্যাব ডিজি

  • দেশের বাজারে কমতে শুরু করেছে পেঁয়াজের দাম

  • ভাষা আন্দোলনের ইতিহাস থেকে বঙ্গবন্ধুকে মুছে ফেলার চেষ্টা হয়েছিল

  • ভাষা আন্দোলন ও আমাদের বঙ্গবন্ধু

  • সংরক্ষিত নারী আসনে আ.লীগের মনোনয়ন পেলেন যারা

  • পিক আওয়ারে ৮ মিনিট পর পর মিলবে মেট্রোরেল

  • ফাগুন হাওয়ায় রঙিন ভালোবাসা

  • হাইওয়ে পুলিশ সদস্যের থাকবে ‘বডি ওর্ন ক্যামেরা’

  • গঙ্গা নিয়ে আলোচনা শুরু করল বাংলাদেশ ও ভারত

  • সংখ্যা নয় দক্ষ ও অভিজ্ঞ ডাক্তার চাই : স্বাস্থ্যমন্ত্রী

  • চার ভাবনায় বাড়ছে মন্ত্রিসভার আকার

  • দেশের মানুষ এখন গণতন্ত্র উপভোগ করছে: প্রধানমন্ত্রী

  • দেড় হাজার রোহিঙ্গা যাচ্ছেন ভাসানচর 

  • বাণিজ্যিকভাবে জ্বালানি তেল উত্তোলনের পথে বাংলাদেশ

  • এআই বিষয়ক আইন করার উদ্যোগ নিয়েছে সরকার: আইনমন্ত্রী

  • নতুন রুটের সন্ধানে বিমান

  • বাগেরহাটে তৈরি ৪০ হাজার ‘কাঠের সাইকেল’ যাচ্ছে ইউরোপে

  • ডলারে আমানত রাখলেই করমুক্তি সুবিধা

  • ‘পাচারের অর্থ উদ্ধারে ১০ দেশের সাথে আইনগত চুক্তির উদ্যোগ’

  • নতুন ব্যক্তি প্রতিষ্ঠানকে কর নেটওয়ার্কে আনার উদ্যোগ

  • স্কোয়াশ চাষে লাভবান কৃষক

  • জিআই হিসেবে অনুমোদন পেল আরো ৩ পণ্য

  • চট্টগ্রাম বন্দরে রপ্তানিমুখী কনটেইনারের জন্য বসলো স্ক্যানার

  • পাইপলাইনের ঋণ দ্রুত ছাড়িয়ে আনার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

  • ধানমন্ডি লেকে নজরুল সরোবর করা হবে : তাপস

  • ভাষা আন্দোলনের ইতিহাস থেকে বঙ্গবন্ধুকে মুছে ফেলার চেষ্টা হয়েছিল

  • সাকিবকে বাদ দিয়ে শান্তকে অধিনায়ক, মুখ খুললেন পাপন

  • গ্রামীণের ৭ প্রতিষ্ঠানের নিয়ন্ত্রণ নেওয়া হয়েছে আইন মেনেই

  • বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রীর সাথে জাপানের রাষ্ট্রদূতের সাক্ষাৎ

  • গাজায় যা হচ্ছে তা গণহত্যা : প্রধানমন্ত্রী

  • কুয়াকাটায় বিমানবন্দর নির্মাণে তোড়জোড়

  • দেশে সবুজ পোশাক কারখানা বেড়ে ২০৭

  • বিবিএসের তথ্য বলছে স্বস্তি ফিরছে খাদ্যপণ্যে

  • মুদ্রা বিনিময়ে বাংলাদেশ ব্যাংকের নতুন পদ্ধতি চালু