বৃহস্পতিবার   ২৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৪

সর্বশেষ:
আরও ১০৮ শহীদ বুদ্ধিজীবীর তালিকা প্রকাশ সরকারি চাকরিতে লাখ লাখ পদ খালি, নিয়োগের উদ্যোগ বিশ্ব বাণিজ্য সংস্থার বৈঠক : সুবিধা পেতে সর্বোচ্চ জোর এলাকার উন্নয়নে প্রত্যেক সংসদ সদস্যরা পাবেন ২০ কোটি টাকা শিগগির চালু হবে বিরল স্থলবন্দর ১২ সিটির বর্জ্য রিসাইকেলের উদ্যোগ বিশ্ব নেতাদের নজর কেড়েছে শেখ হাসিনার ৬ প্রস্তাব
২২৮

অবশেষে পরিবার খুঁজে পেলেন সৌদিফেরত সেই বৃদ্ধ

ডেস্ক রিপোর্ট

প্রকাশিত: ১৮ জানুয়ারি ২০২৩  

এ যেন নাটক-সিনেমার কোনো দৃশ্য! দীর্ঘ ২৫ বছর পর বাবার সঙ্গে সন্তানদের দেখা। দেশে ফেরার পর যে মানুষটি পরিবারই খুঁজে পাচ্ছিলেন না, অবশেষে চট্টগ্রামের হালিশহর এলাকায় তার পরিবারের সন্ধান মিলল। চট্টগ্রাম থেকে বুধবার তারা ঢাকায় এসে পৌঁছেন। এরপর বিকেলে আবুল কাশেম নামের ওই বৃদ্ধকে তাঁর পুত্র, কন্যাসহ পরিবারের সদস্যদের কাছে হস্তান্তর করেন ব্র্যাকের মাইগ্রেশন কর্মসূচি প্রধান শরিফুল হাসান। বিকেলে তাঁরা চট্টগ্রামের উদ্দেশে রওনা হন।

এ সময় এয়ারপোর্ট আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়নের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জিয়াউল হক, হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের নিরাপত্তা ব্যবস্থাপক স্কোয়াড্রন লিডার মো. রাসেল তালুকদার, সহকারী পুলিশ সুপার আব্দুল হান্নান রনি এবং হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের প্রবাসী কল্যাণ ডেস্কের সহকারী পরিচালক ফখরুল আলম উপস্থিত ছিলেন।

গত শুক্রবার দিবাগত রাতে সৌদি আরব থেকে ঢাকার শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে নেমেছিলেন এই বৃদ্ধ। কিন্তু তিনি নিজের ঠিকানা বলতে পারছিলেন না। তাঁর কাছে পাসপোর্টও ছিল না। অনেক কিছু ভুলে গিয়েছেন। এরপর বিমানবন্দরের পুলিশ তাকে বেসরকারি সংস্থা ব্র্যাকের মাইগ্রেশন ওয়েলফেয়ার সেন্টারে পাঠায়। তাঁর খোঁজ পেতে ব্র্যাকের কর্মীরা চট্টগ্রামের বিভিন্ন এলাকায় খোঁজখবর শুরু করেন। গণমাধ্যমেও বিষয়টি জানানো হয়। এরপর চট্টগ্রামের ২৫ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর ও প্যানেল মেয়রের সহায়তায় তাঁর পরিবারের সন্ধান মেলে।

হস্তান্তরের আগে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে ঘটনার বিস্তারিত জানিয়ে ব্র্যাক মাইগ্রেশন প্রগ্রামের কর্মসূচি প্রধান শরিফুল হাসান জানান, বিমানবন্দরের প্রবাসী কল্যাণ ডেস্ক, এয়ারপোর্ট আর্মড পুলিশসহ সবার সহযোগিতায় বিদেশফেরতদের জন্য আমরা নানা ধরনের সেবামূলক কার্যক্রম পরিচালনা করে থাকি। এরই অংশ হিসেবে বিমানবন্দরের এভিয়েশন সিকিউরিটি ও মাইগ্রেশন পুলিশ শনিবার বিকেলে ওই বৃদ্ধকে তাঁর পরিবারের কাছে ফিরিয়ে দেওয়ার জন্য আমাদের কাছে দেন। ইমিগ্রেশন পুলিশের তথ্য অনুযায়ী এই বৃদ্ধ সম্ভবত শুক্রবার দিবাগত রাতে জেদ্দা থেকে শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে নেমেছেন। তাঁর কাছে কোনো পাসপোর্ট ছিল না। তিনি ট্র্যাভেল পাস নিয়ে এসেছেন।

শরিফুল হাসান জানান, শারীরিকভাবে সুস্থ মনে হলেও সম্ভবত তিনি ডিমেনশিয়া বা স্মৃতিভ্রংশ রোগে আক্রান্ত। এ কারণেই তিনি সঠিকভাবে তাঁর ঠিকানা বলতে পারছেন না। তিনি জানাচ্ছেন, তাঁর নাম আবুল কাশেম। পিতার নাম ফজেল আহমেদ। মাতা সাবানা। স্ত্রীর নাম বলছেন আমেনা। নিজের ঠিকানা তিনি কখনো বলছেন চট্টগ্রামের নয়াবাজার। কখনো বলছেন টেকনাফ। আবার কখনো রাউজানের পাহাড়তলী ইউনিয়নের গরিশংকরহাটের কথাও বলছেন। আবার বলছেন, চট্টগ্রামের নতুন বাজার হালিশহরের কাছে, ঈদগাহের মাঠ বউবাজার এলাকায় তাঁর ছেলের তরকারির দোকান আছে। আমরা তাঁর বাড়ি কোথায় নিশ্চিত হতে না পারলেও ভাষা শুনে এটুকু বুঝতে পেরেছিলাম তার বাড়ি চট্টগ্রাম অঞ্চলে।

আবুল কাশেম দাবি করছিলেন, তাঁর ছয় মেয়ে ও তিন ছেলে রয়েছে। তার তিন ছেলের নাম মান্নান, নূর হাসান, এনামুল হাসান। এর মধ্যে নূর হাসানের তরকারির দোকান আছে। ছোট ছেলে এনামুল হাসান দুবাই থাকেন। মান্নান সৌদি থাকেন বলে দাবি তাঁর। ৮-১০ জন নাতি-নাতনি আছে। কিন্তু যেহেতু দীর্ঘ ২৫ বছর দেশে নেই, সঠিকভাবে সব বলতে পারছিলেন না। তবে তিনি চট্টগ্রামের ভাষায় কথা বলছিলেন, কাজেই আমরা চট্টগ্রামের পুলিশসহ নানা সংস্থার সঙ্গে যোগাযোগ করি। আমরা তাঁর পরিবারের সন্ধানে গণমাধ্যমকর্মীদের সহায়তা চাই। অনেকেই তাঁর বিষয়ে সংবাদ প্রকাশ করেন। এরপরও আমরা পরিবারের সন্ধান পাচ্ছিলাম না।

শরিফুল হাসান জানান, তিনি যখন যেসব এলাকার কথা বলছিলেন আমাদের চট্টগ্রামের ব্র্যাক মাইগ্রেশন প্রগ্রামের কর্মীরা সেসব এলাকায় গিয়ে খোঁজ নিচ্ছিলেন। ওই বৃদ্ধ বলছিলেন, চট্টগ্রামের নয়াবাজার এলাকায় তাঁর ছেলে তরকারি বিক্রি করে। সেই কথার ওপর ভিত্তি করে আমাদের চট্টগ্রাম টিম ‘পরিবারের সন্ধান চাই’ শিরোনামে ছবিসহ শত শত পোস্টার বিলি করে। চট্টগ্রাম শহরের হালিশহর, নয়াবাজার, বউবাজার, ঈদগাহ, পাহাড়তলীসহ আরো বেশ কয়েকটি স্থানে দেয়ালে দেয়ালে আমরা পোস্টার লাগাই। আমরা বিশ্বাস রেখেছিলাম, গণমাধ্যমকর্মীসহ সবার সহযোগিতায় আমরা তাঁর পরিবারকে খুঁজে বের করতে সক্ষম হব।

শরিফুল হাসান জানান, এসব পোস্টার দেয়ালে লাগানো ও বিতরণ করার পর মঙ্গলবার বিকেলে চট্টগ্রামের আমাদের কর্মকর্তাদের সঙ্গে ২৫ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর ও প্যানেল মেয়র আব্দুস সবুর লিটন যোগাযোগ করেন। তিনি জানান, পোস্টারের ছবির লোকটিকে তিনি চিনতে পেরেছেন। এরপর আমাদের লোকজন তাঁর অফিসে যায়। তাঁর সহযোগিতায় আমরা তাঁর ছেলে সবজি ব্যবসায়ী নূর হাসানের খোঁজ পাই। পরবর্তী সময়ে কাউন্সিলর অফিসে তাকে এনে কথা বলে জানতে পারি, আবুল কাশেম তাঁর বাবা। তাঁর জাতীয় পরিচয়পত্র দেখেও আমরা বিষয়টি নিশ্চিত হয়েছি। নূর হাসানের কাছ থেকে আমরা পরিবারের বাকি সদস্যদের সঙ্গেও কথা বলি। দুবাইতে থাকা তাঁর এক ছেলের সঙ্গেও কথা বলি। এরপর বৃদ্ধ আবুল কাশেমের ছোট মেয়ে রুমা বেগম ও তার স্ত্রী আমেনা বেগমের সঙ্গে ঢাকা থেকে ভিডিও কলে কথা বলিয়ে দিই। এরপরই আমাদের লোকজনের সঙ্গে পরিবারের সদস্যরা তাকে নিতে ঢাকায় রওনা হন।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন বিদেশফেরত আবুল কাশেমের বড় ছেলে নূর হাসান। তিনি তার বাবাকে ফিরে পেয়ে কান্নাজড়িত কণ্ঠে বলেন, ব্র্যাকসহ আপনাদের সবার কাছে কৃতজ্ঞ।

অনেক দিন ধরে বাবার সঙ্গে আমাদের যোগাযোগ ছিল না। আমরা জানতাম না তিনি সৌদি আরবের কোথায় আছেন। তিনি যে দেশে এসেছেন সেটাও আমরা জানতাম না। পোস্টার দেখে ও স্থানীয় কাউন্সিলরের মাধ্যমে ব্র্যাকের সঙ্গে আমাদের যোগাযোগ হয়। আমরা তার পরিবারের সদস্য হয়েও যা করতে পারিনি ব্র্যাক আমার বাবার জন্য তার চেয়ে বেশি কিছু করেছে।

সংবাদ সম্মেলনে অনুভূতি ব্যক্ত করতে গিয়ে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জিয়াউল হক বলেন, বাবা-সন্তানের দেখা হওয়ার যে দৃশ্য এটি ভাষায় প্রকাশ করা কঠিন। আমরা অনেক দিন ধরে ব্র্যাক মাইগ্রেশন প্রগ্রামের সঙ্গে কাজ করছি। এই প্রবাসীকেও আমরা মানসিক ভারসাম্যহীন অবস্থায় ব্র্যাকের কাছে দিয়েছিলাম।

স্কোয়াড্রন লিডার রাসেল তালুকদার বলেন, ২৫ বছর পর নিজ দেশে ফেরত এসেছেন এমন একজন অভিবাসীকে পরিবারের কাছে ফিরিয়ে দেওয়া হলো। এমন ঘটনা আমরা সব সময় সিনেমায়ই দেখি, বাস্তবে এই প্রথম আমি ঘটনার সাক্ষী হলাম। 

দীর্ঘদিন পর পরিবারকে পেয়ে আবুল কাশেম তার সন্তানদের বারবার জড়িয়ে ধরছিলেন। তাকে নিতে আসা কন্যা পারভীন আক্তার বলেন, আমার বাবা যখন ২৫ বছর আগে সৌদি আরবে যান, অমার ছোট বোন রুমা তখন মায়ের পেটে। বাবার সঙ্গে আমাদের স্মৃতি খুব কম। আমরা এখন বাবাকে ফেরত পেলাম। আমাদের অনুভূতি ভাষায় প্রকাশ করা কঠিন।

আরও পড়ুন
জাতীয় বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
  • সৌদিতে একদিনে ৭ জনের শিরশ্ছেদ

  • মহাসড়কে পড়ে ছিল আওয়ামী লীগ নেতার রক্তাক্ত মরদেহ

  • কোনো কেন্দ্রে অনিয়ম হলে ওই কেন্দ্রের ভোটগ্রহণ বন্ধ : ইসি আলমগীর

  • বাইডেন নয়, প্রার্থী হিসেবে মিশেল ওবামাকে চান বেশিরভাগ ডেমোক্রেট

  • পুলিশের হাতে মাদক দেখলেই চাকরি থাকবে না : আইজিপি

  • রমজানে সরকারি অফিস ৯টা থেকে সাড়ে ৩টা

  • রমজানে দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণে পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে : প্রধানমন্ত্রী

  • শপথ নিলেন আওয়ামী লীগের সংরক্ষিত আসনের সংসদ সদস্যরা

  • সাধারণ মানুষ এখনো থানায় যেতে ভয় পায় : রাষ্ট্রপতি

  • একটি গোষ্ঠী নারীসমাজকে বিপথে নিতে চায় : নানক

  • ‘নির্বাচনের পর ষড়যন্ত্রকারীদের মুখ ফ্যাকাসে হয়ে গেছে’

  • ‘নিত্যপণ্যের দাম নিয়ে গুজবে কান দেবেন না’

  • ‘দক্ষিণ সিটিতে ২২১ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে হবে নতুন ভবন’

  • সরকারিভাবে বড় ইফতার পার্টি না করার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

  • ‘মজুতের বিধান সংশোধনে বাজারে ধানের সরবরাহ স্বাভাবিক রয়েছে’

  • ডেপুটি গভর্নর হচ্ছেন খুরশীদ আলম ও হাবিবুর রহমান

  • এবার আইজিপি ব্যাজ পেলেন ৪৮৮ পুলিশ সদস্য

  • পাঁচ দফা দাবিতে সিলেটে পরিবহন ধর্মঘট

  • স্বস্তি দেওয়ার মানসিকতা থেকে কাজ করতে হবে : ভূমিমন্ত্রী

  • সরকারিভাবে বড় ইফতার পার্টি আয়োজন না করার নির্দেশ

  • ‘রমজানে নতুন অফিস সময়সূচি নির্ধারণ করেছে সরকার’

  • জিমেইলের বিকল্প এক্সমেইল আনছে ইলন মাস্ক

  • জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে স্নাতকে ভর্তির আবেদন শেষ হচ্ছে আজ

  • মডেল মৌকে আত্মসমর্পণের নির্দেশ হাইকোর্টের

  • জাতিসংঘে দেওয়া প্রধানমন্ত্রীর ভাষণের বইয়ের মোড়ক উন্মোচন

  • ‘ন্যায্য লাভ’ করার অনুরোধ এফবিসিসিআই সভাপতির

  • ‘২২১টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে নতুন ভবন নির্মাণ করা হবে’

  • পুলিশ সদস্যদের মাদক সংশ্লিষ্টতার বিষয়ে কঠোর হুঁশিয়ারি আইজিপির

  • জনগণের সেবা করুন, সন্ত্রাস দমন করুন : প্রধানমন্ত্রী

  • ‘গভীর সমুদ্র থেকে গ্যাস উত্তোলন করবে সরকার’

  • গৌরবের অমর একুশে আজ

  • জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলায় পর্যাপ্ত অর্থ দেবে জাতিসংঘ

  • ভারত সীমান্তে চালু হচ্ছে আরেকটি স্থলবন্দর

  • ইরানে কুরআন প্রতিযোগিতায় চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশি কিশোর

  • ‘হঠাৎ টাকা হয়ে গেলে মানুষ ভাবে ইংরেজিতে কথা বলা স্মার্টনেস’

  • একটা বিজাতীয় ভাষা আমাদের ওপর চাপিয়ে দেওয়ার চেষ্টা হয়

  • ‘বাংলাকে জাতিসংঘের দাপ্তরিক ভাষা করাই এখন লক্ষ্য’

  • প্রথম প্রহরে ভাষা শহীদদের প্রতি রাষ্ট্রপতি-প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা

  • ‘রমজান মাসে দ্রব্যমূল্য সহনীয় পর্যায়ে রাখতে পদক্ষেপ নেবে সরকার’

  • দুই সপ্তাহে রিজার্ভ আবারো ২০ বিলিয়ন ডলার ছাড়াল

  • এপ্রিলেই শেষ হবে শাহজালাল বিমানবন্দরের তৃতীয় টার্মিনাল কাজ

  • বাংলাদেশ ও ঘানা ব্যবসা-বাণিজ্য বাড়াতে সম্মত

  • শেখ হাসিনার ইউরোপ জয়

  • চালের বস্তায় যেসব তথ্য দেওয়া বাধ্যতামূলক করল সরকার 

  • বেসরকারি হাসপাতাল-ক্লিনিককে মানতে হবে ১০ নির্দেশনা

  • ২৬৩ জন সাংবাদিকের জন্য ২ কোটি ৩ লাখ টাকা অনুমোদন

  • ‘এক সময় একবেলা খাওয়ার আশা করতো, এখন মানুষ ৪ বেলা খায়’

  • রাজধানীতে ৬ কোটি টাকার খাস জমি উদ্ধার

  • ভারত সীমান্তে চালু হচ্ছে আরেকটি স্থলবন্দর

  • রিজার্ভ ফের ছাড়াল ২০ বিলিয়ন ডলার

  • যাদের পুনর্বাসন করে দিয়েছি, খোঁজখবর নিয়েন : প্রধানমন্ত্রী

  • মাতৃভাষার পাশাপাশি অন্য ভাষাও শিখতে হবে: প্রধানমন্ত্রী

  • সুখবর দিলেন মেহজাবিন

  • দই বিক্রেতা জিয়াউল হকের স্বপ্ন পূরণের ঘোষণা প্রধানমন্ত্রীর

  • ‘দক্ষতা ও যোগ্যতা না থাকলে শুধুমাত্র গ্র্যাজুয়েশন দিয়ে লাভ নেই’

  • রমজানে দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণসহ প্রধানমন্ত্রীর ১৫ নির্দেশনা

  • ভূমির অপরিকল্পিত ব্যবহার বন্ধে আইন হচ্ছে

  • বাংলাদেশে বৈশ্বিক গণমাধ্যম তৈরিতে সহযোগিতা করবে কাতার

  • ‘পুলিশ জনগণের বন্ধু, এটা প্রতিষ্ঠিত হওয়া একান্ত দরকার’

  • নারী উদ্যোক্তা তৈরির ‘উদ্যোক্তা’ ফাহমিদা নিজাম