বুধবার   ২৮ অক্টোবর ২০২০

সর্বশেষ:
সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোর বার্ষিক ছুটি ৭৫ দিন আগামী মার্চে ঢাকা উত্তর সিটির ভোটের ইঙ্গিত সিইসির আস্থা ভোটে টিকে গেলেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় পরিদর্শনে প্রধানমন্ত্রী রাষ্ট্রপতির সঙ্গে নেপালের বিদায়ী রাষ্ট্রদূতের সাক্ষাৎ সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন করতে ইসি প্রতিজ্ঞাবদ্ধ: নূরুল হুদা বারবার আসতে পারব না, যত খুশি সাজা দিন: খালেদা জিয়া ‘আকাশবীণার’ উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী ত্রিভুবনে আবারও বিমান দুর্ঘটনা ট্রেন-বাসের সংঘর্ষে নিহত ২, আহত ২৫ ভুয়া ছবি দিয়ে অপপ্রচার চালাচ্ছে মিয়ানমার: প্রধানমন্ত্রী
১৯৭

ইসলামে কুরবানির শিক্ষা

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ২৬ জুলাই ২০২০  

বিশ্বময় মহামারি করোনার এ ভয়াবহ দিনেও মুসলিম উম্মাহ যথাযথভাবে ইসলামি নিয়মনীতি অনুসরণ করেই কুরবানির ঈদ উদযাপন করবে, ইনশাল্লাহ। পরিস্থিতি যাই হোক না কেন, যাদেরকে আল্লাহ সামর্থ্য দিয়েছেন তাদের উচিত হবে কুরবানিতে অংশ নেয়া এবং বেশি বেশি কুরবানি দিয়ে গরীবদের মাঝে তা বণ্টন করে দেয়া।

কুরআনুল কারিমে কুরবানির পটভূমি
'অতপর সেই পুত্র (ইসমাইল) যখন তার সঙ্গে দৌড়াবার বয়সে উপনীত হলো, তখন সে (ইবরাহিম) বললো, হে আমার প্রিয় পুত্র! আমি স্বপ্নে দেখছি, আমি যেন তোমাকে জবেহ করছি। অতএব তুমি চিন্তা কর, তোমার কি অভিমত? সে বলল, হে আমার পিতা! তুমি যে আদেশ পেয়েছ, তা-ই কর। আল্লাহর ইচ্ছায় তুমি আমাকে অবশ্যই ধৈর্যশীলদের মাঝে দেখতে পাবে।'
তারপর তারা যখন উভয়েই আল্লাহর সমীপে আত্মসমর্পণ করলো। আর সে তাকে জবাহ করার জন্য কপালের ওপর উপুর করে শোয়ালো।
তখন আমরা তাকে ডাক দিলাম, হে ইবরাহিম!
তুমি তোমার স্বপ্নকে অবশ্যই পূর্ণ করেছো। আমরা এরূপেই সৎকর্মশীলদের পুরস্কার দিয়ে থাকি।
নিশ্চয় এটা ছিল এক সুস্পষ্ট পরীক্ষা।' (সুরা সাফফাত : আয়াত ১০২-১০৬)


হজরত ইবরাহিম আলাইহিস সালামের কুরবানির অনুসরণে মুসলিম উম্মাহ প্রতি বছর হিজরি বছরের ১০ জিলহাজ তারিখে পশু কুরবানি করে থাকে। ইসলামে কুরবানির গুরুত্ব অতি ব্যপক। এ ব্যাপারে রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বিভিন্ন সময় উম্মতের প্রতি অনেক নসিহত পেশ করেছেন।
- রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন, ‘হে লোক সকল! জেনে রাখ, প্রত্যেক পরিবারের পক্ষে প্রত্যেক বছরই কুরবানি করা আবশ্যক।’ (আবু দাউদ ও নাসাঈ)

তাই কেউ যদি মনে করে যে, প্রতি বছরই তো কুরবানি দিয়ে যাচ্ছি এবার করোনার কারণে না দিলে কি হবে। এ চিন্তা মোটেও ঠিক নয়। কারণ কুরবানি শুধু একবারের জন্য নয় বরং তা সারা জীবনের জন্য।

কুরবানির নিয়ম
হজরত জাবের রাদিয়াল্লাহু আনহু বর্ণনা করেন রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন, ‘গরু সাতজনের পক্ষ থেকে এবং উট ৭ জনের পক্ষ থেকে কুরবানি করা যেতে পারে।’ (মুসলিম, আবু দাউদ)

কুরবানির জন্য উট, গরু, ভেড়া, ছাগল, দুম্বা থেকে যে কোনো পশু জবাই করা যেতে পারে। উট, গরু ও মহিষ সাত ব্যক্তির পক্ষ থেকে এবং ভেড়া ছাগল প্রভৃতি এক ব্যক্তির পক্ষ থেকে দিতে হয়।

এখন প্রশ্ন হল- কুরবানির পশুর বয়স নিয়ে। উট ৫ বছরের, গরু ২ বছরের, ভেড়া ছাগল প্রভৃতি এক বছর বয়সের হতে হবে। দুম্বা যদি মোটা তাজা হয় তাহলে ৬ মাসের বয়সের দুম্বাও কুরবানি করা বৈধ হবে।

যাদের সামর্থ্য আছে তারা একাই কুরবানি দিতে পারেন। যদি এমনও হয় যে, ভাগে কুরবানি দেয়ার নিয়ত ঠিকই রয়েছে কিন্তু তিনি কারো সাথে অংশ নেয়ার সুযোগ পেলেন না আর একা একটি গরু কেনারও তার সামর্থ্য নেই সে ক্ষেত্রে তিনি একটি ছাগল কিনে হলেও কুরবানি দিবেন।

কারণ আল্লাহ বান্দার হৃদয় দেখে থাকেন। কুরবানির আমল থেকে যেন কেউ বাদ না পরেন এর দিকে সবার খেয়াল রাখতে হবে।

কেমন হবে কুরবানির পশু
হজরত আলি রাদিয়াল্লাহু আনহু বলেন, রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম আমাদের নির্দেশ দিয়েছেন, ‘আমরা যেন কুরবানির পশুর চোখ, কান ভালভাবে দেখে নেই। যে পশুর কানের শেষ ভাগ কাটা গিয়েছে অথবা যার কান গোলাকার ছিদ্র করা হয়েছে বা যার কান পেছনের দিক থেকে ফেরে গিয়েছে তা দিয়ে আমরা যেন কুরবানি না করি।’ (তিরমিজি, আবু দাউদ, নাসাঈ)

তাই এ বিষয়টির ওপর খুব গুরুত্ব দিতে হবে, আমরা যে পশুটি আল্লাহর সন্তুষ্টির জন্য কুরবানি দেব তা যেন নিখুঁত হয়। কোনো ভাবেই যেন কুরবানির পশু দুর্বল ও ত্রুটিযুক্ত, লেংড়া, কান কাটা, শিং ভাঙ্গা এবং অন্ধ পশু কুরবানি করা বৈধ নয়।

জবেহ করব আল্লাহর নামে
হজরত আনাস রাদিয়াল্লাহু আনহু বলেন, ‘রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম এক ঈদে ধুসর রঙের শিংওয়ালা ২টি দুম্বা কুরবানি করলেন। তিনি সেগুলোকে নিজ হাতে জবেহ করলেন এবং জবেহ করার সময় ‘বিসমিল্লাহি ওয়াল্লাহু আকবর’ বল্লেন।’ (বুখারি ও মুসলিম)

এছাড়া কুরবানির পশু খুব ধারালো অস্ত্র দ্বারা জবেহ করা উচিত, ভোঁতা অস্ত্র দ্বারা জবেহ করে পশুকে কষ্ট দেয়া ঠিক নয়। তাই যারা কুরবানির পশু জবেহ করবেন তারা অবশ্যই মনে রাখবেন জবেহ করার অস্ত্র যেন খুব ধারলো হয়। ১০ জিলহাজ ঈদের নামাজের পর থেকে কুরবানি করা আরম্ভ হয় আর তা ১২ই জিলহাজ সূর্য ডোবার আগ পর্যন্ত দেয়া যায়।

কুরবানির প্রতিদান
হজরত যায়েদ ইবনে আরকাম রাদিয়াল্লাহু আনহু বলেন, একদিন রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের সাহাবারা জিজ্ঞাসা করলেন, হে আল্লাহর রাসুল! (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম) এ কুরবানি কি? হুজুর সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উত্তর দিলেন, তোমাদের পিতা হজরত ইবরাহিম আলাইহিস সালামের সুন্নাত।

তারা পুনরায় জিজ্ঞাসা করলেন, হে আল্লাহর রাসুল! (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম) এতে আমাদের কি পুণ্য আছে? হুজুর সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বললেন, কুরবানির পশুর প্রত্যেক লোমের জন্য একটি করে পুণ্য আছে।
তারা আবার জিজ্ঞাসা করলেন, হে আল্লাহর রাসুল! (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম) পশমওয়ালা পশুর পরিবর্তে কি হবে? অর্থাৎ এদের পশম তো অনেক বেশি। হুজুর সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বললেন, পশমওয়ালা পশুর প্রত্যেক পশমের পরিবর্তে একটি পুণ্য রয়েছে।’ (ইবনে মাজাহ)

কুরবানির চামড়া জাতীয় সম্পদ
কুরবানির চামড়া এটি জাতীয় সম্পদ। তাই কুরবানি দাতা সবার খেয়াল রাখতে হবে চামড়া যেন কোনভাবেই নষ্ট না হয়। চামড়া যাতে নিখুঁত থাকে সেজন্য চামড়া ছাড়ানোর সময় সতর্ক দৃষ্টি রাখতে হবে। যাতে তা কেটে বা ছিঁড়ে না যায়। এটিও জানা প্রয়োজন যে, কুবরানির চামড়ার বিক্রিত অর্থ গরীবদের মাঝে বিতরণ করতে হয়।

পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতা
ইসলাম পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতার প্রতি অত্যন্ত গুরুত্ব দিয়েছে। বলা হয়েছে এটি ঈমানের অংশ। ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে দেখা যায় কুরবানির সময় অনেকেই কুরবানির পশু গুলোকে রাস্তাতেই জবেহ করা হয়। যার ফলে জনগণের চলা ফেরার যেমন সমস্য হয় তেমনি রাস্তা-ঘাটও নোংরা হয়।

একটি শান্তির ধর্মের নাম হচ্ছে ইসলাম, কারো কষ্ট হোক এটা ইসলাম চায় না। রাস্তায় পশু কুরবানি করে কোনভাবেই অপরের যেন কষ্ট না হয় সে দিকে সবার দৃষ্টি থাকা জরুরি।

সর্বোপরি প্রাণঘাতী বৈশ্বিক মহামারি করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের এ সময়ে আমাদের সবাইকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে কুরবানিতে অংশ নিতে হবে। আল্লাহ তাআলা আমাদের কুরবানি গ্রহণ করুন। আমিন।

ইসলাম বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
  • আলু সিন্ডিকেটকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে ডিসিদের চিঠি

  • বিএনপি অপরাজনীতির জন্য জনবিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ছে: কাদের 

  • ২৬ টাকা দরে ২ লাখ মেট্রিকটন আমন ধান কিনবে সরকার

  • প্রতারণার মামলায় নির্মাতা দেবাশীষ কারাগারে 

  • আমরা যুদ্ধ নয়, সবার বন্ধুত্ব চাই: প্রধানমন্ত্রী

  • সৈয়দপুর বিমানবন্দর হবে আঞ্চলিক হাব

  • বাংলাদেশে কর্মপরিকল্পনায় রোহিঙ্গাদের অগ্রাধিকার অস্ট্রেলিয়ার

  • অবশেষে প্রাথমিক শিক্ষকদের জন্য সুখবর

  • পাঠ্যপুস্তকে অন্তর্ভুক্ত হচ্ছে ‘করোনা’ ও ‘ধর্ষণ’

  • প্রবাসীদের পুনর্বাসনে ৭০০ কোটি টাকার তহবিল গঠনের উদ্যোগ

  • স্বস্তিতে কৃষক, আমন থেকে আসবে দেড় কোটি টন চাল

  • ১১শ` কোটি টাকা ব্যয়ে কেনা হচ্ছে রেলের নতুন বগি ও ইঞ্জিন

  • অনলাইনেই মিলবে পোশাকের ক্রয়াদেশ

  • শিগগিরই ভারতে পর্যটক ভিসা চালু হবে

  • মিঠাপানিতে গলদা চিংড়ি চাষে স্বপনের বাজিমাত

  • ইতিহাস প্রমাণ করেছে বঙ্গবন্ধুর নাম মুছে ফেলা যায় না

  • করোনারোধে বাংলাদেশের জন্য উন্নয়ন পরিকল্পনা প্রকাশ অস্ট্রেলিয়ার

  • টুঙ্গিপাড়ায় জাতির পিতার সমাধিতে র‌্যাব ডিজির শ্রদ্ধা নিবেদন

  • ‘এক ঘণ্টার ডিসি’ হলেন ক‌লেজছাত্রী মুনা

  • মা ইলিশ সংরক্ষণে এবারে অভিযানে র‌্যাব

  • বীরশ্রেষ্ঠ হামিদুর রহমানের ৪৯তম শাহাদাতবার্ষিকী আজ

  • ডিএনসিসির সড়ক নিরাপত্তায় ৩২০ কোটি টাকার প্রকল্প

  • প্রবাসীদের বিনিয়োগ বাড়াতে বন্ড ছাড়বে সরকার

  • নিত্যপণ্যের দাম বৃদ্ধি ঠেকানোর সুপারিশ সংসদীয় কমিটির

  • মেয়াদোত্তীর্ণ পৌরসভায় যথাসময়ে নির্বাচন হবে: ইসি

  • কমেছে বাণিজ্য ঘাটতি

  • বাংলাদেশ-ভারত সম্পর্ক আরো সুদৃঢ় হবে: আইনমন্ত্রী

  • করোনাকালে এশিয়ায় বাংলাদেশের প্রবৃদ্ধি সবচেয়ে বেশি

  • একনেকে ৫ হাজার ১৮৯ কোটি টাকার তিন প্রকল্প অনুমোদন

  • আধুনিকতা ও নান্দনিকতার মিশেল ঢাকা-মাওয়া এক্সপ্রেসওয়ে

  • নিউইয়র্কের সর্বোচ্চ সম্মাননা পেলেন বিশ্বের সবচেয়ে খুদে বিজ্ঞানী

  • দক্ষিণ এশিয়ার নতুন অর্থনৈতিক নেতা বাংলাদেশ: দ্য ডিপ্লোম্যাট

  • পদ্মা সেতুর ৫ কিলোমিটারের বেশি দৃশ্যমান

  • নকিয়া বাংলাদেশে কারখানা স্থাপন করতে আগ্রহী

  • বদলে যাচ্ছে ঢাকাসহ সব বিমানবন্দরের চেহারা

  • দক্ষিণ এশিয়ার নতুন ধনী ‘বাংলাদেশ’

  • ৪০০ কুমির রপ্তানি করবে বাংলাদেশ

  • ‘তলাবিহীন ঝুড়ি’ থেকে শক্তিশালী অর্থনীতির দেশ বাংলাদেশ

  • পার্বত্য চট্টগ্রামের ২৮টি পাড়াকেন্দ্র ডিজিটাল হচ্ছে

  • টিসিবি ২৫ টাকায় আলু বিক্রি শুরু করবে বুধবার

  • দুগ্ধ খামারিদের সহায়তার লক্ষ্যে ৪ শতাংশ হারে ঋণ বিতরণ

  • ‘মাধ্যমিকে বার্ষিক পরীক্ষা ছাড়াই ওপরের ক্লাসে উন্নীত করা হবে’

  • স্থানীয় চাহিদা মিটিয়ে বিদেশে আখাউড়ার মাছ

  • ঘুরে দাঁড়াচ্ছে পর্যটন খাত

  • রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্রের চুল্লি রাশিয়া থেকে দেশে পৌঁছেছে

  • করোনার মধ্যেই ঘুরে দাঁড়িয়েছে বাংলাদেশের অধিকাংশ সূচক

  • করোনাকালে ক্ষুদ্র শিল্পকে বাঁচাতে এগিয়ে এসেছে সরকার

  • উত্তরে দৃশ্যমান মেট্রোরেল

  • জাতীয় গ্রিডে যুক্ত হচ্ছে ১০০ কোটি ঘনফুট গ্যাস

  • ‘দুই-তিন বছরে বাংলাদেশের সড়কে বৈপ্লবিক পরিবর্তন হবে’

  • বদলে যাচ্ছে পিছিয়ে পড়া অঞ্চলের শিক্ষার চিত্র

  • নারীদের দক্ষতা বাড়ানোর পরামর্শ

  • ‘২০৩০ সালের মধ্যে ছয় লেনের মেট্রোরেল নির্মাণের পরিকল্পনা সরকারের’

  • ব্যারিস্টার রফিক-উল হকের মৃত্যুতে প্রধানমন্ত্রীর শোক

  • রাজশাহীতে চালু হচ্ছে নৌবন্দর

  • অঞ্চলভিত্তিক পেঁয়াজ চাষ করবে সরকার

  • অতীতের সব রেকর্ড ভাঙল মোংলা বন্দর জেটি

  • টিকা কিনতে বিশেষ উদ্যোগ নিয়েছে বাংলাদেশ

  • এবার গারো পাহাড়ে চা চাষের উদ্যোগ

  • চার লেনের মহাসড়ক আশুগঞ্জ-আখাউড়া