শুক্রবার   ২২ অক্টোবর ২০২১

সর্বশেষ:
সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোর বার্ষিক ছুটি ৭৫ দিন আগামী মার্চে ঢাকা উত্তর সিটির ভোটের ইঙ্গিত সিইসির আস্থা ভোটে টিকে গেলেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় পরিদর্শনে প্রধানমন্ত্রী রাষ্ট্রপতির সঙ্গে নেপালের বিদায়ী রাষ্ট্রদূতের সাক্ষাৎ সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন করতে ইসি প্রতিজ্ঞাবদ্ধ: নূরুল হুদা বারবার আসতে পারব না, যত খুশি সাজা দিন: খালেদা জিয়া ‘আকাশবীণার’ উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী ত্রিভুবনে আবারও বিমান দুর্ঘটনা ট্রেন-বাসের সংঘর্ষে নিহত ২, আহত ২৫ ভুয়া ছবি দিয়ে অপপ্রচার চালাচ্ছে মিয়ানমার: প্রধানমন্ত্রী
২৮

ইসলামী অর্থনীতির বৈশিষ্ট্য ও মূলনীতি

ডেস্ক রিপোর্ট:

প্রকাশিত: ১০ অক্টোবর ২০২১  

ইসলামী অর্থনীতি বর্তমান বিশ্বের জনপ্রিয় অর্থব্যবস্থা। মুসলিম দেশ ছাড়াও বহু অমুসলিম দেশ এই ব্যবস্থাকে গ্রহণ করেছে। মুসলিম দেশের পাশাপাশি পৃথিবীর অনেক অমুসলিম দেশেও ইসলামী ব্যাংকিং চালু আছে। এ অর্থনীতি বিভিন্ন বৈশিষ্ট্য ও স্বকীয়তায় ভরা।

নিম্নে এর কিছু বিবরণ তুলে ধরা হলো—

ইসলামী অর্থনীতি কোরআন ও সুন্নাহ নির্দেশিত। পবিত্র কোরআনে ইরশাদ হয়েছে, ‘আল্লাহ ব্যবসা হালাল করেছেন ও সুদকে হারাম করেছেন।’ (সুরা : বাকারা, আয়াত : ২৭৫)

ইসলামী অর্থনীতিতে আসমান ও জমিনের সব সম্পদে সবার সমান অধিকার দেওয়া হয়েছে। মহান আল্লাহ ইরশাদ করেন, ‘তিনি তোমাদের জন্য পৃথিবীতে যা কিছু আছে সব সৃষ্টি করেছেন। অতঃপর তিনি আকাশের প্রতি মনঃসংযোগ করেন। অতঃপর সপ্ত আকাশ সুবিন্যস্ত করেন এবং তিনি সর্ব বিষয়ে মহাজ্ঞানী।’ (সুরা : বাকারা, আয়াত : ২৯)

ইসলামী অর্থনীতিতে বৈধ লেনদেন ও ইজারা ইত্যাদির মাধ্যমে উপার্জন ও রিজিক তালাশের স্বাধীনতা আছে। ইরশাদ হয়েছে, ‘হে ঈমানদারগণ! আমি তোমাদের যা উপজীবিকা স্বরূপ দান করেছি সেই পবিত্র বস্তু ভক্ষণ করো এবং আল্লাহর কাছে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করো, যদি তোমরা তাঁরই উপাসনা করে থাকো।’ (সুরা : বাকারা, আয়াত : ১৭২)

ইসলামী অর্থনীতিতে ব্যক্তিগত কল্যাণের যত্ন করা হয়। তাই প্রতিবেশীকে শুফার অধিকারসহ বিভিন্ন হক প্রদান করা হয়েছে। মহান আল্লাহ ইরশাদ করেন, ‘আত্মীয়-স্বজনকে তার প্রাপ্য দেবে এবং অভাবগ্রস্ত ও মুসাফিরকেও এবং কিছুতেই অপব্যয় কোরো না।’ (সুরা : ইসরা, আয়াত : ২৬)

ইসলামী অর্থনীতিতে ব্যক্তিগত কল্যাণের ওপর সামাজিক কল্যাণ প্রাধান্য দেওয়া। ইসলামী অর্থনীতিতে ব্যক্তিগত কল্যাণের ওপর দলের ও সমাজের কল্যাণ প্রাধান্য আছে। তবে তা হতে হবে ন্যায় ও নীতির ভিত্তিতে। তাই জনসাধারণ চলাচলের জন্য রাস্তার জমিও ছাড় দিতে হয় এবং মানুষের চাহিদা মেটানোর প্রয়োজনে গুদামজাতকে নিষিদ্ধ করা হয়েছে। ইমাম আহমদ বর্ণনা করেন, ‘ইবনে ওমর (রা.) থেকে বর্ণিত, নবী করিম (সা.) ইরশাদ করেন, ‘যে ব্যক্তি ৪০ দিন যাবৎ খাবার গুদামজাত করবে সে আল্লাহর জিম্মা থেকে পবিত্র। আল্লাহও তার জিম্মাদারি থেকে মুক্ত।’ তেমনি যে মহল্লাবাসীর মধ্যে ক্ষুধার্ত ব্যক্তি থাকবে তারা আল্লাহর জিম্মা থেকে মুক্ত।’ (মুসনাদ আহমদ, হাদিস : ৪৮৮০)

ইসলামী অর্থনীতিতে সব ক্ষেত্রে সুদ হারাম করা হয়েছে। মহান আল্লাহ ইরশাদ করেন, ‘হে মুমিনরা! তোমরা আল্লাহকে ভয় করো এবং সুদের বকেয়া যা আছে তা ছেড়ে দাও—যদি তোমরা মুমিন হও।’ (সুরা : বাকারা, আয়াত : ২৭৯)

ইসলামী অর্থনীতিতে সর্বনিম্ন জীবিকার দায়িত্ব নেওয়া হয়েছে। ইসলামে প্রত্যেকের সর্বনিম্ন জীবিকার ব্যবস্থা করা হয়েছে। তাই কেউ অক্ষম হলে তার দায়িত্ব ছেলে বা মা-বাবা বা স্বামী বা আত্মীয়-স্বজনকে গ্রহণ করতে হয়। মহান আল্লাহ ইরশাদ করেন, ‘ধনীদের ধন-সম্পদে আছে অভাবগ্রস্ত ও বঞ্চিতদের হক।’ (সুরা : জারিয়াত, আয়াত : ১৯)

ইসলামী অর্থনীতি সৎ চরিত্র দ্বারা বেষ্টিত। তাই একে অন্যকে ধোঁকা, প্রতারণা ও ক্ষতিসাধনের অনুমতি নেই। ইমাম মুসলিম বর্ণনা করেন, আবু হুরায়রা (রা.) থেকে বর্ণিত, রাসুল (সা.) ইরশাদ করেন, ‘যে ব্যক্তি আমাদের ওপর হাতিয়ার উঠাবে সে আমার দলের নয়। আর যে প্রতারণা করবে সে আমার দলের নয়।’ (মুসলিম, হাদিস : ১০১)

ইসলামী অর্থনীতিতে অপব্যয় বৈধ নয়। মহান আল্লাহ ইরশাদ করেন, ‘...অপব্যয় ও অমিতচার করবে না। কেননা আল্লাহ অপব্যয়কারীদের ভালোবাসেন না।’    (সুরা : আরাফ, আয়াত : ৩১)

করজে হাসানা ইসলামে স্বীকৃত বিষয়। মহান আল্লাহ ইরশাদ করেন, ‘কে আছ যে আল্লাহকে উত্তমভাবে ঋণদান করবে? অনন্তর তিনি তাকে দ্বিগুণ বহুগুণ বর্ধিত করেন এবং আল্লাহ সংকুুচিত বা সচ্ছল করে থাকেন এবং তাঁর দিকে তোমাদের প্রত্যাবর্তন করতে হবে।’ (সুরা : বাকারা, আয়াত : ২৪৫)

ইসলামী অর্থনীতির উৎস হলো কোরআন, সুন্নাহ, আহকামে ফিকহিয়্যা ও শরয়ি মূলনীতি। (আল ইকতিসাদুল ইসলামী, ওজারাতুল আওকাফ আস সাউদিয়্যা, পৃষ্ঠা ৪)

ইসলামী অর্থনীতির স্তম্ভ তিনটি। এক. ব্যক্তিগত ও সমষ্টিগত মালিকানার স্বীকৃতি। দুই. ইসলামী শরিয়াহর আলোকে অর্থনৈতিক স্বাধীনতা। তিন. ভারসাম্যতার মাধ্যমে সামাজিক ইনসাফ। (দারুল ইফতা মিসরিয়্যা, ফতাওয়া দারিল ইফতা মিসরিয়্যা, খণ্ড ১০, পৃষ্ঠা ৩০৮)

ইসলামী অর্থনীতিতে রাষ্ট্রীয় মালিকানা স্বীকৃত। যেমন—মালে গনিমত, খুমুস, ফাই ইত্যাদি।

ইসলামী অর্থনীতিতে প্রতিযোগিতামূলক স্বাধীনতা আছে। ফলে পণ্য বিক্রির ক্ষেত্রে মূল্য নির্ধারণ সরকারিভাবে নিষিদ্ধ করা হয়েছে। (মুনাজ্জামাতুল মুতামারুল ইসলামী, মাজাল্লাতুল ফিকহিল ইসলামী, খণ্ড ৯, পৃষ্ঠা ৮২০)

সারকথা হলো, ইসলামী অর্থনীতির সঙ্গে বিশ্বাস ও শরিয়তের বিধানের সম্পর্ক আছে। তবে ইসলামে ব্যক্তিমালিকানা স্বীকৃত এবং নির্দিষ্ট সীমারেখায় স্বাধীনতা দেওয়া হয়েছে। ফলে ইসলামী অর্থনীতিতে কিছু মূলনীতি খেয়াল করতে হয়।

ইসলাম বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
  • পুলিশের সহায়তায় হারিয়ে যাওয়া শিশুটি ফিরলো পরিবারে

  • বীর মুক্তিযোদ্ধাদের চিকিৎসা: বারডেমের সঙ্গে এমওইউ নবায়ন

  • জয়পুরহাটকে বাল্যবিয়ে মুক্ত করতে চায় ‘এক ঘণ্টার এসপি’ মাহিরা

  • শাহজালাল বিমানবন্দরের রাডার ক্রয়ে চুক্তি স্বাক্ষর

  • ওয়াকওয়ে হবে ঢাকার সব খালের পাড়ে

  • প্রতিটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে হবে শেখ রাসেল বুক কর্নার

  • ৪২৮ কোটি টাকায় পুলিশের জন্য কেনা হচ্ছে ২টি অত্যাধুনিক হেলিকপ্টার

  • মাগুরায় রোপা আমনের ব্যাপক ফলন

  • বিনা-১৭ ধানে কৃষকের হাসি

  • স্বাস্থ্য খাতে শিগগিরই পৌনে ৫ লাখ নিয়োগ

  • বজ্রপাতে মৃত্যু ঠেকাতে ৪৭৬ কোটি টাকার প্রকল্প হচ্ছে

  • দেশে এলো সিনোফার্মের আরও ৫৫ লাখ ডোজ টিকা

  • ‘এশিয়ার উইমেন অ্যাওয়ার্ড’ পেলেন সামিটের শারমিন জামান

  • এক যুগে বদলে গেছে বাংলাদেশ

  • ‘কুমিল্লার ঘটনার মূলহোতাকে ইন্ধনদাতারা লুকিয়ে রাখতে পারে’

  • অন্য ধর্মকে হেয় করতে কোরআন অবমাননা করা হয়েছে

  • পদ্মা ও মেঘনা নামে দুটি বিভাগ হবে: প্রধানমন্ত্রী

  • কুমিল্লার ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্তদের ঘরবাড়ি করে দেবে সরকার

  • বিশ্বকাপে সর্বোচ্চ উইকেটের বিশ্বরেকর্ড সাকিবের

  • রেকর্ডগড়া জয়ে সুপার টুয়েলভে বাংলাদেশ

  • মালয়েশিয়ায় ১৭২ বাংলাদেশি আটক

  • শিশুদের দাঁতে যেসব সমস্যা দেখা দেয়, কী করবেন?  

  • যে কারণে নাম পরিবর্তন চায় ফেসবুক

  • ইমিউনিটি বাড়াতে খান আমলা জুস

  • দেড় বছর পর
    বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ে সশরীরে ক্লাস

  • `মাস্ট উইন` ম্যাচে ব্যাটিংয়ে বাংলাদেশ

  • সৌরভের বায়োপিকে দাদার চরিত্রে অভিনয় করবেন কে?

  • ডিআইজি হয়ে পুলিশ কর্মকর্তাদের নিয়ে বৈঠক করলেন আফসানা

  • বিদায়বেলায় সুসজ্জিত গাড়িতে বাড়ি গেলেন কনস্টেবল দলিলুর

  • কনস্টেবল নিয়োগ: যোগ্য প্রার্থীদের ক্ষেত্রে সদরদপ্তরের নির্দেশনা

  • চলতি মাসেই পায়রা সেতু উদ্বোধন

  • ১০ মেগাপ্রকল্পে রূপ পাচ্ছে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা

  • দুষ্কৃতকারী যে ধর্মেরই হোক, কঠোর ব্যবস্থা: র‍্যাব প্রধান

  • ইসলামে সব ধর্মের স্বাধীনতার কথা বলা হয়েছে: প্রধানমন্ত্রী

  • ফাতেমা জাতের ধানে বিঘায় ফলন ৫০ মণ

  • প্রতি ইঞ্চি জমিতে আবাদ করুন, খাদ্য অপচয় কমান: প্রধানমন্ত্রী

  • ইউরোপের তিন দেশে যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী

  • আত্মবিশ্বাস-আত্মমর্যাদা নিয়ে গড়ে উঠুক শিশুরা: প্রধানমন্ত্রী

  • ‌‘গ্যাস বেচতে রাজি না হওয়ায় ২০০১ সালে ক্ষমতায় আসতে পারিনি’

  • করোনাকালে ১৬০০ ভার্চুয়াল সভায় অংশ নিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী

  • বৈশ্বিক আইনের শাসনে এগিয়েছে বাংলাদেশ

  • দিনে ৪০ হাজার শিক্ষার্থীকে টিকা দেয়া হবে

  • আগামী বুধবার বন্ধ থাকবে সব ব্যাংক

  • জনগণকে হাসিমুখে সেবা দিতে হবে: জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী

  • ১০০৭ ইউপিতে ২৮ নভেম্বর ভোট

  • কাঠমিস্ত্রি মোস্তাকিম রাবি ভর্তি পরীক্ষায় প্রথম

  • যাত্রাবাড়ী-ডেমরা মহাসড়ক
    ২০২২ সালে শেষ হবে চারলেনের কাজ

  • কুমিল্লার পূজামণ্ডপের ঘটনা নিয়ে অপপ্রচার, যুবক গ্রেফতার

  • ‘প্রথম পদ্মাসেতুর উদ্বোধনের পরই দ্বিতীয় পদ্মাসেতু নির্মাণ শুরু’

  • ২০৩০ সালের মধ্যে উন্নত নাগরিক সেবা নিশ্চিত করা যাবে: মেয়র তাপস

  • ৬০০ কোটিতে ৩২০ কোরিয়ান এসি বাস কিনবে সরকার

  • বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস প্রদর্শন হবে ট্রেনে

  • স্কুলশিক্ষার্থীদের গণটিকা শুরু ৩০ অক্টোবর

  • বদলে যাচ্ছে মোংলা বন্দর, গতি ফিরছে বাণিজ্যে

  • আজ থেকে স্কুলশিক্ষার্থীদের পরীক্ষামূলক টিকাদান

  • ব্রেন টিউমারের লক্ষণ ও চিকিৎসা

  • দুর্গম চরে বিদ্যুতের আলোতে ৪০ হাজার পরিবারের মুখে নির্মল হাসি

  • সরকারের উদ্যোগের ফলে ২০০ বছর পর নদীতে ভাসছে নৌকা, এসেছে মাছ

  • আমরা নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তা দিয়ে যাচ্ছি: ডিএমপি কমিশনার

  • চায়ের রাজ্যে ট্যুরিস্ট বাস